একসঙ্গে একই ধারাবাহিকে প্রথম মোশাররফ, মৌ ও মৌসুমী

একসঙ্গে একই ধারাবাহিকে প্রথম মোশাররফ, মৌ ও মৌসুমী

বিনোদন রিপোর্টার : এই সময়ে এসে মোশাররফ করিম ধারাবাহিক নাটকে কাজ করা খুব কমিয়ে দিয়েছেন। যে কারণে তার অভিনীত প্রচার চলতি ধারাবাহিক নাটকের সংখ্যা খুব কম। তবে অরন্য আনোয়ার রচিত ও পরিচালিত মাছরাঙ্গা টিভিতে প্রচার চলতি ধারাবাহিক নাটক ‘ফুল এইচডি’তে তিনি বেশ আগ্রহ নিয়ে কাজ করছেন বলে জানালেন মোশাররফ করিম নিজেই। এবারই প্রথম এই ধারাবাহিকে একসঙ্গে অভিনয় করছেন মোশাররফ করিম, তাহমিনা সুলতানা মৌ ও মৌসুমী নাগ। মোশাররফ করিমের বিপরীতে মৌ, মৌসুমী এর আগে আলাদাভাবে ভিন্ন ভিন্ন নাটকে অভিনয় করেছেন। গল্পনির্ভর এই সময়ের নাটক ‘ফুল এইচডি’ এরইমধ্যে দর্শকের কাছে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। সপ্তাহের প্রতি রবি থেকে বুধবার পর্যন্ত রাত ৮.১৫ মিনিটে নাটকটি মাছরাঙ্গা টিভিতে প্রচার হয়। নাটকটির প্রচারের শুরু থেকেই পরিচালক অরন্য আনোয়ার বেশ সাড়া পেয়ে আসছেন। সাড়া পাচ্ছেন নাটকটির গল্পের কেন্দ্রীয় চরিত্রের অভিনেতা মোশাররফ করিমও।

 মোশাররফ করিম বলেন,‘ ধারাবাহিকে অভিনয় করার ক্ষেত্রে এখন আমি খুব সচেতন। পুরো স্ক্রিপ্ট হাতে না পেলে এবং নাটকের সর্বশেষ অবস্থা কা দাঁড়াতে পারে তা না জানলে ধারাবাহিক করছিনা। অরন্য আনোয়ারের সঙ্গে আমার দীর্ঘদিনের পরিচয়। এর আগেও তার নির্দেশনায় কাজ করেছি। বেশ গুনী নির্মাতা, কাজের প্রতি যতœশীল। যে কারণে ফুল এইচডি কাজটি করেও ভালোলাগছে। সহশিল্পী হিসেবে মৌ, মৌসুমী’সহ অন্য যারা আছেন তারাও নাটকটিকে তাদের অভিনয় দিয়ে অলংকৃত করছেন, উপভোগ্য করে তুলছেন দর্শকের কাছে।’ তাহমিনা সুলতানা মৌ বলেন,‘ অরন্য ভাই নিমার্তা হিসেবে গুনী এবং যতœশীল। খুব কাজ পাগল একজন নির্মাতা। যে কারণে তার নির্দেশনায় কাজ করেও ভালোলাগে।

 ফুল এইচডি দর্শকের কাছে প্রিয় হয়ে উঠার অন্যতম কারণ অরন্য ভাইয়ের লেখা এবং নির্দেশনা। মোশাররফ ভাইয়ের সঙ্গে এর আগেও কাজ করেছি। এই কাজটিও বেশ উপভোগ করছি।’ মৌসুমী নাগ বলেন,‘ ফুল এইচডি আমার অভিনীত এই সময়ের সেরা একটি কাজ। সহশিল্পী হিসেবে মোশাররফ ভাই ভীষণ সহযোগিতা পরায়ন এবং আড্ডাবাজ একজন শিল্পী। গল্প’র ফাঁকে ফাঁকে একটি ভালো কাজ করার চেষ্টা করি আমরা। ফুল এইচডিও ঠিক তাই।’ মোশাররফ করিমের সঙ্গে প্রথম জুটিবদ্ধ হয়ে মৌ কাজ করেন মাহফুজ আহমেদ’র নির্দেশনায় ‘শূণ্যতায় বুনা ঘর’ নাটকে এবং মৌসুমী নাগ কাজ করেন রায়হান খানের নির্দেশনায় ‘কালো ভ্রমর’ নাটকে। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।