কমিউনিটি ক্লিনিকে আগুন দিলো দুর্বৃত্তরা

কমিউনিটি ক্লিনিকে আগুন দিলো দুর্বৃত্তরা

নওগাঁ সদর উপজেলার তিলকপুর ইউনিয়নের ধোপাইকুড়ী কমিউনিটি ক্লিনিকে আগুন দিয়ে ওষুধ, আসবাবপত্র ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বত্তরা। শুক্রবার রাত ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় প্রায় দুই লাখ টাকার মতো ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্লিনিকের কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) মেহেদী হাসান।

কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে গ্রামের হতদরিদ্ররা সেবা নিয়ে থাকেন। কী কারণে কারা আগুন লাগিয়ে সরকারি সম্পদ বিনষ্ট করেছে তা খতিয়ে দেখে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।


সিএইচসিপি মেহেদী হাসান বলেন, বৃহস্পতিবার অফিস বন্ধ করে বাড়িতে যাই। শুক্রবার রাত ১টা ৫০ মিনিটে ক্লিনিকের পাশের বাড়ির বজলুর রশিদ আমাকে ফোন করে বলেন ক্লিনিকে আগুন লেগেছে। তখন বাবাকে সঙ্গে নিয়ে ক্লিনিকে এসে দেখি তালা ভেঙে ভেতরে ঢুকে দুর্বত্তরা আগুন লাগিয়ে দিয়েছে। স্থানীয়রা আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। পরে নওগাঁ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে ক্লিনিকের দুটি আলমারিতে থাকা বিভিন্ন ওষুধপত্র, চারটি টেবিল, ১২টি চেয়ার ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পুড়ে যায়। আগুনে প্রায় দুই লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। তবে কী কারণে দুর্বত্তরা আগুন দিয়েছে তা জানেন না তিনি
 
নওগাঁর সিভিল সার্জন ডা. মুমিনুল হক বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। এ ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ করা হবে। এছাড়া পৃথকভাবে দুটি তদন্ত করা হবে। একটি থানা পুলিশ এবং অপরটি আমরা নিজেরাই তদন্ত করব। তদন্তের পর আসল ঘটনা বেরিয়ে আসবে।

নওগাঁ সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহরাওয়ার্দী হোসেন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। কী কারণে কমিউনিটি ক্লিনিকে দুর্বৃত্তরা আগুন দিয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।