রাত ১১:৪৯, শুক্রবার, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং
/ ক্রিকেট

সংযুক্ত আরব আমিরাতের শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ থেকে শুরু হচ্ছে টি-টেন ক্রিকেট। টি-টেন ক্রিকেটে বাংলাদেশ থেকে সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল খেললেও মুস্তাফিজুর রহমানের খেলা হচ্ছে না। চার দিনের এই প্রতিযোগিতায় খেলার জন্য বাঁহাতি পেসারকে এনওসি (অনাপত্তিপত্র) দেয়নি বিসিবি।

টি-টেন ক্রিকেটে খেলতে বুধবার আরব আমিরাতে গেছেন সাকিব। একই দিন তামিম, মুস্তাফিজেরও যাওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু তামিম যেতে পারেনি বিসিবির শুনানির মুখোমুখি হওয়ার কারণে। বিপিএল চলাকালে মিরপুরের উইকেট নিয়ে সমালোচনা করায় তামিমকে কারণ-দর্শানোর চিঠি দিয়েছিল বিসিবি।

আজ তামিমকে শুনানিতে ডেকেছিল বিসিবির শৃঙ্খলা কমিটি। শুনানি শেষে বিসিবির পরিচালক মাহবুব আনাম বলেছেন, ‘তামিমকে আজ আমরা শুনানিতে ডেকেছিলাম। ও ওর বক্তব্য দিয়েছে। সেদিন তামিম যেটা বলেছে, তার জন্য সে দুঃখ প্রকাশ করেছে।’

তামিম জানিয়েছেন, মিরপুরের উইকেট নিয়ে যে সমালোচনা তিনি করেছেন, সেটায় আরো মার্জিত ভাষা ব্যবহার করতে পারবেন।

তামিমের টি-টেন ক্রিকেটে খেলা নিয়ে কোনো শঙ্কা নেই। আজই তিনি আরব আমিরাতে উড়াল দেবেন। তবে আগে যেখানে তার তিনটি ম্যাচ খেলার কথা ছিল, এখন একটি কম খেলবেন। কারণ আজই তামিমের দল পাখতুনের একটি ম্যাচ আছে।

আজ রাতে ম্যাচ আছে সাকিবের দল কেরালা কিংসেরও। এই দলের বিপক্ষেই আজ বেঙ্গল টাইগার্সের হয়ে খেলার কথা ছিল মুস্তাফিজের। কিন্তু এনওসি না পাওয়ায় যেতে পারছেন না ‘দ্য ফিজ’।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গোড়ালির চোটে পড়েছিলেন মুস্তাফিজ। ফলে বিপিএলে রাজশাহী কিংসের হয়ে প্রথম দুই লেগ খেলতে পারেননি। শেষ দিকে চার ম্যাচে খেলেছেন। সামনে বাংলাদেশের ব্যস্ত সূচি। টি-টেন ক্রিকেটে মুস্তাফিজকে খেলার অনুমতি দিয়ে তাই ঝুঁকি নিতে চায় না বিসিবি।

চার দিনের টেস্টে প্রতিদিন ৯৮ ওভার

ইতিহাসের প্রথম চার দিনের টেস্ট খেলবে দক্ষিণ আফ্রিকা ও জিম্বাবুয়ে, এটা জানা গিয়েছিল আগেই। এবার জানা গেল ম্যাচের নিয়মগুলোও।

আইসিসির প্লেয়িং কন্ডিশন অনুযায়ী, চার দিনের টেস্টে প্রতিদিন খেলা হবে ৯৮ ওভার, যা পাঁচ দিনের টেস্টের চেয়ে প্রতিদিন ৮ ওভার বেশি। চার দিনে মোট খেলা হবে ৩৯২ ওভার, যা পাঁচ দিনের টেস্টের চেয়ে ৫৮ ওভার কম।

প্রতিদিন খেলা হবে সাড়ে ৬ ঘণ্টা। পাঁচ দিনের টেস্টে প্রতিদিন খেলা হয় ৬ ঘণ্টা। প্রতি সেশন হতে পারবে কমপক্ষে ২ ঘণ্টা, আর সর্বোচ্চ আড়াই ২ ঘণ্টা। দিনের প্রথম দুই সেশনে খেলা হবে ২ ঘণ্টা ১৫ মিনিট করে, শেষ সেশন ২ ঘণ্টার।

ফলোঅনের নিয়মেও এসেছে পরিবর্তন। পাঁচ দিনের টেস্টে ফলোঅনের হিসাব হয় ২০০ রানে, চার দিনের টেস্টে তা হবে ১৫০ রানে। ঘরোয়া ও চার দিনের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট এই নিয়মে হয়। অন্য সব নিয়ম পাঁচ দিনের টেস্টের মতোই থাকবে।

পোর্ট এলিজাবেথে দক্ষিণ আফ্রিকা ও জিম্বাবুয়ের চার দিনের টেস্ট ম্যাচটা দিবারাত্রির, খেলা হবে গোলাপি বলে। ফলে চা বিরতি হবে ২০ মিনিটের, ডিনার বিরতি ৪০ মিনিটের।

আগামী ২৬ ডিসেম্বর চার দিনের দিবারাত্রির টেস্টে মুখোমুখি হবে দক্ষিণ আফ্রিকা-জিম্বাবুয়ে। ম্যাচ শুরু হবে স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টায়।

তথ্যসূত্র : ক্রিকইনফো।

ডাবল সেঞ্চুরি বউকে উপহার দিলেন রোহিত

ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে ডাবল সেঞ্চুরি ৭টি। পাঁচজন খেলোয়াড় ৭টি সেঞ্চুরি করেছেন। তার মধ্যে ৩টিই করেছেন ভারতের রোহিত শর্মা। আজ বুধবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ক্যারিয়ারের তৃতীয় ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন রোহিত। তার অনবদ্য ২০৮ রানে ভর করে ভারত করে ৩৯২ রান। আর জয় পায় ১৪১ রানে। ম্যাচ শেষে রোহিত শর্মা জানিয়েছেন আজকের ডাবল সেঞ্চুরিটি তার স্ত্রীকে বিবাহ বার্ষিকীর উপহার হিসেবে দিয়েছেন। আজ রোহিত ও রিতিকার দ্বিতীয় বিবাহ বার্ষিকী।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে রোহিত শর্মা বলেন, ‘আজ আমাদের দ্বিতীয় বিবাহ বার্ষিকী। আজকের এই ডাবল সেঞ্চুরিটি বিবাহ বার্ষিকীতে আমার স্ত্রীর জন্য উপহার। আমি খুশি যে আজকের এই বিশেষ দিনটিতে আমার স্ত্রীও আমার সঙ্গে এখানে আছে। আমি জানি সে আমার দেওয়া এমন উপহার খুবই পছন্দ করেছে। সে আমাকে নানাভাবে শক্তি যোগাচ্ছে। সে সব সময় আমাকে সমর্থন দিয়ে এসেছে। আমি এই পেশায় আছি বলে তাকে অনেক চাপের মধ্যে থাকতে হয়। কিন্তু সে যখন পাশে থাকে তখন বিশেষ কিছু মনে হয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘তৃতীয় ডাবল সেঞ্চুরির চেয়েও বেশি আনন্দের বিষয় হল আজ আমরা ম্যাচটি জিতেছি। ভালো কিছু করতে আমরা বদ্ধ পরিকর ছিলাম।’

‘চ্যাম্পিয়ন হতে হলে ভাগ্যের সাথে প্রচেষ্টাও থাকতে হয়’

বিপিএলের পাঁচ আসরের চার শিরোপাই উঠেছে মাশরাফি বিন মুর্তজার হাতে। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ না বলে যদি ‘মাশরাফি প্রিমিয়ার লিগ’ বলা হয় তাহলে ভুল হবে কি? প্রথম দুই আসরে ঢাকা গ্লাডিয়েটরসের হয়ে শিরোপা জেতার পর তৃতীয় আসরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে শিরোপা জিতেন মাশরাফি। চতুর্থ আসরে শিরোপার কাছাকাছিও যেতে পারেননি। এক আসর পর মাশরাফির মাথায় আবারও শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট।

বিপিএলের চারটি শিরোপা জেতার নিশ্চিত কোনো রহস্যা আছে? সংবাদ সম্মেলনে এসে মাশরাফি হাসলেন। বললেন, ‘আগেরবার তো সেমিফাইনালে উঠিনি। আসলে কোনো রহস্য নেই। ভাগ্য সাথে না থাকলে তো কোনো কিছুই পাওয়া সম্ভব না। আমি ভাগ্যে বিশ্বাস করি। ভাগ্য সমর্থন করছে তাই পারছি।’

শুধু কি ভাগ্য পাশে থাকলেই মাঠের খেলায় জয় সম্ভব? মোটেও না। যদি হতো তাহলে এভিন লুইসের ক্যাচটা হাতেই আসত। মিড অফ থেকে দৌড়ে লং অনে গিয়ে ক্যাচ নেওয়ার প্রয়োজন হতো না। শুধু একটি প্রচেষ্টাই নয় লিগ পর্বের ১১তম ম্যাচে মাইকেল ক্লিঙ্গারের দ্রুতগতির ক্যাচটি সহজেই হাতে আসত। শুধু ভাগ্য থাকলেই হবে না থাকতে হবে প্রচেষ্টাও।

রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক ম্যাচ শেষে একই সুরে সুর মিলিয়েছেন, ‘অবশ্যই প্রচেষ্টা বড়। শুধুমাত্র ভাগ্যের উপর বসে থাকলে চলবে না। আপনি চেষ্টা করলেন না কিন্তু ভাগ্যের উপর বসে থাকলেন তাহলে চলবে না। আপনাকে চেষ্টা করতে হবে।’

১২ ম্যাচে ৬ জয় ও ৬ পরাজয় নিয়ে শেষ চার নিশ্চিত করার পর ফাইনাল জেতাটা আশ্চর্যজনক ও বিস্ময়কর। তিন ম্যাচে দু্জন তারকা ক্রিকেটার দায়িত্ব নেওয়ায় পাল্টে যায় রংপুরের ভাগ্য। মাশরাফি বলেছেন, ‘আমরা এলিমিনেটর থেকে অন্য রকম চেহারায় ছিলাম। এটা সত্যি কথা আমাদের ভেতরে ওই ক্ষুধাটাও ছিল। আমরা মাঠে গিয়ে কিছু করতে চাই। আামাদের প্রত্যেকটা ম্যাচ শেষ ম্যাচ ছিল। আমরা শেষটা শুধু ভালো খেলিনি। সবার থেকে ভালো খেলেছি।’

টুর্নামেন্টের শুরু থেকে ভালো করতে না পারলে শেষটা রাঙিয়ে দিয়েছে মাশরাফির রংপুর। অন্যদিকে পুরো টুর্নামেন্টে দারুণ করা ঢাকা ডায়নামাইটস শেষ দিকে পথ ভুলে শিরোপা হারিয়েছে।  

গেইল থাকা অবস্থায় আমার বল করা কঠিন: সাকিব

জনাথন চার্লস সাকিবের করা প্রথম ওভারের প্রথম চারটি বল বুঝতেই পারলেন না। কোনো রকমে ব্যাটে বল লাগিয়ে টিকে রইলেন।

পঞ্চম বলেই সাকিবের শিকারে পরিণত হন আগের রাতেই মিরপুরে ১০৫ রানের ইনিংস খেলা চার্লস। শেষ বলে রান নিলেন না ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। বিপিএলের ফাইনালের দ্বিতীয় ওভার মেডেন উইকেট। মেডেন উইকেট নিয়ে শুরুর করা সাকিব পরবর্তীতে করেন আরও ২ ওভার। সব মিলিয়ে তার বোলিং ফিগার ৩-১-২৬-১। তার করা শেষ ওভারে আসে ১৯ রান। ম্যাককালাম ১ রান নেওয়ার পর ক্রিস গেইল তিনটি ছক্কা হাঁকান। আর চতুর্থ ওভারে সাকিব ব্যয় করেন ৭ রান।

শুরুর দিকে স্পিনারদের অ্যাটাকে এনে রানের চাকা থামিয়ে রাখলেও গেইল তাণ্ডবে ধরাশয়ী সাকিব। প্রথম ১০ ওভারে ৬৩ রান তোলা রংপুর শেষ ১০ ওভারে করে ১৪৩ রান।

ফাইনালে মোহাম্মদ আমিরকে বাইরে রেখে ঢাকা বুঝিয়ে দিয়েছিল নিজেদের মন মতো উইকেটই পেয়েছে তারা। তিন স্পিনার সাকিব, আফ্রিদি ও সুনিল নারিনের সাথে বাড়তি পাওয়া মোসাদ্দেক। প্রথম দশ ওভারে নয় ওভারই করে তিন স্পিনার। আর বিশ ওভারে পেসাররা হাত ঘোরায় মাত্র ৬ ওভার। টি-টোয়েন্টির ফাইনালে বিরল এক ঘটনা। চার স্পিনার ১৪ ওভারে দেন ১০৪ রান। আর তিন পেসার ৬ ওভারে খরচ করেন ৯৮ রান।

চতুর্থ ওভারের পর সাকিব আবার বোলিং করেন শেষ ওভারে। ২২ উইকেট নেওয়া সাকিব মাঝে ওভার না করায় অনেকেই বিস্ময় প্রকাশ করেছিল। ২ ওভার হাতে রেখেও বল না করার কারণ জানতে চাওয়া হয়েছিল সাকিবের কাছে।

ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে সাকিব বলেন,‘গেইল আউট হলে অবশ্যই করতে পারতাম। গেইল যতক্ষণ ছিল ওই সময় আমার বল করা কঠিন। যেহেতু বাঁহাতি আর্ম স্পিনার আমি, ওর অন্য খুব সহজ হয়ে যেত। সেজন্য শেষ ওভার পরতে অপেক্ষা করতে হয়েছে।’ রানের চাকা আটকাতে হয়ত সাকিব একটু সাহস দেখাতে পারতেন! কে জানত একটা ভুল শটে গেইল আউট হতেও পারতেন।

তবে দিন শেষে স্বীকার করেছেন গেইল-ম্যাককালামের দিনে বোলারদের বিশেষ কিছু করার থাকে না। সাকিব বলেছেন,‘গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ওদের দুই ব্যাটসম্যান তিন ম্যাচ জিতিয়েছে। সাথে ম্যাককালামও ছিল। এভাবে খেলে দিলে টি-টোয়েন্টিতে বেশি কিছু করার থাকে না। টি-টোয়েন্টির মজাই এটা, এক-দুইজন ব্যাটসম্যান খেলা ঘুরিয়ে দিতে পারে।’

কোথায় হেরেছে ঢাকা? সাকিবের সোজাসাপ্টা উত্তর,‘আমার ক্যাচ মিস।’ ৬৯ বলে ১৪৬ রান করা গেইল ২২ রানে সাকিবের হাতে ক্যাচ দিয়েছিলেন। কিন্তু বল হাত ফসকে বেরিয়ে যায়। সাকিব শুধু ক্যাচটিই মিস করেননি, শিরোপাও হাতছাড়া করেছেন।

 

 

নারিনের ওভার পাস করতে চেয়েছি: মাশরাফি

পঞ্চম আসরে রোমাঞ্চকর এক ফাইনালের মধ্য দিয়ে নতুন চ্যাম্পিয়ন পেয়ে গেল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল)। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটসকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো মাশরাফি বিন মুর্তজার নেতৃত্বে শিরোপার স্বাদ পেল রংপুর রাইডার্স।

মিরপুরে গতকাল গেইল-ম্যাককালামদের দিনে ঢাকার প্রায় সব বোলাররাই তুমুল মার খেয়েছেন। অপর প্রান্তে যখন থিতু বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান গেইল-ম্যাককালাম তখন বিশ্বের যে কোনো বোলারেরই মার খাওয়াটা স্বাভাবিক। তবে ঢাকার অন্য বোলারদের তুলনায় কিছুটা ব্যতিক্রম ছিলেন সুনীল নারিন। রহস্যময় এ স্পিনারের বিপক্ষে তেমন ভালো করতে পারেননি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সবচেয়ে আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যানরাও।

তবে ভয়ঙ্কর নারিনকে সতর্কভাবে খেলাটা নাকি পূর্ব পরিকল্পনাতেই ছিল রংপুরের। ম্যাচ শেষ রংপুরের অধিনায়ক মাশরাফি এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমরা নারিনকে উইকেট দিতে চাইনি। আমরা নারিনের ওভার যে ভাবেই হোক পাস করতে চেয়েছি। লক্ষ্য ছিল যেন উইকেট না পড়ে এবং তার ওভারে চার-পাঁচ করেও তুলতে পারি। আমরা জানি যে গেইল-ম্যাককালাম বা চার্লস কেউ যদি থাকে তাহলে অন্য ওভারগুলো থেকে দশ-বারো করে নেওয়া সম্ভব। নারিন উইকেট টেকিং অপশন সেটা আমরা বন্ধ করতে চেয়ে ছিলাম।’

নিজেদের পরিকল্পনা মতো খেলে গতকাল সফল হয়েছিল রংপুর। ৪ ওভার হাত ঘুরিয়ে ৪.৫ গড়ে মাত্র ১৮ রান দিয়েছেন নারিন। বাকিদের গড় ছিল সর্বনিম্ন ৭ থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১৯.৫০ পর্যন্ত। গেইলের অপরাজিত সেঞ্চুরি আর ম্যাককালামের ফিফটিতে ভর করে ২০৬ রানের পাহাড়সম পুঁজি পেয়েছিল রংপুর। লক্ষ্য তাড়া করতে গিয়ে ৫৭ রানে হেরেছে সাকিব আল হাসানের ঢাকা।

 

 

 

আগামী বছর ফিরে আবার আনন্দ দেব : গেইল

৬৯ বলে ১৪৬ রানের রেকর্ড ইনিংসে ভর করে রংপুর রাইডার্সকে বলতে গেলে একাই শিরোপা এনে দেন ক্রিস গেইল। টুর্নামেন্টের শুরুর দিকে নিজের ছায়া হয়ে থাকা বিধ্বংসী গেইল পঞ্চম আসরে শেষ তিন ম্যাচে দুই সেঞ্চুরিতে নিজের শ্রেষ্ঠত্ব জানান দিয়েছেন।

গেইল-ম্যাককালামদের এক সঙ্গে জ্বলে উঠার দিনে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ঢাকাকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো বিপিএল শিরোপা জিতে রংপুর। দলের শিরোপা জয়ে এমন ভূমিকা রাখতে পারায় বেশ আনন্দিত ক্যারিবীয় তারকা। ম্যাচ শেষে জানিয়েছেন জমজমাট বিপিএলের আসরে আবারও ফেরার কথা।

মিরপুরে জমজমাট ফাইনালের পর গেইল বলেন, ‘আঙুলে সামান্য চোট থাকায় আমি খুব একটা লাফাতে পারিনি। এমন বড় একটা টুর্নামেন্টে জয়ের পর আমাদের সবার উদযাপন করতে হবে। দীর্ঘ টুর্নামেন্ট হওয়ায় সব খেলোয়াড়ই মজা করার যোগ্যতা রাখেন। আমি এখানে প্রতিটি বিপিএল মৌসুমেই এসেছি। আমি আগামী বছর আবার এসে তোমাদের আনন্দ দেব।’

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট নিজের ১১ হাজার রানের মাইলফলক নিয়ে গেইল বলেন, ‘১১ হাজার রান অসাধারণ অর্জন। আমি সততার সঙ্গেই বলতে চাই আপনাদের ভালবাসা পেয়েই আমি এটা করতে পেরেছি। আমার বয়স ৩৮। যতদিন সম্ভব আমি ভক্তদের আনন্দ দিয়ে যাবো। যে দলেই জায়গা হয় সেখানকার হয়ে শিরোপা জিততে তাকিয়ে আছি আমি।’

রংপুর শিবিরে যোগ দেওয়ার পর গেইল-ম্যাককালামদের ওপরই প্রত্যাশাটা সবচেয়ে বেশি ছিল ভক্তদের। কিন্তু শুরুর দিকে রংপুরের ওপেনাররা ঘুমিয়ে থাকায় তাদের দলীয় পারফরম্যান্সও ছিল বেশ ম্যাড়ম্যাড়ে। তবে শেষ দিকে গেইল-ম্যাককালামরা জাগায় জেগে উঠে শিরোপা ছিনিয়ে নিল রংপুর। টুর্নামেন্টের শুরুতে নিজেদের বাজে পারফরম্যান্স ইঙ্গিত দিয়ে গেইল বলেন, ‘বাংলাদেশ আসার পর গেইল এবং ম্যাককালামকে দেখার জন্য সবাই বেশ আগ্রহী ছিল। টুর্নামেন্টের শুরুতে আমরা তাদের আনন্দ দিতে পারিনি। তবে শেপষর্যন্ত ভালো করতে পারায় আমার আনন্দ হচ্ছে। ভক্তরা আমাদের কাছ থেকে এমনটাই প্রত্যাশা করছিল। এটা একজন আরেকজনকে ছাড়িয়ে যাওয়ার প্রতিযোগিতা ছিল না। আমাদের মাঝে যোগাযোগ এবং বোঝাপড়াটা দারুণ ছিল।’

১৫ ওভার ব্যাট করতে চেয়েছি: গেইল

ক্রিস গেইল উইকেটে থাকলে রান আসবেই। গেইলের ঘোর বিরোধীরাও এ কথা বিশ্বাস করেন। আগের দিন আঙুলে সামান্য চোটের কথা জানালেও নিজের ওপর আস্থা ছিল ক্যারিবীয় এ ব্যাটিং দানবের।

পঞ্চম আসরের ফাইনালে রংপুরের হয়ে রেকর্ড পারফরম্যান্সের পর গেইলের ব্যাটিং পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়েছিল। দলের লক্ষ্য যাই হোক ব্যক্তিগতভাবে উইকেটে থিতু হওয়ার পরিকল্পনার কথা জানিয়ে গেইল বলেন, ‘ফাইনালের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিশেষ এ ম্যাচে আমি ১৫ ওভার ব্যাট করতে চেয়েছি। বোলারদের পিছনে সময় দিতে থাকলে আপনি সহজ বল পেয়ে যাবেন। এটি সত্যি যে আমি যথা সম্ভব গভীরে গিয়ে ব্যাটিং করার চেষ্টা করেছি।’

অপর প্রান্তে থাকা ম্যাককালামের সঙ্গে নিজের পরিকল্পনা নিয়ে গেইল বলেন, ‘ঢাকার শুরুটা ভালো ছিল। আমরা ধীরভাবেই শুরু করেছিলাম। আমরা দ্রুত চার্লসকে হারিয়েছিলাম। তারপর ম্যাককালাম আসেন। ভালো ব্যাটিংয়ের জন্য গভীরে গিয়ে আমাদের সুযোগ নিতে হয়েছিল। ইনিংসে ভালো করতে আমাদের একজনের ব্যাটিং গুরুত্বপূর্ণ ছিল। এটা সত্যিকারভাবে দলের মোমেন্টাম ঠিক করে দিয়েছিল। এটা ভালো উইকেট, একসময় আপানি তাতে সেট হতে পারবেন। তাদের মানসম্মত বোলার ছিল। তবে আমরা তাদের সেরা বোলারদের কোনো উইকেট দেইনি।’

শক্তিশালী বোলারদের বিপক্ষে ইতিবাচক মনোভাবের কথা জানিয়ে গেইল বলেন, ‘যে কোনো বিশেষ বোলারের বিপক্ষে আপনি ইতিবাচক থাকতে চাইবেন। বিশেষ করে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে। খোলসে বন্দি থাকলে আপনি নিজের বিপদ দেখতে পাবেন। নারিন তাদের মূল বোলার। চার্লসকে দ্রুত হারানোর পর কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে খেলার পরিকল্পনা ছিল। এই ফরম্যাটে স্ট্রাইক রেট বাড়ানোর পরিকল্পনা সবসময় গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা হয়। আমি মনে করি ম্যাককালামের সঙ্গে কাজগুলো দারুণভাবে করতে পেরেছি। মাঝে যে কাজগুলো করা দরকার আমরা সেগুলোই করেছি ফলে তাদের বোলারদের ভুগতে হয়েছে।’

 

 

উইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করল কিউইরা

ওয়েলিংটনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ইনিংস ব্যবধানে জয়ের পর হ্যামিল্টন টেস্টেও দাপুটে জয় পেয়েছে নিউজিল্যান্ড। রস টেইলরের রেকর্ড সেঞ্চুরি ছোঁয়ার ম্যাচে ২৪০ রানে জয় তুলে নিয়েছে স্বাগতিকরা। আর এ জয়ে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজে ক্যারিবীয়দের ২-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ করল নিউজিল্যান্ড।

প্রথম ইনিংস শেষে ১৫২ রানে এগিয়ে থাকার পর দ্বিতীয় ইনিংসে টেইলের সেঞ্চুরিতে ২৯১ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা দেয় নিউজিল্যান্ড। ফলে সব মিলিয়ে জয়ের জন্য ৪৪৪ রানের লক্ষ্য পায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। পাহাড় সমান লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতেই কাল হোচট খায় ক্যারিবীয়রা। দলীয় ৩০ রান তুলতেই টপঅর্ডারের দুই গুরুত্বপূর্ণ ব্যাটসম্যানকে হারায় দলটি।

লক্ষ্য থেকে ৪১৪ রানে পিছিয়ে থেকে আজ চতুর্থ দিনে ব্যাটিংয়ে নামে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। গতকাল ১৩ রানে অপরাজিত ব্যাটসম্যান কার্লোস ব্রাফেট দলীয় ৪৩ রানে ট্রেন্ট বোল্টের শিকার হন। ব্যক্তিগত ২০ রানে তার আউটের পর কিছুটা প্রতিরোধের আভাস দিলেও টিকতে পারেননি সাই হোপ। ব্যক্তিগত ২৩ রানের মাথায় ওয়াগনারের বলে কলিন ডি গ্রান্ডহোমের হাতে ধরা পড়েন তিনি।

তবে ওয়স্ট ইন্ডিজের হয়ে একাই লড়তে দেখা গেছে রস্টন চেজকে। দলের হয়ে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৬৪ রানের ইনিংসটি তার ব্যাট থেকে আসে। ৯৮ বলে ৮ চারে এ ইনিংস সাজান তিনি। শেষদিকে রেইমন রেইফার ২৯ ও কেমার রোচের ৩২ রানের ভর করে ২০৩ রানে থামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংস।
 

 


দ্বিতীয় ইনিংসে কিউইদের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন নেইল ওয়াগনার। এছাড়া টিম সাউদি, মিচেল স্যান্টনার ও ট্রেন্ট বোল্ট ২টি করে উইকেট নেন।

এর আগে নিউজিল্যান্ডের ৩৭৩ রানের পর নিজেদের প্রথম ইনিংসে ২২১ রান করতে পেরেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দ্বিতীয় ইনিংসে টেইলরের সেঞ্চুরিতে ৮ উইকেটে ২৯১ রানে ইনিংস ঘোষণ দিলে জয়ের জন্য ৪৪৪ রানের বড় লক্ষ্য পায় ক্যারিবীয়ারা।

দুই ম্যাচ টেস্টের পর এবার নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

শিরোপা জয়ের ‘বারুদ’ রয়েছে ঢাকার

বিপিএলে সবশেষ চতুর্থ আসরে ঢাকা ডায়নামাইটসকে শিরোপা জিতিয়েছেন কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন। সবার কাছে ‘চ্যাম্পিয়ন’ কোচ হিসেবে পরিচিত জাতীয় দলের প্রাক্তন অধিনায়ক। পঞ্চম আসরেও আজ ফাইনালে শিরোপা ধরে রাখার মিশনে রংপুর রাইডার্সের মুখোমুখি হবে তার দল ঢাকা ডায়নামাইটস।

গতবারের মতো এবারও শিরোপা ধরে রাখতে আত্মবিশ্বাসী ঢাকা। বিশেষ করে বিগ বাজেটের দল গড়ে ধারাবাহিক ফল পাওয়ায় ঢাকা শিরোপার স্বপ্ন দেখছে দীর্ঘদিন ধরেই। খালেদ মাহমুদ সুজন বলেছেন,‘ঢাকা কাগজে কলমে সেরা দল। মাঠের পারফরম্যান্সেও আমরা এই মুহুর্তে সেরা। আমরা দল গড়েছি চ্যাম্পিয়নাশিপ ধরে রাখার জন্য। আমাদের দলের মধ্যে সেই বারুদও আছে। আমরা ফাইনাল ডিজার্ভ করি এবং আশা করছি শিরোপাও পাব।’

টি-টোয়েন্টির সেরা তারকাদের নিয়ে দল গড়েছে ঢাকা। আফ্রিদি, নারিন, লুইস, পোলার্ডরা বিশ্ব ক্রিকেটে টি-টোয়েন্টি স্পেশালিস্ট হিসেবে পরিচিত। তাদের লিড দেওয়ার জন্য রয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ব্যাট-বলে দারুণ ছন্দেও রয়েছে দলটি। তবুও কিছুটা ভয় রয়েছে রংপুরকে নিয়ে। খালেদ মাহমুদ বলেছেন,‘এই মুহূর্তে দুই দলই ভালো খেলছে। যে ভালো খেলবে সেই দল জিতবে।’


বল হাতে ২১ উইকেট নিয়ে ঢাকাকে বোলিংয়ে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সাকিব। ব্যাটিংয়ে এভিন লুইস ১১ ম্যাচে করেছেন ৩৮১ রান। তাদের দুজনের উপর অনেকটাই নির্ভার ঢাকা। ফাইনালে ব্যাটসম্যানদের থেকে ভালো পারফরম্যান্স চান কোচ,‘নারিন, আফ্রিদিরা থাকার পরও সাকিব সর্বোচ্চ উইকেট পেয়েছে। ব্যাটসম্যানদের ক্ষেত্রে আমরা ওরকম কিছু এখনো পাইনি। এবার তাদের থেকেই বেশি প্রত্যাশা আমার।’

গতবার ফাইনালে রাজশাহী কিংসকে হেসে-খেলে হারিয়েছিল ঢাকা ডায়নামাইটস। এবার তাদের সামনে হেভিওয়েট রংপুর রাইডার্স। শিরোপা ধরে রাখার কাজটা সহজ হবে না ঢাকার জন্য।

শিরোপার মিশনে সন্ধ্যায় মুখোমুখি ঢাকা-রংপুর

ফাইনালের প্রতিপক্ষ জানতে লম্বা একটা সময় অপেক্ষা করতে হয়েছে ঢাকা ডায়নামাইটসকে। বৃষ্টির কারণে রিজার্ভ ডেতে খেলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে হারিয়ে ফাইনালে ঢাকার সঙ্গী হয়েছে রংপুর রাইডার্স। নিজেদের প্রথম শিরোপা জয়ের মিশনে আজ সন্ধ্যায় তিনবারের চ্যাম্পিয়ন ঢাকার মুখোমুখি হবে মাশরাফি বিন মুর্তজার দলটি।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পঞ্চম আসরের ফাইনাল আজ। আজ সন্ধ্যা ৬টায় মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শিরোপার লড়াইয়ে মুখোমুখি তারকাসমৃদ্ধ এ দুটি দল। একদিকে গেইল-ম্যাককালাম-মাশরাফি আর অন্যদিকে পোলার্ড-আফ্রিদি-সাকিবদের লড়াই দেখতে আজ মাঠের দর্শকদের সঙ্গে টেলিভিশনের পর্দায় চোখ রাখবেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টিভি ও মাছরাঙ্গা টিভি।
 


নিজেদের চতুর্থ শিরোপার অপেক্ষায় রয়েছে রাজধানীর দলটি। অপরদিকে প্রথমবারের মতো ফাইনাল খেলা রংপুর রাইডার্সও মুখিয়ে আছে বিপিএলে নিজেদের প্রথম শিরোপা জিততে। বিপিএলের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বৃষ্টির কারণে দুইদিন খেলে ফাইনালের টিকিট পায় দলটি। দল ছাড়াও লড়াইটা এবার দুই অধিনায়কের এগিয়ে যাওয়ার। মাশরাফির চতুর্থ নাকি সাকিবের দ্বিতীয়। এর আগে মাশরাফির নেতৃত্বে ঢাকা দুই বার ও কুমিল্লা একবার বিপিএল শিরোপা ঘরে তুলেছিল। আর সাকিবের নেতৃত্বে গতবছর শিরোপা ঘরে তুলে ঢাকা। মাশরাফি নামক পরশ পাথরের ছোঁয়ায় এবার রংপুরের কপাল খুলে কিনা সেটাই দেখার অপেক্ষা।

গতকাল রিজার্ভ ডেতে চলমান আসরের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসেক ৩৬ রানে হারায় রংপুর। এর আগে প্রথম কোয়ালিফায়ারেও ঢাকার কাছে ৯৫ রানের বড় ব্যবধানে হারে বিপিএল ২০১৫ চ্যাম্পিয়নরা। ফলে তৃতীয় স্থানে থেকেই এবার আসর শেষ করতে হয়েছে তামিম ইকবালের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে।

এবার শিরোপা ধরে রাখতে মরিয়া ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ঢাকা। বিগ বাজেটে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সেরা তারকাদের নিয়ে দল সাজিয়েছে রাজধানীর ক্লাবটি । আফ্রিদি, নারিন, লুইস, পোলার্ড ও মোহাম্মদ আমিরের মতো বিশ্বসেরা তারকারা রয়েছেন এই দলে। আর তাদের নেতৃত্ব দেওয়ার দায়িত্বে রয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। বল হাতে ২১ উইকেট নিয়ে ঢাকাকে বোলিংয়ে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সাকিব। ব্যাটিংয়ে এভিন লুইস ১১ ম্যাচে করেছেন ৩৮১ রান। আজও তাদের চেনারূপে দেখতে চাইবে ঢাকার সমর্থকরা।

অন্যদিকে তারকার কমতি নেই মাশরাফির রংপুর শিবিরেও। তবে সমস্যা তাদের ধারাবাহিকতা নিয়ে। গেইল-ম্যাককালাম কিংবা চার্লসের মতো বিগ হিটাররা ক্রিজে থিতু হতে পারলে একই খেলা ঘুরিয়ে দিতে পারেন। শুরুর দিকে তাদের ফর্ম আর ছন্দ নিয়ে শঙ্কায় ছিল রংপুর শিবির। কিন্তু শেষ দুই ম্যাচে দলের টপ অর্ডারদের দপ করে জ্বলে উঠায় শিরোপার স্বপ্নে বিভোর রংপুর। আজকের ফাইনালেও তাদের সেরাটার প্রত্যাশায় রয়েছে রংপুরের সমর্থকরা।

‘নিজেদের দিনে গেইলরা সব শেষ করে দিতে পারে’

গ্রুপপর্বে বেশ নড়বড়ে অবস্থা ছিল রংপুর রাইডার্সের। দলে ধীরে ধীরে তারকা খেলোয়াড়রা ভিড়তে শুরু করলেও রংপুর শিবিরে গতি ফিরেছে তারও অনেক পরে। শুরুর দিকে সেরা চারেও তাদের ভাবেনি অনেকেই। কিন্তু শেষ সময়ে টপ অর্ডার আর তারকা খেলোয়াড়দের ঘুম ভাঙ্গায় মর্যাদার ফাইনালের টিকিট পায় রংপুর।

শেষ সময় ক্রিস গেইল, চার্লস এবং ম্যাককালামের মতো তারকা খেলোয়াড়রা স্বরূপে ফেরায় খুলনা ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের মতো শক্তিশালী দলকেও দাপটের সঙ্গে হারায় রংপুর। আজকের সন্ধ্যার ফাইনালে বিগ বাজেটের তারকাসমৃদ্ধ দল ঢাকা ডায়নামাইটসের মুখোমুখি হবে মাশরাফির রংপুর। খুব বেশি চাপ না নিয়ে দলের নিয়মিত খেলোয়াড়দের কাঁধে চেপেই ভালো কিছুর স্বপ্ন দেখছেন রংপুরে অধিনায়ক মাশরাফি।

সম্প্রতি ছন্দে না থাকলেও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের বড় নাম গেইল-ম্যাককালামেই ভরসা রাখছেন মাশরাফি। নিজেদের দিনে তারা সব কিছু শেষ করে দিতে পারেন বলে মনে করেন রংপুরের দলপতি। এ প্রসঙ্গে অধিনায়ক হিসেবে বিপিএলে নিজের চতুর্থ শিরোপার অপেক্ষায় থাকা মাশরাফি বলেন, ‘আগের কয়েকটা সংবাদ সম্মেলনেও বলেছি ওরা যেভাবে খেলেছে এটা হচ্ছে ওদের ন্যাচারাল গেম। হয়তোবা একটা মিস হলে আউট হয়ে যেতে পারত। এ জন্যই তারা এ ধরণের টুর্নামেন্টে সবার আগে ডাকগুলো পায়। নিজেদের দিনে ওরা যেকোনো দলকে ধ্বংস করতে পারে। প্রথম সেমিফাইনালে গেইল একাই করে দিয়েছে। আজকে (সোমবার) চার্লস। এরকম একটা ইনিংস একটা দলের জন্য যথেস্ট হতে পারে। ম্যাককালাম যেভাবে খেলেছে তাতে আমাদের বড় স্কোর গড়তে সুবিধা হচ্ছে। এটা সত্যি আমাদের দলে দুজন খেলোয়াড় আছেন যারা তাদের দিনে সব শেষ করে দিতে পারে। সেটা ম্যাককালাম ও গেইল।’

হাই-ভোল্টেজ ফাইনালে রংপুরের সেরা তারকা গেইলকে নিয়ে শঙ্কা থাকলেও ভক্তদের সুখবর দিলেন মাশরাফি। এ প্রসঙ্গে রংপুরের দলপতি বলেন, ‘গেইলের একটু ব্যথা আছে। ওভারঅল মনে হচ্ছে না কোনো সমস্যা আছে। একটু দৌড়াদৌড়ি করলে খেলতে পারবে। হাঁটা-চলাতে কোথাও কোনো সমস্যা হচ্ছে না।’

নিউজিল্যান্ডের ওয়ানডে দলে অ্যাস্টল-ফার্গুসন

দেশের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের জন্য দল ঘোষণা করেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট।

মঙ্গলবার ঘোষিত দলে ফিরেছেন ফাস্ট বোলার লকি ফার্গুসন। দলে ডাক পেয়েছেন ওয়ানডে অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা অলরাউন্ডার টড অ্যাস্টলও।

দুই সিনিয়র ক্রিকেটার কেন উইলিয়ামসন ও টিম সাউদিকে শেষ দুই ম্যাচে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে। দুজনকে শুধু প্রথম ম্যাচের জন্য রাখা হয়েছে।

এ ছাড়া দলে বড় কোনো চমক নেই। ভারত সফরে নিউজিল্যান্ডের সর্বশেষ ওয়ানডে দলে থাকা লেগ স্পিনার ইশ সোধির জায়গায় এসেছেন অ্যাস্টল।

ওপেনার ব্যাটসম্যান মার্টিন গাপটিল অবশ্য হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে ছিটকে গেছেন। তার জায়গায় ব্যাটিং ওপেন করবেন সেন্ট্রাল ডিসট্রিক্টসের ব্যাটসম্যান জর্জ ওয়াকার।

উইলিয়ামসনের অনুপস্থিতিতে শেষ দুই ম্যাচে কিউই দলকে নেতৃত্ব দেবেন টম ল্যাথাম। এরই মধ্যে আয়ারল্যান্ড সফরে ওয়ানডে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন এই ওপেনার।

ঘরের মাঠে ব্যস্ত সূচির কথা মাথায় রেখেই উইলিয়ামসন ও সাউদিকে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের পর পাঁচটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলতে নিউজিল্যান্ড সফর করবে পাকিস্তান। গ্রীষ্মের শেষ দিকে পাঁচটি ওয়ানডে ও দুটি টেস্ট খেলতে যাবে ইংল্যান্ড।

উইলিয়ামসনকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজেও বিশ্রাম দেওয়া হবে। ব্যাটসম্যান নিল ব্রুম ও বাঁহাতি স্পিনিং অলরাউন্ডার মিচেল স্যান্টনারকে শেষ দুই ওয়ানডের জন্য দলে রাখা হয়েছে।

আগামী ২০ ডিসেম্বর ওয়াঙ্গেরির কোবহাম ওভালে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেটি খেলবে নিউজিল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। পরের দুটি ম্যাচ ২৩ ও ২৬ ডিসেম্বর ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে।

নিউজিল্যান্ডের ওয়ানডে দল:

কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক), টিম সাউদি (দুজন শুধু প্রথম ওয়ানডের জন্য), টড অ্যাস্টল, ট্রেন্ট বোল্ট, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম, লকি ফার্গুসন, ম্যাট হেনরি, টম ল্যাথাম, অ্যাডাম মিলনে, কলিন মানরো, হেনরি নিকোলস, রস টেলর, জর্জ ওয়াকার।

নিল ব্রুম ও মিচেল স্যান্টনার (দ্বিতীয় ও তৃতীয় ওয়ানডের জন্য)।

তথ্যসূত্র : ক্রিকইনফো।

তৃতীয় দিনে মাঠে নামবে নিউজিল্যান্ড-উইন্ডিজ

ক্রিকেট

নিউজিল্যান্ড-উইন্ডিজ
দ্বিতীয় টেস্ট, তৃতীয় দিন
সরাসরি, ভোর ৪টা
স্টার স্পোর্টস ১

ফুটবল

সিরি’আ
জিনোয়া-আটালান্টা
সরাসরি, রাত ১২টা
লাজিও-তুরিনো
সরাসরি, রাত ১.৪৫ মি.
সনি টেন ১
লা লিগা
এস্পানিওল-জিরোনা
সরাসরি, রাত ১.৪৫ মি.
সনি টেন ২

বাবা হচ্ছেন মুশফিক

সন্তানের বাবা হচ্ছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম। সব কিছু ঠিক থাকলে খুব শিগগিরই তার স্ত্রী জান্নাতুল কিফায়াত মন্ডির কোলজুড়ে আসছে তাদের অনাগত সন্তান। বর্তমানে মেডিক্যাল চেক আপ করাতে এই দম্পতি থাইল্যান্ডে অবস্থান করছেন।

চলমান বিপিএল এবং তার আগে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে টানা ব্যর্থতার বৃত্তে বন্দি ছিলেন মুশফিক। গতকাল (রোববার) হারিয়েছেন টাইগারদের টেস্ট দলের নেতৃত্বও। আর এই বিচ্ছেদের মধ্যেই আনন্দের সুর নিয়ে এল এই সুখবর।

২০১৩ সালের অক্টোবরে জান্নাতুল কিফায়াত মন্ডির সাথে মুশফিকের বাগদান সম্পন্ন হয়। এর প্রায় এক বছর পর ২০১৪ সালের ২৫শে সেপ্টেম্বর এই জুটি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। গায়ে হলুদ অনুষ্ঠিত হয় ২৪ সেপ্টেম্বর ও বিবাহোত্তর সংবর্ধনা হয় ২৭ সেপ্টেম্বর। জান্নাতুল কিফায়াত মন্ডি ব্যবসায় প্রশাসনে অনার্স সম্পন্ন করেছেন ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে।

আজ খেলা না হলে কি হবে?

প্রথমে বৃষ্টি। তারপর খেলা শুরু নিয়ে নানা ঘটনা, নাটকীয়তা আর গুঞ্জন। শেষ পর্যন্ত কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স আর রংপুর রাইডার্সের কোয়ালিফাইয়ার ২ গতকাল রোববার শেষ হয়নি। বৃষ্টিতে ৭ ওভার খেলা হওয়ার পর রাতে বৃষ্টি কমলেও তা আর শুরু হয়নি। নানা ঘটনার পর রাত ১০.১০ মিনিটে জানানো হয়েছে খেলা যেখানে বন্ধ হয়েছে ঠিক সেখান থেকেই শুরু হবে পরের দিন সোমবার।

সেই মতে আজ সন্ধ্যা ৬ টায় খেলা শুরুর কথা। যেথেতু ৭ ওভার হয়ে গেছে তাই রংপুর পাবে আর ১৩ ওভার ব্যাট করার সুযোগ। জবাবে পাল্টা ব্যাটিংয়ে নামবে কুমিল্লা। এটা হল স্বাভাবিক সমীকরণ বা হিসেব নিকেশ। কিন্তু যদি আজও খেলা না হয় তাহলে কি হবে? এমন প্রশ্নও কিন্তু আছে অনেকের মনে। আজ (সোমবার) দ্বিতীয় দিনের অত যদি বৃষ্টি বাধা হয়ে দাঁড়ায়, আর একটি বল মাঠে না গড়ায়, তাহলে পয়েন্ট টেবিলের উপরে থাকার সুবাধে কুমিল্লা ফাইনালে চলে যাবে।

সোমবার সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন বিপিএল টেকনিক্যাল কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। বিপিএল টেকনিক্যাল কমিটির চেয়ারম্যানের এ বক্তব্যের প্রেক্ষিতে খুব স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন ওঠে, তাহলে কেন গতকাল (রোববার) খেলা না হওয়ার পর কুমিল্লাকে জয়ী ঘোষণা করা হল না। যদিও আজ দ্বিতীয় দিনের মত খেলা না হওয়ায় কুমিল্লাকে জয়ী ঘোষণা করা যায়, তাহলে কাল কেন গেল না? কিসের ভিত্তিতে ম্যাচ দ্বিতীয় দিনে গড়াল?

এ প্রশ্ন করা হলে জালাল ইউনুস বলেন, ‘বাইলজে পরিষ্কার লেখা আছে যদি কোন ম্যাচ টাই হয় কিংবা ‘নো রেজাল্ট থাকে’ তাহলে সুপার ওভারে ম্যাচ ভাগ্য নিশ্চিত করা হবে।’

জালালের ধারণা বেশিরভাগ ক্রিকেট অনুরাগী ও কুমিল্লা ম্যানেজমেন্ট ধরে নিয়েছিলেন শুধু টাই হলেই কেবল সুপার ওভারেই ম্যাচ ভাগ্য করা যাবে কিন্তু ‘নো রেজাল্ট’ থাকলেও যে সুপার ওভারে ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণ করা যাবে এটা অনেকে লক্ষ্য করেননি।

জালালের কথা, ‘খোদ কুমিল্লা ম্যানেজমেন্ট ও বিষয়টি ভুল বুঝেছিলেন। পড়ে কথার এক পর্যায়ে সুপার ওভার যে প্লেয়িং কন্ডিশনে আছে তা নিশ্চিত করার পর কুমিল্লা সুপার ওভার খেলতে অস্বীকৃতি জানায়। তখন কুমিল্লাকে কয়েকটি বিকল্প প্রস্তাব দেওয়া হয়।’

জালালের ভাষ্য মতে, ‘টুর্নামেন্ট কমিটি ওই সব বিকল্প প্রস্তাব দেওয়ার অধিকার রাখে। আর বাই লজে ছিল যে, উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবেলায় টুর্নামেন্ট কমিটি যে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারবে। সে কারণেই হয় ৫/৭ ওভার কিংবা সুপার ওভারে ম্যাচ নিষ্পত্তির কথা বলা হয়েছিল কুমিল্লাকে। এমনকি আজ নতুন করে ম্যাচ শুরুর প্রস্তাবও নাকি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কোনটাই মনভূত হয়নি কুমিল্লার। অবশেষে তারা যেখানে খেলা বন্ধ হয়েছে সেখান থেকেই খেলতে রাজি হয়।’

টেস্ট অধিনায়ক সাকিব, ডেপুটি মাহমুদউল্লাহ

দেশের সবশেষ টেস্ট সিরিজে বিশ্রাম নেওয়া সাকিব আল হাসানকে টেস্ট দলের নতুন অধিনায়ক করা হয়েছে। তার সহকারী হিসেবে কাজ করবেন মাহমুদউল্লাহ।

রোববার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালনা পর্ষদের সভায় মুশফিকুর রহিমকে সরিয়ে সাকিবকে দায়িত্ব দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সংবাদ সম্মেলনে নেতৃত্বে এই পরিবর্তনের কথা জানান বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান।

“আমরা টেস্ট অধিনায়ক পরিবর্তন করছি। আগামী সিরিজ থেকে আমাদের টেস্ট অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। সহ-অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। অন্য ফরম্যাটে যেভাবে ছিল সেভাবেই থাকবে।”

দক্ষিণ আফ্রিকায় হতাশার সফর শেষে টেস্ট দলের নেতৃত্বের পরিবর্তন অনুমিতই ছিল। প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিল মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্ব। ম্যাচ চলার সময়ে বোলারদের কঠোর সমালোচনা করে নিজেও সমালোচনায় পড়েন এই উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান।

ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি নেতৃত্বে পরিবর্তন আনার সময় নাজমুল হাসান বলেছিলেন, তারা চান ব্যাটিংয়ে আরও বেশি মনোযোগ দিক মুশফিক। এবারও বললেন সেই কথাই। তবে এর বাইরেও যে কিছু আছে দিলেন তারও ইঙ্গিত।

“একেবারে যে সুনির্দিষ্ট কোনো প্রেক্ষাপট আছে তা না, আর থাকলেও সব সময় বলা যাবে না। আমরা মনে করছি, এখানটায় একটা পরিবর্তন করা দরকার।”

“ব্যাটিংয়ে মুশফিকের সেরাটা চাই। আমরা মনে করছি, ব্যাটিংয়েই সে মনোযোগ দিক, ওকে চাপমুক্তও করতে চাচ্ছি।”

টেস্ট দলের সহ-অধিনায়ক ছিলেন ওপেনার তামিম ইকবাল। তার জায়গায় দায়িত্ব পাওয়া মাহমুদউল্লাহ আগেও সহ-অধিনায়ক ছিলেন। ছন্দ হারিয়ে ফেলায় পরে নিজে থেকেই সরে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি।

তামিমকে টেস্ট দলের সহ-অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার কোনো ব্যাখ্যা দেননি বিসিবি প্রধান। তার বদলে জানা গেল নতুন তথ্য, “তামিম টি-টোয়েন্টিতে ডেপুটি আছে সে টি-টোয়েন্টিতেই থাকবে।”

২০০৯ সালে বাংলাদেশের অধিনায়কত্ব পান সাকিব, সহ-অধিনায়ক হন তামিম। ২০১১ সালে জিম্বাবুয়ে সফরে ব্যর্থতায় নেতৃত্ব হারান দুই জনেই। মুশফিককে নতুন অধিনায়ক বেছে নেয় বিসিবি, সহ-অধিনায়ক হন মাহমুদউল্লাহ।

২০১৪ সালে বাংলাদেশের টানা ব্যর্থতার মাঝে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে মাশরাফি বিন মুর্তজাকে নেতৃত্ব আনে বিসিবি। অভিজ্ঞ এই পেসার এখনও ওয়ানডে অধিনায়ক। সেখানে তার ডেপুটি সাকিব।

টি-টোয়েন্টি থেকে মাশরাফির অবসরের পর গত এপ্রিলে টি-টোয়েন্টি দলের নেতৃত্ব পান সাকিব। এবার অধিনায়ক হলেন আরেক সংস্করণে।

তিন ফরম্যাটে তিন অধিনায়ক টিকল না বেশিদিন। আবার কী তিন ফরম্যাটে এক অধিনায়কের দিকে ফিরে যাবে বিসিবি?

“হতে পারে। এই মূহর্তে বলা মুশকিল। দুইটার ইতিবাচক-নেতিবাচক ব্যাপারগুলো আমরা দেখছি। এই মুহূর্তে হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। যেহেতু মাশরাফি এরই মধ্যে আমাদের ওয়ানডে অধিনায়ক। আর সেখানে হাত দেওয়ার প্রশ্নই উঠে না আর তার প্রয়োজনও দেখছি না।”

টি-টোয়েন্টিতে সাকিবের নেতৃত্ব ৬ ম্যাচ সবকটিতে হেরেছে বাংলাদেশ। টেস্টে বাঁহাতি অলরাউন্ডারের অধীনে ৮ ম্যাচে জয় মাত্র একটি।

দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের আগে টেস্ট থেকে ছয় মাসের ছুটির আবেদন করেন সাকিব। বিসিবি তাকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুই টেস্টের জন্য বিশ্রাম দেয়। নাজমুল হাসান জানান, নেতৃত্বে বদল আনার আগে সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে কথা বলে নিয়েছেন।     

“সাকিবের সাথে কথা বলেছি। আমি মুশফিকের সাথে কথা বলেছি। আমি (মাহমুদউল্লাহ) রিয়াদের সাথেও কথা বলেছি। মুশফিক আজকে দেশে নাই, ও থাইল্যান্ডে আছে। তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে ওর সাথে কথা বলেছি।”

মুশফিকের অধীনে ৩৪ টেস্ট খেলে ৭টিতে জিতেছে বাংলাদেশ। হেরেছে ১৮ টেস্ট, ড্র হয়েছে অন্য ৯টি। অন্য কোনো অধিনায়কের নেই একাধিক জয়।

 

মুশফিকের পরিবর্তে টেস্ট অধিনায়ক সাকিব

স্পোর্টস রিপোর্টার : টেস্ট অধিনায়কত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হলো মুশফিকুর রহিমকে। তার পরিবর্তে টেস্ট অধিনায়ক করা হয়েছে অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে। আজ রোববার বিসিবির মিটিং শেষে এ কথা জানান সংস্থাটির প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন। মুশফিক এবং অন্যদের সঙ্গে আলোচনা করেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান বিসিবি প্রধান।

২০১১ সালে বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়কত্বের দায়িত্ব পেয়েছিলেন মুশফিক। এরপর দলকে অনেকগুলো স্বরণীয় সাফল্য এনে দেন তিনি। এর মধ্যে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও শ্রীলঙ্কার মাটিতে শ্রীঙ্কাকে হারানো। তিনি বাংলাদেশের সফলতম টেস্ট অধিনায়কও বটে। বাংলাদেশ সাকুল্যে যে ১০ টেস্টে জয়লাভ করে তার সাতটি মুশফিকের নেতৃত্বে। মুশফিকের অধিনায়কত্বে ড্র করেছে ৯ টেস্টে।

কিন্তু নানা কারণে তিনি টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে পড়েন। চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে চট্টগ্রামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্ট শেষে টিম ম্যানেজমেন্টর বিপক্ষে কথা বলে কোচ ও বিসিবি প্রধানের বিরাগভাজন হন। অক্টোবরে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে আরেকবার টিম ম্যানেজমেন্টের সমালোচনা করে তোপের মুখে পড়েন মুশফিক। তখন থেকেই গুঞ্জন অধিনায়কত্ব হারাচ্ছেন মুশি।

তবে সংবাদ সম্মেলনে মুশফিকের সারানোর অন্য কারণের কথা বলেছেন বোর্ড প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন। ব্যাটিংয়ে যাতে বেশি মনোযোগ দিতে পারে সে কারণেই নাকি তাকে অধিনায়কত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘মুশফিক আমাদের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। সে যাতে ব্যাটিংয়ে বেশি মনোযাগ দিতে পারে এ জন্যই তার কাছ থেকে অধিনায়কত্ব নিয়ে নেওয়া হয়েছে।’

গত মার্চে টি-টায়েন্টি ফরম্যাট থেকে মাশরাফি অবসর নিলে দায়িত্ব দেওয়া হয় সাকিব আল হাসানকে। টেস্ট অধিনায়কত্ব অবশ্য সাকিবের জন্য নতুন নয়। ২০০৯ সালে মাশরাফি ইনজুরিতে পড়লে দায়িত্ব পান সাকিব। কিন্তু অধিনায়কত্বের পর্বটা মোটেও সুখের হয়নি সাকিবের। ৯ টেস্টে নেতৃত্ব দিয়ে জয়ের দেখা পান একটিতে, হার আটটিতেই।

জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হোম সিরিজে টেস্ট অধিনায়কত্বের দ্বিতীয় পর্ব শুরু করবেন সাকিব। টেস্টে বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচাইতে সফল অধিনায়ক কিন্তু মুশফিকই। এই ফরম্যাটে সবচাইতে বেশি সাফল্য তার হাত ধরেই এসেছে। সাদা পোশাকে বাংলাদেশ যে ১০টি জয় পেয়েছে তার ৭টিই তার হাত ধরে এসেছে। আর তার অধীনে ড্র হয়েছে ৯টি টেস্ট। হার ১৮টি ম্যাচ। তার অধীনে বাংলাদেশ ৩৪টি টেস্ট খেলেছে।

 

সাকিবের অনুপস্থিতি মানতে পারেননি হাথুরুসিংহে

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ এমনিতেই ছিল অগ্নিপরীক্ষা| সাকিব আল হাসান না থাকায় পরীক্ষায় পাস মার্কও তুলতে পারেনি বাংলাদেশ! ক্লান্তি ঘোচাতে বিশ্বের এক নম্বর অলরাউন্ডার বিশ্রাম চেয়েছিলেন।

বোর্ড দীর্ঘমেয়াদের কথা চিন্তা করে সাকিবকে দিয়েছিল বিশ্রাম। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে সাকিবের অনুপস্থিতি মানতে পারেননি কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। সদ্য পদত্যাগ করা কোচ বাংলাদেশে এসেছেন আনুষ্ঠানিকতা সারতে। বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে শনিবার রাতে হোটেল র‍্যাডিসনে সৌজন্য সাক্ষাত করেন হাথুরুসিংহে। সেখানে বোর্ড সভাপতিকে নিজের আক্ষেপের কথা জানান হাথুরুসিংহে।|

বৈঠক শেষে নাজমুল হাসান বলেন,‘দক্ষিণ আফ্রিকা সফরটা নিয়ে প্রথম থেকেই তার একটা অসন্তুষ্টি ছিল। এখানে খেলোয়াড়দের মানসিকতা নিয়েও তার সমস্যা ছিল। উদাহরণ হিসেবে, সাকিব টেস্ট খেলতে যাবে না এটাও সে মেনে নিতে পারেনি। তার কথা, সাকিব কেন খেলবে না? এমন গুরুত্বপূর্ণ একটা সফরে এমন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় কেন দেশের হয়ে খেলবে না!’

সাকিবের বিশ্রাম হয়তো বড় কোনো কারণ নয়। কিন্তু ক্ষুদ্র ইস্যু! তবে কোচের পদত্যাগের মূল কারণ দক্ষিণ আফ্রিকায় ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনা। নাজমুল হাসান বলেছেন,‘দক্ষিণ আফ্রিকায় আরো কিছু ঘটনা ঘটেছিল। পাশাপাশি সফরে আমাদের পুরো খেলা, পারফরম্যান্স, মানসিকতা নিয়ে হাথুরুসিংহে অত্যন্ত হতাশ। সে কখনো চিন্তাই করতে পারে না বাংলাদেশ এ ধরনের একটা খেলা খেলতে পারে। তার ভাবনাতেই ছিল না। তার মনে হয়েছে যে, এ ধরনের দলকে তার দেওয়ার কিছু নেই। যা দেওয়ার ছিল তা দিয়ে দিয়েছে। তার মনে হয়েছে, এভাবে চললে সে আর বাংলাদেশকে সামনে নিয়ে যেতে পারবে না। তাই তার চলে যাওয়াই ভালো।’

হাথুরুসিংহে বাংলাদেশকে দিয়েছেন অনেক সাফল্য। বাংলাদেশও তাকে কম কিছু দেয়নি। মাশরাফি-সাকিবদের সাফল্যে ভর করে প্রোফাইল ভারী হয়েছে হাথুরুসিংহেরও। অস্ট্রেলিয়ার রাজ্য দল নিউ সাউথ ওয়েলসের যখন কোচ ছিলেন, তখন তাকে চিনত খুব কম মানুষ। কিন্তু আজ হাথুরুসিংহের যশ-খ্যাতি আকাশচুম্বি।

নাজমুল হাসানও মনে করিয়ে দিয়েছেন সে কথা,‘হাথুরুসিংহেকে আমরা যখন নিয়েছিলাম তখন কিন্তু সে কোনো নাম করা কোচ ছিল না। বেশিরভাগ মানুষ তার নামই কোনো দিন শুনেনি। এটা হলো বাস্তবতা। আমাদের মনে হয়েছে ও হচ্ছে বাংলাদেশের জন্য আদর্শ। তাই আমরা তাকে নিয়েছি। আমি এটুকু বলতে পারি, যতদিন ও আমাদের সাথে ছিল বোর্ড যে ধরনের চিন্তা ভাবনা করেছে সেগুলো সে দিতে পারছিল। এবং আমাদের একটা মিল ছিল। এজন্য আমি মনে করি যে তার যে অবদান সেটা আমরা সব সময় স্মরণ রাখব।’

তাকে কি অনুরোধ করে রাখা যেত না? এমন প্রশ্নের উত্তরে বোর্ড সভাপতি বলেছেন,‘সিদ্ধান্ত যেহেতু ও নিয়ে ফেলেছে তার মানে এই দলের প্রতি তার আগের মতো কোনো ফিলিংস নাই। যার ফিলিংস নেই তাকে আমরা সাধতে যাব কেন?’

২৯ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে দিশেহারা ভারত

দুর্দান্ত একটি টেস্ট সিরিজের পর ওয়ানডে সিরিজের শুরুতেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ধুঁকছে ভারত। ধর্মশালায় প্রথম ওয়ানডেতে আগে ব্যাটিং করতে নেমে দারুণ বিপর্যয়ে পড়েছে স্বাগতিকরা। দলের সেরা তারকা বিরাট কোহলিকে ছাড়া খেলতে নেমে দলীয় ২৯ রানেই ৭ উইকেট হারিয়েছে ভারত।

টেস্টের পর সীমিত ওভারের সিরিজে বিশ্রামে রাখা হয়েছে কোহলিকে। ওয়ানডেতে নিয়মিত অধিনায়ক কোহলিকে ছাড়া খেলতে নেমে এলোমেলো ভারত। টসে হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে দারুণ বিপর্যয়ে পড়েছে দলটি।

ধর্মশালায় আগে ব্যাটিংয়ে নেমে রানের খাতা খোলার আগেই ম্যাথুসের বলে এলবিডব্লিউর শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন ওপেনার শিখর ধাওয়ান। দলীয় দুই রানের সময় প্যাভলিয়নের পথ ধরেন আরেক ওপেনার রোহিত শর্মা। এরপর শূন্য রানে সাজঘরে ফেরে দলকে আরও বিপদে ফেলেন দিনেশ কার্তিক। দলের হয়ে প্রতিরোধ গড়তে পারেননি মানিশ পান্ডিয়াও। লাকমালের শিকার হয়ে ব্যক্তিগত ২ রানে সাজঘরে ফেরেন তিনি। দলীয় ১৬ রানের মাথায় শ্রেয়াস আয়ারকে সরাসরি বোল্ড করে ভারতকে আরও বিপদে ফেলেন লঙ্কান বোলার নুয়ান প্রদীপ।

লাকমালের আঘাতে আরও বিপর্যয়ে পড়ে ভারত। দলীয় ২৮ রানে হার্দিক পান্ডিয়া ফেরান প্রদীপ। এরপর ২৯ রানের মাথায় ভুবনেশ্বর কুমারকে ফেরান লাকমাল। দলের এমন বিপর্যয়ের মুহূর্তে টিম ইন্ডিয়াকে টেনে তোলার চেষ্টা করছেন প্রাক্তন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি।

ম্যাচের আগে ভেন্যুর দূষণ পরীক্ষা করবে আইসিসি

 

ভারতের বিপক্ষে দিল্লি টেস্টে বেশ ভুগতে হয়েছে শ্রীলঙ্কার খেলোয়াড়দের। ওই টেস্ট শেষে তদন্তে নেমেছে আইসিসি। পাশাপাশি আজ জানিয়েছে ভবিষ্যতে কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচের আগে উক্ত ভেন্যুর দূষণ পরীক্ষা করে দেখবে আইসিসি। বায়ুতে কী পরিমাণ দূষিত পদার্থ রয়েছে সেটা পরীক্ষা করেই নির্ধারণ করা হবে ভেন্যুর ভাগ্য।

দিল্লি টেস্ট শেষে শ্রীলঙ্কার ম্যানেজার আইসিসির কাছে অভিযোগ দাখিল করেছেন। সেখানে তিনি কিছু পরামর্শও যুক্ত করেছেন। আলো মাপার মিটারের মতো ভবিষ্যতে যাতে দূষণ মাপার মিটারও ব্যবহার করা হয়। তার সেই পারমর্শ গুরুত্বসহকারে নিয়েছে আইসিসি। বিষয়টি তারা আইসিসির মেডিকেল কমিটির কাছে হস্তান্তর করেছে। তারা দিল্লির বায়ুতে কী পরিমাণ দূষণ ছিল সেটা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে প্রতিবেদন দাখিল করবে। পাশাপাশি ভবিষ্যতে এই ধরনের পরিস্থিতি যাতে সৃষ্টি না হয় সে বিষয়ে একটি গাইডলাইনও তৈরি করবে তারা।

এ বিষয়ে আইসিসির এক মুখপাত্র বলেন, ‘দিল্লির বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে আইসিসি। পাশাপাশি মেডিকেল কমিটিকে একটি গাইডলাইন তৈরি করতেও অনুরোধ করা হয়েছে। যাতে ভবিষ্যতে এই ধরনের পরিস্থিতি সৃষ্টি না হয়। এ বিষয়ে ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া আইসিসির সভায় আরো বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। ভবিষ্যতে কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচের আগে ভেন্যুর দূষণ পরীক্ষা করে দেখার বিষয়টি নিয়েও আলোচনা করা হবে।’

নিউজিল্যান্ডের ইনিংসের লাগাম টানলেন গ্যাব্রিয়েল-মিগুয়েল

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিনে ১ উইকেট হারিয়ে ৮৭ রান তুলে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যায় নিউজিল্যান্ড। ৩ উইকেট হারিয়ে ১৭৩ রান তুলে যায় চা বিরতিতে যায়। আর দিন যখন শেষ হল তখন নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ ৭ উইকেট হারিয়ে ২৮৬ রান!

কিউইদের টপ অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা বড় সংগ্রহের ইঙ্গিত দিলেও মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় বড় সংগ্রহ পাওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ হয়ে দেখা দিয়েছে। নিউজিল্যান্ডের ইনিংসের লাগাম টেনেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেসার শ্যানন গ্যাব্রিয়েল ও মিগুয়েল কামিন্স। নিউজিল্যান্ডের ৭ উইকেটের ৫টিই নিয়েছেন এই দুই পেসার।

গ্যাব্রিয়েল ১৯ ওভার বল করে ৩ মেডেনসহ ৭৯ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন। মিগুয়েল ১৭ ওভার বল করে ৪ মেডেনসহ ৩৭ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন। ১টি করে উইকেট নেন ক্রেমার রোচ ও রেমন রেফার।

ব্যাট হাতে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান জিৎ রাভাল সর্বোচ্চ ৮৪ রান করেছেন। ১৫৭ বল খেলে ১৫টি চারের সাহায্যে এই রান করেন তিনি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫৮ রান করেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। ৬৪ বলে ৫ চার ও ৪ ছক্কায় এই রান করেন তিনি। আর ৪৩টি রান করেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। মিচেল স্যান্টনারের ব্যাট থেকে ২৪ ও টম লাথামের ব্যাট থেকে আসে ২২ রান। ক্রিজে আছেন টম ব্লান্ডেল (১২) ও নেইল ওয়াগনার (১)। তারা দুজন দ্বিতীয় দিনে ব্যাট করতে নামবেন।

দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথমটি ৬৭ রানে জিতে নিয়ে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে নিউজিল্যান্

এবার নিষিদ্ধ হলেন ইংল্যান্ডের বেন ডাকেট

মধ্যরাতে মারামারিতে জড়িয়ে ইংল্যান্ডের টেস্ট স্কোয়াডের বাইরে আছেন বেন স্টোকস। এবার পার্থে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে পানশালায় ঝামেলায় জড়িয়ে সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ হলেন বেন ডাকেট। সে কারণে আজ থেকে শুরু হওয়া দুইদিনের প্রস্তুতি ম্যাচে রাখা হয়নি তাকে।

২৩ বছর বয়সী ডাকেট ইংল্যান্ডের টেস্ট স্কোয়াডে আছেন। আজ থেকে শুরু হওয়ার ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া একাদশের বিপক্ষে দুইদিনের প্রস্তুতি ম্যাচে খেলার কথা ছিল তার। কিন্তু বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে পার্থে পানশালায় এক ঝামেলায় জড়িয়ে বাদ পড়েছেন তিনি। শিগগিরই তার বিরুদ্ধে শুনানি হবে।

এর আগে অস্ট্রেলিয়ায় এসে পানশালায় জনি বেয়ারস্টো অস্ট্রেলিয়ার তরুণ ব্যাটসম্যান ক্যামেরুন বেনক্রাফটকে ঢুস দিয়েছিলেন। ওই ঘটনার পর মাঝে বেশ কিছুদিন ইংল্যান্ডের ক্রিকেটারদের রাতে পানশালায় যাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা ছিল। কিন্তু বৃহস্পতিবার নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়। সেদিন রাতেই এক কা- ঘটিয়ে বসেছেন বেন ডাকেট।

পঞ্চম ব্যালন ডি’অর জিতলেন রোনালদো

গেল অক্টোবরে লিওনেল মেসিকে পেছনে ফেলে জিতেছেন ফিফার বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার। এক মাস বাদেই আবারো মেসিকে পেছনে ফেলে জিতছেন ব্যালন ডি’অর। এটা তার ক্যারিয়ারের পঞ্চম ব্যালন ডি’অর। বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার রাতে আইফেল টাওয়ারে এক জমকালো অনুষ্ঠানে রোনালদোর হাতে ব্যালন ডি’অরের পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়।

৩২ বছর বয়সী রোনালদো এর আগে ২০০৮, ২০১৩, ২০১৪ ও ২০১৬ সালে এই পুরস্কার জিতেছিলেন।

এবারের পুরস্কার জয়ের লড়াইয়ে দ্বিতীয় হয়েছেন লিওনেল মেসি। আর তৃতীয় হয়েছেন বার্সা ছেড়ে পিএসজিতে যোগ দেওয়া নেইমার দ্য সিলভা।

ব্যালন ডি’অর নিতে এসে রোনালদো বলেন, ‘আমি আনন্দিত। এটা আমার ক্যারিয়ারের দারুণ একটি মুহূর্ত। এমন কিছুর প্রত্যাশা আমি বহুদিন ধরে করে আসছিলাম। এই বছরটি দারুণ গিয়েছে। আমরা চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছি। লা লিগা জিতেছি। পাশাপাশি চ্যাম্পিয়নস লিগে আমি সর্বোচ্চ গোলদাতা ছিলাম। এগুলো আমাকে সাহায্য করেছে এই পুরস্কার জেতার ক্ষেত্রে। আমি আমার রিয়াল মাদ্রিদ ও পর্তুগাল সতীর্থদের ধন্যবাদ দিতে চাই। যারা আমার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমি রিয়ালে খুবই সুখে আছি এবং এখানেই থাকতে চাই। যদি সম্ভব হয় আমি আমার ক্যারিয়ার রিয়াল মাদ্রিদেই শেষ করতে চাই। আমি সাতটা ব্যালন ডি’অর ও সমান সংখ্যক সন্তান চাই।’

তার প্রতিপক্ষ লিওনেল মেসি ও নেইমার সম্পর্কে বলেন, ‘এই পর্যায়ের ফুটবল আমি আরো কয়েক বছর খেলতে চাই। আশা করছি মেসির সঙ্গে এই যুদ্ধ চলতেই থাকবে। নেইমার খুবই ট্যালেন্টেড ফুটবলার। তার মধ্যে অনেক সম্ভাবনা রয়েছে। আমি নিশ্চিত ভবিষ্যতে এই পুরস্কার জেতার সুযোগ তারও রয়েছে।’

মাশরাফির খেলা নিয়ে সংশয় নেই

রংপুর রাইডার্স শেষ ম্যাচ খেলেছিল ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে। ম্যাচে রংপুরের পাওয়ার বেশি কিছু ছিল না। ঢাকাকে হারালে তিনে যেত, হেরে চারে আছে দলটি। বিপিএলে তিন-চার একই কথা!

পাওয়ার বেশি কিছু না থাকায় শেষ ম্যাচে নিজেকে সরিয়ে রেখেছিলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। কারণও ছিল, কুঁচকির চোট। লিগ পর্বের শেষ ম্যাচের আগের ম্যাচে খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে খেলতে গিয়ে পেয়েছিলেন চোট। ১৭তম ওভারটি করে মাঠের বাইরে চলে যান। এরপর আর ফিরেননি। দলের জয় দেখেছেন ডাগআউটে বসে। চোটের কারণে বিশ্রামে ছিলেন মাশরাফি। আজ বাঁচা-মরার লড়াইয়ে কী খেলবেন? প্রশ্নটা কোটি ক্রিকেটপ্রেমি ও লাখো রংপুর রাইডার্স সমর্থকদের।

দুপুরে এলিমিনেটর ম্যাচে খুলনা টাইটান্সের প্রতিপক্ষ রংপুর রাইডার্স। ম্যাচে মাঠে নামবেন নড়াইল এক্সপ্রেস। নিশ্চিত করেছেন মাশরাফি নিজেই। ক্ষুদে বার্তায় খেলবেন কিনা জানতে চাওয়া হলে মাশরাফি রিপ্লাই দেন,‘খেলব।’ ব্যথা? ‘ওই একটু-আধটু থাকেই।’

রংপুরকে সেরা চারে উঠানোর বড় কৃতিত্ব মাশরাফি বিন মুর্তজার। কখনো বোলিং, কখনো ব্যাটিং। যখন যেটার প্রয়োজন হচ্ছে সেটাই করছেন মাশরাফি। ৮ ইনিংসে ব্যাট হাতে রান করেছেন ১৩১। বল হাতে ৬.৫৮ ইকোনমি রেটে নিয়েছেন ১৩ উইকেট। আর ফিল্ডিংয়ে দুর্দান্ত, অধিনায়কত্বে অতুলনীয়।

ঢাকা ও কুমিল্লার সম্ভাব্য একাদশ

বিপিএলের লিগ পর্ব শেষ হয়েছে বুধবার। আজ থেকে শুরু এলিমিনেটর ও কোয়ালিফাইং রাউন্ড। আজ শুক্রবার দুপুর ২টায় এলিমিনেটর ম্যাচে খুলনা টাইটান্সের মুখোমুখি হবে রংপুর রাইডার্স। আর সন্ধ্যা ৭টায় প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে মুখোমুখি হবে ঢাকা ডায়নামাইটস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

তৃতীয় আসরের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লার লিগ পর্বটি কেটেছে স্বপ্নের মতো। ১২ ম্যাচের মধ্যে ৯টিতে জিতে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে ছিল তারা। আর বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটস ১২ ম্যাচের ৭টিতে জিতে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে ছিল। সেরা দুটি দলই যে ফাইনালে যাওয়ার লড়াইয়ে অবতীর্ণ হতে যাচ্ছে সেটা নিয়ে কারো সন্দেহ থাকার কথা নয়।

 


গ্রুপপর্বে অবশ্য দুইবারের মুখোমুখিতে দুইবারই জয় পেয়েছে কুমিল্লা। প্রথম দেখায় ৪ উইকেটে ও পরের দেখায় ১২ রানে জিতেছে তামিম ইকবালের নেতৃত্বাধীন কুমিল্লা। আজ জিতলে ঢাকার বিপক্ষে শতভাগ জয়ের কৃতিত্ব দেখাবে তারা। তবে ঢাকাও চাইবে জিততে। যাতে লিগ পর্বে হারের পুনরাবৃত্তি না ঘটে। কে জিতবে সেটা জানতে অপেক্ষা করতে হবে রাত পর্যন্ত।

তার আগে চলুন দেখে নিই কেমন হতে পারে কুমিল্লা ও ঢাকার সম্ভাব্য একাদশ।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের সম্ভাব্য একাদশ :

১. তামিম ইকবাল

২. লিটন কুমার দাস

৩. ইমরুল কায়েস

৪. জস বাটলার

৫. শোয়েব মালিক

৬. মারলন স্যামুয়েলস

৭. ডোয়াইন ব্রাভো

৮. মো. সাইফুদ্দিন

৯. মেহেদী হাসান

১০. হাসান আলী

১১. আল-আমিন হোসেন।


ঢাকা ডায়নামাইটসের সম্ভাব্য একাদশ :

১. এভিন লুইস

২. সুনীল নারিন

৩. জো ডেনলি

৪. কিরেন পোলার্ড

৫. শহিদ আফ্রিদি

৬. সাকিব আল হাসান

৭. জহুরুল ইসলাম

৮. মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত

৯.  মেহেদী মারুফ

১০. আবু হায়দার রনি

১১. মোহাম্মদ সাদ্দাম।

লিটনের ব্যাটে কুমিল্লার নবম জয়

সিলেট সিক্সার্সের আমন্ত্রণে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৯ ওভারে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের রান ৪ উইকেটে ১৪৮। ২০ ওভারে ১৭০! শেষ ওভারে এল ২২ রান।

সেটাও ২৭১ টি-টোয়েন্টি খেলা পাকিস্তানের সোহেল তানভীরের ওভারে! আর রানগুলো করেছেন আরেক পাকিস্তানি শোয়েব মালিক। ১৮ বলে ২৮ রানের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে শোয়েব মালিক কুমিল্লাকে এনে দেন জয়ের পুঁজি। ১৭১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ২০ ওভারে ১৪৫ রানের বেশি করতে পারেনি সিলেট সিক্সার্স। ২৫ রানে পরাজয় নিয়ে বিপিএল শেষ করলো নাসির হোসেন-সাব্বির রহমানরা।

টানা তিন জয়ে সিলেট সিক্সার্স শুরুতেই রাঙিয়ে দিয়েছিল বিপিএলকে। কিন্তু মাঝে পথ ভুলে লড়াই থেকে ছিটকে পরে তারা। শেষ ম্যাচে রেকর্ড গড়ে জয় পেয়েছিল চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে। কিন্তু নিজেদের শেষ ম্যাচে আবারও ছন্দপতন। ম্যাচ হারল বড় ব্যবধানে।

অন্যদিকে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা কুমিল্লা পেল নবম জয়। ১৮ পয়েন্ট নিয়ে নিজেদের অবস্থান আরও দৃঢ় করল বিপিএলের তৃতীয় আসরের চ্যাম্পিয়নরা। শুক্রবার প্রথম কোয়ালিফায়ারে তাদের প্রতিপক্ষ আরেক হেভিওয়েট দল ঢাকা ডায়নামাইটস।
 

 

আজকের জয় অবশ্যই আত্মবিশ্বাস বাড়াচ্ছে তামিমহীন কুমিল্লার। তবে কুমিল্লার জয় বাদে সবথেকে বড় প্রাপ্তি তাদের ওপেনার লিটন কুমার দাসের রানে ফেরা। ডানহাতি এ ওপেনার আজ মিরপুর মাতান আপন ছন্দে। ৪৩ বলে ৬ চার ও ৩ ছক্কায় লিটন করেন ৬৫ রান। যা এ বিপিএলে তার সর্বোচ্চ এবং একমাত্র পঞ্চাশোর্ধ ইনিংস। এছাড়া মারলন স্যামুয়েলস ৪৩ বলে করেন ৫৫ রান। শুরুতে জস বাটলার (৩) ও ইমরুল কায়েস (৭) সাজঘরে ফেরার পর তৃতীয় উইকেটে লিটন ও স্যামুয়েলস ৮৩ রানের জুটি গড়েন। মূলত তাদের ব্যাটিংয়ে বড় সংগ্রহের ভিত পায় কুমিল্লা। আর শেষটা রাঙিয়ে দেন তামিমের পরিবর্তে কুমিল্লাকে নেতৃত্ব দেওয়া মালিক।

জয়ের জন্য ওভারপ্রতি ৮.৫৫ করে রান দরকার ছিল সিলেটের। প্রথম পাওয়ার প্লে’তে দরকার ছিল বড় ইনিংসের। কিন্তু শুরু থেকেই নড়বড়ে সিলেটের ব্যাটিং। পাওয়ার প্লে’তে মাত্র ৩৬ রান করে সিলেট। এরপর ধারাবাহিকতভাবে সিলেটের রানের গতি কমতে থাকে এবং টার্গেট বড় হতে থাকে। শেষ দিকে সাব্বির ২০ বলে ৩১ রানের ইনিংস খেলে চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু তার ইনিংসটি ভেস্তে যায় কুমিল্লার নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে। সাব্বির বাদে সিলেটের হয়ে রান করেন আন্দ্রে ফ্লেচার (২৫) ও বাবর আজম (২০)।

বল হাতে কুমিল্লার সেরা বোলার গ্রায়েম ক্রেমার। ১৫ রানে ৩ উইকেট নেন এ লেগ স্পিনার। ২টি করে উইকেট নেন মেহেদী হাসান ও হাসান আলী।

লিটন কুমার দাস ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন।

যুব বিশ্বকাপের দল ঘোষণা করল বিসিবি

আগামী বছরের ১৩ জানুয়ারি থেকে ৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডে বসছে আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসর।

আজ যুব বিশ্বকাপের ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। স্ট্যান্ডবাই রাখা হয়েছে ৭ ক্রিকেটারকে।

বাংলাদেশ দল: পিনাক ঘোষ, নাঈম শেখ, মোহাম্মদ সাইফ হাসান, আফিফ হোসেন ধ্রুব, তৌহিদ হৃদয়, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, মো. রাকিব, মাহিদুল ইসলাম ভূঁইয়া অঙ্কন, শাকিল হোসেন, রবিউল হক, নাঈম হাসান, কাজী অনিক ইসলাম, মো. রনি হোসেন, হাসান মাহমুদ, টিপু সুলতান।

স্ট্যান্ডবাই:  মো. সজীব হোসেন, রায়ান রাফসান রহমান, মোহাম্মদ সাখাওয়াত হোসেন, মো. শহীদুল ইসলাম প্রামানিক, ইয়াসিন আরাফাত, মো. আব্দুল হালিম, মনিরুল ইসলাম।

দল ঘোষণা করলেও অধিনায়ক ও সহ-অধিনায়কের নাম ঘোষণা করেনি বিসিবি। ২-১ দিনের মধ্যে তা চূড়ান্ত হবে।

বাংলাদেশ পরেছে ‘সি’ গ্রুপে। গ্রুপে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ নামিবিয়া, কানাডা ও ইংল্যান্ড। ১৩ জানুয়ারি বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ নামিবিয়ার বিপক্ষে। একদিন পর বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ কানাডা। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ১৮ জানুয়ারি ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশের যুবারা।

সুপার লিগে গ্রুপ ‘সি’ এর বিপক্ষে খেলবে ‘বি’ গ্রুপ। ‘বি’ গ্রুপে রয়েছে শক্তিশালী দুই দল অস্ট্রেলিয়া ও ভারত। সাথে আছে জিম্বাবুয়ে ও পাপুয়া নিউ গিনি।

বিশ্বকাপে অংশ নিতে আগামী ২৬ ডিসেম্বর নিউজিল্যান্ড যাবে যুব দল। মূল মঞ্চে মাঠে নামার আগে তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে সাইফ-আফিফরা।

চারটি গ্রুপে ১৬টি দল এবার যুব বিশ্বকাপে অংশ নিচ্ছে। টুর্নামেন্টে মোট ম্যাচ হবে ৪৮টি।

২০১৬ সালে ঘরের মাঠে যুব বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ সাফল্য পেয়েছিল বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে সেমিফাইনাল হারের পর শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে তৃতীয় হয়েছিল মেহেদী হাসান মিরাজ-নাজমুল হোসেন শান্তরা।

২-০ করে ফেলল অস্ট্রেলিয়া

চলতি অ্যাশেজের প্রথম টেস্টে হারের পর অ্যাডিলেইডে ঘুরে দাঁড়ানোর সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল ইংল্যান্ডের।

অ্যাশেজ ইতিহাসে দিবা-রাত্রির প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়াকে কম রানে বেঁধে সেই সম্ভাবনার ভিত্তি স্থাপন করেছিল ইংলিশরা। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে স্টার্ক-হ্যাজেলউডদের বোলিং তোপে অ্যাডিলেইডেও হারল সফরকারী ইংল্যান্ড।

ব্রিসবেন টেস্টে ইনিংস ব্যবধানে হেরেছিল ইংল্যান্ড। তবে অ্যাডিলেডে সেই লজ্জা থেকে বাঁচলেও ১২০ রানের হারে পিছিয়ে পড়েছে জো রুটের দল। আর ঘরের মাঠে টানা দুই জয়ে পাঁচ ম্যাচ অ্যাশেজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল স্টিভেন স্মিথের অস্ট্রেলিয়া।

অ্যাডিলেড ওভালে পঞ্চম দিনে ৫৭ রানে শেষ ছয় উইকেটের পতন ঘটে ইংল্যান্ডের। প্রথম ইনিংসে বড় পুঁজির কল্যাণে ইংল্যান্ডকে ৩৫৪ রানের টার্গেটে বেঁধে দিতে সক্ষম ইংল্যান্ডে। আর ৩৫৪ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ইংলিশদের দ্বিতীয় ইনিংস থামে ২৩৩-এ। স্বাগতিক বোলার স্টার্ক-হ্যাজলউডদের বোলিং তোপে ১২০ রানে হারের স্বাদ পেতে হয়েছে সফরকারীদের। 

গতকাল চতুর্থ দিনের করা চার উইকেটে ১৭৬ রান নিয়ে আজ ব্যাটিং শুরু করে ইংল্যান্ডে। আজ পরপর দুই ওভারে জোড়া আঘাত করে ইংলিশ শিবির লন্ডভন্ড করে দেন জস হ্যাজলউড। ইনিংসের ৬৩তম ওভারের দ্বিতীয় বলে ক্রিস উকসের (৫) বিদায়ে বিপদে পড়ে ইংলিশরা। ১ রান যোগ হতেই ৬৪.৫ ওভারের সময় ভরসার প্রতীক অধিনায়ক রুটকেও (৬৭) সাজঘরে পাঠান হ্যাজলউড। এরপর মঈন আলীকে (২) এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন অফস্পিনার নাথান লায়ন।এরপর ক্রেইগ ওভারটন (৭), স্টুয়ার্ট ব্রড (৮) ও জনি বেয়ারস্টো (৩৬) বিদায় হন।

বল হাতে ইংল্যান্ডের হয়ে মিচেল স্টার্ক সর্বোচ্চ ৫টি উইকেট নেন। এছাড়া ২টি করে উইকেট নেন জস হ্যাজেলউড ও নাথান লায়ন।

এর আগে অ্যান্ডারসন-ওকসের বোলিং নৈপুণ্যে মাত্র ১৩৮ রানে অলআউট হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। একাই পাঁচ উইকেট নেন জেমস অ্যান্ডারসন। চারটি উইকেট নেন ক্রিস ওকস। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং বিপর্যয় হলেও প্রথম ইনিংসে ২১৫ রানের লিডের সুবাদে বড় লক্ষ্য ছুঁড়ে দিতে সক্ষম হয়েছিল স্মিথ-ওয়ার্নাররা। শন মার্শের অপরাজিত সেঞ্চুরিতে (১২৬ নকআউট) অসিদের ৪৪২ রানের জবাবে ২২৭ রানে অলআউট হয় সফরকারী ইংল্যান্ড।

 



Go Top