আটক ভারতীয় জেলের বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশসহ দুই মামলা

আটক ভারতীয় জেলের বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশসহ দুই মামলা

 রাজশাহীর চারঘাট সীমান্তে আটক ভারতীয় জেলের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশসহ দু’টি মামলা দায়ের করেছে বিজিবি। অপর মামলায় বাংলাদেশ সীমানায় ঢুকে নিষিদ্ধ সময়ে কারেন্ট জাল দিয়ে মা ইলিশ শিকারের অভিযোগ আনা হয়েছে। টক ভারতীয় নাগরিকের নাম প্রণব মন্ডল। তিনি ভারতের মুর্শিদাবাদ জেলার জলঙ্গী থানার সাহেবনগর ছিড়াচর এলাকার বসন্ত ম-লের ছেলে। রাজশাহীর চারঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সমিত কুমার শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন তিনি বলেন, দুই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে বেলা ১১টার দিকে তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। আদালতের মাধ্যমে তাকে দুপুরের মধ্যেই রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হবে।

চারঘাট থানার ওসি সমিত কুমার আরও বলেন, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) চারঘাট বিওপির (বর্ডার আউট পোস্ট) হাবিলদার হুমায়ুন কবীর বাদী হয়ে ভারতীয় জেলে প্রণব ম-লের বিরুদ্ধে এ মামলা দায়ের করেছেন। এর আগে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) রাতেই তাকে চারঘাট থানায় হস্তান্তর করে বিজিবি। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে রাজশাহী বিজিবি-১ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল ফেরদৌস জিয়া উদ্দিন মাহমুদ জানান, সীমান্তের শূন্য রেখা অতিক্রম করে অবৈধভাবে ৬০০-৬৫০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে অনুপ্রবেশ করেছিল বিএসএফ।

এ সময় আটক ভাতীয় জেলেকে ছাড়িয়ে নিতে তারাই প্রথমে গুলি ছোড়ে। পরে বিজিবি আত্মরক্ষায় ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এরপর বিএসএফ সদস্যরা বিজিবিকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে ছুড়তে পিঁছু হটেন এবং নিজেদের সীমানায় চলে যান। পরে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠকে বিএসএফ দাবি করেছে, বিজিবির গুলিতে বিএসএফের এক সদস্য নিহত ও একজন আহত হয়েছেন। ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত। তাই দুই সীমান্তরক্ষী বাহিনী ঘটনাটি তদন্ত করবে। আর অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করে মা ইলিশ ধরার অভিযোগে ভারতীয় এক জেলেকে আটক করে চারঘাট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এর আগে রাজশাহীর চারঘাট সীমান্তে থাকা পদ্মা ও বড়াল নদীর মোহনায় মা ইলিশ ধরাকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) সকালে বিজিবি ও বিএসএফ'র মধ্যে গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে রাত সাড়ে ৮টার দিকে রাজশাহী সদর দফতরে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রেস ব্রিফিং করে বিজিবি-১ ব্যাটালিয়ন।