অগ্নিদগ্ধ সানজিদাকে বাঁচানো গেল না

অগ্নিদগ্ধ সানজিদাকে বাঁচানো গেল না

নাটোর শহরের বড়গাছা এলাকার একটি ছাত্রীনিবাসে কেরোসিনের চুলা বিস্ফোরণে দগ্ধ হওয়া সানজিদা আক্তার (১৭) নামের সেই কলেজছাত্রী মারা গেছেন। মঙ্গলবার ভোরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

সানজিদা আক্তার লালপুর উপজেলার আব্দুলপুর এলাকার সাহাবুদ্দিনের মেয়ে। তিনি নাটোর নবাব সিরাজ উদ-দৌলা সরকারি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন।


গত বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) শহরের বড়গাছা এলাকার জ্যোতি ছাত্রীনিবাসে রান্না করার সময় কোরোসিনের স্টোভ বিস্ফোরণে এনএস সরকারি কলেজের শামিমা, সানজিদা ও ফাতেমা নামের তিন কলেজছাত্রী অগ্নিদগ্ধ হন। এতে শামীমা ও সানজিদার শরীরের ৬০-৬৫ শতাংশ পুড়ে যায়। পরে তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহীর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

সেখানে অবস্থার অবনতি হলে সানজিদা আক্তার এবং শামিমা খাতুনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সেখানে ছয়দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ার পর মঙ্গলবার ভোরে সানজিদার মৃত্যু হয়।