করতোয়ায় সংবাদ প্রকাশের পর

দুপচাঁচিয়ার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণের সিদ্ধান্ত

 দুপচাঁচিয়ার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণের সিদ্ধান্ত

দুপচাঁচিয়া (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার দুপচাচিয়া উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।  গত মঙ্গলবার শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস দুপচাঁচিয়া উপজেলায় যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের প্রস্তুতি সভার সভাপতি ইউএনও শাহেদ পারভেজ এ সিদ্ধান্ত নেন।  দুপচাঁচিয়া উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভার হাতেগোনা কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাড়া অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আজও কোন শহীদ মিনার নির্মিত হয়নি। ফলে গ্রামাঞ্চলের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীরা ৫২’র ভাষা আন্দোলনের প্রকৃত ইতিহাস থেকে বঞ্চিত থেকেই যাচ্ছে। জানা গেছে, উপজেলায় সদরসহ ৬টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভায় সরকারি ও বে-সরকারি কলেজ রয়েছে ৭টি, হাইস্কুল ৩৫টি, মাদ্রাসা ২৫ টি ও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে ৮৫টি।

 এদের মধ্যে ১৪টি উচ্চ মাধ্যমিক (কলেজ) ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সম্পূর্ণ কিংবা অসম্পূর্ণ শহীদ মিনার রয়েছে। অবশিষ্ট ১৩৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মিত হয় নাই। এ সংক্রান্তে গত ২ ফেব্রুয়ারি দৈনিক করতোয়ার ৫ম পাতায় ‘দুপচাঁচিয়ায় শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আজও শহীদ মিনার নির্মিত হয়নি’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এরপর গত ১৪ ফেব্রুয়ারি উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে শহীদ দিবস পালনের প্রস্তুতিমূলক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ লক্ষ্যে চলতি মাসেই উপজেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও প্রধানদের নিয়ে পরিষদ মিলনায়তনে সভা করার সিদ্ধান্ত হয়। যে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রয়োজনীয় অর্থের অভাবে শহীদ মিনার নির্মাণে ব্যর্থ হবে তাদের পরিষদের তহবিল থেকে অর্থ প্রদানের মাধ্যমে আগামী ১ বছরের মধ্যেই সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সকলের সহযোগিতাও কামনা করেছেন।