কল্যাণ কামনার মধ্যদিয়ে শেষ হলো রংপুর অঞ্চলের ইজতেমা

কল্যাণ কামনার মধ্যদিয়ে শেষ হলো রংপুর অঞ্চলের ইজতেমা

রংপুর প্রতিনিধি: আখেরি মোনাজাতে আল্লাহ তায়ালার সন্তুষ্টি, দেশ ও মুসলিম উম্মাহর শান্তি সমৃদ্ধি এবং কল্যাণ কামনার মধ্যদিয়ে শেষ হলো রংপুর অঞ্চলের ইজতেমা।  গতকাল শনিবার রংপুর-ঢাকা মহাসড়কের পাশে  দমদমা এলাকার পায়রাবন্দে তিন দিনব্যাপী ইজতেমার আখেরি মোনাজাত সম্পন্ন হয়। আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন কাকরাইল জামেমসজিদের পেশ ইমাম মওলানা মুহাম্মদ আশরাফুল ইসলাম। তিনি দুপুর ১১টা ৪৫ মিনিটে মোনাজাত শুরু করেন।  শেষ হয় ১২টা ৫ মিনিটে। এর আগে অনুষ্ঠিত হয় হেদায়েতি বয়ান। বয়ান পেশ করেন মওলানা  ওবাদুল ইসলাম।

আখেরি মোনাজাতে রংপুরসহ এরআশপাশের এলাকার প্রায় ৪ লাখ মুসল্লি দুই হাত তুলে আল্লাহর দরবারে সৎ ও ন্যায়ের পথে থেকে ইসলামের মর্মবাণী অনুসরণের জন্য আল্লার কাছে প্রার্থনা করেন।আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে ভোর থেকেই মুসল্লিরা বাস, ট্রাক, কাভার্ডভ্যানে করে রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকে ইজতেমাস্থলের জড়ো হতে শুরু করেন। আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে ইজতেমার মূল মঞ্চ থেকে আশপাশের সব এলাকায় মুসল্লিদের আগমনে পরিপূর্ণ হয়ে ওঠে। নগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডসহ বিভিন্ন উপজেলার ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা প্রধানসড়কসহ ইজতেমা ময়দান ও আশপাশের বাসাবাড়িতে অবস্থান নেন।

আখেরি মোনাজাতে মুসল্লিদের আসা ও যাওয়া নিরাপদ করতে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে ছিল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।
ইজতেমা আয়োজক কমিটির সদস্য আলী আকবর জানান, বিশ্ব ইজতেমার ওপর চাপ কমাতে জেলা ভিত্তিক আঞ্চলিক ইজতেমা রংপুরে পঞ্চমবারের মতো অনুষ্ঠিত হলো। বৃহস্পতিবার ফজর নামাজের পর বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় ইজতেমার কার্যক্রম। ইজতেমায় বয়ান করতে ভারত, সৌদি আরব, পাকিস্থান, চীন, মরক্কো ও রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে তাবলিগের মুরব্বিরা আসেন ।