আসমা হত্যার আসামীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে পঞ্চগড়ে মানববন্ধন

আসমা হত্যার আসামীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে পঞ্চগড়ে মানববন্ধন

পঞ্চগড় প্রতিনিধি : রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে বলাকা কমিউটার ট্রেনের পরিত্যক্ত বগি থেকে উদ্ধার হওয়া মাদ্রাসা ছাত্রী আসমা আক্তারকে (১৭) ধর্ষণ ও তাকে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে পঞ্চগড়ে মানববন্ধন ও সমাবেশ হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে পঞ্চগড় জেলা শহরের শহীদ মিনারের সামনে পঞ্চগড়-ঢাকা মহাসড়কের ধারে ঘণ্টাব্যাপি ওই কর্মসূচি পালন করা হয়।সামাজিক সংগঠন ‘বাঁচাও পঞ্চগড়’ আয়োজিত ওই কর্মসূচিতে জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি আব্বাস আলী, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম, জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক এমরান আল আমিন, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাড. মির্জা নাজমুল ইসলাম কাজল, নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. এরশাদ হোসেন সরকার, জেলা পরিষদ সদস্য ও নারী নেত্রী আকতারুন নাহার সাকী, জেলা জাতীয় পার্র্টির সাধারণ সম্পাদক আবু সালেক, ‘বাচাও পঞ্চগড়’র ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক ও প্রেসক্লাবের সভাপতি সফিকুল আলম, আইনজীবী একেএম আনোয়ারুল ইসলাম খায়ের, সাংবাদিক শহীদুল ইসলাম শহীদ, মামলার বাদী আসমার চাচা রাজু, স্থানীয় ইউপি সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান সাবুসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দগণ বক্তব্য দেন।

মানববন্ধনে আসমার বাবা মা আত্মীয়-স্বজনসহ এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার নারী পুরুষ, আসমার সহপাঠি শিক্ষার্থীসহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়।
আসমার বাবা বলেন, ‘আমার মেয়ের মতো যেনো আর কারো সন্তানের এমন না হয়। তিনি মেয়ের ধর্ষণ ও হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করে ফাঁসির দাবি জানান।’
উল্লেখ্য, গত ১৮ আগস্ট সকালে পঞ্চগড় সদর উপজেলার সদর ইউনিয়নের কনপাড়া গ্রামের দিনমজুর আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে মাদ্রাসা ছাত্রী আসমা আক্তার (১৭) বাড়ি থেকে বের হয়। রাতে আর বাড়িতে ফিরেনি সে। পরদিন ১৯ আগস্ট সকালে আসমার পরিবারের লোকজন পুলিশের মাধ্যমে জানতে পারে আসমার লাশ ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশনে একটি ট্রেনের পরিত্যক্ত বগির শৌচাগারে পাওয়া গেছে।

নিহত আসমার পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরেই পাশ^বর্তী সীতাগ্রামের হানিফ ইসলাম ভুট্টোর ছেলে মারুফ হাসান বাধনের (২০) সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল আসমার। তার সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলেই বাড়ি থেকে বেড়িয়েছিল আসমা। বাধনই তাকে ঢাকায় পালিয়ে নিয়ে গিয়েছিল বলে দাবি আসমার বাবা-মায়ের। এ ঘটনায় ১৯ আগস্ট সোমবার ঢাকা রেলওয়ে (কমলাপুর) থানায় নিহত আসমা আক্তারের চাচা রাজু (ঢাকায় একটি কোম্পানীর গাড়ি চালক) অভিযুক্ত মারুফ হাসান বাধন (১৭) কে আসামী একটি মামলা দায়ের করেছেন। পরে নিহতের লাশ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে ময়না তদন্ত শেষে মঙ্গলবার বিকেলে নিহতের চাচা মো. রাজুর কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। গত বুধবার সকাল ১১টায় তার বাড়ির পাশে শিংপাড়া গোরস্থানে জানাযা শেষে আসমার মরদেহ দাফন করা হয়।