অন্যদের ভাগ্য গণনা করেন, ভোক্তা অধিকার আসবে জানতেন না

অন্যদের ভাগ্য গণনা করেন, ভোক্তা অধিকার আসবে জানতেন না

রাজধানীর পান্থপথের বসুন্ধরা গার্ডেন সিটিতে অভিযান চালিয়েছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। অভিযানের এক পর্যায়ে তারা ভাগ্য গণনাকারী প্রতিষ্ঠান শেষ দর্শন আজমেরী জেমসে হানা দেয়। কিন্তু ভাগ্য গণনাকারী প্রতিষ্ঠানটি নিজের ভাগ্যই বদলাতে পারল না। ভাগ্য বদলানোর পাথরের মূল্য প্রদর্শন না করার অভিযোগে তাদের ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

বুধবার বিকেলে অভিযান চালিয়ে প্রতিষ্ঠানকে এ জরিমানা করা হয়।

ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ারের সার্বিক তত্ত্বাবধানে অভিযান পরিচালনা করেন অধিদফতরের সহকারী পরিচালক মো. আব্দুল জব্বার মণ্ডল, সহকারী পরিচালক মো. মাসুম আরিফিন ও আফরোজা রহমান। অভিযানে উপস্থিত ছিলেন নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি বিশিষ্ট কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ।

অভিযানের বিষয়ে মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার জাগো নিউজকে বলেন, শেষ দর্শনের কাছে তিনটা বিষয় জানার ছিল। প্রথমত, তারা যে পাথরগুলো বিদেশ থেকে নিয়ে আসে সেটিতে আমদানিকারকের স্টিকার আছে কি-না। দ্বিতীয়, তাদের কাছ থেকে যারা পাথর ক্রয় করে তাদের আদৌ কোনো ভাগ্য পরিবর্তন হয় কি-না। তৃতীয়ত, তারা প্রত্যেকটা পাথরের গায়ে মূল্য প্রদর্শন করে কি-না।

শেষ দর্শন আজমেরী জেমসে অভিযানে গিয়ে আমরা দেখি তারা পাথরের গায়ে মূল্য প্রদর্শন করছে না। এটি একটি অপরাধ। এই অপরাধে তাদের জরিমানা করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

পরবর্তী অভিযানে তাদের পাথরগুলো পরীক্ষা করা হবে বলে জানান শাহরিয়ার। তিনি বলেন, আমরা তাদের পাথর রফতানির কাগজপত্র এবং কিভাবে ভাগ্য পরিবর্তন হয় তার ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে।

জরিমানা আদায়ের সময় শাহরিয়ার দোকানের ম্যানেজারকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘আপনারা অন্যের ভাগ্য গণনা করেন কিন্তু আজকে যে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর থেকে আমরা আসব, জরিমানা করব এটা আপনারা জানতেন না?