ই-সিগারেট নিষিদ্ধ করলো ভারত

ই-সিগারেট নিষিদ্ধ করলো ভারত

প্রতীকী ছবি

ভারতে ই-সিগারেট নিষিদ্ধ করেছে দেশটির সরকার। এখন থেকে ই-সিগারেট বা এ জাতীয় কোনো পণ্য উৎপাদন, বেচা-কেনা, পরিবহণ, বিপণন, সংরক্ষণ, আমদানি-রপ্তানি বা যেকোনো ধরনের যোগসূত্র অপরাধ বলে বিবেচিত হবে। আর এ জন্য অভিযুক্তকে জেল-জরিমানাও করা হবে। 


বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দিয়েছেন ভারতের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন।

তিনি বলেন, তামাক আসক্তির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ই-সিগারেট বা এ ধরনের পণ্যগুলো বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমনকি শিশুরাও না বুঝেই এতে আসক্ত হয়ে পড়ছে। একারণে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিপরিষদ ই-সিগারেট নিষিদ্ধের অনুমোদন দিয়েছে। সুতরাং, এ জিনিসগুলো এখন থেকেই নিষিদ্ধ করা হলো।

নরেন্দ্র মোদি সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদে প্রথম ১০০ দিনের এজেন্ডায় অগ্রাধিকারের মধ্যে ছিল ই-সিগারেট, হিট-নট-বার্ন স্মোকিং ডিভাইস, ভ্যাপ, ই-নিকোটিনের স্বাদযুক্ত হুক্কার মতো বিকল্প ধূমপান-যন্ত্রগুলো নিষিদ্ধ করা। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি ই-সিগারেট অধ্যাদেশ ২০১৯-এর খসড়া অনুমোদন দেয় মন্ত্রিগোষ্ঠী।

এতে ই-সিগারেট নিষিদ্ধকরণ আদেশ না মানলে সর্বনিম্ন এক বছরের কারাদণ্ড, পাশাপাশি এক লাখ রুপি জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। একাধিকবার নিয়ম ভঙ্গ করলে শাস্তির পরিমাণ আরও বাড়বে।

ভারতে প্রতি বছর নয় লাখেরও বেশি মানুষ তামাকজনিত রোগে মারা যান। দেশটিতে ১০ কোটি ৬০ লাখ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ ধূমপানে আসক্ত। সারাবিশ্বে একমাত্র চীনেই এরচেয়ে বেশি ধূমপায়ী রয়েছে।