নানা অনিয়মে চাঁপাইনবাবগঞ্জ চক্ষু হাসপাতালে অচলাবস্থা

 নানা অনিয়মে চাঁপাইনবাবগঞ্জ চক্ষু হাসপাতালে অচলাবস্থা

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি : জাতীয় অন্ধ কল্যাণ সমিতি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখা পরিচালিত চক্ষু হাসপাতালে অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে। অনিয়মের অভিযোগ এনে এরই মধ্যে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ অন্ধ কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক একেএম খাদেমুল ইসলামকে। এছাড়া পদত্যাগ করেছেন সমিতির সভাপতি বিশিষ্ট চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডা. মো. আয়াজ উদ্দিন আয়াজ। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে যেকোন মুহুর্ত্বে বন্ধ হয়ে যেতে পারে উত্তরাঞ্চলের বিশেষায়িত এই চক্ষু হাসপাতালটির চিকিৎসা কার্যক্রম।

গতকাল শনিবার সকালে হাসপাতাল প্রাঙ্গনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আবু হাসিব অভিযোগ করেন, গত ২৫ ডিসেম্বর কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় খসড়া ভোটার তালিকায় জালিয়াতি, আর্থিক শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে চাঁপাইনবাবগঞ্জ অন্ধ কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক একেএম খাদেমুল ইসলামকে দায়িত্ব পালন থেকে বিরত রেখে পরবর্তী সাতদিনের মধ্যে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। কিন্তু তিনি এখন পর্যন্ত দায়িত্ব বুঝিয়ে না দেয়ায় অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে।

সংসদ সম্মেলনে বলা হয়, সাধারণ সম্পাদক এ.কে.এম খাদেমুল ইসলাম ভোটার তালিকায় আজীবন সদস্যদের অনেকের নাম বাদ দিয়ে নতুন নাম অন্তর্ভুক্ত করেছেন। এই প্রক্রিয়ায় সাবেক সংসদ সদস্য জিনাতুন নেসা তালুকদারকেও ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেয়া হয়েছে। এছাড়া চক্ষু হাসপাতালের নামে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা কর্তৃক বরাদ্দকৃত ২ মেট্রিক টন গম উত্তোলন করলেও তিনি তা জমা দেননি। এমনকি আজীবন সদস্য ভর্তি ফি’র অনেক টাকারও  কোন হদিস নেই।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয় সমিতির সভাপতি ডা. মোঃ আয়াজ উদ্দিন আয়াজ পদত্যাগ করলেও কার্যনির্বাহী কমিটির সাথে আলোচনা না করেই সাধারণ সম্পাদক এককভাবে পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন। যা গঠনতন্ত্রের বিরোধী। সাধারণ সম্পাদক একেএম খাদেমুল ইসলামের অনিয়মগুলো খতিয়ে দেখার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানান তারা। এসময় সমিতির সহ-সভাপতি জহরুল ইসলাম, প্রফেসর সুলতানা রাজিয়া, কোষাধ্যক্ষ নেদাউল ইসলাম, কার্য নির্বাহী সদস্য অধ্যক্ষ সাইদুর রহমান, আব্দুল হান্নান হানু উপস্থিত ছিলেন। এব্যাপারে সাধারণ সম্পাদক এ.কে.এম খাদেমুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলো অস্বীকার করে বলেন কোন অনিয়ম ও দুর্নীতি তিনি করেননি। খুব শিগরিই গণমাধ্যমের কাছে নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করবেন বলে জানান তিনি।