উদ্যোক্তা তৈরি খাতে ঋণ সহায়তা

উদ্যোক্তা তৈরি খাতে ঋণ সহায়তা

এই মুহূর্তে দেশের ৭৫ ভাগ ছাত্র-ছাত্রী জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে পড়াশোনা করে থাকে। আর তাই সরকার বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজ সমূহের বাজারমুখী গুণগতমান সম্পন্ন মানব সম্পদ তৈরির লক্ষ্য গ্রহণ করেছেন। উদ্দেশ্য হচ্ছে যুব সমাজ যেন নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণ করে ২০২১ সাল নাগাদ বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের রাষ্ট্রে পরিণত করে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে নতুন উদ্যোক্তা তৈরি খাতে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে অধিক পরিমাণে ঋণ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যমতে দেখা যায়, ২০১৬ সালে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো ১ লাখ ৪১ হাজার ৯৩৪ টাকার ঋণ বিতরণ করেছে। এর আগের বছর অর্থাৎ ২০১৫ সালে ঋণ বিতরণ হয়েছিল ১ লাখ ১৫ হাজার ৮৭০ কোটি টাকা। কৃষি ক্ষেত্রে, শিল্প, ব্যবসা-বাণিজ্য, সমাজ গঠন, ব্যাংকিং, ইন্সুরেন্স, শিক্ষা প্রদান প্রতিটি ক্ষেত্রে উদ্যোক্তা হিসেবে কাজ করা বাঞ্ছনীয়।

আর তাহলে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন হবে এবং মানুষের কর্মের গতিময়তা  বৃদ্ধি পাবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, পাঁচ বছরে ৪২ হাজার নারী উদ্যোক্তাকে পাঁচ হাজার ৩৪২ কোটি টাকা ঋণ প্রদান করা হয়েছে। আমরা মনে করি এ খাতে বিনিয়োগ বাড়ানোরও বিকল্প নেই, নতুন উদ্যোক্তা তৈরি খাতে বিনিয়োগ বাড়াতে বিদেশি খাতের ব্যাংকগুলোকে ঋণ সরবরাহের জন্য নীতিগত ও বাস্তব সহযোগিতা দিতে পারে। আশা করা যায় যত দ্রুত এ খাতের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে, দেশ ততই স্বনির্ভর অর্থনীতির দিকে এগিয়ে যাবে।