এ বছরই লালমনিরহাট বিমানবন্দর থেকে উড়বে বিমান

এ বছরই লালমনিরহাট বিমানবন্দর থেকে উড়বে বিমান

এ বছরই লালমনিরহাট বিমানবন্দর থেকে বিমান চলাচল শুরু হবে বলে জানিয়েছেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ। এছাড়া অচিরেই এ বিমানবন্দরে ‘বঙ্গবন্ধু এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়’ প্রতিষ্ঠা করা হবে বলেও জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনার জন্য লালমনিরহাট বিমানবন্দর পরিদর্শন করতে এসে তিনি এসব কথা জানান।


মন্ত্রী বলেন, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তে লালমনিরহাট বিমানবন্দরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে এবং এ বছরই এই বিমানবন্দর থেকে বিমান চলাচল শুরু হবে।

তিনি বলেন, ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে পাঠদানের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হবে। প্রাথমিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ৭টি ফ্যাকাল্টি, ৩৭টি ডিপার্টমেন্ট এবং ৪টি ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে লালমনিরহাটেই এ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হবে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, এ বছরই এই বিমানবন্দর চালু করা হবে এবং সপ্তাহে তিনটি ফ্লাইট ওঠানামার জন্য বিমান বাহিনী প্রধানের সাথে চূড়ান্ত আলোচনা হয়েছে।

দেশের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে বঙ্গবন্ধু এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারেস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়ে এয়ারক্রাফট নির্মাণ, মেরামত, স্যাটেলাইট নির্মাণ, উৎক্ষেপণ, মহাকাশ গবেষণা প্রভৃতি প্রযুক্তির বিষয়ে গবেষণা করা হবে বলে জানা গেছে।

পরিদর্শনকালে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও স্থানীয় সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ কাদের, বিমান বাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত, বঙ্গবন্ধু এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়োগপ্রাপ্ত ভিসি এয়ার ভাইস মার্শাল এ এইচ এম ফজলুল হক, জেলা পরিষদ প্রশাসক অ্যাডভোকেট মতিয়ার রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আহসান হাবীব, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এন এম নাছির উদ্দিনসহ বিমান বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও রাজনৈতিক দলের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এ বছরই লালমনিরহাট বিমানবন্দর থেকে বিমান চলাচল শুরু হবে বলে জানিয়েছেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ। এছাড়া অচিরেই এ বিমানবন্দরে ‘বঙ্গবন্ধু এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়’ প্রতিষ্ঠা করা হবে বলেও জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনার জন্য লালমনিরহাট বিমানবন্দর পরিদর্শন করতে এসে তিনি এসব কথা জানান।


মন্ত্রী বলেন, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তে লালমনিরহাট বিমানবন্দরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে এবং এ বছরই এই বিমানবন্দর থেকে বিমান চলাচল শুরু হবে।

তিনি বলেন, ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ে পাঠদানের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হবে। প্রাথমিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ৭টি ফ্যাকাল্টি, ৩৭টি ডিপার্টমেন্ট এবং ৪টি ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে লালমনিরহাটেই এ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হবে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, এ বছরই এই বিমানবন্দর চালু করা হবে এবং সপ্তাহে তিনটি ফ্লাইট ওঠানামার জন্য বিমান বাহিনী প্রধানের সাথে চূড়ান্ত আলোচনা হয়েছে।

দেশের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে বঙ্গবন্ধু এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারেস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়ে এয়ারক্রাফট নির্মাণ, মেরামত, স্যাটেলাইট নির্মাণ, উৎক্ষেপণ, মহাকাশ গবেষণা প্রভৃতি প্রযুক্তির বিষয়ে গবেষণা করা হবে বলে জানা গেছে।

পরিদর্শনকালে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও স্থানীয় সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ কাদের, বিমান বাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত, বঙ্গবন্ধু এভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়োগপ্রাপ্ত ভিসি এয়ার ভাইস মার্শাল এ এইচ এম ফজলুল হক, জেলা পরিষদ প্রশাসক অ্যাডভোকেট মতিয়ার রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আহসান হাবীব, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এন এম নাছির উদ্দিনসহ বিমান বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও রাজনৈতিক দলের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।