এলাকাবাসীর স্মারকলিপি প্রদান

মিঠাপুকুরে বিদ্যালয়ের জমি বিক্রি করার ঘটনায় তোলপাড়

 মিঠাপুকুরে বিদ্যালয়ের জমি বিক্রি করার ঘটনায় তোলপাড়

মিঠাপুকুর (রংপুর) প্রতিনিধি : রংপুরের মিঠাপুকুরে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমি বিক্রি করার ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় চলছে। এলাকাবাসী জমি উদ্ধারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য এইচ. এন আশিকুর রহমানের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেছেন। উপজেলার বুজরুক সন্তোষপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের খেলার মাঠ না থাকায় এলাকাবাসী সম্মিলিতভাবে ১ লক্ষ টাকা দিয়ে জনৈক বাদশার আলীর নিকট ১০ শতক জমি ক্রয় করেন। ২০১০ সালে জমিটি ক্রয় করা হয়। কিন্তু জমি বিক্রেতা বাদশার আলী মহাপরিচালক, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর এর নামে দলিলকৃত ওই ১০ শতক জমি গোপনে বুজরুক সন্তোষপুর কারামতিয়া ফাযিল মাদ্রাসার নামে মোটা অংকের টাকা নিয়ে দানপত্র করে দেন।

বুজরুক সন্তোষপুর কারামতিয়া ফাজিল মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ দাতা সদস্য হওয়ার জন্য দরখাস্ত আহবান করলে বাদশার আলী আবারও একই জমি তৃতীয়বারের মত মাদ্রাসার নামে দানপত্র করে দিয়ে দাতা হওয়ার ঘটনাটি ফাঁস হয়ে পড়ায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এলাকাবাসী জমি উদ্ধারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য গণস্বাক্ষরসহ স্থানীয় এমপি এইচ.এন আশিকুর রহমানের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেছেন।
 
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বুজরুক সন্তোষপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাসরিন বেগম বলেন, কিছুদিন আগে জমি সীমানা নির্ধারণ করতে গিয়ে জমি বিক্রয়ের ঘটনাটি জানতে পারি। বিষয়টি ম্যানেজিং কমিটির সভায় আলোচনা করা হয়েছে। উপজেলা শিক্ষা অফিসার শায়লা জেসমিন সাঈদ বলেন, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি জমি উদ্ধারে যেকোন উদ্যোগ গ্রহণ করলে প্রশাসনিকভাবে সার্বিক সহযোগিতা করা হবে। একই জমি বারবার দান পত্রের নামে বিক্রি করার ঘটনায় বাদশার আলীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রয়োজন বলে মনে করছেন এলাকাবাসী।