এ যেন প্রথম ইনিংসের হাইলাইটস!

এ যেন প্রথম ইনিংসের হাইলাইটস!

সরাসরি খেলা না দেখে শুধুমাত্র স্কোরকার্ড অনুসরণ করে থাকলে, যে কেউ দ্বিধায় পড়ে যেতে পারেন। ভাবতে পারেন, এটি প্রথম ইনিংসই দেখছি না তো? ম্যাচের প্রথম দিন সাবধানী শুরুর পর ষষ্ঠ ওভারের শেষ বলে সাজঘরে ফিরে গিয়েছিলেন বাঁহাতি ওপেনার ইমরুল কায়েস, করেছিলেন ৬ রান।

দ্বিতীয় ইনিংসেও ঠিক ৬ রানেই আউট হলেন তিনি। এবারেও ঠিক ষষ্ঠ ওভারেই, তবে প্রথম বলে। প্রথম ইনিংসে আজিঙ্কা রাহানের হাতে ক্যাচে পরিণত হলেও, দ্বিতীয় ইনিংসে সোজা বোল্ড হয়ে ফিরেছেন অভিজ্ঞ এ ওপেনার।


 


ADVERTISEMENT
ভারতের ছুড়ে দেয়া ৩৪৩ রানের লিডের নিচে চাপা পড়ে আজ (শনিবার) দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমেছে বাংলাদেশ। প্রথম পাঁচ ওভার দেখেশুনে ভালোভাবেই কাটিয়ে দিয়েছিলেন দুই ওপেনার সাদমান ইসলাম ও ইমরুল কায়েস।

কিন্তু ষষ্ঠ ওভারে বোলিং করতে এসে প্রথম বলেই দারুণ এক ইনসুইংগারে ইমরুলের লেগ স্টাম্প উপড়ে দেন উমেশ। প্রথম ইনিংসের মতোই ৬ রানে ফিরে যান ইমরুল।

একই ওভারের পঞ্চম বলে অল্পের জন্য টাইগার অধিনায়ক মুমিনুল হকের উইকেটটি পাননি উমেশ। তার ভেতরে ঢোকা ডেলিভারিতে কোনো শট না খেলে ছেড়ে দিয়েছিলেন মুমিনুল, বল ছুঁয়ে যায় পেছনের প্যাড।


ভারতীয় ফিল্ডারদের করা জোরালো আবেদনে সাড়া দেননি আম্পায়ার। নিজেদের মধ্যে কথা বলে রিভিউ নেন বিরাট কোহলি। রিপ্লেতে দেখা যায় অল্পের জন্য অফস্টাম্প মিস করতো বলটি। ফলে বেঁচে যান মুমিনুল। রিভিউ নষ্ট হয় ভারতের।

অধিনায়ক বেঁচে গেলেও পরের ওভারে নিজের উইকেট সামলে রাখতে পারেননি তরুণ ওপেনার সাদমান। ইমরুলের দেখাদেখি তিনিও ঘটান প্রথম ইনিংসের পুনরাবৃত্তি।

বৃহস্পতিবার সকালে দিনের সপ্তম ওভারের শেষ বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ৬ রানে আউট হয়েছিলেন সাদমান। আজও দিনের সপ্তম ওভারের শেষ বলে আউট হয়েছেন তিনি। তবে এবার আর ক্যাচ নয়। ইশান্ত শর্মার শার্প ইনসুইং ডেলিভারিতে সরাসরি বোল্ড হয়েছেন সাদমান। এবারও করেছেন ঠিক ৬ রান।


 
এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৮ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেট হারিয়ে ১৮ রান। ইনিংস পরাজয় এড়াতে এখনও প্রয়োজন ৩২৫ রান। অধিনায়ক মুমিনুল ৬ ও মোহাম্মদ মিঠুন খেলছেন ০ রান নিয়ে।