রাত ১১:৪৬, শুক্রবার, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং
/ বিনোদন

বিনোদন প্রতিবেদক : এরইমধ্যে মালেক আফসারী পরিচালিম মুক্তি প্রতীক্ষিত চলচ্চিত্র ‘অন্তর জ্বালা’র সংবাদ সম্মেলন হয়েগেলো। সংবাদ সম্মেলনে জায়েদ খান ও পরীমণির অভিনয়ের প্রশংসা করার পাশাপাশি মালেক আফসারী আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন মৌমিতা মৌকে নিয়ে। মালেক আফসারী বলেন,‘ অন্তরজ্বালা চলচ্চিত্রে মৌমিতা মৌ’কে দর্শক মুটকি চরিত্রে অভিনয় করতে দেখবেন।

এই চরিত্রটি যথাযথভাবে ফুটিয়ে তোলার জন্য মৌমতিাকে আমি বেশি বেশি বার্গার খেতে বলেছিলাম যাতে সে মোটা হয়। মুটকি চরিত্রটি যেন তাকে যথাযথই লাগে এ কারণেই তাকে বার্গার খেয়ে মোটা হতে বলেছিলাম। মৌমিতা আপ্রাণ চেষ্টা করেছে তার চরিত্রটি ফুটিয়ে তুলতে এবং আমার বিশ্বাস অন্তরজ্বালা মুক্তির পর দর্শক মৌমিতাকে নিয়ে আলোচনা করবেন। মৌমিতা মৌ বলেন, ‘ চলচ্চিত্র মুক্তির আগে অনেকেই আলোচনায় আসে। কিন্তু মুক্তির পর অনেক ক্ষেত্রে ঠিক তার উল্টো হয়। এতে করে সমালোচনায় পড়তে হয়।

 আমি মনে করি, আমার ক্ষেত্রে এটা হবে না। ‘অন্তর জ্বালা’ মুক্তির পর আমাকে নিয়ে আলোচনা হবে। আর এটাই হবে আমার স্বার্থকতা, আমার জন্য প্লাস পয়েন্ট।’ মৌমিতা আরো বলেন, ‘ আফসারী স্যারের সঙ্গে কাজ করা না হলে চলচ্চিত্র সম্পর্কে আমার অনেক কিছুই অজানা থেকে যেতো। তার নির্দেশনায় কাজ করে অনেক কিছু জেনেছি, শিখেছি। ‘অন্তর জ্বালা’ চলচ্চিত্রটি আমার ক্যারিয়ারে অন্যতম সেরা একটি কাজ হবে বলে মনে করি। আমি সত্যিই বলছি, পরিচালক মালেক আফসারীর সান্নিধ্যে কাজ করাটা ভাগ্যের ব্যাপার।

 চলচ্চিত্রটিতে অভিনয়ের সময় অনেক কষ্ট করেছি। আমার বিশ্বাস আমাদের সে কষ্ট বৃথা যাবেনা।’ নায়ক মান্নার অন্ধ ভক্তের কাহিনী নিয়ে নির্মিত হয়েছে ‘অন্তর জ্বালা’। এরইর মধ্যে নানা কারণে চলচ্চিত্রটি এসেছে আলোচনায়। চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা করেছে চিত্রনায়ক জায়েদ খান নিজেই। পরিবেশনা করছে কৃতাঞ্জলি কথাচিত্র। উল্লেখ্য মৌমিতা মৌ বর্তমানে চারটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন। চলচ্চিত্রগুলো হচ্ছে ‘পুলিশ বাব’ু, ‘রাগী’, ‘গোপন সংকেত’ ও ‘রক্তাক্ত সুলতানা’। আগামী বছর যদি চলচ্চিত্রগুলো ঠিকঠাকভাবে শেষ হয় তবে আগামী বছরই চলচ্চিত্রগুলো মুক্তি পাবে। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।

এই বিভাগের আরো খবর

দোদুলের নির্দেশনায় মুক্তিযুদ্ধের নাটকে কবরী-সাফা

অভি মঈনুদ্দীন : এই প্রজন্মের দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী সাফা। অভিনয়ের আঙ্গিনায় পদচারণার আগেই এদেশের চলচ্চিত্রের কিংবদন্তী নায়িকা কবরী সম্পর্কে বেশ ভালোভাবে অবগত তিনি। সিনেমা হলে গিয়ে কবরী অভিনীত চলচ্চিত্র দেখার সুযোগ সাফা না পেলেও ইউটিউবে এবং টিভি চ্যানেলে কবরী অভিনীত চলচ্চিত্র দেখার সুযোগ হয়েছে। নিজের ভালোলাগা থেকেই সাফা উপভোগ করেছেন কবরী অভিনীত ‘আবির্ভাব’, ‘সারেং বউ’, ‘নীল আকাশের নীচে’,‘অধিকার’সহ আরো বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্র। কিন্তু যখনই সাফা জানতে পারলেন ১২ ডিসেম্বর তিনি কবরী’র সঙ্গেই একটি নাটকে অভিনয় করতে যাচ্ছেন তখন থেকে যেন অনেক উচ্ছসিত ছিলেন তিনি। আবার কিছুটা ভয়েও ছিলেন, কারণ এতো বড় একজন অভিনেত্রীর সঙ্গে একই ফ্রেমে একসঙ্গে অভিনয় করতে যাচ্ছেন-পারবেন কী পারবেন না সেই ভয়টাই কাজ করছিলো সাফার মনে মনে। কবরী সম্পর্কে তাই শুটিং-এর আগে আরো অনেক কিছুই জেনে নিলেন।

 দেখে নিলেন তার অভিনীত আরো কয়েকটি চলচ্চিত্র। যেমন ‘রংবাজ’, ‘দেবদাস’, ‘দুই জীবন’, ‘আমাদের সন্তান’,‘ তিতাস একটি নদীর নাম’। সাফা’র ভাষ্য হচ্ছে এমন যে কবরী’র মতো কিংবদন্তী একজন নায়িকার সঙ্গে অভিনয় করবেন তিনি, আর তার সম্পর্কে, তার অভিনয় সম্পর্কে ধারণা থাকবেনা-এমনটি হতে পারেনা। অবশেষে কবরী’র সঙ্গে একই ফ্রেমে অভিনয় করলেন সাফা গেলো ১২ ডিসেম্বর। সাজ্জাদ হোসেন দোদুলের রচনা ও নির্দেশনায় ‘ডেটলাইন ২০১৭’ নাটকে কবরীর মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। নাটকটির গল্প প্রসঙ্গে পরিচালক সাজ্জাদ হোসেন দোদুল বলেন,‘ এই নাটকে কবরী আপা একজন বীরাঙ্গনার চরিত্রে অভিনয় করেছেন। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে একটি মানচিত্রের জন্য, একটি দেশের জন্য তিনি তাকে বীরাঙ্গনা হতে হয়েছিলো। কিন্তু আজ ২০১৭ তে এসে তার মেয়েও ধর্ষিত হয়। কিন্তু তার মেয়ে যে ধর্ষিত হলো, কী সেক্রিফাইস করতে গিয়ে মেয়েটি আজকের এই সমাজে, এই সময়ে ধর্ষিত হলো? এক সময় এই সমাজের এমন নরপিশাচদের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলনে যেতে চায় মা। কিন্তু মেয়েটি সমাজের মানুষকে মুখ দেখাতে না পেরে আতœহত্যার পথ বেছে নেয়। এ দেশের জন্য মা বীরাঙ্গনা হয়েছিলো, কিন্তু ২০১৭তে এসে তার মেয়ে নিজের ইজ্জত হারিয়ে কী পেলো?

  এমনই গল্প নিয়ে আমি নির্মাণ করেছি ডেটলাইন ২০১৭’ নাটকটি। ’ দোদুল আরো বলেন,‘ এতে বীরাঅভিনয় করেছেন। তার সহযোগিতা ছাড়া দুটি সময়ের দু’টি প্রেক্ষাপট নিয়ে এ নাটক নির্মাণ করা আমার জন্য কঠিন হয়ে যেতো।’ আগামী ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসে বাংলাভিশনে প্রচারের লক্ষে ‘ডেটলাইন ২০১৭’ নাটকটি নির্মিত হয়েছে। এতে কবরী’র সঙ্গে অভিনয় প্রসেেঙ্গ সাফা বলেন,‘ কবরী ম্যাডাম এতো বড় মাপের একজন নায়িকা যে, তারসঙ্গে অভিনয় করতে পেরেছি এটাই আমার অভিনয় জীবনের অনেক বড় অর্জন। অভিনয়ের পথচলায় এই অর্জনটা আমার চলার পথে পাথেয় হয়ে থাকবে। তিনি এতো বড় একজন শিল্পী হয়ে আমাকে অনেক আদর করেছেন, শুটিং-এর সময় অভিনয়ে দারুণ সহযোগিতা করেছেন। যেকোন দৃশ্য ধারনের আগে তিনি আর আমি রিহার্সেল করেছি। কী যে ভালোলঅগা ছুঁয়েগেছে আমার মনের ভেতর তা বুঝাতে পারবোনা। আমি অনেক কৃতজ্ঞ দোদুল ভাইয়ের কাছে এবং অনেক অনেক শ্রদ্ধা ভালোবাসা কবরী ম্যাডামের জন্য।’ চলচ্চিত্রের জীবন্ত কিংবদন্তী নায়িকা কবরী ২০১৩ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ‘আজীবন সম্মাননা’য় ভূষিত হন। এদিকে সাফা গতকাল থেকে ময়মনসিংহে সরাজের নির্দেশনায় তৌসিফ মাহবুবের সঙ্গে একটি শর্টফিল্মের শুটিং শুরু করেছেন। আজ বুদ্ধিজীবী দিবসে আবু হায়াত মাহমুদ পরিচালিত মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক নাটক ‘অভিমান’ আজ রাত ৭.৫০ মিনিটে চ্যানেলে আইতে প্রচার হবে। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।

এই বিভাগের আরো খবর

চ্যালেঞ্জিং চরিত্রেই কাজ করতে আগ্রহ আমার-পপি

বিনোদন রিপোর্টার : অভিনয় শিল্পের পথে যারা কাজ করেন তাদের মনে অভিনয়কে ঘিরে নানান ধরনের চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে কাজ করার স্বপ্ন থাকে। অনেকের সে স্বপ্ন পূরণ হয় আবার অনেকেরই শেষ বয়সে এসেও পূরণ হয়না। অভিনয়ে পথে চলতে চলতে অভিনয়ে নিজেকে যখন অনেক অভিজ্ঞ করে তুলেছেন ঠিক সে সময়ই তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত নায়িকা পপি নিজের স্বপ্নের একটি চলচ্চিত্রে কাজ করার সুযোগ পেলেন। সেই স্বপ্নপূরণে এগিয়ে এসেছেন নন্দিত চলচ্চিত্র পরিচালক শহীদুল হক খান।

শহীদুল হক খানের নতুন চলচ্চিত্র ‘টার্ন’-এ অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন পপি চলতি সপ্তাহেই। এই চলচ্চিত্রে দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করবেন তিনি। একটি স্বাভাবিক চরিত্র অন্যটি প্রতিবন্ধী এক মেয়ের চরিত্রে। স্বাভাবিক অনেক চরিত্রে এর আগে পপি অভিনয় করেছেন কিন্তু প্রতিবন্ধী কোন মেয়ের চরিত্রে এবারই প্রথম তিনি অভিনয় করতে যাচ্ছেন। বছরের শেষপ্রান্ত নতুন চলচ্চিত্রে চুক্তিবদ্ধ হওয়া এবং চ্যালেঞ্জিং একটি চরিত্রে অভিনয় করা প্রসঙ্গে পপি বলেন,‘ গতানুগতিক অনেক গল্পের চলচ্চিত্রে কাজ করার জন্য প্রস্তাব আসে। কিন্তু সেসব চলচ্চিত্রে কাজ করার আগ্রহবোধই করিনা।

ভিন্ন ধরনের গল্প, চ্যালেঞ্জিং চরিত্রেই আমি সবসময় কাজ করে আসছি। টার্ন চলচ্চিত্রের গল্প যেমন অসাধারণ ঠিক তেমনি প্রতিবন্ধী যে মেয়ের চরিত্রে আমি অভিনয় করতে যাচ্ছি তা অনেক চ্যালেঞ্জিং। এই ধরনের চরিত্রে কাজ করার স্বপ্ন ছিলো আমার। আমি সত্যিই নার্ভাস যথাযথভাবে কাজটি করতে পারবো কী না। এই চরিত্রে কাজ করার জন্যই এখন আমার সবধরনের প্রস্তুতি নিতে হচ্ছে।’ পপি জানান আসছে ২০১৮ সালের জানুয়ারি মাসেই তার নতুন চলচ্চিত্র ‘টার্ন’র শুটিং শুরু হবে। তবে এতে তার সহশিল্পী হিসেবে কে কে থাকবেন তা এখনো চুড়ান্ত নয়। ‘টার্ন’ চলচ্চিত্রের গল্প লিখেছেন পরিচালক নিজেই।

 পপি অভিনীত সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র জাহাঙ্গীর আলম সুমন পরিচালিত ‘সোনাবন্ধু’। ‘পৌষ মাসের পীরিত’। মুক্তির অপেক্ষায় আছে তার অভিনীত ‘শর্ট কাটে বড় লোক’,‘ জীবন যন্ত্রণা’ ও ‘দুই ভাইয়ের যুদ্ধ’। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পপি’র হাতে প্রথম উঠে কালাম কায়সার পরিচালিত ‘কারাগার’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে। এরপর নারগিস আক্তারের ‘মেঘের কোলে রোদ’ এবং সৈয়দ ওয়াহিদুজ্জামান ডায়ম-ের ‘গঙ্গাযাত্রা’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে একই পুরস্কারে ভূষিত হন তিনি। পপি ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি’র কার্যনির্বাহী পরিষদের একজন সদস্য।  ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার

এই বিভাগের আরো খবর

শাহীন সামাদের উপস্থাপনায় বিজয়ের গান গাইলেন তারা

বিনোদন রিপোর্টার : একুশে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য নজরুল সঙ্গীত শিল্পী ও স্বাধীনতা সংগ্রামের কন্ঠযোদ্ধা শাহীন সামাদের উপস্থাপনায় আসছে বিজয় দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশে টেলিভিশনে প্রচারের জন্য নির্মিত হয়েছে বিজয়ের গানের বিশেষ সঙ্গীতানুষ্ঠান ‘বিজয় নিশান উড়ছে ঐ’। মাহবুবা ফেরদৌস’র প্রযোজনায় অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেছেন রাশেদ, অপু, সাব্বির, রন্টি দাশ, লুইপা, প্রিয়াংকা, সুস্মিতা, মার্লিন, নন্দিতা ও বাঁধন। অপু ও লুইপা’ গেয়েছেন ‘আহা ধন্য আমার জন্মভূমি’ এবং সাব্বির গেয়েছেন ‘যে মাটির বুকে ঘুমিয়ে আছে’, রাশেদ গেয়েছেন ‘মাগো ভাবনা কেন’, রন্টি গেয়েছেন ‘ও মাঝি নাও ছাইড়া দে মাঝি পাল উড়াইয়া দে’ গানগুলো।

 পাশাপাশি মার্লিন, সুস্মিতা, নন্দিতা ও বাঁধন গেয়েছেন যথাক্রমে ‘জন্ম আমার ধন্য হলো’, ‘এক সাগরও রক্তের বিনিময়ে’, ‘একতারা লাগেনা আমার’ ও ‘হায়রে আমার মন মাতানো দেশ’। শাহীন সামাদের প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় শিল্পীরা উপস্থাপনার ফাঁকে ফাঁকে বিজয়ের গান পরিবেশন করেন। অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কিংবদন্তী সঙ্গীত পরিচালক সুজেয় শ্যাম। অনুষ্ঠানে সমবেত কন্ঠে সবাই গেয়েছেন ‘বিজয় নিশান উড়ছে ঐ’ গানটি। গানটির কথা লিখেছেন শহীদুল ইসলাম এবং সুর সঙ্গীত করেছেন সুজেয় শ্যাম।

অনুষ্ঠানটি প্রসঙ্গে শাহীন সামাদ বলেন,‘ এমন একটি অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা করতে সত্যিই ভীষণ ভালোলেগেছে। অনুষ্ঠানকে ঘিরে যা মাথায়  এসেছে তাই নিয়ে কথা বলেছি। যারা গান গেয়েছে সবাই এই প্রজন্মের। প্রত্যেকেই খুব আন্তরিকতা নিয়ে গানগুলো গেয়েছে। বেশ আবেগ দিয়েই তারা গানগুলো গাওয়ার চেষ্টা করেছে। আমার মনে হয় এই ধরনের অনুষ্ঠানে শুধু বিজয় দিবস এলেই নয় বছরজুড়ে বেশি বেশি হওয়া উচিত।’ ‘বিজয় নিশান উড়ছে ঐ’ অনুষ্ঠানের প্রযোজক মাহবুবা ফেরদৌস জানান বিজয় দিবসের আগের দিন রাত দশটার ইংরেজি সংবাদের পর অনুষ্ঠানটি প্রচার হবে। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।

এই বিভাগের আরো খবর

‘অন্তর জ্বালা’র মুক্তির আগে তারকারা যা বললেন

অভি মঈনুদ্দীন : আর মাত্র তিনদিন বাকী অ্যারেঞ্জড মেকার মালেক আফসারী পরিচালিত নতুন চলচ্চিত্র ‘অন্তর জ্বালা’ মুক্তির। বিজয় দিবসে প্রয়াত অমর নায়ক মান্নাকে উৎসর্গ করে এই চলচ্চিত্রটি মুক্তি পাচ্ছে আগামী ১৫ ডিসেম্বর। আর এ চলচ্চিত্রের মুক্তির উপলক্ষে গত রোববার সন্ধ্যায় রাজধানীর নিকুঞ্জে একটি অভিজাত হোটেলে হয়ে গেল এক সংবাদ সম্মেলন। এতে চলচ্চিত্রের কলাকুশলীদের পাশাপাশি এই সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন নৃত্য পরিচালক মাসুম বাবুল’সহ আরো অনেকে।  শান্তা জাহানের উপস্থাপনায় সংবাদ সম্মেলনে চলচ্চিত্রটি নিয়ে পরীমণি বলেন,‘ আমি অন্তর জ্বালা’র একটি অংশ মাত্র। একটি চরিত্রে অভিনয় করেছি আমি। সবাই যার যার চরিত্রে অসাধারণ অভিনয় করেছেন। এটি সময়োপযোগী একটি ভালো গল্পের চলচ্চিত্র।

 যারা নিজেদের ছোটবেলা ফিরে পেতে চান, তারা এই চলচ্চিত্র দেখুন। যারা সত্যিকার অর্থে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র দেখতে চান তারা এই চলচ্চিত্র দেখুন। আমি চ্যালেঞ্জ নিয়ে বলতে পারি যারাই হলে এই চলচ্চিত্র দেখবেন তাদের সবারই ভালোলাগবে। যদি ভালো না লাগে আমি পরী টিকেটের টাকা ফিরতে দিবো।’   ‘অন্তর জ্বালা’র নির্মাতা মালেক আফসারী বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন থেকেই সিনেমায় আছি। এই রকম অনুষ্ঠান আমরা আগে নিয়মিত করতাম। এই অনুষ্ঠানে এসে সবাইকে বলবো এটা টোটাল একটা বাংলা সিনেমা।

 ডিরেক্টর থেকে শুরু করে, অভিনেতা অভিনেত্রী টেকনিশিয়ান সবাই আমরা বাংলাদেশী। আমার আত্মবিশ্বাস আমি মনে হয় দর্শকের কাছে যাওয়ার মতো কিছু করেছি। চলচ্চিত্রটির প্রযোজক জায়েদ খান। তিনি এতে মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন। পরীমণি, মৌমিতা মৌ, জয়,সহ আরো যারা আছেন তারা চলচ্চিত্রটিকে অলংকৃত করেছেন। আশাকরি দর্শক অনেক উপভোগ করবেন চলচ্চিত্রটি। জায়েদ খান বলেন, চলচ্চিত্রটিতে নায়ক নয় একজন অভিনেতা হিসেবে দর্শক আমাকে পর্দায় দেখতে পাবেন।’ চলচ্চিত্রটির গল্প লিখেছেন আব্দুল্লাহ জহির বাবু। সংলাপও তার।

এই বিভাগের আরো খবর

বছরের শেষে বিজ্ঞাপনে শর্মিলী আহমেদ

অভি মঈনুদ্দীন ঃ চলতি বছরে প্রথম বিজ্ঞাপনে কাজ করা প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে বরেণ্য অভিনেত্রী শর্মিলী আহমেদ স্মৃতির পাতায় সেই আশির দশকের শুরুতে চলে গিয়ে গিয়েছিলেন। কারণ আশির দশকের শুরুইে তিনি প্রথম সদরুল পাশার নির্দেশনায় ধুপকাঠি’র বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করেন। সেই থেকে আজ অবধি বহু বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছেন তিনি। ২০১৭ সাল’র শেষ মাস চলছে। আর এই মাসেই এ বছরের প্রথম বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছেন শর্মিলী আহমেদ গেলো ৭ ডিসেম্বর। তরুণ বিজ্ঞাপন নির্মাতা সুজন সরকারের নির্দেশনায় ‘ভিগো ওয়াশিং মেশিন’র বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করেছেন তিনি। রাজধানীর অদূরে পূবাইলের একটি শুটিং বাড়িতে বিজ্ঞাপনটির দৃশ্য ধারনের কাজে অংশ নেন শর্মিলী আহমেদ।

 বিজ্ঞাপনটিতে কাজ করা প্রসঙ্গে শর্মিলী আহমেদ বলেন,‘ সুজন সরকারের নির্দেশনায় এবারই প্রথম বিজ্ঞাপনে কাজ করেছি। তরুণ এই ছেলেটির কাজ আমার খুব ভালোলেগেছে। চমৎকার ইউনিটে সবার বেশ আন্তরিকতার মধ্যদিয়ে কাজটি শেষ করেছি। আমি, আমরা যারা এই বয়সে এখনো কাজ করছি, তারা একটু আরাম আয়েশে কাজ করতে চাই। সুজন সেই আরাম দিয়েই কাজটি করেছে। আশা করছি বিজ্ঞাপনটি দর্শকের কাছেও ভালোলাগবে।’ বিজ্ঞাপনের গল্প অনুযায়ী শর্মিলী আহমেদকেই প্রয়োজন ছিলো বলে তাকে নিয়েই বিজ্ঞাপনটি নির্মাণ করা হয়েছে বলে জানান সুজন সরকার। পরিচালক জানান বিজয় দিবসের আগের দিন থেকে দেশের প্রায় সব ক’টি চ্যানেলে বিজ্ঞাপনটি প্রচারে আসবে।

 এদিকে শর্মিলী আহমেদ গতকাল সাভারে তার অভিনীত এসএটিভিতে প্রচার চলতি ধারাবাহিক নাটক ‘তুমি আছো তাই’র শুটিং-এ অংশ নেন। এরইমধ্যে তিনি মুশফিক কল্লোলের নির্দেশনায় ‘সম্পর্ক’ নামের নতুন ধারাবাহিকের কাজ শুরু করেছেন। নজরুল ইসলাম রাজু পরিচালিত নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘ঘরে বাইরে’ শিগগিরই মাছরাঙ্গা টিভিতে প্রচারে আসছে। এই নাটকের প্রধান একটি চরিত্রে তিনি অভিনয় করেছেন। এছাড়া অভিনয় করছেন তিনি অনিমেষ আইচের নির্দেশনায় ‘বুবুনের সাত সতেরো’ ধারাবাহিক নাটকে। শর্মিলী আহমেদ অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত সর্বশেষ চলচ্চিত্র এসএ হক অলিক পরিচালিত ‘এক পৃথিবী প্রেম’। তবে শর্মিলী আহমেদ জানান সোহানুর রহমান সোহানের নির্দেশনায় একটি অনুদানের চলচ্চিত্রে তার কাজ করার কথা রয়েছে। ছোট ছোট বাচ্চাদের তিনি মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনাবেন, এমনই একটি চরিত্রে অভিনয় করবেন সোহানের চলচ্চিত্রে। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।

‘প্রিয় সেক্সপিয়ার’-এ ভাবনা

অভি মঈনুদ্দীন : গল্প এবং চরিত্র দুটোর সমন্বয় মনে দাগ কাটলে ভাবনা অভিনয় করেন। ‘প্রিয় সেক্সপিয়ার’ নাটকের গল্প এবং এর রূপা চরিত্রটি পছন্দ হওয়ায় অভিনয় করেছেন তিনি এই নাটকে। এম আই জুয়েলের নির্দেশনায় ভাবনা গত শুক্রবার শেষ করেছেন ‘প্রিয় সেক্সপিয়ার’ নাটকের কাজ। একটি ছেলে গ্রামে থাকে। সেক্সপিয়ারকে তার ভীষণ পছন্দ। দেশের বাইরে থাকা রূপা গ্রামে এলে সেই ছেলেরটির সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কে গড়ায়। কিন্তু সেই সম্পর্ক কোন পরিণতির দিকে এগিয়ে যায়না। এমনই গল্প নিয়ে নির্মিত ‘প্রিয় সেক্সপিয়ার’-এ অভিনয় করেছেন ভাবনা। নাটকটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে ভাবনা বলেন,‘ সবমিলিয়ে বেশ ভালো হয়েছে কাজটি। আশা করছি ভালোলাগবে দর্শকের।’ নাটকে ভাবনার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ইরফান সাজ্জাদ।

 এদিকে দীর্ঘদিন পর পরপর নতুন দুটি বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করেছেন ভাবনা। একটি অনিমেষ আইচের নির্দেশনায় ‘এসিআই ওয়াটার পাম্প’ এবং অন্যটি মাকসুদের নির্দেশনায় ‘হোয়াও মোবাইল’র বিজ্ঞাপন। দুটি বিজ্ঞাপনেরই শুটিং তিনি শেষ করেছেন। দীর্ঘদিন বিজ্ঞাপনে বিরতির কারণ হিসেবে ভাবনা বলেন,‘ যখন অভিনয়ে মনোযোগ দিয়েছি তখন আর অন্যকোন কাজে মনোযোগ দিতে চাইনি। তাছাড়া অভিনয়ের প্রতি আমার ভালোবাসা জন্মেছে। বিজ্ঞাপনের প্রতি নয়। তাই বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করতে হবে এমন ভাবনা ছিলোনা আমার।

 কিন্তু অভিনয় করতেই হবে, ভালো ভালো চরিত্রে অভিনয় করে নিজেকে প্রমাণ করতে হবে এই চেষ্টাটা আমার মধ্যে ছিলো। তাছাড়া মাঝে একটি সময় গিয়েছে বিজ্ঞাপন নির্মিত হয়েছে শুধু জিঙ্গেল বেউজড। এখন স্টোরি বেইজড বিজ্ঞাপন নির্মিত হচ্ছে, তাই কাজ করারও আগ্রহবোধ করছি।’ ভাবনা অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র ছিলো অনিমেষ আইচ পরিচালিত ‘ভংঙ্কর সুন্দর’। এতে ভাবনার বিপরীতে অভিনয় করেন পরমব্রত। চলতি বছরেই চলচ্চিত্রটি মুক্তি পেয়েছে। চলতি মাসেই ভাবনার দেশের বাইরে নাচের শো’তে অংশগ্রহণ করার কথা রয়েছে। পাশাপাশি শিগগরিই একটি শর্টফিল্মেও অভিনয় করার কথা রয়েছে তার।
ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।

এই বিভাগের আরো খবর

বিয়েতে নিমন্ত্রণের কাজও সেরে ফেললেন আনুশকা- কোহলি!

বিনোদন ডেস্ক ঃ বলিউড তারকা আনুশকা শর্মা ও ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলির বিয়ের খবরে মশগুল সারা দুনিয়া। ইতালিতে তারা গাঁটছড়া বাধছেন এমনটাই শোনা যাচ্ছে সবার মুখে মুখে। শুধু তাই নয়, আগামী ১২ই ডিসেম্বর চারহাত এক হতে যাচ্ছে এমনটাও নিশ্চিতভাবে বলছেন কেউ কেউ।  যদিও বিষয়টি নিয়ে আনুশকা বা কোহলি দুজনের কেউই সরাসরি মুখ খোলেননি।

তবে এরই মধ্যে ভারতীয় গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে বিয়ের প্রস্তুতি হিসেবে নিমন্ত্রণের কাজও সেরে নিয়েছেন এই প্রেমিকযুগল। অতিথির তালিকায় রয়েছেন শাহরুখ খান, সালমান খান ও আদিত্য চোপড়া সহ বলিউড ইন্ডাস্ট্রির বেশ কজন। অন্যদিকে সতীর্থদের না পেলেও বিয়ের মঞ্চে শচীন টেন্ডুলকার ও যুবরাজ সিংকে থাকার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন কোহলি।

এই বিভাগের আরো খবর

মান্নাকে উৎসর্গ করে আসছে জায়েদ-পরীমণির ‘অন্তরজ্বালা’

অভি মঈনুদ্দীন ঃ অমর নায়ক মান্নাকে উৎসর্গ করে আগামী ১৫ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের আগেরদিন মুক্তি পাচ্ছে মালেক আফসারী পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘অন্তরজ্বালা’। এরইমধ্যে চলচ্চিত্রটির গান এবং গত বৃহস্পতিবার ইউটিউবে প্রকাশিত চলচ্চিত্রটির ট্রেলার দর্শকের মধ্যে ‘অন্তরজ্বালা’ দেখার জন্য বেশ আগ্রহের সৃষ্টি করেছে। তবে ট্রেলার প্রকাশের অনেক আগে থেকেই দর্শকের মধ্যে ‘অন্তরজ্বালা’ দেখার জন্য আগ্রহ তৈরী হয়েছে। কয়েকটি কারণে দর্শক এই চলচ্চিত্র হলে গিয়ে দেখার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন। অনেকেই বলছেন এই চলচ্চিত্র মুক্তির পর জায়েদ খান’র অভিনয় সম্পর্কে সবার ধারণাই পাল্টে যাবে।

 আবার অভিনেত্রী হিসেবে পরীক্ষিত নায়িকা পরীমণি’কে নতুনরূপে দেখতে পাবেন দর্শক। চলচ্চিত্রটির গল্প প্রসঙ্গে পরিচালক মালেক আফসারী বলেন,‘ আলাল নামের ছোট্ট একটি ছেলের নায়ক  মান্নার সিনেমা দেখাকে কেন্দ্র করেই এর গল্প এগিয়ে যাবে। মান্নার সিনেমা হলে দেখতে গিয়ে আলাল নামের ছেলেটির জীবন অন্যরকম হয়ে যায়।’ জায়েদ ও পরীমণির অভিনয় প্রসঙ্গে মালেক আলফসারী বলেন,‘ জায়েদ তার অভিনয় জীবনের সেরা অভিনয় করেছেন। যেভাবে তাকে অভিনয়য় করতে বলা হয়েছে সেভাবেই তিনি অভিনয় করেছেন। গেটআপ এবং অভিনয় সবমিলিয়ে দর্শক নতুন এক জায়েদকে দেখতে পাবেন। আর পরীমণি’তো দক্ষ একজন অভিনেত্রী।


তাকে সিচুয়েশন বুঝিয়ে দিয়ে অভিনয় বুঝিয়ে দিলেই সাবলীলভাবে নিজের চরিত্র ফুটিয়ে তুলতে পারে। এটা তার দারুণ এক ক্ষমতা। আমি দু’জনের অভিনয় নিয়েই দারুণ আশাবাদী। আমার বিশ্বাস বছরের শেষপ্রান্তে এসে অন্তরজ্বালা দর্শকের মধ্যে নতুন এক উন্মাদনার সৃষ্টি করবে।’ আগামী ১৫ ডিসেম্বর সারা দেশের ১৭৫টি সিনেমা হলে জায়েদ ও পরীমনি’র ‘অন্তরজ্বালা’ মুক্তি পাবে বলে আশা করা যাচ্ছে। চিত্রনায়ক জায়েদ খান বলেন,‘ এর আগে পর্দায় দর্শক নায়ক জায়েদ খানকে দেখেছেন। এই চলচ্চিত্রে দর্শক অভিনেতা জায়েদ খানকে দেখবেন।

 প্রায় দশ বছর পর রূপালী পর্দায় দর্শক মান্না ভাইকে দেখবেন এবং তার প্রতি কতোটা শ্রদ্ধা, ভালোবাসা প্রদর্শন করে তাকে এই চলচ্চিত্রে উপস্থাপনা করা হয়েছে তা দর্শকের দেখার জন্য অন্তরজ্বালা হলে হলে গিয়ে দেখা উচিত।’  ‘অন্তরজ্বালা’ চলচ্চিত্রের নামকরণ করেছেন পরীমণি। পরীমণি বলেন,‘কাহিনী পড়ার পর চোখের সামনে পুরো চরিত্র ভেসে উঠেছিলো। তখনই আসলে নামটি আমার মাথায় আসে। সাথে সাথেই এর নাম দিই অন্তরজ্বালা’। মালেক আফসারী জানান , ‘অন্তরজ্বালা’র কাহিনী, সংলাপ রচনা করেছেন আব্দুল্লাহ জহির বাবু, সঙ্গীত পরিচালনায় আছেন আলী আকরাম শুভ এবং চলচ্চিত্রের জন্য গান লিখেছেন সুদীপ কুমার দীপ। পিরোজপুরের বিভিন্ন লোকেশনে এর শুটিং হয়েছে।’
ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।

এই বিভাগের আরো খবর

নওরীনের উপস্থাপনায় গাইলেন বিউটি, আশিক ও লুইপা

অভি মঈনুদ্দীন ঃ দেশজুড়ে চলছে এখন স্টেজ শো’র মৌসুমী। আর এই মৌসুমেই সঙ্গীতশিল্পীদের ব্যস্ততা থাকে অনেক বেশি। এমনও দেখা যায় যে রাজধানীতে একই দিনে পরপর দু’টি কিংবা তিনটি শো’তেও শিল্পীদের অংশগ্রহণ করতে হয়। আবার এমনও দেখা যায় যে একই স্টেজ শো’তে কয়েকজন শিল্পী সঙ্গীত পরিবেশন করেন। ঠিক তেমনি দেখা গেছে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর কাকরাইলের ইঞ্জিনিয়ার ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে। তিতাস গ্যাস আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পর্বে ক্লোজআপ তারকা কন্ঠশিল্পী বিউটি, নওরীন এবং সেরাকন্ঠ তারকা আশিকও লুইপা সঙ্গীত পরিবেশন করেন। প্রায় পাঁচ বছর পর নওরীন উপস্থাপনা করেন এই অনুষ্ঠানে। শুধু উপস্থাপনাই নয় উপস্থাপনার পাশাপাশি তিনি অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশনও করেন।

যেহেতু চারজনকেই মঞ্চে গাইতে হবে তাই প্রত্যেকে শিল্পীকে চার/পাঁচটি গান পরিবেশন করার সুযোগ ছিলো সেদিন। স্টেজ-এ যখন লুইপা উঠেন গান গাওয়ার জন্য তখন উপস্থিত শ্রোতা দর্শকের মধ্যে এক অন্যরকম আগ্রহ পরিলক্ষিত হয়। লুইপা একে একে গেয়ে উঠেন তার নিজের গাওয়া ‘ঘুরে ফিরে ফিরে ঘুরে আমি তোমার কাছে ছুটে আসি’,‘তুমি আমার এমনই একজন’,‘ মধু হৈ হৈ বিষ খাওয়াইলা’ এবং আশিকের সঙ্গে দ্বৈতকন্ঠে পরিবেশন করেন ‘আমার গরুর গাড়িতে’,‘ কী যাদু করিলা’। লুইপা এবং আশিকের সঙ্গীত পরিবেশনের সময় মিলনায়তন ভর্তি দর্শক গানের সঙ্গে নাচেও মেতে উঠেন। অনুষ্ঠানে বিউটির কন্ঠে ‘আমার সোনার ময়না পাখি’, ‘সবলোকে কয় লালন’, ‘মিলন হবে কতোদিনে’, ‘তিন পাগলে হলো মেলা’,‘ গ্রামের নওজোয়ান’, গানগুলোর পরিবেশনা  দারুণ উপভোগ করেন উপস্থিত সবাই। নওরনীনের কন্ঠে ‘কৃষ্ণ চূড়া লাল হয়েছে ফুলে ফুলে ’, ‘নোঙ্গর তোল তোল’, ‘নিথুয়া পাথারে’, ‘এক নজর না দেখলে বুন্ধ’ গানগুলোও তার উপস্থাপনার পাশাপাশি সবাই মুগ্ধ হয়ে উপভোগ করেন।

বিউটি বলেন,‘ স্টেজ শোতে সঙ্গীত পরিবেশন করার ভালোলাগাটা অন্যরকম। দর্শকের প্রতিক্রিয়াটা শিল্পীর গান গাওয়ার ক্ষেত্রে আরো উৎসাহ হয়ে দাঁড়ায়।’ নওরীন বলেন, ‘একুশে টিভিতে সর্বশেষ প্রায়য় পাঁচবছর আগে বাউলা অন্তর অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা করেছিলাম। দীর্ঘদিন পর উপস্থাপনা করে ভালোলেগেছে।’
আশিক বলেন,‘ স্টেজ শো’র মৌসুমে গানের মধ্যদিয়েই কাটে চব্বিশ ঘন্টা। এটা দারুণ ভালোলাগা। ’ লুইপা বলেন,‘ আমার ধ্যান জ্ঞান সব গানকেই ঘিরেই। আমার সকল ভাবনা গানকে ঘিরেই। তাই ভালো ভালো গান করার যেমন চেষ্টা করি। স্টেজ শো’তেও দর্শক শ্রোতাদের মন ছুঁয়ে যাবার মতো গান গাই।’ ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার

এই বিভাগের আরো খবর

আন্তর্জাতিক উৎসবের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে তৌকীরের ‘হালদা’

বিনোদন রিপোর্টার : তৌকীর আহমেদের পরিচালনায় মুক্তি পাওয়া সর্বশেষ ছবি ছিল ‘অজ্ঞাতনামা’। দেশের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক পর্যায়ে প্রশংসিত ও পুরস্কৃত হয়েছে এ ছবিটি। এরপরই গত সপ্তাহে মুক্তি পায় তার পরিচালিত নতুন ছবি ‘হালদা’। এ ছবিটি মুক্তির পর এক সপ্তাহ কেটে গেল। এ নিয়ে তৌকীর আহমেদ বলেন, যারা ছবিটি দেখেছেন তারা ভালো বলছেন। এটাই নির্মাতা হিসেবে আমার সার্থকতা। অনেক জায়গার দর্শকরা হয়তো ছবিটি দেখতে পাচ্ছেন না। তবে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্রছাত্রীসহ অনেকে এরই মধ্যে ছবিটি দেখেছেন এবং যারা দেখেছেন তাদের কাছ থেকে পজিটিভ সাড়া পাচ্ছি। আমরা ‘হালদা’ টিম আজ চট্টগ্রামের আলমাস সিনেমা হলে যাচ্ছি। সেখানে বিকালের শো দেখার পাশাপাশি দর্শকের সঙ্গে ছবিটি নিয়ে আলোচনাও করব।

 তিনি আরো বলেন, আন্তর্জাতিক উৎসবেও ছবিটি জমা দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। এজন্য আমি কয়েকদিনের মধ্যে ভারতে যাব। আন্তর্জাতিক উৎসবগুলোয় ছবিটি জমা দেয়ার জন্য ছবির দৈর্ঘ্য কমাতে হবে। সে কাজগুলো ঠিকভাবে করে নতুন বছরে আন্তর্জাতিক উৎসবে ‘হালদা’ জমা দেয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। প্রসঙ্গত, এশিয়ার একমাত্র প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজননকেন্দ্র হালদা নদী ও এর দুই পাড়ের জেলেদের জীবন নিয়ে ‘হালদা’ ছবির গল্প আবর্তিত হয়েছে। এ ছবিতে জাহিদ হাসান-তিশার সঙ্গে ছবির অন্যতম মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা মোশাররফ করিম। আরো অভিনয় করেছেন ফজলুর রহমান বাবু, রুনা খান প্রমুখ। পিন্টু ঘোষের সংগীত পরিচালনায় এ ছবির ‘প্রেমের আগুন’ শিরোনামের একটি গান এরই মধ্যে আলোচনায় এসেছে। আজাদ বুলবুলের গল্পে ‘হালদা’ ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন তৌকীর আহমেদ নিজেই।

এই বিভাগের আরো খবর

‘ইডিয়ট’এ মৌসুমী, শবনম ফারিয়া ও তন্ময়

অভি মঈনুদ্দীন  ঃ বিজয়ের মাসের শুরুর সপ্তাহ থেকেই সুমন আনোয়ারের রচনা ও নির্দেশনায় রাজধানীর উত্তরায় শুটিং শুরু হয়েছে নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘ইডিয়ট’র। এতে অন্য অনেকের পাশাপাশি তিনটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করছেন মৌসুমী হামিদ, শবনম ফারিয়া ও তন্ময়। ‘সমাজে পিছিয়ে থাকা সেই মানুষগুলোর গল্প নিয়েই মূলত ইডিয়ট নাটকটির নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলছে। যাদের আমরা স্পেশাল চাইল্ড বলে থাকি।  কিন্তু তারা আসলে অনেক স্বাভাবিক মানুষের চেয়ে স্পেশাল। আমরা স্বাভাবিকভাবে তাদের ইডিয়ট বলি। কিন্তু বস্তুত আমরাই ইডিয়ট, যারা তাদের স্পেশালিটি বুছতে পারিনা।

’ ‘ইডিয়ট’ নাটকের বিষয়বস্তু প্রসঙ্গে এমনই বললেন নাটকটির রচয়িতা ও নির্মাতা সুমন আনোয়ার। নাটকে  মৌ চরিত্রে অভিনয় করছেন মৌসুমী হামিদ, শেফা চরিত্রে শবনম ফারিয়া এবং  ইরা চরিত্রে অভিনয় করছেন তন্ময়।  শুটিং লোকেশনে আরো অভিনয়ে যাদের দেখা যায় তারা হচ্ছেন শহীদুল আলম সাচ্চু, মনিরা মিঠু, সাজ্জাদ, তানভীর। নাটকটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে মৌসুমী হামিদ বলেন,‘ বেশ ভালো লাগছে নতুন এ কাজটি। সুমন ভাইয়ের কাজ সবসময়ই একটু অন্যরকম হয়। আমি আশা করছি। এটি অনেক ভালো একটি কাজ হবে। এক অর্থে এটি পুরোপুরি কমেডি না আবার কমেডি ঘরানারও নাটক এটি।

 আমি খুব আশাবাদী কাজটি নিয়ে।’ শবনম ফারিয়া বলেন,‘ সুমন ভাইয়ের নির্দেশনায় এবারই প্রথম আমি কাজ করছি। খুব কম পরিচালকই আছেন যাদের নির্দেশনায় কাজ করতে আমি নিজে থেকে আগ্রহবোধ করি, সুমন ভাই তাদের মধ্যে একজন। তার নির্দেশনায় শুটিং আমি দারুণ উপভোগ করছি। এতো আরাম দিয়ে তিনি কাজ আদায় করে নেন যে তেমন কোন কষ্টই মনে হয়না। তাকে সবসময়ই আমার গুরুগম্ভীর মনে হতো। কিন্তু কাজ করতে এসে তা মনে হয়নি। বরং খুব ফ্রে-লি একজন মানুষ। নাটকের গল্পটা আমাকে বেশ মুগ্ধ করেছে।’ তন্ময় বলেন,‘ এর আগে সুমন ভাইয়ের নির্দেশনায় স্বর্ণলতা ধারাবাহিকে কাজ করেছি।

শুরুতে থাকে খুব ভয় পেতাম আমি। কিন্তু তারসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে বুঝেছি তিনি অনেক হাস্যোজ্জ্বল একজন মানুষ। তবে কাজের সময় তিনি অন্যরকম, অন্য এক সমুন ভাই।’ উল্লেখ্য মৌসুমী হামিদ, শবনম ফারিয়া ও তন্ময় এবারই প্রথম কোন ধারাবাহিক নাটকে একসঙ্গে কাজ করছেন। পরিচালক সুুমন আনোয়ার জানান শিগগিরই ‘ইডিয়ট’ একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে প্রচার হবে।
ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার

এই বিভাগের আরো খবর

আবারও একসঙ্গে জাহিদ-মিলি

বিনোদন প্রতিবেদক : জীবনে অনেকেরই অনেক কিছু হওয়ার ইচ্ছা থাকে। পাইলট, ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার অনেক কিছু। কিন্তু জাহিদ হাসান হতে চান আবহাওয়াবিদ। এবং তিনি এ বিষয়ে খুবই সিরিয়াস। হয়েছেনও তাই। গ্রামের একমাত্র আবহাওয়াবিদ হিসেবে তাকে সবাই চেনেন। তবে গ্রামবাসীর মধ্যে তার গ্রহণযোগ্যতা কতটুকু সে বিষয়ে অনেকেরই আছে প্রশ্ন। একদল লোক তাকে স্বীকৃতি দিতে নারাজ। এদিকে জাহিদ হাসানের মনোবল দৃঢ়। তার বিশ্বাস তিনি অবশ্যই আবহাওয়া সম্পর্কে বিশেষভাবে জ্ঞাত।

এমনই কাহিনী নিয়ে এগিয়ে চলে একক নাটক ‘আবহাওয়াবিদ’। এ নাটকে জাহিদ হাসানকে সম্পূর্ণ নতুনরূপে দেখা যাবে বলে জানা গেছে। পূবাইলের একটি শুটিং হাউসে সম্প্রতি শেষ হয়েছে নাটকটির কাজ। আল নাহিয়ানের লেখা ও সোহেল রানা ইমনের পরিচালনায় এ নাটকে জাহিদ হাসান ছাড়া আরও অভিনয় করেছেন ফারহানা মিলি, শিখা কর্মকার, টুনটুনি, সিদ্দিক মাস্টার, এমিলা হক, আল আমিন, জান্নাতুল ফেরদৌস এবং আরও অনেকে। নাটকটি শিগগিরই একটি টিভি চ্যানেলে প্রচার হবে বলে নির্মাতা জানান।

এই বিভাগের আরো খবর

প্রথমবারের মতো রবীন্দ্র সংগীত গাইলেন লিজা

বিনোদন বিনোদন : ছোটবেলায় নজরুল সঙ্গীতই শিখতেন লিজা। ময়মনসিংহের ওস্তাদ আনোয়ার হোসেন বুলুর কাছে তিনি সঙ্গীতে তালিম নিতেন। নজরুল সঙ্গীতেই নিজেকে বেশি পারদর্শী করে তুলেন। রবীন্দ্র সঙ্গীতের প্রতি একটা ভীতি ছিলো তার ছোটবেলা থেকেই। যে কারণে নজরুল সঙ্গীতে তার পুরস্কারপ্রাপ্তির গল্প থ্কালেও রবীন্দ্র সঙ্গীতে তা অনুপস্থিত। যে কারণে আধুনিক গানের পাশাপাশি লিজাকে নজরুল সঙ্গীত পরিবেশনে দেখা গেলেও কখনোই রবীন্দ্র সঙ্গীত পরিবেশনে তাকে পাওয়া যায়নি। এবারই প্রথম লিজা রবীন্দ্র সঙ্গীত গাইলেন।

কন্ঠশিল্পী নির্ঝরের উদ্যোগ এবং শানের সঙ্গীতায়োজনে রবীন্দ্রনাথের তিনটি গানের সমন্বয়ে একটি গান করা হয়েছে। লিজার কন্ঠে এক গানেই শ্রোতা দর্শক শুনতে পাবেন রবীন্দ্রনাথের ‘তুমি রবে নীরবে’,‘ তুমি কোন কাননের ফুল’ এবং ‘তুমি সন্ধ্যারও মেঘমালা’ এই তিনটি গান। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে শিল্পী, সঙ্গীত পরিচালকের শানের স্টুডিওতে গানটির রেকর্ডিং-এর কাজ সম্পন্ন হয়েছে। লিজা বলেন,‘ এবারই প্রথম রবীন্দ্রসঙ্গীত গাইলাম। আমার সাথে গেয়েছেন নির্ঝর। রবীন্দ্র সঙ্গীত সবসময়ই আমার কাছে খুব কঠিন লাগতো।

 রবীন্দ্রনাথের গান আমার কাছে কখনো সহজ মনে হতোনা। যে কারণে কখনোই রবীন্দ্র সঙ্গীত গাওয়া হয়ে উঠেনি। কিন্তু এবার নির্ঝর এবং শান ভাইয়ের উৎসাহে অনেকটা সাহস করে  গাইলাম। কেমন গেয়েছি তা শ্রোতা দর্শকই ভালো বলতে পারবেন।’ লিজা জানান শিগগিরই গানটি ইউটিউবে প্রকাশ হবে। তবে এটা কোন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের ব্যানারে আসবে কী না তা নিশ্চিত নয় এখনো। এদিকে আমেরকায় ২৫ দিন ঘুরে বেড়ানোর পর গেলো ২৯ নভেম্বর দেশে ফিরেছেন লিজা। দেশে ফিরেই তিনি ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন স্টেজ শো নিয়েও। এরইমধ্যে রাজধানীর সোনারগাঁ হোটেলে একটি শো’তে অংশ নিয়েছেন।

 আগামী ৭ থেকে ৯ ডিসেম্বর রাজধানীতে এবং ১১ ডিসেম্বর সিলেটে স্টেজ শো’তে অংশ নিবেন তিনি। গেলো ৩ ডিসেম্বর ছিলো লিজার বাবা মোঃ হেলাল উদ্দিনের জন্মদিন। লিজা বলেন,‘দেশে তাড়াতাড়ি ফিরেছি শুধূ আব্বুর জন্মদিনে আব্বুর পাশে থাকবো বলেই।’ এদিকে আগামী ২৯ ডিসেম্বর মুক্তি পেতে যাচ্ছে বদরুল আনাম সৌদ পরিচালিত ‘গহীন বালুচর’ চলচ্চিত্রটি। এতে লিজা’র গাওয়া ‘তারে দেখি আমি রোদ্দুরে, দেখি আলো ছায়া’তে গানটি শ্রোতা দর্শকের মন ছুঁয়েছে। সৌদ’র লেখা এবং ইমন সাহার সুর সঙ্গীতে এই গানটি চিত্রনায়িকা নীলাঞ্জনা নীলা’র লিপে দর্শক উপভোগ করবেন। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার

এই বিভাগের আরো খবর

রবীন্দ্র সংগীতশিল্পী পূরবী মুখোপাধ্যায় আর নেই

বিনোদন প্রতিবেদক : রবীন্দ্রসংগীত জগতের আরেক নক্ষত্রের পতন হয়েছে। গত সোমবার সন্ধ্যায় নিজের বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন রবীন্দ্র সংগীতের খ্যাতনামা শিল্পী পূরবী মুখোপাধ্যায়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। রেখে গিয়েছেন একমাত্র কন্যাকে। বেশ কিছুদিন ধরেই তিনি বার্ধক্যজনিত নানা রোগে শয্যাশায়ী ছিলেন। কয়েকদিন আগে ভাইরাস জ্বরে আক্রান্ত হয়েছিলেন।

জানা যায়, আমেরিকা প্রবাসী মেয়ে ফিরলে আগামী শুক্রবার তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। শান্তি নিকেতনে কিংবদন্তী শিল্পী দেবব্রত বিশ্বাসের কাছে সঙ্গীতের তালিম নিয়েছেন। একসময় কলকাতায় দেবব্্রত বিশ্বাসের সঙ্গে নানা অনুষ্ঠানে নিয়মিত দ্বৈত সংগীত পরিবেশন করেছেন। রবীন্দ্র সংগীত জগতে তিনি বেশ সুনামও অর্জন করেছিলেন। বেরিয়েছে অনেক রেকর্ডও। আকাশবাণী ও দূরদর্শনের নিয়মিত শিল্পী ছিলেন।

এই বিভাগের আরো খবর

গোলাপ হাতে হাসিমুখে আরাধ্যা

বিনোদন ডেস্ক : দিন কয়েক আগেই পাপারাজিদের ওপর ভয়ঙ্কর রেগে গিয়েছিলেন তার মা। ছবি শিকারীদের সামলাতে না পেরে প্রকাশ্যেই কেঁদে ফেলেন তিনি। তিনি অর্থাত্ বলিউড অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন। ঐশ্বরিয়া সে দিন থেকেই মেয়ে আরাধ্যাকে পাঠ দিতে শুরু করেছিলেন কীভাবে পাপারাজিদের সামলাতে হয়। মেয়ে যে তা বেশ ভালই রপ্ত করতে শুরু করেছে, তার প্রমাণ মিলল সম্প্রতি।

ম্যাঙ্গালোরে এক আত্মীয়ের বিয়েতে গিয়েছিলেন ঐশ্বরিয়া। গত রবিবার রাতে সেখান থেকে ফেরেন, সঙ্গে ছিল আরাধ্যাও। মুম্বাই বিমানবন্দরে নামার পর ঐশ্বরিয়া ফোটোগ্রাফারদের এড়িয়ে যেতে চাইলেও হাসিমুখে পোজ দেন আরাধ্যা। হাতে একটা গোলাপ নিয়ে বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে যায় আরাধ্য।পাপারাজিদের সামলাতে মাঝেমধ্যেই সমস্যায় পড়েন তারকারা। আরাধ্যার যাতে ভবিষ্যতে সেই সমস্যা না হয়, তার পাঠ এখন থেকেই দিচ্ছেন ঐশ্বরিয়া। আরাধ্যা অবশ্য ছোট থেকেই মিডিয়া ফ্রেন্ডলি।

এই বিভাগের আরো খবর

সংবাদ সম্মেলন করবেন অপু বিশ্বাস

বিনোদন রিপোর্টার : শাকিব খানের পাঠানো ডিভোর্স নোটিস এখনো হাতে না পেলেও অপু বিশ্বাস মঙ্গলবার দুপুরে বলেন, ডিভোর্স নোটিসটি পাবার পরে আমি একজন আইনজীবির পরামর্শ নিয়ে একটি সংবাদ সম্মেলন করব। সেখানে সাংবাদিকদের নিজের কিছু কথা জানাতে চাই। এদিকে শাকিব-অপুর বিয়ের কাবিনে দেনমোহর বাবদ শুধু ৭ লাখ টাকা উল্লেখ থাকলেও অপু বলেন, আমাদের বিয়ের কাবিননামায় টাকার অংক(দেনমোহর বাবদ) উল্লেখ আছে ১ কোটি ৭ লাখ। এটাকে কেউ যেন বিভ্রান্ত না করে। সবশেষে অপু বলেন, শাকিব এভাবে ডিভোর্স নোটিস বাসাতে পাঠিয়ে জলঘোলা না করে নিজে সুন্দরভাবে আমার সঙ্গে কথা বলে সংবাদ সম্মেলন করে সবাইকে জানিয়ে দিতে পারত।

প্রসঙ্গত, শাকিব খানের পক্ষে আইনজীবী শেখ সিরাজুল ইসলামের অফিস থেকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন মেয়র কার্যালয়, অপু বিশ্বাসের ঢাকার নিকেতনের বাসা এবং বগুড়ার ঠিকানায় ডিভোর্সের নোটিস পাঠানো হয়েছে। তবে এই ডিভোর্স কার্যকর হবে নোটিস পাঠানোর তারিখ থেকে তিন মাস পর। প্রসঙ্গত, অপু বিশ্বাস জানিয়েছিলেন ২০০৮ সালের ১৮ই এপ্রিল পারিবারিকভাবে শাকিবের সঙ্গে তার বিয়ে হয়েছে। বিয়ের সময় নিজের নাম পাল্টে তিনি অপু ইসলাম রাখেন। কিন্তু শাকিব খানের চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারের কথা ভেবে বিয়ের কথা গোপন রাখেন তারা। তবে চলতি বছর এপ্রিলে অপু সেই খবর প্রকাশ করেন।

এই বিভাগের আরো খবর

হয়ে গেল হাসান জাহাঙ্গীরের ‘অ্যাকশন গোয়েন্দা’র প্রিমিয়ার

বিনোদন প্রতিবেদক : এশিয়ান টিভিতে ‘অ্যাকশন গোয়েন্দা’ শীর্ষক নতুন মেগা ধারাবাহিক নিয়ে এলেন নির্মাতা-অভিনেতা হাসান জাহাঙ্গীর। গত ৩রা ডিসেম্বর এশিয়ান টিভির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হলো এই মেগা ধারাবাহিকটির প্রিমিয়ার। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন এশিয়ান টিভির চেয়ারম্যান হারুন অর রশীদ ও নাটকটির নির্মাতা হাসান জাহাঙ্গীরসহ নাটকের সকল অভিনেতা-অভিনেত্রী। এশিয়ান টিভির চেয়ারম্যান হারুন অর রশীদের মূল ভাবনায় ধারবাহিকটির গল্প লিখেছেন পুলিশ কর্মকর্তা মিজানুর রহমান শেলী। নাটকের চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করেছেন হাসান জাহাঙ্গীর। নাটকটির অ্যাকশন গোয়েন্দা টিমে পাঁচজন সদস্য থাকছেন। তাদের মধ্যে একজন থাকছেন টিম লিডার। দেশে সংগঠিত বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকা- নাটকীয়ভাবে দমন করতে দেখা যাচ্ছে গোয়েন্দা টিমকে। এতে অভিনয় করছেন নাটকের একঝাঁক তারকা শিল্পী।

এর মধ্যে রয়েছেন অ্যাকশন গোয়েন্দা টিম লিডার সিরাজ হায়দার। টিমের অন্য সদস্যরা হলেন হাসান জাহাঙ্গীর, সাব্বির আহমেদ, অ্যানি খান ও হুমায়রা হিমু। এছাড়া বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করছেন নওশীন, হিল্লোল, শাহরিয়ার নাজিম জয়, বড়দা মিঠু প্রমুখ। ধারবাবাহিকটি প্রসঙ্গে হাসান জাহাঙ্গীর বলেন, এটি বিগ বাজেটের একটি ধারাবাহিক। গল্পের প্রয়োজনেই এয়ারপোর্ট, নৌবন্দরসহ দেশ-বিদেশের বিভিন্ন লোকেশনে শুটিং করা হয়েছে। এতে পুরোপুরি থ্রিলারের স্বাদ পাবেন দর্শকরা। সপ্তাহে প্রতি রবি, সোম, মঙ্গল ও বুধবার রাত ৯টা এশিয়ানটিভিতে প্রচার হচ্ছে নাটকটি।

এই বিভাগের আরো খবর

শিলিগুড়ি মাতিয়ে এলো পঞ্চগড়ের ভূমিজ নাট্যগোষ্ঠী

সামসউদ্দীন চৌধুরী কালাম, শিলিগুড়ি (ভারত) থেকে ফিরে : ভারতের পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়ির দীনবন্ধু মঞ্চ মাতিয়ে এল পঞ্চগড়ের নাট্যগোষ্ঠী ‘ভূমিজ’। ভারত সরকারের সংস্কৃতি মন্ত্রকের সহায়তায় ঋত্বিক নাট্য উৎসবে ১ ডিসেম্বর মঞ্চস্থ হয় ভূমিজ নাট্যগোষ্ঠীর প্রযোজনায় নাটক ‘পাখিদের বৈঠক’। প্রতিজন দর্শক ৬০ রুপি দিয়ে টিকেট কেটে উপভোগ করে এই নাটক।  সরকার হায়দারের রচনা ও নির্মাণে ‘পাখিদের বৈঠক’ নাটকে অভিনয় করেছেন মোস্তাক আহমেদ, রনি শীল, মোস্তাফিজ সোহাগ, নাসরিন আক্তার ও উজ্জল বর্মন।

২৯ নভেম্বর থেকে ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত শিলিগুড়ি দীনবন্ধু মঞ্চে শিলিগুড়ি ঋত্বিক নাট্য সংস্থার সংগঠনালয় ঋত্বিক উৎসব-২০১৭’এ ভারত-বাংলাদেশের ৭টি নাটক মঞ্চায়ন হয়। ২৯ নভেম্বর উদ্বোধনী দিনে অসমের দাপন দ্যা মিরর’র প্রযোজনায় ছোট মানুষদের নিয়ে বিখ্যাত নাটক পবিত্র রাভা’র নির্দেশনায় নাটক ‘কিনু কাঁও’ মঞ্চস্থ হয়। ৩০ নভেম্বর ভারতের চাঁদপাড়া অ্যাক্টোর প্রযোজনায় সুভাষ চক্রবর্তীর নির্দেশনায় ছাঁচ ভাঙ্গার গান ও আনন্দন (ঝাড়গ্রাম) প্রযোজিত সঞ্জীব সরকারের নির্দেশনায় নাটক ‘লাশ কাটা ঘরে’ মঞ্চস্থ হয়।  ১ ডিসেম্বর ভূমিজ (বাংলাদেশ) প্রযোজনায় সরকার হায়দারের রচনা ও নির্মানে ‘পাখিদের বৈঠক’, ২ ডিসেম্বর ভারতের গোবরডাঙ্গা শিল্পায়নের প্রযোজনায় ও আশিস চট্টোপাধ্যায়ের নির্দেশনায় নাটক ‘বোল’ এবং ৩ ডিসেম্বর উৎসবের শেষ দিনে ঋত্বি বহরমপুরের প্রযোজনায় বিপ্লব দে’র নির্দেশনায় নাটক ‘আঁধারে সূর্য’ ও শিলিগুড়ি ঋত্বিকের প্রযোজনায় ও শুভঙ্কর গোস্বামীর নির্দেশনায় নাটক ‘এখানে পারিজাত’ মঞ্চস্থ হয়।

এই বিভাগের আরো খবর

অপুকে ডিভোর্স দিলেন শাকিব!

অবশেষে অপু বিশ্বাসকে ডিভোর্স দিলেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের সুপারস্টার শাকিব খান। প্রবীণ এক আইনজীবীর মাধ্যমে সোমবার (০৪ ডিসেম্বর) তিনি অপুর কাছে ডিভোর্স লেটার পাঠান বলে জানিয়েছে তার পারিবারিক সূত্র।

শাকিব-অপুর ডিভোর্স নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই গুঞ্জন চলছিলো চলচ্চিত্র অঙ্গনে। ডিভোর্স লেটার পাঠানোর মাধ্যমে তার অবসান ঘটলো বলে মনে করা হচ্ছে।

তবে কোনো পক্ষ থেকেই আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো কিছু স্বীকার বা অস্বীকার করা হয়নি। এদিকে শাকিব খান বর্তমানে শ্যুটিংয়ের কাজে ভারতে রয়েছেন।

ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় দুই মুখ শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। অপু এক টেলিভিশন সাক্ষাতকারে বলেছিলেন, ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল ভালোবেসে বিয়ে করেন তারা। তাদের একটি ছেলেও আছে। সাক্ষাতকারে ছেলেও উপস্থিত ছিল। তার নাম আব্রাহাম খান জয়।

এই বিস্ফোরক তথ্যের পরই মূলত বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে। শাকিব খান স্বীকার করেন। তবে টানাপোড়েন চলছিলই। যার রেশ তালাক পর্যন্ত যেতে পারে বলেও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন-এফডিসি পাড়ার অনেকে বলেছেন।

অপুর ভাষ্য ছিল, মূলত বিয়ের পর শাকিবের বাসায় বেশিরভাগ সময় থাকতেন তিনি। তবে অনেকটা লুকোচুরি করে। মাঝে মাঝে শ্যুটিং শেষে নিজের বাসায়ও চলে যেতেন। সন্তান নেওয়া ও সম্পর্কের তথ্য প্রকাশ্য করতে চাওয়ার বিষয়কে কেন্দ্র করে শাকিবের সঙ্গে মনোমালিন্যের কারণে কলকাতার একটি হাসপাতালে নিজে বন্ডে সাইন দেওয়ার পর সিজার হয় অপুর। ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর তাদের ঘরে ছেলে সন্তান আব্রাহাম খান জয় আসে। তারপরও শাকিব এ খবর অপুকে গোপন রাখতে বলেন। এর কারণ হিসেবে তিনি বলেছেন, দু’জনের ক্যারিয়ারের স্বার্থের কথা।

বর্তমানে শরীরের ওজন কমানোর জন্য বনানীর একটি ব্যায়ামাগারে নিয়মিত সময় দিচ্ছেন অপু। বগুড়ার মেয়ে অপু ২০০৪ সালে আমজাদ হোসেনের ‘কাল সকালে’ ছবির মাধ্যমে চলচ্চিত্রে পা রাখেন। ২০০৬ সালে পরিচালক এফ আই মানিক পরিচালিত ‘কোটি টাকার কাবিন’ ছবিতে নায়িকা হিসেবে শাকিবের বিপরীতে অভিনয় করেন। ২০০৬ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত টানা তারা ৭০টির মতো ছবিতে জুটি বাঁধেন। আধুনিক বাংলা চলচ্চিত্রের সবচেয়ে জনপ্রিয় জুটি বলা হয় তাদের।

সূচরিতার সঙ্গে অভিনয়ের স্বপ্নপূরণ সাইমনের

অভি মঈনুদ্দীন : বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের এক অনবদ্য নায়িকার নাম সূচরিতা। বহুবছর চলচ্চিত্রে নায়িকা হিসেবে অভিনয় করে এখন যেসব চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন তাতে গল্পের কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। তাতে দেখা যায় তার অভিনীত এই সময়ের চলচ্চিত্রে তিনি মায়ের ভূমিকাতেই অভিনয় করছেন। সূচরিতার ভাষায়, শুধু শুধু মায়ের ভূমিকায় নামে মাত্র অভিনয় করছেন এমন নয়, যে চলচ্চিত্রে তিনি মায়ের ভূমিকায় কাজ করেন সেই চরিত্রের যথেষ্ট গুরুত্ব থাকে বলেই তিনি তাতে অভিনয় তরেন। বদিউল আলম খোকন পরিচালিত ‘আমার মা আমার বেহেস্ত’ চলচ্চিত্রে সে কারণেই সূচিরতা অভিনয় করছেন। চলচ্চিত্রটির নামকরণই করা হয়েছে তার চরিত্রকে কেন্দ্র করে। মায়ের চরিত্রে অভিনয় করা সূচরিতাকে ঘিরেই গল্প আবর্তিত হয়েছে। তাই এই চলচ্চিত্রে বেশ আগ্রহ নিয়ে অভিনয় করছেন।

 গত ২ ডিসেম্বর থেকে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে অবস্থিত বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনের এক নম্বর ফ্লোরে ‘আমার মা আমার বেহেস্ত’ চলচ্চিত্রের শুটিং-এ অংশ নিয়েছেন। এই চলচ্চিত্রে তার ছেলে রাজা চরিত্রে অভিনয় করছেন নন্দিত নায়ক সাইমন সাদিক। এবারই প্রথম সাইমন সূচরিতার সঙ্গে অভিনয় করার সুযোগ পেলেন। চলচ্চিত্রটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে সূচরিতা বলেন,‘ গল্প ভালো লাগলে, চরিত্র ভালোলাগলে অভিনয় করি। আমার মা আমার বেহেস্ত গল্পটা ভালোলেগেছে। তাছাড়া এতে আমার চরিত্রটিও পছন্দ হয়েছে। বদিউল আলম খোকন একজন গুণী এবং অভিজ্ঞ নিমার্তা। কাজ করে বেশ ভালোলাগছে। সত্যি বলতে কী যারা কাজ জানেন না তাদেরসঙ্গে কাজ করতে ভালোলাগেনা।’ সাইমন বলেন,‘ আমার স্বপ্ন ছিলো সূচরিতা ম্যাডামের সঙ্গে অভিনয় করার। তারসঙ্গে অভিনয় করার সময় মনেই হয়নি প্রথম কাজ করছি।

 তিনি এতো বগ মাপের একজন অভিনেত্রী হয়েও কতো সহজে আপন করে নিয়ে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে কাজ করেছেন। আমি প্রতিটি মুহুর্তে তার আন্তরিকতায় মুগ্ধ হয়েছি।’ পরিচালক বদিউল আলম খোকন বলেন,‘ যেহেতু চলচ্চিত্রটিতে মায়ের অনেক নাটকীয়তা আছে, তাই এই চলচ্চিত্রের মায়ের চরিত্রে সূচরিতা ম্যাডামের বিকল্প আমি কাউকে ভাবতে পারিনি। আমার নির্দেশনায় তিনি প্রথম কাজ করছেন, আমি সত্যিই গর্বিত।’ ছটকু আহমেদ’র গল্প ও সংলাপে আগামী ৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত এফডিসিতে এর শুটিং চলবে। ‘আমার মা আমার বেহেস্ত’ চলচ্চিত্রে আরো অভিনয় করছেন আলীরাজ, আফজাল শরীফ, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু, মাহিয়া মাহি প্রমুখ। সূচরিতা সর্বশেষ নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান মানিক পরিচালিত ‘মা আমার চোখের মনি’ চলচ্চিত্রে। এতে তিনি শাবনূরের মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার ।

এই বিভাগের আরো খবর

আজ পাওলির বিয়ে

বিনোদন রিপোর্টার : আজ ৪ ডিসেম্বর সোমবার পাত্র ব্যবসায়ী অর্জুন দেবের সঙ্গে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চলেছেন কলকাতার হট সেনসেশন অভিনেত্রী পাওলি দাম। তাদের বিয়ের অনুষ্ঠান হবে কলকাতার নামকরা তাজ বেঙ্গল কনভেনশন হলে। জানা গেছে, বিয়ের পর ৬ তারিখে পরিবারসহ গুয়াহাটি যাবেন পাওলি-অর্জুন। যেহেতু পাত্রপক্ষের নিবাস গুয়াহাটি, তাই ১০ ডিসেম্বর সেখানেই দেওয়া হবে রিসিপশন। পাওলি-অর্জুনের বিয়েতে বেনারসি, সাতপাক, সিঁদুরদান- সবই হবে ট্র্যাডিশনাল ভঙ্গিতে। আর বিয়ের সব কাজ সম্পন্ন হবে পাওলির বাড়িতেই। প্রথমে বিয়ের গোটা অনুষ্ঠানই গুয়াহাটিতে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পরে সিদ্ধান্ত হয়, বিয়ে হবে কলকাতায় মেয়ের বাড?িতে। বিয়েতে ইন্ডাস্ট্রির ঘনিষ্ঠ সকলকেই আমন্ত্রণ জানিয়েছেন পাওলি।

 ইতিমধ্যে সবার কাছে ‘সেভ দ্য ডেট’ মেসেজ পৌঁছেও গেছে। অন্যদিকে, হবু বর অর্জুনের ব্যবসায়ী পরিবৃত্তটিও কম বড? নয়। কাজেই অতিথি তালিকায় রয়েছেন পশ্চিম বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। পাওলির এক ঘনিষ্ঠজন জানিয়েছেন, নিজে গিয়েই দিদি মমতাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন নায়িকা। পাওলি যে বিয়ে করতে চলেছেন তার গুঞ্জন অনেক দিন ধরেই চলছিল। তবে নায়িকা নিজের মুখে কোনো কিছুই স্বীকার করতে চাইছিলেন না। তবে এখন আর কোনো কিছুই গোপন নেই। এই তো কয়েকদিন আগে কলকাতার পার্ক স্ট্রিটে একটি ডিজাইনার শপে বিয়ের বাজার করতে গিয়েছিলেন পাওলি। সেখান থেকে কিনে আনেন বেশ কিছু পছন্দের শাড়ি। সেই শপিংয়ের একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ারও করেছিলেন ‘হেট স্টোরি’ ছবির নায়িকা।

উল্লেখ্য, ইতালীয় কনসাল জেনারেলের এক পার্টিতে গিয়ে অর্জুনের সঙ্গে পরিচয় হয় পাওলির। তার পরেও একাধিক অনুষ্ঠানে তাদের দুজনকে একসঙ্গে দেখা গেছে। প্রেম পর্বের সেই শুরু। বিয়ের মতো প্রেমের বিষয়টিও পাওলি গোপন রাখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু এসব তো আর চাপা থাকে না। হবু বরকে তিনি নাকি ‘জোজো’ বলে ডাকেন।
তবে বিয়ে করলেও কখনো অভিনয় ছাড?ছেন না নায়িকা। যে কথা পাওলি এর আগে বহুবারই বলেছেন। হবু বর অর্জুনেরও নাকি এ ব্যাপারে পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। বিয়ের জন্য আপাতত তিনি জানুয়ারি পর্যন্ত ছুটি নিয়েছেন বলে খবর। ফেব্রুয়ারি থেকে আবার কাজ শুরু করবেন। পাওলির আগামী ছবির শুটিংয়ের শিডিউল অন্তত তেমন কথাই বলছে।

এই বিভাগের আরো খবর

জন্মদিনের সারাদিনই ব্যস্ত সুবর্ণা মুস্তাফা

অভি মঈনুদ্দীন: সুবর্ণা মুস্তাফা, শুধু দর্শকের কাছেই প্রিয় একজন অভিনেত্রী, প্রিয় একজন মানুষ-এমন নয়। সুবর্ণা মুস্তাফা তার অভিনয়গুণে এবং তার ব্যক্তিত্বের কারণে তার সহকর্মীদের কাছেও ভীষণ শ্রদ্ধার, ভালোবাসার এবং অন্তরের একজন মানুষ। এমন বহু অভিনয়শিল্পী আছেন যাদের প্রিয় অভিনেত্রী’র তালিকায় সবার আগে সুবর্ণা মুস্তফার নামটিই আসে। এই যে অর্জন, এটা সুবর্ণা করেছেন তার অভিনয়ের মুগ্ধতা দিয়ে। সুবর্ণা তার অভিনীত নাটক এবং চলচ্চিত্রে বহুমাত্রিক চরিত্রে অভিনয় করে সবার প্রিয়তে পরিণত হয়েছেন।

আজ সেই প্রিয় সুবর্ণা মুস্তাফার জন্মদিন। কিন্তু জন্মদিনেও একটুও অবসর নেই তার। সকার থেকেই কাটবে তার ব্যস্ততার মধ্যদিয়ে। সুবর্ণা মুস্তফা বলেন,‘ ভেবেছিলাম আজকের দিনটি একটু ফ্রি থাকবো, কিন্তু কোন উপায় নেই। ব্যস্ত থাকতেই হচ্ছে প্রতিদিনের নিয়মের মতো। আজ সকালে রেডিও স্বাধীনের একটি ওয়ার্কশপে থাকবো। তারপরও রেডিও ভূমিতে থাকবো কিছুটা সময় ধারা ভাষ্য দেবার জন্য। এরপর বিকেল তিনটা থেকে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জন্য প্রথম চলচ্চিত্র দেখা শুরু করবো। ব্যস এভাবেই কেটে যাবে এবারের জন্মদিন।’

তবে সুবর্ণা মুস্তাফা জানান সন্ধ্যার পর ঘরোয়াভাবে জন্মদিন উদ্যাপন করা হবে। বিজয়ের মাসে পরপর দুই সপ্তাহে দুটি নতুন চলচ্চিত্র নিয়ে দর্শকের সামনে আসছেন সুবর্ণা মুস্তাফা। বদরুল আনাম সৌদ পরিচালিত ‘গহীন বালুচর’ এবং মোরশেদুল ইসলাম পরিচালিত ‘আঁখি ও তার বন্ধুরা’। ২২ ডিনেম্বর মুক্তি পাবে ‘আঁখি ও তার কন্ধুরা’ এবং পরের সপ্তাহে অর্থাৎ ২৯ ডিসেম্বর মুক্তি পাবে ‘গহীন বালুচর’ চলচ্চিত্রটি। সুবর্ণা মুস্তাফা বলেন,‘ গহীন বালুচর এই দেশের চলচ্চিত্রে। এই চলচ্চিত্রে মাটির গন্ধ আছে, পানির ছোঁয়া আছে, ভালো অভিনয় আছে, সুন্দর গানও আছে। সর্বোপরি চমৎকার একটি গল্প আছে গহীন বালুচরে। অন্যদিকে আঁখি ও তার বন্ধুরা ড. মুহম্মদ জায়র ইকবালের গল্প নিয়ে নির্মিত পরিচ্ছন্ন একটি চলচ্চিত্র। এই চলচ্চিত্র শিশুদের এবং বড়দের।’

‘গহীন বালুচর’ চলচ্চিত্রের কাহিনী, সংলাপ এবং চিত্রনাট্য রচনা করেছেন বদরুল আনাম সৌদ। সুবর্ণা মুস্তাফাকে অনুদানের চলচ্চিত্রে সর্বশেষ দেখা গেছে দেলোয়ার জাহান ঝন্টু পরিচালিত ‘হেডমাস্টার’। সুবর্ণা মুস্তাফা অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র হচ্ছে ‘ঘুড্ডি’, ‘নতুন বউ’, ‘লাল সবুজের পালা’, ‘নয়নের আলো’, ‘সুরুজ মিঞা’, ‘স্ত্রী’,‘দূরত্ব’ ইত্যাদি।  আজাদ আবুল কালাম (পাভেল) রচিত ও আফসানা মিমি এবং বদরুল আনসাম সৌদ পরিচালিত ধারাবাহিক নাটক ‘ডলস হাউজ’-এ অভিনয় করেছিলেন সুবর্ণা মুস্তাফা। এই নাটকেই প্রথম সুবর্ণা সৌদের নির্দেশনায় অভিনয় করেন। এরপর বদরুল আনাম সৌদের রচনায় ও নির্দেশনায় সুবর্ণা মুস্তাফা অভিনয় করেন ধারাবাহিক নাটক ‘সীমান্ত’, ‘উপসংহার’, ‘গহীনে’, ‘গ্রন্থিক গণকহে’, ‘এলেবেলে’,‘কোমল বিবির অতিথিশালা ও কানা সিরাজউদ্দৌলা’, ‘পিঞ্জর’, ‘ঘোড়ার চাল আড়াই ঘর’,‘অন্তর্যাত্রা’ নাটকে। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।

এই বিভাগের আরো খবর

আজ থেকে তাদের ‘ওই পাড়া থেকে সাবধান’

বিনোদন রিপোর্টার : দেশের বিভিন্ন স্যাটেলাইট চ্যানেলে সাম্প্রতিক সময়ের প্রচার শেষ হওয়া ধারাবাহিক নাটকের মধ্যে দর্শকপ্রিয় একটি ধারাবাহিক নাটক ‘ঝামেলা আনলিমিটেড’। শামীম জামান নির্দেশিত এই নাটকটি এরইমধ্যে আরটিভিতে প্রচার শেষ হয়েছে। শিগগিরই তিনি নতুন ধারাবাহিক নাটক নির্মাণের কাজ শুরু করবেন। তবে তার আগে তিনি একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলের জন্য ছয় পর্বের ধারাবাহিক নাটক নির্মাণ করেছেন। নাটকের নাম ‘ওই পাড়া থেকে সাবধান’। আজ সন্ধ্যায় ৬টায় ও রাত নয়টা দু’বার নাটকটি প্রচার হবে দীপ্ত টিভিতে। চলবে আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত।

নাটকটি রচনা করেছেন ফজলুল সেলিম। নাটকে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন শামীম জামান, আ খ ম হাসান ও ইশানা। নাটকটি প্রসঙ্গে শামীম জামান বলেন,‘ একেবারেই সমসাময়িক গল্প নিয়ে নাটকটি নির্মাণ করেছি। দর্শকের একঘেয়েমি দূর করতেই আমি এ নাটক নির্মাণ করেছি। আখম হাসান, ইশানা’সহ আরো যারা অভিনয় করেছেন যেমন আল মনসুর, চিত্রলেখা গুহ, আহসানুল হক মিনু, প্রাণ রায় প্রত্যেকেই যার যার চরিত্রে অসাধারণ অভিনয় করেছেন। ছয় পর্বের এই ধারাবাহিকটি নিয়েও আমি খুব আশাবাদী।

’ আখম হাাসান বলেন,‘ কমেডি ধাঁচের নাটক এটি। শামীমের নির্দেশনার কথা যদি বলতে হয় তাহলে বলতে হবে যে, আসলে ও আমার খুব ঘনিষ্ঠ বন্ধু। গল্প, আড্ডা দিতে দিতেই কাজ শেষ হয়ে যায়। তবে এরইমধ্যে দিয়ে ভালো একটি কাজ বের হয়ে আসে। এটাই শামীমের কৃতিত্ব।’  নাটকটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে ইশানা বলেন,‘ ভিন্ন ভাষার একটি নাটক এটি। দর্শক দেখলে খুব মজা পাবেন। তাছাড়া শামীম জামান ভাই অনেক গুনী একজন নির্মাতা, পাশাপাশি মানুষ হিসেবেও খুব ভালো মনের একজন মানুষ।’

শামীম জামান এরইমধ্যে সালাহ উদ্দিন লাভলুকে নিয়ে শুরু করেছেন ‘সবজান্তা শমসের’ ধারাবাহিক নাটকের কাজ। এতে প্রধান চরিত্রগুলোতে অভিনয় করছেন দিলারা জামান, শামীম জামান, সাজু খাদেম, নাদিয়া, তিতান চৌধুরী প্রমুখ। আখম হাসান আজ রাজধানীর উত্তরায় এসএম দুলালের নির্দেশনায় ‘নয় ছয়’ ধারাবাহিকের শুটিং-এ ব্যস্ত থাকবেন। আগামীকাল ইশানা এফ জামান তাপসের নির্দেশনায় ‘নিউটনের তৃতীয় সূত্র’ ধারাবাহিকের শুটিং-এ ব্যস্ত থাকবেন।  ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।

এই বিভাগের আরো খবর

নতুন নাটকে সাবিলা

বিনোদন প্রতিবেদক : সম্প্রতি চ্যানেল আইতে প্রচার শুরু হয়েছে নতুন ধারাবাহিক ‘বেসিক আলী’। পত্রিকার পাতার জনপ্রিয় কার্টুন সিরিজ ‘বেসিক আলী’ এবার টিভি নাটকের চেহারা পেয়েছে। এতে অভিনয় করেছেন সাবিলা নূর। এই নাটকে কাজের অভিজ্ঞতা নিয়ে তিনি বলেন, ‘এ নাটকে আমার সঙ্গে অভিনয় করেছেন তৌসিফ মাহবুব। শুটিংয়ের একটা অংশ ছিল আমরা রেস্টুরেন্টে বসে থাকবো। তারপর আমাদের সামনে থাকা খাবারগুলো খেয়ে শেষ করবো। কিন্তু হলো কি, ক্যামেরা আসার আগেই আমরা গল্পে গল্পে খাবার খেয়ে শেষ করে ফেললাম।

কী যে মজার ছিল বিষয়টা! তারপর যথারীতি আবারও খাবার টেবিলে এনে শুটিং করা হয়।’ সাবিলা আরও বলেন, ‘এই নাটকটির শুটিং করেছি উত্তরা এবং ধানমন্ডিতে। তাছাড়া শুটিংয়ের একটি পার্ট ছিল বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ে।’ সাম্প্রতিক সময়ে নিজের ব্যস্ততার ফিরিস্তি নিয়ে সাবিলা বলেন, ‘আমি পড়াশোনার জন্য কিছুদিন আমেরিকায় ছিলাম। তাছাড়া আমার বোনও থাকেন সেখানে। এখন নাটকের পাশাপাশি পড়াশোনাটাও ঠিকমতো চালিয়ে যাচ্ছি।’

এই বিভাগের আরো খবর

মেয়ের বিয়ে দিলেন সোহানুর রহমান সোহান

অভি মঈনুদ্দীন : বরেণ্য চলচ্চিত্র পরিচালক সোহানুর রহমান সোহান তার মেজ মেয়ে সাদিয়া রহমান বৃষ্টি’র বিয়ে দিলেন। গত ২৯ নভেম্বর রাজধানীর মিরপুরের পুুলিশ কনভেনসন সেন্টারে আসিফ হাসানের সঙ্গে বৃষ্টির বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। সোহান জানান আসিফ পেশায় একজন ব্যবসায়ী। সোহানুর রহমান সোহান বলেন,‘ আল্লাহর রহমতে বেশ ভালোভাবেই বৃষ্টির বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে। সবার কাছে দোয়া চাই ওরা যেন সুখী হয়, ভালো থাকে, সুস্থ থাকে। আর যারা আমার মেয়েকে এবং মেয়ের জামাইকে দোয়া করতে এসেছিলেন তাদের প্রতি আমি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ।

’ সোহানুর রহমান সোহান ও প্রিয়া রহমান দম্পতির মেয়ে বৃষ্টি ও তার স্বামী আসিফ হাসানকে দোয়া করতে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতায় যারা উপস্থিত হয়েছিলেন তারা হচ্ছেন চলচ্চিত্র পরিচালক ছটকু আহমেদ, বাদল খন্দকার, আহমেদ ইলিয়াস ভূঁইয়া, আবু সাঈদ খান, গাজী মাহবুব, সায়মন তারিক,  চিত্রনায়িকা অঞ্জনা, অভিনেত্রী শারমিন আক্তার, চিত্রনায়ক অমিত হাসান, নন্দিত দুই নায়িকা শাবনূর ও পপি, চিত্রনায়ক শ্রাবণ এবং নবাগত মারিয়া’সহ আরো অনেকে। এদিকে চলচ্চিত্র নির্মাণের পাশাপাশি সোহানুর রহমান সোহান রাজধানীর মগবাজারে অবস্থিত ‘ইউনিভার্সেল পারফর্মিং আর্টস ইনস্টিটিউট’র অধ্যক্ষ হিসেবে কর্মরত। তার নির্মাণ চলচ্চিত্র চলচ্চিত্র হচ্ছে ‘ওয়াও বেবি ওয়াও’,‘জেদি’ ও ‘প্রিয় জন্মভূমি’। ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার।

এই বিভাগের আরো খবর

জয়ার ঝরা পালক

বিনোদন রিপোর্টঅর : টিভি নাটকের একসময়কার জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান এখন পুরোপুরি চলচ্চিত্রের মানুষ হয়ে গেছেন। এপার ওপার দুই বাংলার ছবিতেই কাজ করছেন এই তারকা। এরইমধ্যে তিনি যে কয়টি ছবিতে অভিনয় করেছেন, প্রায় প্রতিটিই তাকে দারুণ সাফল্য এনে দিয়েছে। বাংলাদেশের বাইরে কলকাতায়ও এখন জনপ্রিয়তা পেয়েছেন জয়া। সর্বশেষ ‘বিসর্জন’ শিরোনামের একটি ছবিতে কাজ করে নতুন করে আলোচিত হয়েছেন তিনি। জয়া এখন কাজ করছেন কলকাতার ছবি ‘ঝরা পালক’-এ। কবি জীবনানন্দ দাশের কাব্যগ্রন্থের নামেই ছবির নামকরণ হয়েছে। সায়ন্তন মুখোপাধ্যায়ের এই ছবিতে কবির স্ত্রী ‘লাবণ্য’র ভূমিকায় দেখা যাবে জয়াকে।

তিনি বলেন, ‘এই চরিত্রটি একটু জটিল। স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের মধ্যে গ্রে এরিয়া ছিল। সেটাই দেখানোর চেষ্টা করছি। খুব ভালো লাগছে কাজটা।’ জানা গেছে, জীবনানন্দ দাশের বিভিন্ন লেখা গবেষণা করে ছবির চিত্রনাট্য তৈরি করেছেন পরিচালক সায়ন্তন মুখোপাধ্যায়। ছবিতে কবির সৃষ্ট বিখ্যাত চরিত্র ‘বনলতা সেন’ বিষয়ে কিছু আছে কিনা? এমন প্রশ্ন শুনে একটু ভাবনায় মজে জয়া আহসান বলেন, ‘এই ছবিতে কাজ করতে গিয়ে মাঝে মাঝে আমার উপলব্ধি হয়েছে এমন যে, আমার মনে হয় লাবণ্যই বনলতা। তবে এ কথা নিশ্চিত ভাবে বলতে পারি, জীবনানন্দের কাজে অবশ্যই লাবণ্যর ভূমিকা রয়েছে।’ ‘ঝরা পালক’ ছবিতে জীবনানন্দ দাশের বিভিন্ন বয়সের চরিত্রে অভিনয় করছেন  ব্রাত্য বসু ও রাহুল। উল্লেখ্য, এর আগে জয়া আহসান ডুবসাঁতার, গেরিলা, চোরাবালি, পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী’ ও জিরো ডিগ্রি শিরোনামের ছবিতে কাজ করে জনপ্রিয়তা পেয়েছেন।

এই বিভাগের আরো খবর

মন ছুঁয়েছে ঐশী’র ‘ব্রেকআপ’

অভি মঈনুদ্দীন: প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে ল্যাপটপে বসে দেশ বিদেশের সংবাদ মাধ্যমে আমি চোখ রাখি। যেহেতু গানের প্রতি আমার দুর্বলতা সেই ছোট থেকে, তাই গানের ভুবনের খবর নিতে ফেসবুকে বিভিন্ন সঙ্গীতশিল্পী, সঙ্গীত পরিচালক এবং গীতিকারের আপডেট দেখার চেষ্টা করি। গতকাল সকালেই ঐশীর ফেসবুকে আপডেট দেখলাম। দেখলাম এই সময়ের তরুণ আলোচিত গীতিকার রবিউল ইসলাম জীবনের লেখা এবং এ সময়ের জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী, সঙ্গীত পরিচালক ইমরানের সঙ্গীত পরিচালনায় লেজার ভিশনের ব্যানারে ঐশীর গাওয়া ‘ব্রেকআপ’ গানটির লিরিক্যাল ভার্সন ইউটিউবে প্রকাশিত হয়েছে। গানের কথা এমন ‘যখন তুমি গভীর ঘুমে আমি থাকি জেগে, যখন তুমি রোদ্র পোহাও আমি ভাসি মেঘে’ তোমার আমার ভালোবাসা ভিজে কুয়াশায়, তবুও আমি স্বপ্ন সাজাই তোমারই আশায়’। গেলাম ইউটিউবের দুনিয়ায় ঐশীর নতুন গানটি শুনতে। গানের শুরুতেই ইমরানের সঙ্গীতায়োজন মনটা কেড়ে নিলো।

ঐশী’র কন্ঠের মাধুর্যতা অনেক আগেই শ্রোতা দর্শককে মুগ্ধ করেছে। আমি নতুন করেই মুগ্ধ হলাম তার ‘ব্রেকআপ’ গানে। গানের প্রতি, গানের কথার প্রতি, সুরের প্রতি কতোটা ভালোবাসা জন্মালে একজন শিল্পী এতোটা দরদ দিয়ে গাইতে পারেন ঐশী’র ‘ব্রেকআপ’ যেন তারই প্রমাণ। ঐশী’র গায়কী শুনে বিস্মিতভাবে মুগ্ধ হয়ে আমি গানটি শুনছিলাম। শুধু একবারই নয়, বেশ কয়েকবারই গানটি শুনলাম। যতোবারই গীতিকবিতা কন্ঠে তুলে নিয়েছেন ততোবারই যেন একজন পূর্ণাঙ্গ শিল্পীকেই পাওয়া গেছে। মনে মনে ধন্যবাদ পৌঁছে দিলাম রবিউল ইসলাম জীবনকে এবং সঙ্গীত পরিচালক ইমরানকে। তিনজনের অক্লান্ত পরিশ্রমের কারণেই অনবদ্য ‘ব্রেকআপ’র সৃষ্টি। ধন্যবাদ ঐশী, এতো অসাধারণভাবে গানটি গাওয়ার জন্য।

 ধন্যবাদ রবিউল ইসলাম জীবন এবং ইমরানকে তাদের আন্তরিকতার জন্য। অবশ্যই ধন্যবাদ দিতে হয় অডিও ভিডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘লেজার ভিশন’কে এমন একটি গানের পৃষ্ঠপোষকতা করার জন্য। এর আগেও আমি ঐশী’র গাওয়া সোমেশ্বর অলি’র লেখা ও বেলাল খানের সুরে ‘আমি না থাকিলে সংসারে’ গানে মুগ্ধ হয়েছিলাম। মুগ্ধ হয়েছিলাম ইমরান ও ঐশীর গাওয়া ‘জানিনা জানিনা আমি কী যে করি এখন, বুঝিনা বুঝিনা তাের মনটা পাবো কখন’ গানটি শুনে। একটি বেসরকারী মেডিক্যাল কলেজে পড়াশুনার পাশাপাশি গান নিয়েই ঐশীর ভাবনা মুগ্ধ করে আমাকে।  সঙ্গীতময় ঐশী’র আগামীদিন গুলো হোক আরো সুন্দর, আলোকিত এবং শ্রোতা মুগ্ধময়।

 

এই বিভাগের আরো খবর

চমকের অপেক্ষায় নিশীতা বড়য়া

অভি মঈনুদ্দীন: কন্ঠের ভিন্নতার জন্যই নিশীতা বড়–য়ার গায়কীতে আলাদা বৈশিষ্ট মিলে। যে কারণে তার গান খুব সহজেই চোখ বন্ধ করে অন্য যেকোন শিল্পী থেকে সহজে আলাদা করা যায়। একজন কন্ঠশিল্পীর কন্ঠশিল্পী হয়ে উঠার প্রথম সফলতা এখানেই যে শ্রোতারা গান শুনেই বুঝতে পারেন এটা কার গান। নিশীতা বড়–য়া তার নিজ কন্ঠেরা সেই আলাদা পরিচিতিটা করে তুলতে পেরেছেন অনেক আগেই। তার গাওয়া সর্বশেষ দুটি গান ‘তুমি আমি’ এবং ‘হিয়া’ শ্রোতা দর্শকের মন ছুঁেয়ছে। দুটি গানের কথা এবং সুর করেছেন জাহাঙ্গীর রানা এবং সঙ্গীতায়োজন করেছেন শান। নিশীতা বলেন,‘ দুটি গানের জন্যই ভীষণ সাড়া পাচ্ছি। আমি খুব কম গান করি, বেছে বেছে গান করার চেষ্টা করি। কিন্তু যাই করি মনের গহীন কোন থেকে আবেগ না আসলে, ভালোবাসা না আসলে তাতে কন্ঠ দিতেও ভালোলাগেনা।

 তুমি আমি এবং হিয়া গান দুটি আমার হৃদয়ের গান। শ্রোতা দর্শক পছন্দ করছেন, তাদের অনুভুতির প্রকাশ পাচ্ছি, ভালোলাগছে।’ এদিকে আপাতত স্টেজ শো নিয়ে বেশ ব্যস্ত আছেন নিশীতা। নিশীতা বড়–য়ার এর আগে বেশ ক’জেনর কাছে গানে তালিম নিলেও বতর্মানে ভারতের তুষার দত্তের কাছে নিয়মিত তালিম নিচ্ছেন। ব্যস্ত রয়েছেন নতুন কাজ নিয়ে। নতুন কাজে থাকছে নানান চমক। তবে আপাতত সেই চমকের কথা গোপনই রাখছেন তিনি। সময় হলেই জানান দিবেন নিশীতা। এদিকে রাজধানীর একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিএ করছেন নিশীতা। নিশীতা বলেন, এখনো গান পেশা হিসেবে নেইনি। আগে এমবিএ টা শেষ করি। তারপর সিদ্ধান্ত নিবো কী হবে আমার পেশা। তবে গান আমার ভালোলাগা, ভালোবাসা।

’ এর আগে নিশীতাকে উপস্থাপনায় দেখা গেলেও আপাতত আর উপস্থাপনা করছেন না তিনি। সঙ্গীতাঙ্গনের বর্তমান প্রেক্ষাপট নিয়ে নিশীতা বলেন,‘ গান নিয়ে অনেক ভাবনা আছে আমার। অনেক ভালো ভালো গান করারও আগ্রহ আছে। কিন্তু একটি, দুটি কিংবা তিনটি ভালো গান করার জন্য অনেক কিছুরই প্রয়োজন হয়। যেভাবে পরিকল্পনা করি সেভাবে বাজেট পাইনা। আছে আনুষঙ্গিক আরো নানান বিষয়। দেখা যাক ভবিষ্যতে কী হয়। তবে আমি সবসময়ই আশাবাদী। কারণ মানুষতো আশা নিয়েই বাঁচে।’ নিশীতা’র প্রকাশিত তিনটি একক অ্যালবাম হচ্ছে ‘বন্ধু তোমায়য় মনে পড়ে’ ,‘আমায় নিয়ে চলো’ এবং ‘পূজিব তোমায় সুর সঙ্গীতে’। তিনি প্রথম প্লে-ব্যাক করেন ‘বাজাও বিয়ের বাজনা’ চলচ্চিত্রে।

 

এই বিভাগের আরো খবর



Go Top