ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সেমির সম্ভাবনা টিকিয়ে রাখল বাংলাদেশ

অসাধারণ সাকিবে অবিস্মরণীয় জয়

অসাধারণ সাকিবে অবিস্মরণীয় জয়

স্পোর্টস রিপোর্টার : বিশ্বকাপ শুরুর আগেই তার শরীরী ভাষা জানান দিচ্ছিলো এবার হতে পারে বিশেষ কিছু। যা তিনি জানিয়েছেন বিশ্বকাপে নিজের ও দলের লক্ষ্যের কথা বলতে গিয়েও। আর বিশেষ কিছু করার দায়িত্বটাও নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন বাংলাদেশ দলের সহ-অধিনায়ক ও বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেও পারেননি দলকে জেতাতে। তবে গতকাল সোমবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে শুধু সেঞ্চুরিই করেননি অজেয় থেকে দলকে এনে দিয়েছেন অবিস্মরণীয় ও অতি গুরুত্বপূর্ণ জয়। সাকিবের ‘ব্যাক টু ব্যাক’ সেঞ্চুরি আর লিটন দাসের চমৎকার  ব্যাটিংয়ে  ক্যারিবীয়দের ৭ উইকটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। ৩২১ রান করেও বাংলাদেশের জয়রথ থামাতে পারেনি গেইলরা। সাকিব আর লিটন চতুর্থ উইকেটে অবিচ্ছিন্ন ১৮৯ রানের জুটি গড়ে বাংলাদেশকে চলতি বিশ্বকাপে দ্বিতীয় জয় এনে দিয়েছেন, ৫১ বল বাকি থাকতেই। ৫ ম্যাচ শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ পয়েন্ট। ফলে তাদের সেমিফাইনালে যাওয়ার পথ এখনো খোলা থাকল।

সাকিবের যতই প্রশংসা করা যায় কম। একাধিক রেকর্ড এ ম্যাচেও তার সঙ্গী হয়েছে। সেই সাথে সমৃদ্ধ হয়েছে বাংলাদেশের দলীয় সাফল্যও। সর্বোচ্চ রান টপকে গতকাল তারা জয় তুলে নিয়েছে। ওয়ানডেতে এটাই বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় লক্ষ্য তাড়া করে জয়। বিশ্বকাপের গত আসরে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ৩১৮ রান করে জয় ছিল আগের রের্কড। সাকিব ৯৯ বলে ১৬টি চারে অপরাজিত থাকেন ১২৪  রানে। বিশ্বকাপে প্রথম খেলার সুযোগ পেয়ে বাজিমাত করেছেন লিটন দাসও। তিনি ৬৯ বলে ৮টি চার ও ৪টি ছক্কায় অপরাজিত থাকেন ৯৪ রানে। দলীয় ১৩৩ রানে মুশফিকুর রহিম (১) আউটের পর জুটি বেঁধেছিলেন সাকিব ও লিটন। এরপর বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রানের জুটি গড়েন তারা। ইনিংসের ৩৪তম ওভারের শেষ বলে বাউন্ডারি মেরে টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরিটি পূরণ করেন সাকিব। তার আগে ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে টানা দুই ম্যাচে সেঞ্চুরি করেছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। গতকাল দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে এ কীর্তি গড়লেন সাকিব।

লক্ষ্য ৩২২ রানের। শুরুটা ভালোই হয়েছে বাংলাদেশের। ক্যারিবীয় বোলারদের দেখেশুনে খেলছিলেন দুই ওপেনার সৌম্য সরকার আর তামিম ইকবাল। বিশেষ করে সৌম্য তার সহজাত মারকুটে ব্যাটিংটাই করছিলেন। কিন্তু অতি আগ্রাসনই যেন কাল হলো। নবম ওভারে আন্দ্রে রাসেলের প্রথম ডেলিভারিতেই পয়েন্টের উপর দিয়ে দারুণ এক ছক্কা হাঁকান সৌম্য। পরের বলে আবার চালিয়ে দেন, স্লিপে ক্যাচ নিয়ে নেন গেইল। ২৩ বলে ২টি করে চার ছক্কায় সৌম্য তখন ২৯ রানে। ৫২ রানে প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এরপর ঝড়ো এক জুটি গড়েন তামিম আর সাকিব আল হাসান। সৌম্য আউট হওয়ার পর দ্বিতীয় উইকেটে ৩৩ বলেই জুটিতে হাফসেঞ্চুরি পার করেন এই যুগল। ৫৫ বলেই গড়ে ফেলেন ৬৯ রানের জুটি। কিন্তু কপাল মন্দ হলে যা হয়! এবারের বিশ্বকাপে প্রথম তিন ম্যাচে রান পাননি। গতকাল বেশ দেখেশুনে খেলছিলেন তামিম ইকবাল। হাফসেঞ্চুরির খুব কাছেও চলে গিয়েছিলেন। ৪৮ রানে এসে দুর্ভাগ্যজনক রানআউটের শিকার হন বাঁহাতি এই ওপেনার। কট্রেলের বলটি ড্রাইভ করে একটুখানি বের হয়ে গিয়েছিলেন তামিম। সুযোগ না দিয়ে তার মুখের উপর দিয়েই থ্রো করে দেন ক্যারিবীয় পেসার। তামিম ব্যাট রাখতে রাখতে ভেঙে যায় স্ট্যাম্প। ৫৩ বলে ৬ বাউন্ডারিতে গড়া টাইগার ওপেনারের ৪৮ রানের ইনিংসটি থামে দুর্ভাগ্যের শিকার হয়ে। তারপর মুশফিকুর রহিমও বেশিদূর যেতে পারেননি। ওসানে থমাসের বলে মাত্র ১ রান করে উইকেটরক্ষক শাই হোপের ক্যাচ হয়েছেন মিডল অর্ডারের এই ভরসা। এর আগে ৮ উইকেটে ৩২১ রানের পাহাড়সমান পুঁজি দাঁড় করায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।
সাকিবের ‘ব্যাক টু ব্যাক’ সেঞ্চুরি
এবারের বিশ্বকাপটা সাকিব আল হাসানময় হতে যাচ্ছে এটা নিশ্চিত। ব্যাটে বলে টাইগার অলরাউন্ডার যে ফর্মে রয়েছেন তাতে টুর্নামেন্টের সেরা ক্রিকেটার হওয়া কেবল সময়ের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। আজ ওয়ানডে ক্রিকেটে ৬ হাজার রান পূর্ণ করেছেন সাকিব। এই ম্যাচে আরেকটি মহাকীর্তি গড়লেন টাইগার ক্রিকেটার। দ্বিতীয় বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে বিশ্বকাপে ‘ব্যাক টু ব্যাক’ সেঞ্চুরি করেছেন তিনি। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সেঞ্চুরি ছিল মোটে দুটি। গত আসরে দুটি শতক করেছিলেন রিয়াদ। তাও আবার পরপর দুই ম্যাচে। অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেডে ইংল্যান্ডের পর হ্যামিল্টনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও শতক করেন টাইগার ক্রিকেটার। এবারের আসরে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে শতক করেন সাকিব। শ্রীলংকার বিপক্ষে ম্যাচটা পরিত্যক্ত হয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মহাকাব্যিক আরেকটি শতক করেন সাকিব। দ্বিতীয় বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডে ও বিশ্বকাপে এই কীর্তি গড়লেন তিনি।রোহিত-ফিঞ্চদের ছাড়িয়ে আবারো শীর্ষে সাকিব

বিশ্বসেরার মঞ্চে সেরা রান সংগ্রাহকের তালিকায় প্রথম নামটি একজন বাংলাদেশির। ক্রিকেটে গর্ব করার জন্য এর চেয়ে বেশি আর কী লাগে। বিশ্বকাপের এবারের আসরে ম্যাচের পর ম্যাচ বিস্ময় উপহার দিচ্ছেন সাকিব আল হাসান। তৃতীয় ম্যাচ পর্যন্ত সেরা রান সংগ্রাহকের তালিকায় শীর্ষে ছিলেন তিনি। কয়েক ম্যাচের জন্য তালিকার নিচে নেমে এলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলে আবার শীর্ষস্থানাটি দখল করলেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার।নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অসাধারণ এক শতক করে এবারের আসরে সেরা রান সংগ্রহকারী ব্যাটসম্যানের তালিকায় শীর্ষে উঠে আসেন সাকিব আল হাসান। একদিন পরেই অবশ্য সাকিবকে হটিয়ে শীর্ষস্থান দখল করেন ডেভিড ওয়ার্নার। অস্ট্রেলিয়ার পরের ম্যাচে দুর্দান্ত সেঞ্চুরি করে জায়গাটির দখল নেন অ্যারন ফিঞ্চ। পাকিস্তানের বিপক্ষে চোখধাঁধানো সেঞ্চুরি করে ফিঞ্চের প্রায় কাছাকাছি চলে এসেছিলেন রোহিত শর্মা। তবে শেষ পর্যন্ত ভারতীয় ব্যাটসম্যানকে দুইয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়। বেশ কয়েকজন ব্যাটসম্যান রান পাওয়ায় তালিকায় বেশ পেছনে চলে যান সাকিব।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ব্যাট করতে নেমে একে একে জো রুট, ডেভিড ওয়ার্নার, রোহিত শর্মাদের পেছনে ফেলেন সাকিব। শেষমেষ অ্যারন ফিঞ্চকে হটিয়ে সেরা রান সংগ্রাহকের শীর্ষে উঠে আসেন তিনি। ৫ ম্যাচে এখন পর্যন্ত সাকিবের সংগ্রহ ৩৫৫ রান। সমান সংখ্যক ম্যাচে ৩৪৩ রান করেছেন অ্যারন ফিঞ্চ। ওয়ানডেতে সাকিবের ছয় হাজার রান শুধু বাংলাদেশ নয়, বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারদের অন্যতম একজন সাকিব আল হাসান। নিজের দুটি হাতে ভর করে ক্রিকেটে প্রতিনিয়তই বাংলাদেশকে অবিশ্বাস্য সব অর্জন উপহার দিয়ে যাচ্ছেন। তার কাঁধে ভর করেই নিত্যনতুন উচ্চতায় উঠছে বাংলাদেশ।ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজেদের পঞ্চম ম্যাচে অনন্য এক মাইলফলক স্পর্শ করলেন সাকিব। বাংলাদেশের দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডেতে ছয় হাজার রান পূর্ণ করলেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। ছয় হাজার রান করতে সাকিবের আজ দরকার ছিল মাত্র ২৩ রান। ১৫তম ওভারে থমাসের বলে দুই রান নিয়েই এই মাইলফলকে পা রাখলেন তিনি। ব্যাট হাতে আজ হাফ সেঞ্চুরিও করেছেন তিনি।
২০২ ম্যাচের ১৯০তম ইনিংসে ৬ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করলেন সাকিব। আটটি সেঞ্চুরি ও ৪৫টি হাফ সেঞ্চুরি রয়েছে এই অলরাউন্ডারের। ক্যারিয়ারে বল হাতে নিয়েছেন ২৫৪ উইকেট। সাকিবের আগে একমাত্র খেলোয়ার হিসেবে বাংলাদেশের হয়ে ছয় হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন ওপেনার তামিম ইকবাল। এবারের বিশ্বকাপে ব্যাট ও বল হাতে দুর্দান্ত পারফর্ম করে চলেছেন সাকিব। ব্যাট হাতে এখন পর্যন্ত ২৯৩ রান ও বল হাতে নিয়েছেন ৪ উইকেট। আর এবারের আসরেই ওয়ানডেতে ২৫০তম উইকেট নেন তিনি। ওয়ানডে ক্রিকেটে সাকিবের চেয়ে কম সময়ে ৫০০০ রান করার পাশাপাশি ২৫০ উইকেট নেয়ার রেকর্ড নেই আর কারো।