কাঁটছাঁট হচ্ছে এডিপি

 কাঁটছাঁট হচ্ছে এডিপি

চলতি ২০১৭-১৮ অর্থ বছরের বার্ষিক উন্নয়ন  কর্মসূচির (এডিপি) আকার কমিয়ে ১ লাখ ৫৭ হাজার ৫৯৪ টাকা করার প্রস্তাব তৈরি করেছে পরিকল্পনা কমিশন। অর্থ বছরের শুরুতে এডিপির আকার ছিল ১ লাখ ৬৪ হাজার ৮৫ কোটি টাকা। প্রতি বছরের মতো এবারও আরডিপিতে বৈদেশিক সহায়তা ব্যবহারের অংশ কমছে। আরএডিপির খসড়া সম্প্রতি অনুষ্ঠিত পরিকল্পনা কমিশনের বর্ধিত সভায় অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় অনুমোদনের জন্য খসড়াটি উপস্থাপন করা হবে। সূত্র জানায়, সংশোধিত এডিপিতে নতুন ৩৫০ প্রকল্প যোগ করা হচ্ছে। ফলে প্রকল্পের সংখ্যা দাঁড়াচ্ছে ১ হাজার ৬৫৮টিতে বাংলাদেশ সরকার বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিবি) মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের উন্নয়ন সম্পন্ন করে থাকে। এর মাধ্যমে সরকার যে গণ বিনিয়োগ করে, তার লক্ষ্যই হলো অবকাঠামো ও উপযোগ বিনির্মাণসহ প্রয়োজনীয় বিভিন্ন খাতের উন্নয়ন ঘটানো। দেশের শিক্ষা-স্বাস্থ্য থেকে শুরু করে শিল্প বাণিজ্যে অর্থনীতির বিকাশে ভূমিকা রাখাই এর লক্ষ্য। আবার অর্থ বছরের মাঝামাঝি উন্নয়ন ব্যয়ের অগ্রগতি পর্যালোচনা করে তা সংশোধন করা হয়। এর লক্ষ্য হচ্ছে মূল এডিপির আয়তন কমিয়ে আনা কিছু প্রকল্প পুনর্বিন্যাস করা। কিন্তু অতীত অভিজ্ঞতা বলে এডিপি পুরোপুরি বাস্তবায়ন করা যায় না। কিন্তু অসাধু লোকের দৌরাত্মে প্রকল্পের বরাদ্দকৃত অর্থ শেষ হলেও বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে বিভিন্ন অজুহাত দেখানো হয়। এগুলোর পরিপ্রেক্ষিতে আমরা আশা করছি, এবার যেন সেসবের পুনরাবৃত্তি না হয়। পূর্বোক্ত বিভিন্ন সমস্যা বিশ্লেষণ করে পদক্ষেপ গ্রহণ করলে একদিকে যেমন প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে অগ্রগতি হবে, তেমনি জনস্বার্থ রক্ষা হবে।