তিন ছাত্রীকে যৌন হয়রানির স্বীকারোক্তি শিক্ষকের

 তিন ছাত্রীকে যৌন হয়রানির স্বীকারোক্তি শিক্ষকের

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার চট্টগ্রামের চরপাথরঘাটা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক তিন ছাত্রীকে যৌন হয়রানির কথা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে বলে পুলিশ।  বুধবার দুপুরে গ্রেফতার প্রধান শিক্ষক আবুল হাসেমকে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী থানায় আনা হয়। এর আগে মঙ্গলবার তিনি ঢাকায় গ্রেফতার হন।

চট্টগ্রাম নগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (কর্ণফুলী) জাহেদুল ইসলাম বলেন, গ্রেপ্তার প্রধান শিক্ষক আবুল হাশেম জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন তিনি ‘ভুল’ করেছেন। ওই তিন ছাত্রীকে যৌন হয়রানি প্রাথমিক সত্যতা মিলেছে। আবুল হাশেমকে ১০ দিনের রিমান্ডে চাওয়া হবে। এর আগে মঙ্গলবার চট্টগ্রামের মহানগর হাকিম এস এম মাসুদ পারভেজের আদালতে জবানবন্দি দেয় তিন শিক্ষার্থী। কর্ণফুলী থানার ওসি সৈয়দুল মোস্তফা আগে জানিয়েছিলেন,  প্রধান শিক্ষক আবুল হাসেম স্কুলে বিকালে ও সন্ধ্যায় পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীদের প্রাইভেট পড়াতেন। এ সময় তিনি ছাত্রীদের শরীরে হাত দিয়ে যৌন হয়রানি করতেন। সম্প্রতি ছাত্রীরা তাদের স্বজনদের বিষয়টি জানায়। এ ঘটনায় সোমবার রাতে কর্ণফুলী থানায় মামলা করেন হয়রানির শিকার এক ছাত্রীর অভিভাবক। ওই শিক্ষকের খোঁজে পুলিশ তার বাড়িতে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। স্বজনরা জানিয়েছিল, স্কুলের কাজে আবুল হাসেম ঢাকা গেছেন। মঙ্গলবার আবুল হাসেমকে ঢাকার মিরপুর থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।