যুবদলের মানববন্ধনে ফখরুল

সরকারের মদদেই সর্বস্তরে দুর্নীতি

 সরকারের মদদেই সর্বস্তরে দুর্নীতি

স্টাফ রিপোর্টার  : সরকারের মদদেই সর্বস্তরে দুর্নীতির বিস্তার হয়েছে বলে দাবি করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে গতকাল শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী যুবদলের উদ্যোগে এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে এই দাবি করেন তিনি। মির্জা ফখরুল বলেন, ধর্মের কল আপনা-আপনি বাজে, বাতাসে নড়ে। আজকে ছাত্রলীগের নেতারা ঘুষ বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত হয়ে পড়েছে। পত্রিকায় এসেছে-ঢাকা শহরে ৬০টি ক্যাসিনো, যুবলীগ বা আওয়ামী লীগের নেতারা এগুলো চালাচ্ছে। এখন তারা নিজেরাই ধরা পড়ে গেছে। এটাতে প্রমাণিত হয়ে গেছে- এদেশ দুর্নীতিতে পূর্ণ হয়েছে, সেখানে সরকার-আওয়ামী লীগ মদদ দিচ্ছে। আজকে প্রমাণিত হয়ে গেছে- এই সরকার রাষ্ট্র পরিচালনায় ব্যর্থ, গত ১২ বছরে এই দেশকে লুটপাট করে একটা শ্মশানে পরিণত করেছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের যে দুঃশাসন-দুর্নীতি-নির্যাতন-নিপীড়ন সেটি এখন অন্য কাউকে বলতে হচ্ছে না, নিজে নিজেই বাতাসে কল নড়া শুরু হয়েছে।

 গত কয়েকদিন ধরে সারাদেশে আওয়ামী লীগ-যুবলীগ-ছাত্রলীগের নেতারা নিজেরাই নিজেদের দুর্নীতির প্রমাণ করছেন। তারা নিজেরাই প্রমাণ করেছে- তারা বাংলাদেশের সম্পদ লুট করে নিয়ে যাচ্ছে। খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা তুলে ধরে সুচিকিৎসার জন্য অবিলম্বে তার মুক্তির দাবি জানান বিএনপি মহাসচিব। সরকারের উদ্দেশে তিনি বলেন, অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন, এই সংসদ বাতিল করুন এবং নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে একটি নতুন নির্বাচন অনুষ্ঠান করুন। অন্যথায় এদেশের মানুষ কোনোদিন আপনাদের ক্ষমা করবে না এবং এদেশের মানুষের কাছে আপনাদের একদিন জবাবদিহি করতে হবে। সংগঠনের সভাপতি সাইফুল আলম নিরবের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর পরিচালনায় মানববন্ধনে যুবদলের মোরতাজুল করীম বাদরু, নুরুল ইসলাম নয়ন, মামুন হাসান, এসএম জাহাঙ্গীর, রফিকুল ইসলাম মজনু, শফিকুল ইসলাম মিল্টন, গোলাম মাওলা শাহিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এদিকে খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও তারেক রহমানের মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল দেশের বিভিন্ন জেলা ও মহানগরেও যুবদলের উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় যুবদলের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে- ফরিদপুর, বরগুনা, চট্টগ্রাম উত্তর ও দক্ষিণ, টাঙ্গাইল, বরিশাল দক্ষিণ, গাইবান্ধা, পটুয়াখালী, জয়পুরহাট, যশোর, খাগড়াছড়ি, লালমনিরহাট, হবিগঞ্জ, নরসিংদী, মাগুরা, বাগেরহাট, জামালপুর, ব্রাক্ষণবাড়িয়া, শরীয়তপুর ও মানিকগঞ্জ জেলা; চট্টগ্রাম, বরিশাল, নারায়ণগঞ্জ ও ময়মনসিংহ মহানগর; রংপুর জেলা ও মহানগর, রাজশাহী জেলা ও মহানগর এবং গাজীপুর জেলা ও মহানগরে মানববন্ধন হয়েছে।