কাজের উদ্বোধন মেয়রের বিনোদনের জন্য অত্যাধুনিক হচ্ছে ওসমানী উদ্যান

   কাজের উদ্বোধন মেয়রের বিনোদনের জন্য অত্যাধুনিক হচ্ছে ওসমানী উদ্যান

রাজধানীবাসীর বিনোদনের জন্য অত্যাধুনিক হচ্ছে ওসমানী উদ্যান। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) জল সবুজের ঢাকা প্রকল্পের আওতায় ২৯ একর জায়গার ওপর অত্যাধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা সৃষ্টি করতে ওসমানী উদ্যানকে নতুনভাবে সাজানো হচ্ছে।

শনিবার সকালে ওসমানী উদ্যান ‘গোস্যা নিবরণী পার্ক’-এ নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন মেয়র সাঈদ খোকন। এসময় প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল, কাউন্সিলর ফরিদ উদ্দিন রতন, হাসিবুর রহমান মানিক, স্থপতি আরিফ আযম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। প্রায় ৫৮ কোটি টাকা ব্যয়ে এ পার্কে থাকবে জলের আধার, মিউজিক সিস্টেম, বসার জন্য পৃথক পৃথক জোন, বাচ্চাদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা, পুরনো দিনের গান শোনার ব্যবস্থা। এছাড়া বড় স্ক্রিনে টিভি দেখার সুবিধা থাকবে। পুরো পার্কটির চারদিক থাকবে উন্মুক্ত। আগামী ৯ থেকে ১০ মাসের মধ্যে পার্কটির নির্মাণ কাজ শেষ হবে বলে জানান মেয়র। উদ্বোধন শেষে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, ওসমানী উদ্যান একেবারেই ব্যবহারের অনুপযোগী ছিলো। সন্ধ্যা নামলেই বিভিন্ন ধরনের অসামাজিক কার্যকলাপ হতো। সাধারণ মানুষের আনাগোনা একেবারেই বন্ধ ছিলো। সবার কথা চিন্তা করে আমরা পার্কটিকে অত্যাধুনিক করার উদ্যোগ নিয়েছি। তিনি বলেন, স্থপতি আরিফ আযমের প্রস্তাব অনুযায়ী বোর্ড সভায় ওসমানী উদ্যানকে গোস্যা নিবারণী পার্ক হিসেবে নামকরণের প্রস্তাব আসছে। এর কারণ নাগরিকদের মধ্যে অনেক সময় মান অভিমান, গোস্যা হয়ে থাকে। এই পার্কে এলে স্বাভাবিকভাবে মন ভালো লাগবে, উৎফুল্ল লাগবে। এখানে জলের আধার আছে, চা, কফি, স্যান্ডউইচ খাওয়ার ব্যবস্থা, হারানো দিনের গান শোনার ব্যবস্থা থাকবে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই গোস্যা নিবারণ হয়ে পুরো চাঙাভাব নিয়ে কাজে ফিরতে পারবেন যে কেউ। এই চিন্তা থেকেই এটি গোস্যা নিবারণী পার্ক হিসেবে নামকরণ করার চিন্তাভাবনা। পার্কের কাজের উদ্বোধন শেষে বঙ্গবাজার মোড়ে অত্যাধুনিক পুলিশ বক্সের উদ্বোধন করেন মেয়র। ডিএসসিসি এলাকায় ৪ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে ৭১টি পুলিশ বক্স করা হচ্ছে। শনিবার ৪টির উদ্বোধন করা হয়। এছাড়া চলতি বছরে ৭১টি অত্যাধুনিক টয়লেট নির্মাণ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এছাড়া ১৯টি পার্কিং ও ১২টি খেলার মাঠের উন্নয়ন কাজ হাতে নিয়েছে ডিএসসিসি।