বিড়ির প্যাকেট জাল ব্যান্ডরোল

হারাগাছে মেনাজ বিড়ির পরিচালকসহ তিনজনের নামে মামলা

 হারাগাছে মেনাজ বিড়ির পরিচালকসহ  তিনজনের নামে মামলা

কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি : রংপুরের হারাগাছে জাল ব্যান্ডরোল ব্যবহার ও মজুত রাখার দায়ে মেনাজ বিড়ি কারখানার পরিচালক জাকির হোসেন, আশরাফুল আলম রিপনসহ তিনজনের নামে মামলা হয়েছে। শনিবার রাতে কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট হারাগাছ সার্কেলের সহকারি রাজস্ব অফিসার রিপন কুমার আরপিএমপি হারাগাছ থানায় এ মামলা দায়ের করেছেন। হারাগাছ থানার ওসি (তদন্ত) ও মামলার তদন্তকারী অফিসার রবিউল ইসলাম বলেন, হারাগাছে মেনাজ বিড়ি কারখানার পরিচালক জাকির হোসেন ও আশরাফুল আলম রিপনের নেতৃত্বে দীর্ঘদিন ধরে বিড়ি প্যাকেটে জাল ব্যান্ডরোল ব্যবহার করে বছরে কোটি কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে আসছে। শুক্রবার রাতে র‌্যাব-১৩ ও কাস্টমস যৌথ অভিযান চালিয়ে কারখানার ভিতরে বিড়ি প্যাকেটে নকল ব্যান্ডরোল লাগানোর সময় ৬৫ হাজার ১০০ পিচ জাল ব্যান্ডরোল উদ্ধার করে। যার মুল্য ৫ লাখ ৭ হাজার ৯৩৩ টাকা। এ সময় জাল ব্যান্ডরোল ব্যবসায়ী ও সরবরাহকারী হারাগাছ পৌর এলাকার সাবানটারী গ্রামের মাসুদার হোসেন ডনকে আটক করে র‌্যাব।

ওসি (তদন্ত) রবিউল ইসলাম বলেন, শনিবার রাতে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ সরকারী রাজস্ব সুরক্ষার স্বার্থে জাল ব্যান্ডরোল মজুদ, সরবরাহ ও ব্যবহারের সহিত জড়িত থেকে সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে ব্যবসা করার অপরাধে বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫-ক (ক) (খ) ধারায় মরহুম মেনাজ উদ্দিনের ছেলে মো: জাকির হোসেন, মরহুম গোলজার হোসেনের ছেলে আশরাফুল আলম রিপন ও এইচ.এম মাসুদার হাসান ডনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা করেছে । মামলার তদন্তকারী অফিসার রবিউল ইসলাম বলেন, আটক এইচ.এম মাসুদার হাসান ডনকে মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে রবিবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। মামলা দায়েরের আগেই জাকির হোসেন ও আশরাফুল আলম রিপন গা ঢাকা দিয়েছে। তাদের গ্রেফতারের চেষ্ঠা চলছে। তিনি বলেন, হারাগাছে জাল ব্যান্ডরোল ব্যবসার সঙ্গে আর কারা কারা জড়িত তাদেরকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য জাল ব্যান্ডরোল ব্যবসায়ী এইচ.এম মাসুদার হাসান ডনকে পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করা হয়েছে ।