ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর কমছে

 ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর কমছে

দেশের ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর ৩ মিটার থেকে ১০মিটার পর্যন্ত নীচে নেমে গেছে। ফলে শুস্ক মওসুমে নলকূপে পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পাওয়া যায় না। গত সোমবার সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে এক প্রশ্নের জবাবে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন (এলজিআরডি) ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন একথা জানান। মন্ত্রী জানান, দেশে বর্তমানে মোট ১৭ শতাংশ জনগণ নিরাপদ পানির সুবিধার আওতামুক্ত। সে হিসেবে দেশে মোট ১৩ কোটি ৯২ লাখ জনগণ নিরাপদ পানির সুবিধা ভোগ করে। আসলে মাননীয় মন্ত্রী সত্য কথাই বলেছেন। পানি সংকটের মুখে পড়ছে মানবজাতি। বিশ্বে পানির উৎস প্রতিদিনই কমছে। যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ সংস্থা (নাসা) বলেছে, পৃথিবীর ভূ-গর্ভে পানির যত মজুদ আছে তার এক তৃতীয়াংশই মানুষের কর্মকান্ডের কারণে দ্রুত ফুরিয়ে যাচ্ছে। নাসার মতে, পৃথিবীর ৩৭টি বৃহৎ পানির স্তরের মধ্যে ২১টির পানি ফুরিয়ে যাচ্ছে।

এ স্তরগুলোর ভারত ও চীন থেকে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র ও ফ্রান্সের সীমানার মধ্যে। পানির স্তর নিচে নামার বিপদ থেকে নদ-নদীর দেশ বাংলাদেশও মুক্ত নয়। রাজধানী ঢাকা সহ সারাদেশেই পানির স্তর দ্রুত নিচে নেমে যাচ্ছে। এর মধ্যে ঢাকার ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর আশংকাজনকহারে নামছে নিচের দিকে। ওয়াসা সুপেয় পানির ক্রম বর্ধমান চাহিদা মেটাতে ভূ-গর্ভস্থ স্তর থেকে পানি উত্তোলনে বাধ্য হওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হচ্ছে। বাংলাদেশ যে পানির সংকটের সম্মুখিন হচ্ছে তার প্রধান কারণ উজানে প্রতিবেশি দেশ কর্তৃক পানি প্রত্যাহারের ঘটনা। নদী দূষণ অবস্থাকে ভয়াবহভাবে বিপজ্জনক করে তুলছে। অস্তিত্বের স্বার্থে উজানে পানি প্রত্যাহার রোধে সরকারকে সক্রিয় হতে হবে। নদ-নদীর ধারণ ক্ষমতা বাড়ানো ও দূষণ বন্ধে নিতে হবে পদক্ষেপ।