উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকুক

উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকুক

অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশ যে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে তাতে সংশয়ের সুযোগ নেই। বিশ্বব্যাংক, আইএমএফ এক সময় বাংলাদেশের জিডিপির প্রবৃদ্ধি নিয়ে সংশয়ের মধ্যে থাকলেও তারা এখন মেনে নিয়েছে বাংলাদেশ সেসব বিরল দেশের একটি, প্রবৃদ্ধির দিক থেকে যারা এগিয়ে। অর্থনৈতিক উন্নয়নে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের কাছে রোল মডেল। ব্যক্তি খাতের বিনিয়োগ, প্রবাসী আয়, তরুণ ও নতুন উদ্যোক্তাদের এগিয়ে আসা -এসবই দেশের উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছে। বেড়েছে কর্মসংস্থানের হার। কৃষি খাতেও যথেষ্ট অগ্রগতি হয়েছে। বেড়েছে কৃষি খাতে বিনিয়োগ ও গড় মজুরির পরিমাণও। দারিদ্র হার কমেছে। নানা অন্তরায়ও মন্দার প্রতিকূলতা ঠেলেই বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।

গত এক দশকে বাংলাদেশ আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে যে অগ্রগতি লাভ করেছে, তাতে অনেক ক্ষেত্রেই বিশ্বের সেরা বা শীর্ষ স্থানীয় দেশ হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। এমনকি প্রতিবেশী রাষ্ট্র ও পরাশক্তি হওয়ার পথে সম্ভাবনাময় ভারতের চেয়েও অধিকাংশ সামাজিক সূচকে বাংলাদেশ এগিয়ে থাকছে। এই অর্জনগুলো নিঃসন্দেহে গৌরবজনক ও অনুপ্রেরণাদায়ক। আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্য, বিনিয়োগের পথে বিদ্যমান বাধাগুলো অপসারণ করা জরুরি। বিনিয়োগ বাড়লে কর্মসংস্থান বাড়বে, রপ্তানি আয় বাড়বে, নিরবচ্ছিন্ন থাকবে প্রবৃদ্ধি অর্জন। বলার অপেক্ষা রাখেনা উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সুশাসন প্রতিষ্ঠা, দুর্নীতি কমিয়ে আনা এবং রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখা জরুরি। দেশের উন্নয়নের কোনো বিকল্প নেই। বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। এই অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে সবার ভূমিকা কাম্য। বাংলাদেশ ক্রমে উন্নয়নশীল দেশ থেকে উন্নত দেশের পথে এগিয়ে যাক।