ইডেনছাত্রীকে এসিড নিক্ষেপে এক ব্যক্তির যাবজ্জীবন

 ইডেনছাত্রীকে এসিড নিক্ষেপে এক ব্যক্তির যাবজ্জীবন

বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ঢাকার ইডেন কলেজের এক ছাত্রীকে এসিডে ঝলসে দেওয়ায় এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

দণ্ডিত মনির হোসেনকে এক লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে। এই অর্থ এসিড নিক্ষেপের শিকার ওই নারী পাবেন বলে রায়দানকারী বিচারক ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রদীপ কুমার রায় জানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার দেওয়া এই রায়ে মনিরের কারাদণ্ড হলেও মাসুম নামে মামলার অন্য আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

২০১৩ সালের ১৫ জানুয়ারি ইডেন কলেজে যাওয়ার পথে চানখাঁরপুল মোড়ে মনির বিয়ের বিয়ের প্রস্তাব দেন ওই কলেজছাত্রীকে। এতে রাজি না হওয়ায় তার মাথা ও মুখে এসিড ছুড়ে মারেন ওই ব্যক্তি। এছাড়া ওই তরুণীর হাত ও পিঠে ছুরিকাঘাতও করা হয়। ঘটনার পর ওই ছাত্রীর ভাই বংশাল থানায় একটি মামলা করেন। গোয়েন্দা  পুলিশের পরিদর্শক ফজলুর রহমান তদন্ত করে ২০১৩ সালের ১৪ মার্চ এসিড অপরাধ দমন আইন ও দণ্ডবিধি আইনে আসামি মনির ও মাসুমের বিরুদ্ধে দুটি অভিযোগ দাখিল করেন। ২১ জনের সাক্ষ্যগ্রহণের পর বৃহস্পতিবার বিচারক প্রদীপ কুমার রায় দেন বলে রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবী খন্দকার আব্দুল মান্নান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, এসিড অপরাধ দমন আইনে মনিরকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ছুরিকাঘাত করায় দণ্ডবিধির ৩২৪ ধারায় মনিরকে দুই বছরের কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অন্য আসামি মাসুমকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে। জরিমানার টাকা মামলার ভিকটিম পাবেন বলে বিচারক উল্লেখ করেছেন। দণ্ডিত মনিরের বাড়ি ব্রাহ্মবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার বুড়িশ্বর গ্রামে।