এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে ইতিহাসের দ্বারপ্রান্তে শ্রীলঙ্কা

এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে ইতিহাসের দ্বারপ্রান্তে শ্রীলঙ্কা

দক্ষিণ আফ্রিকা জয় করা কি খুবই কঠিন? ইতিহাস কিন্তু বলে, সত্যিই কঠিন। এই দেশের মাটিতে এর আগে কেবল দুটি দেশ সিরিজ জয় করে ফিরে যেতে পেরেছিল। অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ড। এছাড়া ওয়েস্ট ইন্ডিজের সোনালি যুগ পেরিয়ে গিয়েছিল, নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তান কিংবা ভারতের মত দলও পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকার মাটি থেকে টেস্ট সিরিজ জয় করে ফিরে আসতে।

কিন্তু সেই বিরল কৃতিত্বটিই এবার অর্জন করতে যাচ্ছে শ্রীলঙ্কা? অন্তত সেই বিরল সম্ভাবনার সামনে দাঁড়িয়ে লঙ্কানরা। ডারবানে অবিশ্বাস্যভাবে ১ উইকেটের ব্যবধানে জয়ের পর পোর্ট এলিজাবেথেও দারুণ এক জয়ের পথে শ্রীলঙ্কা। তৃতীয় দিনে আর মাত্র ১৩৭ রান করতে পারলেই ইতিহাস লেখা হয়ে যাবে দিমুথ করুনারত্নে-কুশল পেরেরাদের।


ইতিহাস বলে নিজেদের টেস্ট ইতিহাসের শুরুর দিকে ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের কাছে টানা চারটি সিরিজ হেরেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। ১৮৮৮-৮৯ থেকে ১৮৯৮-৯৯ সাল পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয় এই চারটি সিরিজ। ১৯০২ সালের অক্টোবরে প্রথম দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে খেলতে গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ানরা। সেবার তিন ম্যাচের সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া।

১৯০৫ সালে গিয়ে প্রথম ঘরের মাঠে আর ইংলিশদের জিততে দেয়নি দক্ষিণ আফ্রিকানরা। ৫ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ তারা জিতেছিল ৪-১ ব্যবধানে। এরপর আবার ১৯১৩, ১৯২১ এবং ১৯২২ সালে ঘরের মাঠে ইংল্যান্ড (২বার) ও অস্ট্রেলিয়ার কাছে সিরিজ হেরেছিল প্রোটিয়ারা।

১৯৩৫ সালে অস্ট্রেলিয়া ৪-০ এবং ১৯৪৮ সালে ইংল্যান্ড ৫ ম্যাচের সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জিতে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকার মাটি থেকে। ১৯৪৯-৫০ সালেও প্রোটিয়াদের মাটি থেকে সিরিজ জয় করে ফিরে আসে অস্ট্রেলিয়ানরা। এভাবে দক্ষিণ আফ্রিকা গিয়ে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের অনেক টেস্ট সিরিজ জয়ের রেকর্ড রয়েছে।

সর্বশেষ দক্ষিণ আফ্রিকার মাটি থেকে ইংল্যান্ড সিরিজ জেতে ২০১৫-১৬ সালে। ৪ ম্যাচের সিরিজ তারা জিতেছে ২-১ ব্যবধানে। অস্ট্রেলিয়া সর্বশেষ দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে সিরিজ জিতেছে ২০১৪ সালে। ৩ ম্যাচের সিরিজ ২-১ ব্যবধানে। এই দুটি দেশছাড়া আফ্রিকা মহাদেশের এই দেশটিকে আর কেউ জয় করতে পারেনি।

এবার সেই বিরল কীর্তিটিই গড়ার দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে শ্রীলঙ্কা। পোর্ট এলিজাবেথে লঙ্কান পেসার সুরাঙ্গা লাকমালের গতি আর ধনঞ্জয়া ডি সিলভার ঘূর্ণিতে ঘুরপাক খেতে খেতে দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ১২৮ রানেই অলআউট হয়ে যায় প্রোটিয়ারা। যার ফলে দ্বিতীয় ইনিংসে জয়ের জন্য লঙ্কানদের সামনে কেবল ১৯৭ রানের লক্ষ্য দাঁড়ায়।

যদিও প্রথম ইনিংসে ১৫৪ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। তারওপর পোর্ট এলিজাবেথে যেভাবে বোলাররা রাজত্ব করে যাচ্ছে, তাতে বাকি ৮ উইকেটে শ্রীলঙ্কা ১৩৭ রান করতে পারে কি না- সেটাই দেখার বিষয়। ১৯ রান করে অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে এবং ১০ রান করে আউট হয়ে যান লাহিরু থিরিমানে। ওসাদা ফার্নান্দো ১৭ এবং কুশল মেন্ডিস ব্যাট করছেন ১০ রানে।