আদমদীঘিতে ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ : উত্তেজনা

আদমদীঘিতে ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ : উত্তেজনা

আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি ঃ আদমদীঘি হাসপাতালের সামনে সততা ক্লিনিকে রাখি বেগম (২০) নামের এক সিজার রোগির ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ক্লিনিক ঘেরাওসহ এলাকায় উত্তেজনা ও তোলপাড়ের সৃষ্টি হলে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন। একবছর আগেও ওই ক্লিনিকে রানীনগরের কদমগাড়ী গ্রামের জীবন নেসা নামের এক গৃহবধূ ভুল চিকিৎসায় মারা যায় বলে স্থানীয়রা জানান।জানা যায়, আদমদীঘির পশ্চিম সিংড়া গ্রামের সোহেল রানার গর্ভবতি স্ত্রী রাখি বেগমকে প্রসব করানোর জন্য গত বৃহস্পতিবার দপুরে শহরের সততা ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। রাত ৮টায় নওগাঁ ইসলামি ব্যাংক কমিউনিটি হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ আবু আনছার রাখি বেগমকে সিজার করে একটি পুত্র সন্তান ভুমিষ্ঠ করান বলে ক্লিনিক ম্যানেজার মেহেদী হাসান জানান। পরদিন গতকাল শুক্রবার দুপুরে ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাখি বেগমের মৃত্যু হলেও বিষয়টি গোপন করে ধামাচাপার চেষ্টা করে। বেলা ৪টায় বিষয়টি জানাজানি হলে তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়।
 
নিহত রাখি বেগমের স্বামী সোহেল রানা ও শাশুড়ি লুৎফন নেসা জানান, ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের অবহেলা ও ভুল চিকিৎসার কারনে রাখি বেগমের মৃত্যু ঘটে। ঘটনার পরপর ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ গা ঢাকা দেয়ায় তাদের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে ক্লিনিকের দায়িত্বপ্রাপ্ত তোজাম্মেল হক নামের একজন পরিচালক মৃত্যুর ঘটনা নিশ্চিত করে জানান, ভুল চিকিৎসা নয় রোগীনি অসুস্থতায় মারা যান। সিজার অপারেশনকারী চিকিৎসকের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।  থানার ওসি তদন্ত আব্দুর রাজ্জাক প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনা নিশ্চিত করে জানান, নিহতের পরিবার বাদী হলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। গতকাল সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত মামলা হয়নি, তবে উত্তেজনা বিরাজ করছিল।