সুন্দরবনের আয়তন কমছে

 সুন্দরবনের আয়তন কমছে

বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ সুন্দরবনের আয়তন ভাঙনে ছোট হচ্ছে প্রতিবছর। পশ্চিম সুন্দরবনের শিবদা নদীর পাড়ে এই ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করেছে। নদীর প্রায় ১২ থেকে ১৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে চলছে ভাঙন। ভাঙনে ওই অংশের বড় বড় সুন্দরী, গেওয়াসহ বিভিন্ন গাছ বিলীন হয়ে যাচ্ছে। গত ৩৭ বছরে ১৪৪ কিলোমিটার আয়তন হারিয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম এ ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চল। দেশের বনাঞ্চলের ৫১ ভাগই হলো সুন্দরবনে। সুন্দরবনের প্রাকৃতিক ও প্রাণবৈচিত্র্য বাংলাদেশের অমূল্য জৈব সম্পদ। সুন্দরবন আমাদের জাতীয় সম্পদ। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের বিরুদ্ধে এটা দক্ষিণাঞ্চলের পরীক্ষিত রক্ষাকবচ। ম্যানগ্রোভের চিরায়ত রীতি অনুযায়ী চর পড়ে নতুন করে যতটুকু বন গড়ে উঠছে, তার চেয়ে বেশি ভাঙছে। গত ৩৭ বছরে নতুনভাবে চর জেগেছে মাত্র ১০৪ কিলোমিটার। আর ভাঙনের কারণে সুন্দরবন ২৩৩ বর্গকিলোমিটার আয়তন হারিয়েছে। স্পারসোর গবেষণায় উঠে এসেছে শুধু ভাঙনের কারণেই প্রতি বছর ৬ বর্গকিলোমিটার করে বনভূমি ধ্বংস হচ্ছে। উজানে বিভিন্ন নদীতে বাঁধ নির্মাণের কারণে সুন্দরবনে মিঠা পানির প্রবাহ হ্রাস পেয়েছে। উজান থেকে আসা নদীর ক্ষীণ প্রবাহ ও সমুদ্র স্রোতের মধ্যে ভারসাম্য না থাকায় ভাঙা-গড়ার ব্যবধান বৃদ্ধি পাচ্ছে। সুন্দরবনের আয়তন হ্রাস নিঃসন্দেহে একটি উদ্বেগজনক ঘটনা। এ বিপদ থেকে রক্ষা পেতে উজানে অভিন্ন নদীর পানি প্রত্যাহার বন্ধের উদ্যোগ নিতে হবে। সুন্দরবন রক্ষা ও এর প্রাকৃতিক পরিবেশের স্বার্থে সম্ভব সব ধরনের উদ্যোগ নিতে হবে।