ওয়ার্নারই আমাকে বল টেম্পারিং করতে বলেন : বেনক্রফটওয়ার্নারই আমাকে বল টেম্পারিং করতে বলেন : বেনক্রফট

ওয়ার্নারই আমাকে বল টেম্পারিং করতে বলেন : বেনক্রফটওয়ার্নারই আমাকে বল টেম্পারিং করতে বলেন : বেনক্রফট

বল টেম্পারিং কাণ্ডে বলতে গেলে উলট পালট হয়ে গেছে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট। এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন অজি দলের অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ ও সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। নয় মাসের নিষেধাজ্ঞায় আছেন তরুণ ক্যামেরুন বেনক্রফটও, যার হাত দিয়ে আসলে টেম্পারিংয়ের ঘটনাটি ঘটেছে।

ঘটনার এতদিন পর সবারই প্রায় জানা হয়ে গেছে, বল টেম্পারিং কাণ্ডের মূল হোতা ছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার। তার মাথা থেকেই বুদ্ধিটা আসে, স্টিভ স্মিথ সব জেনেও মুখ চেপে ছিলেন। আর বেনক্রফটকে ব্যবহার করা হয় দাবার গুটি হিসেবে।

অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি উইকেটরক্ষক অ্যাডাম গিলক্রিস্টের সঙ্গে এক সাক্ষাতকারে বেনক্রফটও জানালেন, মূল হোতা ছিলেন ওয়ার্নারই। তারপরও নিজের কাঁধেই দায় নিচ্ছেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান।

ওই সাক্ষাতকারে বেনক্রফট জানিয়েছেন, কিভাবে তিনি উদ্বুদ্ধ হয়েছিলেন টেম্পারিংয়ে। তিনি বলেন, ‘ডেভ (ওয়ার্নার) আমাকে বলেছিল ম্যাচের ওই পরিস্থিতিতে বল দিয়ে এই কাজটা করতে। আমি এ সম্বন্ধে জানতাম না। আমি ভালোভাবে জানতাম না। আমি শুধু চেয়েছি দলে নিজেকে মানিয়ে নিতে, পরিস্থিতির মূল্য বুঝতে। সত্যি বলতে এটাই ছিল আমার ভাবনা।’

তবে কি ২৫ বছর বয়সী বেনক্রফটকে বলির পাঁঠা বানানো হয়েছে? ব্যাপারটা অনেকটা তেমন হলেও সেটা মানছেন না এই ব্যাটসম্যান। তিনি বলেন, ‘অন্য কিছুর দায়িত্ব না নিলেও আমার কৃতকর্মের দায় তো আমাকেই নিতে হবে। কেননা আমি বলির পাঁঠা হইনি। আমার নিজের মত দেয়ার সুযোগ ছিল। কিন্তু আমি বড় একটা ভুল করে ফেলেছি। এই জায়গাটায় অবশ্যই আমার নিয়ন্ত্রণ ছিল।’