অপূর্ব ও মেহজাবীনের রিলেশনশিপ

অপূর্ব ও মেহজাবীনের রিলেশনশিপ

ইভা আর শোভনের সম্পর্কটা শুরু হয় অনেক সুন্দর কিছু মুহুর্ত দিয়ে। দুজনের প্রতি দুজনের ভালো লাগার মোহটা আস্তে আস্তে কাটতে থাকে। শুরু হতে থাকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মতবিরোধের, ঝগড়া, ভুল বুঝাবুঝি। এক পর্যায়ে দুইজনে মিলেই সিদ্ধান্ত নেয় ছাড়াছাড়ির।

যদিও শোভনই চেয়েছিল ব্রেকআপের ব্যাপারে, তবুও ব্রেকআপের পর থেকেই শোভন ইভাকে অনেক বেশি মিস করতে থাকে। একটা পর্যায়ে শোভন আবার ইভার কাছে ফিরে যেতে চায় কিন্তু ততদিনে রিয়াজের সাথে ইভার বিয়ে ঠিক হয়ে যায়।


শোভন অনেকবার ইভাকে বোঝাতে চেষ্টা করে ফিরে আসার জন্য কিন্তু ইভা শোভনের রুষ্ঠ আচরণের কথা মনে করে আর আগ্রহ প্রকাশ করে না এবং ইভা আশা করে রিয়াজ এর ব্যতিক্রম হবে।

ঘটনা ও সময় এগিয়ে যেতে থাকলে ইভা আবিষ্কার করে রিয়াজের আচরণ আরো রুষ্ঠ ও কিছুটা আক্রমণাত্মক। পরিবারের সম্মানের কথা চিন্তা করে ইভা তবুও বিয়েতে মত রাখে, অপরদিকে শোভন ছন্নছাড়া জীবন-যাপন কালে ইভাকে শেষবারের মতন ফিরে পেতে চেয়েও ব্যার্থ হয়ে ইভার বিয়ের দিনে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয় এবং সবার সামনে ইভার প্রতি তার কখনো না ফুরোবার প্রেমের কথা ব্যক্ত করে।

এমনই এক গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ঈদের নাটক রিলেশনশিপ। এতে জুটি বেঁধেছেন হালের ক্রেজ জুটি অপূর্ব ও মেহজাবীন।

প্রবীর রায়ের পরিচালনায় নাটকটি বাংলাভিশনে ঈদের ২য় দিন রাত ১১টা ৪৫ মিনিটে প্রচার হবে।