শেয়ার বাজার সংকট

 শেয়ার বাজার সংকট

শেয়ার বাজারের ওপর বিনিয়োগকারীদের আস্থা কিছুতেই ফিরে আসছে না। আস্থা ফিরিয়ে আনতে সরকার ইতিপূর্বে বেশ কিছু ইতিবাচক পদক্ষেপ নিলেও তার সুফল মিলেনি। নানা পদক্ষেপের পরও সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারছে না শেয়ার বাজার। ঘর পোড়া গরু নাকি সিঁদুরে মেঘ দেখলেও ভয় পায়। ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের অবস্থা তাই। টানা দরপতন, ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের বিক্ষোভ, কারসাজির অভিযোগ, বিনিয়োগকারীরা নি:স্ব হওয়া এসব পুরনো চিত্র। গণমাধ্যমের তথ্যে জানা যায়, বর্তমানে শেয়ার বিক্রির চাপ চলছে পুঁজি বাজারে। এতে বাজারে দরপতন অব্যাহত রয়েছে এবং দ্রুত পুঁজি হারাচ্ছেন বিনিয়োগকারীরা। আমরা দরপতনের গাণিতিক হিসাব কিম্বা তাত্ত্বিক ব্যাখ্যায় যেতে চাই না। কিন্তু এ কথা অস্বীকার করার উপায় নেই যে, শেয়ারবাজারে দরপতনের ফলে লাখ লাখ বিনিয়োগকারী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন, পথে বসেছেন। এতে সর্বত্রই নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। কারণ বিপুল সংখ্যক মানুষ পুঁজি বাজারের সঙ্গে নানাভাবে জড়িত। এসব মানুষ জনের আয় রোজগার বিঘিœত হলে, পুঁজি হারালে তারা যে সংক্ষুব্ধ হবেন-এটাই স্বাভাবিক। আমরা অতীতেও এমনটি দেখেছি মানুষ পুঁজি হারিয়ে রাস্তায় নেমেছিল। পুঁজি হারিয়ে আত্মহত্যার ঘটনাও ঘটেছিল। এটা ঠিক শেয়ার বাজারে নিয়ন্ত্রণ কারও একার হাতে নেই। বাজার চলে তার নিজস্ব নিয়মে। আর বাজার চললে সেটি ওঠানামা করবেই। কিন্তু কোন বিশেষ গোষ্ঠী বা দলের কারসাজিতে লাখ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হবে এটা মেনে নেয়া যায় না। আমরা চাই, শেয়ার বাজার নিয়ে এ পর্যন্ত যা হয়েছে সেই অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে বাজারকে স্থিতিশীল করার জন্য কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হবে। আর তা নিতে হবে কালবিলম্ব না করেই।