আনুপাতিক হারে ঢাকার বাইরে বেড়েছে ডেঙ্গু

আনুপাতিক হারে ঢাকার বাইরে বেড়েছে ডেঙ্গু

গত আগস্টের দ্বিতীয় সপ্তাহের তুলনায় তৃতীয় সপ্তাহে ঢাকার বাইরে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকে। দ্বিতীয় সপ্তাহে মোট ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর ৪৫ শতাংশ ছিল ঢাকার বাইরে। তবে তৃতীয় সপ্তাহে এই সংখ্যা বেড়ে ৫৬ শতাংশে পৌঁছায়।


পরের দুই সপ্তাহ সামগ্রিকভাবে দেশে ডেঙ্গু আক্রান্তের হার কমে এলেও ঢাকার বাইরে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৬০ ও ৬৯ শতাংশ হয়েছে বলে তথ্য প্রকাশ করেছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)। 

প্রতিষ্ঠানটিতে এ পর্যন্ত ডেঙ্গু সন্দেহে ২০৩ মৃত্যুর তথ্য এসেছে। এরমধ্যে ১১৬ মৃত ব্যক্তির তথ্য পর্যালোচনা করে ৬৮ জনের ডেঙ্গুজনিত মৃত্যু নিশ্চিত করেছে আইইডিসিআর। 

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় (শনিবার সকাল ৮টা থেকে রোববার সকাল ৮টা পর্যন্ত) নতুন করে আরও ৪৩০ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এর আগের ২৪ ঘণ্টার তুলনায় (শুক্রবার সকাল ৮টা থেকে শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত) হাসপাতলে ভর্তির এই সংখ্যা ২২ জন বেশি। এরমধ্যে ঢাকায় ১৩২ জন এবং ঢাকার বাইরে ২৯৮ জন। অর্থাৎ ঢাকার তুলনায় ঢাকার বাইরে রোগীর সংখ্যা দ্বিগুণেরও বেশি। 

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের সহকারী পরিচালক ডা. আয়শা আক্তার জানান, গত ১ জানুয়ারি থেকে ২২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৮৪ হাজার ৮২৭ জন। এরমধ্যে ৮২ হাজার ৫২৫ জন সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ২ হাজার ৯৯ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। যার মধ্যে ঢাকার ৪১টি সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ৮৭৫ জন এবং অন্যান্য বিভাগে ১২২৪ জন।