আজ পরিচালক সমিতির নির্বাচনে মুখোমুখি হচ্ছেন বাদল খন্দকার ও গুলজার

আজ পরিচালক সমিতির নির্বাচনে মুখোমুখি হচ্ছেন বাদল খন্দকার ও গুলজার

বিনোদন প্রতিবেদক : আজ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির দ্বি-বার্ষিক ২০১৯-২০২০ নির্বাচন। আজ সকাল নয়টা থেকে দুপুর একটা এবং দুপুর দুইটা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত বিএফডিসিতে দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনের ভোট গ্রহণ ও গণনা হবে পরিচালক সমিতির ভেতরে। এবার ১৯ পদের বিপরীতে ৪ জন স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ মোট ৪২ জন পরিচালক প্রতিযোগিতা করছেন। এবার সভাপতি পদে দু’জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা  হচ্ছেন গতবারের নির্বাচিত সভাপতি চলচ্চিত্র পরিচালক মুশফিকুর রহমান গুলজার ও গুনী পরিচালক বাদল খন্দকার।

গুলজারের প্যানেলে মহাসচিব পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন গতবারের নির্বাচিত মহাসচিব বদিউল আলম খোকন। বাদল খন্দকারের প্যানেলে মহাসচিব পদে লড়বেন বজলুর রশীদ চৌধুরী। এছাড়া স্বতন্ত্র হিসেবে মহাসচিব পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন পরিচালক সাফি উদ্দিন সাফি। সভাপতি পদে আবারো প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে এসে পরিচালক মুশফিকুর রহমান গুলজার বলেন,‘ আবারো সবার ভালোবাসায় নির্বাচিত হলে আমাদের চেষ্টা থাকবে সরকারি অনুদানে সিনেমা হল ডিজিটাল করা ও যেখানে সিনেমা হল নেই, সেখানে নতুন করে নির্মাণ হল করা। ডিজিটাল হলগুলো অন্যদের কাছে সরকার ভাড়া দিবে অথবা অন্যদের কাছে লিজ দেয়ার মাধ্যমে পরিচালনা করবে। পর্যায়ক্রমে ৩৬০টি উপজেলায় এটা করার জন্য জোর আহ্বান এখনই জানাচ্ছি সরকারকে। এই বিষয় ছাড়াও সেন্ট্রাল সার্ভারের মাধ্যমে সিনেমাগুলো প্রদর্শিত করা। এতে সিনেমাগুলো পাইরেসি থেকে মুক্তি পাবে।

সরকারের কাছে আমাদের সমিতির পক্ষ থেকে দাবি ছিল, সিনেমা হলগুলো সরকারি খরচে ডিজিটাল সিনেপ্লেক্স নির্মাণ করা। সিনেমা হলে ই-টিকিটিং সিস্টেম চালু করা। সারা বিশ্বে যেখানে ই-টিকেটিং সিস্টেম চলছে, সেখানে বাংলাদেশ কেন বাদ থাকবে। এটি আমরা পরিবর্তন করার চেষ্টা করছি।’ বাদল খন্দকার বলেন,‘ আমি আজ শিল্পপতি হয়েছি, রাজনীতিবিদ হয়েছি, এর নেপথ্য কারণ কিন্তু চলচ্চিত্রের প্রতি আমার ভালোবাসা। একজন চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবে সফল হয়েছি বলেই আমি আজকের বাদল খন্দকার। তাই চলচ্চিত্র শিল্পের জন্য ভালো কিছু করার জন্যই আমি এবার নির্বাচনে এসেছি।

সবার সঙ্গে মতবিনিময় করেই চলচ্চিত্রের কল্যাণের জন্য আমি নিবেদিত হয়ে কিছু করতে চাই। চলচ্চিত্র পরিবারে কোথাও যেন কোনরকম বৈষম্য না থাকে , তা দূর করে চলচ্চিত্রের উন্নয়নের জন্য কাজ করতে চাই। আমার বিশ্বাস আমার চলচ্চিত্র পরিচালক পরিবার আমাকে সেই পথে এগিয়ে নিয়ে যেতে সহযোগিতা করবেন।’ বাদল খন্দকার নির্দেশিত সিনেমাগুলো হচ্ছে ‘বিশ্বনেত্রী’,‘ স্বপ্নের পৃথিবী’,‘ পৃথিবী তোমার আমার’,‘ মধুর মিলন’,‘ সাগরিকা’,‘ প্রেম করেছি বেশ করেছি’,‘আবার একটি যুদ্ধ’,‘ বিদ্রোহী পদ্মা’। গুলজার পরিচালিত সিনেমাগুলো হচ্ছে ‘সুখের ঘরে দুখের আগুন’,‘ কুসুম কুসুম প্রেম’,‘ মেহের নিগার’, ‘বিন্দুর ছেলে’,‘ আই লাভ ইউ’,‘ নিঝুম অরণ্যে’,‘ মন জানেনা মনের ঠিকানা’,‘ লাল সবুজের সুর’। ছবি : মোহসীন আহমেদ কাওছার।