রাত ১১:৫০, শুক্রবার, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং
/ ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহ শহরে সহকর্মীর ছুরিকাঘাতে আহত এক পরিবহন শ্রমিকের চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়েছে। কোতোয়ালি থানার ওসি মাহামুদুল ইসলাম জানান, সোমবার সকালে ময়মনসিংহ মেডিকেলে কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।”

নিহত শাহাব উদ্দিন (৩০) শহরের আগ্রাকান্দা এলাকার আব্দুল জলিলের ছেলে। ওসি মাহামুদুল প্রাথমিক তদন্তের বরাতে বলেন, রোববার বিকালে মাসকান্দা বাসস্ট্যান্ডে ভাড়ার টাকা ভাগভাটোয়ারা নিয়ে জুয়েল নামে এক সহকর্মীর সঙ্গে শাহাব উদ্দিনের কথাকাটাকাটি হয়।

“এরই জেরে শাহাবকে ছুরিকাঘাত করেন জুয়েল। স্থানীয়রা গুরুতর আহত শাহাবকে ময়মনসিংহ মেডিকেলে কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকালে তার মৃত্যু হয়।”

এ ঘটনায় স্থানীয়রা জুয়েলের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করেছে বলে জানিয়েছেন ওসি মাহামুদুল।

 

ময়মনসিংহে কৃষক হত্যায় ২ জনের যাবজ্জীবন

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে ১৩ বছর আগে এক কৃষক হত্যা মামলায় দুই জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। রোববার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ জহিরুল কবির আসামিদের উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডিতরা হলেন- গফরগাঁও উপজেলার চরআলগী ইউনিয়নের মাইলটি গ্রামের তফাজ্জল হোসেন (৩৫) ও ফেরদৌস (৩২)। যাবজ্জীবন ছাড়াও প্রত্যেক আসামিকে পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে বলে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী রেজাউল করিম খান দুলাল জানান।

এছাড়া অপরাধে সংশ্লিষ্টতা প্রমাণিত না হওয়ায় ১০ জনকে খালাস দেওয়া হয়েছে।  

এরা হলেন- চঞ্চল মিয়া, উজ্জ্বল মিয়া, জাহাঙ্গীর হোসেন, সাহাবউদ্দিন, শেফালী বেগম, ফাতেমা খাতুন , মোফাজ্জল হোসেন, মফিজুল ইসলাম, আজিজুল হক ও মালেকা খাতুন।

মামলার বিবরণে বলা হয়, গ্রামের একখণ্ড জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ২০০৪ সালের ২ নভেম্বর প্রতিপক্ষের লোকজন কৃষক হাফিজ উদ্দিনকে কুপিয়ে হত্যা করে।

পরদির হাফিজের স্ত্রী আক্তার খাতুন বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে গফরগাঁও থানায় একটি মামলা করেন।

তদন্ত শেষে ২০০৫ সালের ৩১ জুলাই তাদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হলে এ মামলার বিচারকাজ শুরু হয়।

 

সিটি করপোরেশন পাচ্ছে ময়মনসিংহ

দেশের অষ্টম বিভাগ হিসেবে যাত্রা শুরু করা ময়মনসিংহে একটি সিটি করপোরেশন গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি (নিকার) ময়মনসিংহ পৌরসভাকে সিটি করপোরেশনে রূপান্তরের জন্য প্রস্তাব তৈরির অনুশাসন দিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে নিকারের বৈঠকে এই নির্দেশনা দেওয়া হয় বলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম জানান।

সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, ময়মনসিংহ পৌরসভার সীমানা সম্প্রসারণের প্রস্তাব নিকারের বৈঠকে তোলা হলে তা অনুমোদন দেওয়া হয়নি।

“এটা (ময়মনসিংহ) যেহেতু ইতোমধ্যে বিভাগীয় সদরদপ্তর হয়ে গেছে, এটাকে সিটি করপোরেশন করার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।”

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, “ময়মনসিংহ পৌরসভাই সিটি করপোরেশনে রূপান্তরিত হবে। বিভাগীয় সদরের পৌরসভা সিটি করপোরেশন হওয়া- এটা নিয়ম। সেই হিসেবে এটা (ময়মনসিংহ পৌরসভা) সিটি করপোরেশন হবে।”

ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর ও নেত্রকোণা জেলা নিয়ে দেশের অষ্টম বিভাগ গঠনের প্রস্তাব ২০১৫ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর অনুমোদন দেয় নিকার। ওই বছরের ১৪ অক্টোবর সরকার ময়মনসিংহ বিভাগ গঠন করে গেজেট প্রকাশ করে।

নতুন বিভাগ গঠনের পর গত ৩০ অগাস্ট ময়মনসিংহে ‘মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড’ নামে দেশের একাদশ শিক্ষা বোর্ড গঠন করা হয়।

ময়মনসিংহে ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত

ময়মনসিংহ রেলওয়ে স্টেশনে চট্টগ্রামগামী বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনের একটি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। স্টেশন মাস্টার জহিরুল হক জানান, শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ট্রেনটি ডক থেকে স্টেশনে ঢোকার সময় একটি বগি লাইনচ্যুত হয়।

বিজয় এক্সপ্রেস ময়মনসিংহ থেকে চট্টগ্রাম যাতায়াত করে বলে জানান জহিরুল।

তিনি জানান, ট্রেনটি রাত ৮টায় ময়মনসিংহ থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিল। দুর্ঘটনার কারণে যাত্রা বিলম্বিত হয়।

“রাত সাড়ে ৯টার দিকে ট্রেনটির উদ্ধার কাজ শেষ হয়। এখন লাইন মেরামতের কাজ চলছে। সাড়ে ১০টার দিকে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হবে বলে আশা করা হচ্ছে।”

এদিকে, এ দুর্ঘটনার কারণে ভৈরব ও জারিয়া স্টেশনে দুটি লোকাল ট্রেন আটকে রয়েছে বলে জানান জহিরুল।

 

ময়মনসিংহে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার, স্বামী আটক

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় পারিবারিক কলহের জেরে এক গৃহবধূ অত্মহত্যা করেছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে। নিহত আসমা আক্তার (৩৫) উপজেলার হবিরবাড়ি ইউনিয়নের পাড়াগাঁও গ্রামের সালাউদ্দিনের স্ত্রী।

ভালুকা থানার ওসি মামুন অর রশিদ জানান, আসমার মৃত্যুর জন্য দায়ী সন্দেহে সালাউদ্দিনকে আটক করেছে পুলিশ। প্রাথমিক তদন্তের বরাতে তিনি বলেন, পল্লী বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মচারী সালাউদ্দিনের স্ত্রী আসমা আক্তার কয়েক দিন আগে তাদের একমাত্র মেয়েকে গোপনে বিয়ে দেন। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক কলহ শুরু হয়।

“বুধবার বিকালে কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে আসমাকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন সালাউদ্দিন। রাতে আসমা বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। স্থানীয়রা তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভোরের দিকে তার মৃত্যু হয়।”

এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানান।

লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

 

ময়মনসিংহে বাবার লাঠির আঘাতে মেয়ে নিহত

ময়মনসিংহের নান্দাইলে মেয়েকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার উপজেলার চণ্ডিপাশা ইউনিয়নের ঘোষপালা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে বলে নান্দাইল মডেল থানার ওসি ইউনুস আলী জানিয়েছেন।

নিহত তানজিন আক্তার (১৭) ওই আবুল হাসেমের মেয়ে। ঘটনার পর আবুল হাসেমকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ওসি ইউনুস বলেন, দুপুরে পাশের বাড়িতে টাকা চুরি গেলে তানজিনকে দোষারোপ করা হয়। এ ঘটনায় মেয়েকে শাসন করার এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করেন আবুল হাসেম। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় আবুল হাসেমের স্ত্রী জুবেদা খাতুন বাদী হয়ে একটি হত্যা করেছেন।

 

চোর সন্দেহে কিশোরকে খুঁটিতে বেঁধে পিটিয়ে হত্যা

ময়মনসিংহে গ্রামবাসীর সামনে চোর সন্দেহে এক কিশোরকে খুঁটিতে বেঁধে বাবা-ছেলে মিলে পিটিয়ে হত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গৌরীপুর থানার ওসি দেলোয়ার আহমেদ জানান, ডৌহাখলা ইউনিয়নের চরশিরামপুর গ্রামের আক্কাস আলী ও তার ছেলে কাইযুমের বিরুদ্ধে এই হত্যাকাণ্ড ঘটানোর অভিযোগ তুলেছে এলাকাবাসী।

নিহত সাগর আহম্মেদ গৌরীপুর উপজেলার নাটকঘর এলাকার মোহাম্মদ শিপন মিয়ার ছেলে। তার বয়স ১৬-১৭ বছর।

ওসি দেলোয়ার স্থানীয়দের বরাতে বলেন, সোমবার সকালে চরশিরামপুর গ্রামের গাউছিয়া নামের একটি মাছের হ্যাচারির মালিক আক্কাস আলী ও তার ছেলে কাইয়ুমসহ চার-পাঁচজন চোর সন্দেহে সাগরকে আটক করেন।

“তারা তাকে হ্যাচারির খুঁটিতে বেঁধে মারধর করেন। অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে তারা অটোরিকশায় করে নিয়ে যান। সোমবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে হ্যাচারির পাশের একটি জঙ্গল থেকে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।”

ডৌহাখলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শহিদুল হক সরকার বলেন, “অনেকের মোবাইল ফোনে খুঁটিতে বাঁধা রক্তাক্ত কিশোরের মাথা নিচের দিকে হেলে পড়া ছবিটি আমি দেখেছি। অত্যন্ত নৃশংস এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করতে হবে।”

সাগর ভাঙ্গারি কুড়িয়ে বেচতেন বলে জানিয়েছেন তার বাবা শিপন মিয়া।

তিনি বলেন, সাগর সোমবার ভাঙ্গারি কুড়াতে গিয়ে আর ফিরে আসেনি। সকালে জঙ্গল থেকে তার লাশ উদ্ধারের খবর পেয়েছেন বলে তিনি জানান।

ঘটনার পর থেকে আক্কাস আলীসহ অপরাধীরা সবাই পলাতক জানিয়ে ওসি দেলোয়ার বলেন, পুলিশ জড়িতদের আটকের চেষ্টা করছে।

 

‘হত্যার ভয় দেখিয়ে’ ধর্ষণের অভিযোগ

ময়মনসিংহ সদরে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক তরুণীকে ‘হত্যা করার ভয় দেখিয়ে’ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে দুই সন্তানের জনক এক প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে। সন্তানসম্ভবা এই মেয়েটি (২০) নিজে এবং তার বাবা সঙ্গে কথা বললেও এখনও থানায় কোনো অভিযোগ দেননি।

আব্দুল কাদির (৩০) নামের ওই যুবক সদর উপজেলার চরনিলক্ষীয়া ইউনিয়নের চড় কান্দাপাড়া গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে। কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি কামরুল ইসলাম বলেন, “চড় কান্দাপাড়ার আব্দুল কাদির প্রতিবেশী বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক তরুণীকে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করেছে বলে শুনেছি। বর্তমানে মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা।

“তবে ওই পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।” মেয়েটি বলেন, প্রায় চার মাস আগে একদিন রাত ৯টার দিকে কাদির তাদের বাড়ি গিয়ে ঘরে ঢোকে। তখন মেয়েটির মা অন্য বাড়িতে নামাজ পড়তে গিয়েছিলেন।

তখন কাদির তাকে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে বাড়ির পেছনে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে বলে মেয়েটির ভাষ্য। তরুনীর মা  বলেন, ধর্ষণের ঘটনাটি চার মাস আগে ঘটলেও তারা জানতে পারেন ১৫ দিন আগে।

ডাক্তার পরীক্ষা করে মেয়ে সন্তানসম্ভবা বলে জানিয়েছেন বলে তার মা জানান।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় এলাকায় সালিশ ডাকা হয়। সালিশে আব্দুল কাদির ধর্ষণের কথা স্বীকার করে মেয়েটিকে বিয়ে করতে রাজি হয়। বিয়ের কথা চূড়ান্ত হলেও সালিশে থাকা গণ্যমান্যদের কাছ থেকে দুদিন সময় নেয় ছেলেপক্ষের লোকজন। কিন্তু ওই রাতেই কাদির এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।

কাদিরের বাবা হোসেন আলী বলেন, “কাদিরের বউ ও দুই সন্তান রয়েছে। আবার আরেক মেয়ের সাথে এ ধরনের ঘটনা করছে। আমি কী করতাম বাবা। আমার কথা পুলাপানে হুনে না। এক বছর ধরে আমারে কুনো টাকা পয়সা দেয় না। কুনো খাবারও দেয় না।”

তিনি আরও বলেন, “এই ঘটনা শুনে ছেলের বউটা তার দুই সন্তান নিয়ে বাবার বাড়ি চলে গেছে। আমিও ঘটনা শুনার পরে গ্রামের মাতব্বরদের কাছে বিচারের ভার দিয়েছিলাম। তারাই বিয়ের কথা সালিশে বলছে। কিন্তু ছেলে পালিয়ে যাওয়ার পরে আমার কী করার আছে।”

 

ফুলবাড়িয়ায় কলেজ ছাত্রীর হত্যাকারী গ্রেফতার

ফুলবাড়িয়া (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি : উপজেলায় উদ্ধারকৃত বস্তাবন্দি কলেজ ছাত্রীর হত্যাকারীর মূল আসামী তার স্বামী মাসুম রহমানকে ময়মনসিংহ শহর থেকে গ্রেফতার করেছে ফুলবাড়িয়া থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। শনিবার ফুলবাড়িয়া থানা পুলিশ ঘাতক স্বামী মাসুম রহমানকে ময়মনসিংহ আদালতে প্রেরণ করেছে।

ওসি তদন্ত আবুল খায়ের বলেন, ৭ বছর যাবত দাপুনিয়া ইউনিয়নের চর ঘাঘড়া গ্রামের মাসুম রহমানের সাথে একই গ্রামের রফিকুল ইসলামের কলেজে পড়–য়া কন্যা রাবেয়া খাতুন ওরফে রাবেয়ার (২২) প্রেম নিবেদন চলে আসছিল। ২ মাস আগে রাবেয়াকে নিয়ে পালিয়ে এসে বিয়ে করে মাসুম। বিয়ের পর থেকে স্বামী মাসুমের সাথে রাবেয়ার বনিবনাত না হওয়ায় গত ৯ সেপ্টেম্বর রাতে ময়মনসিংহ শহরের এক বাসায় মাসুম তার সহযোগীদের নিয়ে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করে।

হত্যার পর লাশ ইটসহ বস্তাবন্দি করে সহযোগীদের নিয়ে মোটরসাইকেল যোগে ফুলবাড়িয়া উপজেলার দেওখোলায় সড়কের পাশে একটি পুকুরে ফেলে পালিয়ে যায়। পর দিন ১০ সেপ্টেম্বর ফুলবাড়িয়া থানা পুলিশ পুকুরে ভাসমান অবস্থায় বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এ  ঘটনায় ফুলবাড়িয়া থানায় মামলা হয়েছে।

ময়মনসিংহে ৩ ভাই-বোনের শরীরে এসিড নিক্ষেপ

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি : পূর্ব বিরোধের জের ধরে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলায় তিন ভাই-বোনের শরীরে এসিড নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে হালুয়াঘাট উপজেলার কালা পাগলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এসিড বিক্রেতাসহ তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- সুহেল (৩০), আলামিন (১৮) ও এসিড বিক্রেতা উজ্জল।

হালুয়াঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কামরুল ইসলাম জানান, সুহেল প্রথম স্ত্রীর পরিচয় গোপন করে মরিয়মকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর মরিয়ম জানতে পারেন সুহেলের স্ত্রী ও সন্তান রয়েছে। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে বিরোধ শুরু হয়। একপর্যায়ে সুহেল মরিয়মকে তালাক দেন। পরে মরিময় ঢাকার একটি পোশাক কারখানায় চাকরি নেন। ঈদে মরিয়ম বাড়ি গেলে উজ্জলের কাছ থেকে সুহেল এসিড কিনে আলামিনকে সাথে নিয়ে মরিয়ম (২৩), তার ভাই রাসেল (২০) ও বোন মহিরনের (১৩) শরীরে সেই এসিড নিক্ষেপ করেন। এতে তাদের শরীর ঝলসে যায়।

তিনি আরও জানান, আহতদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে হালুয়াঘাট থানায় মামলা হয়েছে।
 

 

ময়মনসিংহে অটোরিকশা-মাহেন্দ্র সংঘর্ষে নিহত ১

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে অটোরিকশার সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে মাহেন্দ্র আরোহী এক নারী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে আরও চারজন। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার শিবপুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে ইশ্বরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন ইনচার্জ মো. রোকনুজ্জামান জানান।

নিহত হামিদা আক্তার (৩৫) গৌরীপুর উপজেলার টাঙ্গাতীপাড়ার শাহেদ আলীর স্ত্রী। আহত কামরুল ইসলাম (২৩), স্বপন চন্দ্র দাস (৩২), ক্ষিপতন দাস (৪০) ও আশুক আলীকে (৩০) ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এদের মধ্যে কামরুল অটোর চালক এবং বাকিরা আরোহী বলে পুলিশ জানিয়েছে।  
ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা রোকনুজ্জামান বলেন,“সকাল সাড়ে ৮টার ঈশ্বরগঞ্জ থেকে যাত্রী নিয়ে অটোরিকশাটি ময়মনসিংহের দিকে যাচ্ছিল। পথে বিপরীতমুখী একটি মাহেন্দ্রের সঙ্গে সংঘর্ষ হলে পাঁচজন আহত হয়।”

আতহদের উদ্ধার করে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসক হামিদাকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান তিনি।

ভালুকায় ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযানের ঘটনায় মামলা, গ্রেপ্তার ২

ময়মনসিংহের ভালুকায় সন্দেহভাজন জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের ঘটনায় মামলা করেছে পুলিশ। ভালুকা মডেল থানার এসআই জীবন চন্দ্র বর্মণ বাদী হয়ে মঙ্গলবার মামলাটি করেন বলে ওসি মামুনর রশীদ জানিয়েছেন।           

এসআই জীবন চন্দ্র বলেন, মামলায় বাড়ির মালিক আজিম উদ্দিন ও নিহত আলম প্রামাণিকের স্ত্রী পারভীন আক্তারসহ অজ্ঞাত পরিচয় আরও কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে।

“বিস্ফোরণ ও অস্ত্র আইনে দায়ের করা এই মামলায় আজিম ও পারভীনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।” এছাড়া বাড়িওয়ালা আজিম উদ্দিনের স্ত্রী ফাতেমা আক্তার ও তাদের দুই ছেলে আশিক (২০) ও হাসানকে (১৮) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেওয়া হয়েছে বলে এসআই জীবন জানান।

রোববার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে ভালুকা উপজেলার হবিরবাড়ি ইউনিয়নের কাশর এলাকায় আধা-পাকা একটি বাড়িতে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণের পরপরই বাড়ির অন্য সদস্যরা পালিয়ে যান। ঘরের ভেতরে রক্তাক্ত একজনের নিথর দেহ পড়ে ছিল।  

ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বলেন, বিস্ফোরণে নিহত আলম প্রামাণিক নাটোর সদর উপজেলার তেলকুপি গ্রামের বাসিন্দা। তিনি নিষিদ্ধ জঙ্গি দল জেএমবির ‘আত্মঘাতী স্কোয়াডের সদস্য ও বোমা বিশেষজ্ঞ’ ছিলেন।  

সুতা ব্যবসায়ী পরিচয় দিয়ে স্ত্রী পারভীন আক্তার ও দুই ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে গত ২৪ অগাস্ট হবিরবাড়ি ইউনিয়নের কাশর এলাকার ওই বাড়িতে ওঠেন আলম।

সোমবার বেলা ১১টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত ওই বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার করা বিস্ফোরক নিষ্ক্রিয় করার পর পুলিশের কাউন্টার টেরিজম ইউনিটের ভালুকা অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়।

হবিরবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ বাচ্চু বলেন, বোমা বিস্ফোরণের পর দুই সন্তানকে নিয়ে পালিয়ে যান নিহতের স্ত্রী। পরে মসজিদের মাইকে তাদের ধরতে সাধারণ মানুষের কাছে সহযোগিতা চাওয়া হয়।

রাত সাড়ে ৯টার দিকে হবিরবাড়ি বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে পারভীনকে তার সাত ও এক বছর বয়সী দুই শিশুসহ আটক করে পুলিশে দেয় স্থানীয়রা।

 

নির্মাণাধীন ফিলিং স্টেশনের ছাদ ধসে ৪ জনের মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলায় একটি নির্মাণাধীন ফিলিং স্টেশনের ছাদ ধসের ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে চারজনে দাঁড়িয়েছে। তারা হলেন- উপজেলার যাত্রাপুর গ্রামের দুলাল মিয়া (৫০) ও নাজমুল (১৮) এবং সদর উপজেলার সাদেকপুর গ্রামের আবু সাঈদ (৪০) এবং জেলার সরাইল উপজেলার তেরকান্দা গ্রামের মিজান (৩২)। এ ঘটনায় আহত শিপন মিয়া (২৮), রিপন মিয়া (৩০) ও হানিফ মিয়া (৩৫) নামে আরও তিন শ্রমিককে স্থানীয় ডে-নাইট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত উদ্ধার কাজ চালাচ্ছে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট।

ঘটনাস্থল থেকে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন জানান, ধ্বংসস্তূপ থেকে এখন পর্যন্ত চারজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। নিহতদের প্রত্যেকের দাফনের জন্য জেলা প্রশাসন থেকে ২০ হাজার টাকা প্রদান করা হবে বলেও জানান তিনি। সোমবার বেলা ২টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক সংলগ্ন বাহাদুপুর এলাকায় জেলা সার সমিতির সভাপতি জালাল উদ্দিনের নির্মাণাধীন সায়েরা ফিলিং স্টেশনের ভবন নির্মাণের কাজ করছিলেন শ্রমিকরা। এ সময় হঠাৎ করে ছাদের বিভিন্ন অংশ ধসে শ্রমিকদের ওপর পড়ে যায়। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় তিনজনকে উদ্ধার করে ডে-নাইট হাসপাতালে পাঠায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কাজ চালিয়ে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে। পরে আরও তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ভালুকার ‘জঙ্গি আস্তানায়’ বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল

ময়মনসিংহের ভালুকায় সন্দেহভাজন জঙ্গি আস্তানার ভেতরে তল্লাশি শুরু করেছেন পুলিশের বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দলের সদস্যরা। ওই বাড়িতে বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহত সন্দেহভাজন জঙ্গির স্ত্রী ও দুই সন্তানের পাশাপাশি শেখ ভিলা নামের ওই বাড়ির মালিক, তার স্ত্রী ও তাদের দুই ছেলেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

জেলার পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম জানান, নিহতের পরিচয় সম্পর্কে তারা নিশ্চিত হয়েছেন। তার নাম আলম প্রামাণিক, বাড়ি নাটোর সদর উপজেলার তেলকুপি গ্রামে।

সুতার ব্যবসায়ী পরিচয় দিয়ে স্ত্রী নাম পারভীন আক্তার ও দুই ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে গত ২৪ অগাস্ট ভালুকা উপজেলার হবিরবাড়ি ইউনিয়নের কাশর এলাকার ওই বাড়িতে ওঠেন আলম।

রোববার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে আধা-পাকা ওই বাড়িতে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণের পরপরই বাড়ির অন্য সদস্যরা পালিয়ে যান। পরে পর ঘরের ভেতরে একজনের রক্তাক্ত নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়।

বিস্ফোরণের খবর পাওয়ার পর পুলিশ এসে বাড়িটি ঘিরে ফেলে।বোমা বানানোর সময় বিস্ফোরণের ওই ঘটনা ঘটে বলে প্রাথমিক ধারণার কথা বলেন পুলিশ কর্মকর্তারা।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ময়মনসিংহ দক্ষিণ) নূরে আলম জানান, তিন দিন আগে ওই পরিবার বাসায় উঠলেও স্থানীয়রা তাদের দেখেনি বলে জানিয়েছে।

ঘটনার পর বাড়ির মালিক আজিম উদ্দিন (৪৮) বলেছিলেন, নিহত ৩৫ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি ঘর ভাড়া নিয়েছিলেন আবদুল্লাহ নামে, বলেছিলেন তাদের বাড়ি কুষ্টিয়া।

বাড়িওয়ালা আজিম উদ্দিন, তার স্ত্রী ফাতেমা আক্তার এবং তাদের দুই ছেলেকে রাতেই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে পুলিশ।

হবিরবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ বাচ্চু জানান, বোমা বিস্ফোরণের পর দুই সন্তানকে নিয়ে পালিয়ে যান নিহতের স্ত্রী। পরে মসজিদের মাইকে তাদের ধরতে সাধারণ মানুষের কাছে সহযোগিতা চাওয়া হয়।

রাত সাড়ে ৯টার দিকে হবিরবাড়ী বাসন্ট্যান্ড এলাকা থেকে ওই তিনজনকে আটক করে পুলিশে দেয় স্থানীয়রা।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নূরে আলম জানান, ওই পরিবারের একবছর বয়সী সন্তানও বিস্ফোরণের ঘটনায় আহত হয়েছে। তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি রোববার রাতে ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর সাংবাদিকদের বলেন, নিহত ব্যক্তি কোনো জঙ্গি গোষ্ঠীর সঙ্গে জড়িত বলে তারা ধারণা করছেন।

পুলিশ সুপার নুরুল ইসলাম সোমবার সকালে নিহতের নাম পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার কথা বললেও সে কোন জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে জড়িত ছিল, সে বিষয়ে নতুন কোনো তথ্য দেননি।  

তিনি বলেন, “বোমা নিষ্ক্রিয়করণ দলের সদস্যরা ঢাকা থেকে এসে কাজ শুরু করেছেন। ভেতরে আরও বিস্ফোরক আছে কি না তারা দেখবেন। আটকদের জিজ্ঞাসাবাদ করলে আরও তথ্য পাওয়া যাবে বলে আমরা আশা করি।”

 

জামালপুরে এক জেএমবি আটক

জামালপুর প্রতিনিধি: জামালপুরে জঙ্গি গোষ্ঠী জেএমবির এক সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব। হাসান শেখ (৪৩) নামে সদর উপজেলার ছোনটিয়া গ্রামের এই বাসিন্দা কয়েক বছর ধরে পলাতক ছিলেন। র‌্যাব-১৪ জামালপুর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার হায়াতুল ইসলাম খান জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে নিজের গ্রাম থেকে হাসানকে আটক করা হয়। ২০০৯ সালের ২৭ অক্টোবর তার বিরুদ্ধে জামালপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের হয়। এরপর থেকে পলাতক ছিলেন তিনি।

ময়মনসিংহে ২ জনকে খুন করে গরু ডাকাতি

ময়মনসিংহ সদর উপজেলায় দুইজনকে খুন করে এক খামার থেকে ১০টি গরু ডাকাতির খবর পাওয়া গেছে। কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই সাইফুল ইসলাম জানান, রোববার রাতে উপজেলার পোটামারা গ্রামে আকাশী অ্যাগ্রো নামের একটি খামার থেকে ১০টি গরু ডাকাতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। সেখান থেকে উদ্ধার করা হয়েছে খামারের এক পাহারাদার ও স্থানীয় একজনের লাশ।

নিহতরা হলেন – ওই গ্রামের ইদ্রিস আলী (২৮) ও হাসু মোড়লের ছেলে মোজাফফর হোসেন (৪৫)। খামারের পাহারাদার আব্দুল হামিদ বলেন, “আট-দশ ডাকাতের একটি দল পাহারাদার ইদ্রিসকে খুন করে হাত-পা বেঁধে পাশের পুকুরে লাশ ফেলে দেয়। আর আমাকে মারধর করে হাত-পা বেঁধে রাখে।”

এরপর সকালে খামারের কাছের বাগান থেকে স্থানীয় বাসিন্দা মোজাফফরের লাশও উদ্ধার করে এলাকাবাসী। মোজাফফরের ভাতিজা ২৫ বছর বয়সী তানভীর হোসেন বলেন, “চাচা ডাকাতদের দেখে ফেলায় বা বাধা দেওয়ায় তারা তাকে খুন করেছে বলে ধারণা করছি।”

খামারের পরিচালক হারুন অর রশিদ বলেন, ইদ্রিস চার মাস আগে সেখানে চাকরি নেন। ডাকাতদের চিনে ফেলায় তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে তারা ধারণা করছেন।

তিনি বলেন, “ডাকাতরা খামারের ১০টি গরু নিয়ে গেছে। এর বাজার দর প্রায় আট লাখ টাকা।” পুলিশ ঘটনা তদন্ত করছে বলে জানিয়েছেন থানার ওসি কামরুল ইসলাম।

 

এই বিভাগের আরো খবর

জামালপুরে বন্যার পানিতে ডুবে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

জামালপুর প্রতিনিধি: জামালপুরের মাদারগঞ্জে বন্যার পানিতে গোসল করতে গিয়ে ডুবে এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে উপজেলার বালিজুড়ি এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। মৃত জয় (১৪) উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলামের ছেলে।

সে মাদারগঞ্জ সান শাইন একাডেমির অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ছিল। মাদারগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান জানান, জয় বালিজুড়ি এলাকায় বাড়ির পাশে বন্ধুদের সঙ্গে বন্যার পানিতে গোসল করতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। পরে খবর পেয়ে মাদারগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা জয়ের মৃত দেহ উদ্ধার করেন।

 

ময়মনসিংহে ট্রাকচাপায় নিহত ২

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় ট্রাকচাপায় দুই পথচারীর মৃত্যু হয়েছে। নান্দাইল মডেল থানার ওসি ইউনুস আলী জানান, বুধবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে উপজেলার চামটা এলাকায় ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন – উপজেলার মোয়াজ্জেমপুর ইউনিয়নের আতকাপাড়া গ্রামের সিরাজ উদ্দিন (৭০) ও কামালপুর গ্রামের তফাজ্জল হোসেন (৬৫)।

চামটা বাজারের মুদি দোকানি হযরত আলী বলেন, সিরাজ ও তফাজ্জল বাজারে রাস্তার পাশ দিয়ে হাঁটছিলেন।

“এ সময় ময়মনসিংহগামী একটি ট্রাক তাদের ওপর উঠে গেলে ঘটনাস্থলেই তারা মারা যান। স্থানীয়রা এগিয়ে গেলে চালক ট্রাক নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।”

এ ঘটনায় এলাকাবাসী ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ সড়ক অবরোধ করলেও কিছুক্ষণ পরে তারা নিজেরাই সরে যায় বলে তিনি জানান।

ওসি ইউনুস বলেন, স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

নেতাই নদীর বাঁধ ভেঙে ধোবাউড়ায় প্লাবন

ভারি বৃষ্টির মধ্যে নেতাই নদীর বাঁধ ভেঙে ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার অন্তত ৮০টি গ্রামে প্লাবন দেখা দিয়েছে।

ধোবাউড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মজনু মৃধা বলেন, তিন দিন ধরে টানা বৃষ্টি হচ্ছে। তার ওপর শনিবার ভেঙে গেছে নেতাই নদীর বাঁধ। এতে পাঁচ ইউনিয়নের অন্তত ৮০টি গ্রাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

দক্ষিণ মাইজপাড়া ইউনিয়নের ২০টি, গামারীতলা ইউনিয়নের ২০টি, পোড়াকান্দুলিয়া ইউনিয়নের ২৫টি, ঘোষগাঁও ইউনিয়নের ৫টি ও গোয়াতলা ইউনিয়নের প্রায় ১০টি গ্রামে পানি ঢুকেছে বলে জানান চেয়ারম্যান।

তিনি বলেন, পানিতে তলিয়ে গেছে এসব এলাকার রাস্তাঘাট ফসলি জমি, ভেসে গেছে বহু পুকুর। অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পানি ওঠায় পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে।

বন্যায় প্রায় ৮০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন।

ময়মনসিংহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী বলেন, অতিবৃষ্টি ও পাহাড়ি পানির চাপে কয়েকটি বাঁধ ভেঙে গেছে। তবে ময়মনসিংহের নদ-নদীর পানি এখনও বিপৎসীমার নিচে রয়েছে। আর বৃষ্টি না হলে পরিস্থিতি দ্রুত স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ভালুকায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় বাসের সঙ্গে ইটভাঙা গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে; এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৩০ জন।

ভালুকা থানার ওসি মামুনুর রশিদ জানান, উপজেলা ডাকবাংলোর সামনে সোমবার রাত ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ হতাহতদের নাম-পরিচয় জানাতে পারেনি।

ওসি রশিদ  বলেন, ঢাকাগামী শ্যামলী পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা ইটভাঙা গাড়ির সংঘর্ষ হয়। “এতে ঘটনাস্থলেই একজন এবং ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর আরও দুইজন মারা যান।”

আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছ বলে তিনি জানান।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ময়মনসিংহে ছুরিকাঘাতে নিহত ১

ময়মনসিংহে ‘বন্ধুদের সঙ্গে ঝগড়ার জেরে’ ছুরিকাঘাতে এক দোকান কর্মচারী নিহত হয়েছেন; আহত হয়েছেন আরেকজন। শুক্রবার শহরের ভাটিকাশর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে বলে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি কামরুল ইসলাম জানান।

নিহত সৌরভ হোসেন (২৪) শহরের গাঙ্গিনার পাড়ের একটি দোকানে কাজ করতেন। তিনি শহরের নাটক ঘরলেন এলাকার মামুন মিয়ার ছেলে।

আহত হাসানকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ওসি কামরুল বলেন, “বিকালে দোকান কর্মচারী সৌরভের সঙ্গে বন্ধুদের ঝগড়া হয়। এর জেরে রাত ৯টার দিকে তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় সৌরভ ও হাসান আহত হন।”

পরে দুজনকেই ময়মনসিংহ মেডিকেলে নেওয়া হলে সেখানে সৌরভের মৃত্যু হয় বলে জানান তিনি।

 

এই বিভাগের আরো খবর

গফরগাঁওয়ে ফের ট্রেন থেকে ফেলে দিয়ে যুবককে হত্যা

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি : গফরগাঁও-ময়মনসিংহ রেলপথে দুর্বৃত্তদের তান্ডব যেন থামছেই না। ট্রেনের ছাদে ভ্রমণ করতে গিয়ে ডাকাতের কবলে পড়ছেন গফরগাঁও-ময়মনসিংহ রেলপথের ট্রেন যাত্রীরা। প্রায়ই হানা দিয়ে যাত্রীদের সর্বস্ব লুটে নিয়ে  ট্রেনের ছাদ থেকে ফেলে দিচ্ছে দুর্বৃত্তরা। এসব ঘটনায়  কেউ নিহত হচ্ছেন কেউবা আবার চিরতরে পঙ্গু হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন।

গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা ময়মনসিংহগামী ভাওয়াল এক্সপ্রেস ট্রেনটি গভীর রাতে গফরগাঁওয়ে ভাসুটিয়া এলাকায় পৌছলে দুর্বৃত্তরা অজ্ঞাত (৩০) এক যুবকের সর্বস্ব লুটে ট্রেনের ছাদ থেকে ফেলে দেয় বলে স্থানীয় ও রেলওয়ে জিআরপি পুলিশ ধারনা করছেন। এখনো পর্যন্ত নিহত এই যুবকের পরিচয় জানা যায়নি। বুধবার দুপুরে জিআরপি পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

উল্লেখ্য,গত বছরের ১০ আগষ্ট গফরগাঁওয়ের রৌহা নামক স্থানে ভাওয়াল এক্সপ্রেস ট্রেনের ছাদে সর্বস্ব ছিনিয়ে নিয়ে অজ্ঞাত ছুবককে ফেলে দেয় দুর্বৃত্তরা। এতে ওই যুবক মারা যান। এছাড়াও গত বছরের সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে জামালপুরের বৃদ্ধ নূরুল ইসলাম অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে এক যুবক, চলতি বছরের জুন মাসে জামাল পুরের আরেক যুবককে দূর্বৃত্তরা সর্বস্ব ছিনিয়ে নিয়ে ট্রেনের ছাদ থেকে ফেলে দেয়। পরে স্থানীয়রা জিআরপি পুলিশের সহায়তায় আহদের উদ্ধার করে গফরগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স ভর্তি করেন। সেখানে দীর্ঘদিন চিকিৎসা নিয়ে আহতরা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে যান।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আলম আরা বেগম জানান, সর্বস্ব লুটে নিয়ে ট্রেনের ছাদ থেকে ফেলে দেয়ার ঘটনায় গত ৮ মাসে অন্তত ৭ জন চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। এছাড়াও অনেক রোগী গুরুতর অবস্থায় আমাদের এখানে না এনে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন স্থানীয়রা। আর যে সকল যাত্রী নিহত হন সেগুলোর ব্যাপারে আমাদের অবগত করা হয় না।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ময়মনসিংহ মহানগর যুবলীগ নেতা রনি বহিস্কার

উচ্ছশৃংখল কর্মকান্ডের অভিযোগে ময়মনসিংহ মহানগর যুবলীগের সদস্য মনিরুজ্জামান রনিকে সংগঠন থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। শনিবার যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, একটি জাতীয় দৈনিকে ‘আসামী ছিনিয়ে ফাড়িঁতে হামলা’ শিরোনামের সংবাদটি যুবলীগ কার্যনির্বাহী কমিটির দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে। ওই সংবাদে ময়মনসিংহ মহানগর শাখার আহবায়ক কমিটির সদস্য মনিরুজ্জামান রনির উচ্ছশৃংখল কর্মকান্ডের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ আনা হয়েছে, প্রাথমিক ভাবে যুবলীগ কার্যনির্বাহী কমিটির বিবেচনায় সংগঠনের একজন নেতার এরূপ উচ্ছশৃংখল কর্মকান্ডের সংশ্লিষ্টতা সংবাদটি যথার্থ মনে হওয়ায় উচ্ছশৃংখল সংশ্লিষ্ট কর্মকান্ডের অভিযোগে মনিরুজ্জামান রনিকে যুবলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহি কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক বহিস্কার করা হয়েছে।

 

ময়মনসিংহে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: ময়মনসিংহ সদরের বাইপাস এলাকার ময়নামোড়ে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নারীসহ দুইজন নিহত হয়েছে। এ সময় কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে।  সোমবার দুপুরে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। তবে নিহতদের নাম পরিচয় এখনো জানা যায়নি। আহতদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা নেত্রকোনাগামী ও শেরপুর থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী দুটি বাসের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে গুরুতর আহতদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে অজ্ঞাত এক নারী (৩৫) ও অজ্ঞাত (৩০) এক যুবকসহ দুইজন মারা যায়। বাকী আহতদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

ময়মনসিংহে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার দশম শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। শনিবার দুপরে ওই শিক্ষার্থীর বাবা হয়ে দুইজনকে আসামি করে এ মামলাটি দায়ের করেন বলে নান্দাইল মডেল থানার ওসি ইউনূস আলী  জানান।

মামলার বরাত দিয়ে ওসি তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে প্রকৃতির ডাকে মেয়েটি ঘর থেকে বাহিরে গেলে একই এলাকার আব্দুল কাদিরের বখাটে ছেলে ইব্রাহিম (২৫) তাকে ধর্ষণ করে বাড়ির পাশে একটি খালে ফেলে পালিয়ে যায়।

ওই ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বিকালে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ময়মনসিংহে শিশুকে ‘ধর্ষণের চেষ্টা’

ময়মনসিংহ শহরে ছয় বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে ষাটোর্ধ্ব এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। শনিবার আরকে মিশন রোডে এ ঘটনা ঘটে। শিশুটিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ঘটনার পর আব্দুস সালাম নামের ওই ব্যক্তি পালিয়ে গেছেন বলে স্থানীয়রা জানান।

শিশুটির মা সাংবাদিকদের বলেন, সকালে আব্দুস সালাম ঠাণ্ডা পানীয় খাওয়ানোর কথা বলে শিশুটিকে তার ঘরে ডেকে নিয়ে যান। খালি ঘরে একা পেয়ে তিনি তার মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন।

“কান্না করতে করতে মেয়েটি ঘর থেকে বের হয়ে আসে এবং প্রস্রাব করলে রক্ত বের হতে থাকে।” পরে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে ঘটনাটি জানায়। পরে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। বিষয়টি জানাজানি হলে আব্দুস সালাম বাসা থেকে পালিয়ে যান বলে মেয়েটির মা জানান।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনি বিভাগের চিকিৎসক এ কে এম আবুল হোসাইন বলেন, “শিশুটির প্রস্রাবের রাস্তায় ক্ষত চিহ্ন আছে, তাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে কিনা নিশ্চিত হতে প্যাথলজিক্যাল পরীক্ষার জন্য ল্যাবে সোয়াপ পাঠানো হয়েছে।”

ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি কামরুল ইসলাম জানান, বিষয়টি তারা শুনেছেন এবং আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

 

ময়মনসিংহে সংঘর্ষে নিহত ২

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় আধিপত্য বিস্তারের জেরে সংঘর্ষের মধ্যে দুইজনের প্রাণ গেছে। আহত হয়েছেন অন্তত পাঁচজন। মুক্তাগাছা থানার ওসি আক্তার মুর্শেদ জানান, উপজেলার ঘোগা ইউনিয়নের বিজয়পুর গ্রামের বৃহস্পতিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন নজরুল ইসলাম (৪২) ও ময়েজ উদ্দিন (৪৫)। আহতদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে চার জনকে আটকের কথা জানিয়েছেন ওসি। ঘোগা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশুতোষ দে বলেন, এলাকায় অধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্থানীয় নজরুল গ্রুপের সঙ্গে মানু গ্রুপের বিরোধ চলছিল।

“সকালে মানুর লোকজন দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে নজরুলের লোকজনের ওপর হামলা চালায়। পরে নজরুলের সমর্থকেরা পাল্টা হামলা করলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়।”

ওসি আক্তার বলেন, “সংঘর্ষের মধ্যে ঘটনাস্থলেই নজরুলের মৃত্যু হয়। আহত অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে ময়েজের মৃত্যু হয়।”

পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে। এলাকায় বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

 

ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত

 ময়মনসিংহ প্রতিনিধি : ময়মনসিংহ নান্দাইল উপজেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত হয়েছে। নিহতরা হলেন,  নজরুল ( ৪০),  লিটন ( ২৩) ও অজ্ঞাত আরেক যুবক। দু’টি দুর্ঘটনায় আরও ১৫ জন আহত হয়েছে। তবে আহতদের নাম পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি।

শনিবার  সকাল সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার চামটা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ভৈরব থেকে ময়মনসিংহগামী শ্যামল ছায়া নামক একটি যাত্রীবাহী বাস ঠেলা গাড়ী চালক নজরুল ইসলামকে (৪০) চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। সে উপজেলার চামটা গ্রামের বাসিন্দা। এদিকে দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার পৌর বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে  সিএনজি এবং ব্যাটারি চালিত অটো রিক্সাকে ধাক্কা দিলে লিটন নামে এক যুবক (২৩) নিহত হয়। সে উপজেলার পাটপাড়া গ্রামের মোঃ তারা কসাইয়ের ছেলে। একই দুর্ঘটনায় হাসপাতালে নেয়ার সময় অজ্ঞাত আরেক যুবকের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা যায়। তবে এ ঘটনায় একটি সিএনজি ও দুইটি ব্যাটারি চালিত অটো রিক্সা ধুমড়ে মুচড়ে গেছে।

খবর পেয়ে ঈশ্বরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট উদ্ধার কাজ পরিচালনা করেন। ঈশ্বরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন ইনচার্জ মোঃ রুকনুজ্জামান রুকন জানায়, শনিবার (৩ জুন) দেড়টার দিকে ময়মনসিংহ থেকে ছেড়ে আসা এমকে সুপার বাসটি কিশোরগঞ্জের দিকে যাচ্ছিলেন। উপজেলার পৌর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পৌঁছলে বাসটি ব্রেক ফেল করে। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি সিএনজি ও দুইটি ব্যাটারি চালিত অটো রিক্সার সঙ্গে বাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলেই তারা কসাইয়ের ছেলে লিটন নিহত হয়। এ সময় অজ্ঞাত অন্তত আরও ১৫ জন আহত হয়েছে। তবে ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এদিকে নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন, আহত ১৫ জনের মধ্যে গুরুতর আহত ৭ জনের অবস্থার অবনতি হলে তাদেরকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

 

ময়মনসিংহে বাস খাদে পড়ে নিহত ৩

ময়মনসিংহের ত্রিশালে একটি বাস খাদে পড়ে তিন যাত্রী নিহত এবং ১৫ জন আহত হয়েছেন। শনিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ত্রিশালের রায়মনি চেলেরঘাট এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে ত্রিশাল থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান।  

তিনি বলেন, মুক্তাগাছা থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী ইসলাম পরিবহনের বাসটি চেলের ঘাট এলাকায় আরেকটি বাসকে পাশ কাটানোর সময় চালক নিয়ন্ত্রণ হারান। ফলে বাসটি রাস্তার পাশের খাদে পড়ে যায় এবং ঘটনাস্থলেই এক শিশু ও এক নারীর মৃত্যু হয়।

আহত অবস্থায় ১৫ জনকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও একজনের মৃত্যু হয়।

ওসি বলেন, চালক অতিরিক্ত গতিতে বাসটি চালানোর কারণেই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে বলে আহত যাত্রীরা অভিযোগ করেছেন।



Go Top