মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬
ad
    |    
২৫ এপ্রিল, ২০১৬ ২০:৫৩:৩২
প্রিন্টঅ-অ+
১৪ মে জাতীয় পার্টির সম্মেলন হবে : এরশাদ

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, আগামী ১৪ মে জাতীয় পার্টির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।
জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় এবং জাতীয় পার্টির সংসদীয় দলের নেতা রওশন এরশাদের বক্তব্যের প্রেক্ষিতে আজ এক বিবৃতিতে তিনি আরো বলেন, সকল ধরনের অপপ্রচার ও বিভ্রান্তি সৃষ্টির অবসান ঘটিয়ে সকলের অবগতির জন্য সুস্পষ্টভাবে জানিয়ে দিতে চাই যে, জাতীয় পার্টি সম্পূর্ণভাবে একটি গণতন্ত্র চর্চার রাজনৈতিক দল। এই দলে গঠনতন্ত্রের বাইরে কখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি- আর হবেও না। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী জেলাসমূহের সম্মেলন সমাপ্ত করে জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বলে বিবৃতিতে তিনি বলেন, ১৪ মে রমনাস্থ ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। নির্দিষ্ট তারিখে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সম্মেলনে অংশগ্রহণ করার জন্য তিনি  আহ্বান জানান।
তিনি জাতীয় পার্টির সংসদীয় দলের নেতাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, সংসদীয় দল পার্টির একটি শাখা মাত্র। এই শাখার দায়িত্ব-পার্টির নীতিমালা অনুসারে শুধুমাত্র সংসদীয় কার্যক্রম পরিচালনা করা। নীতি নির্ধারণী কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ কিংবা কোনো সিদ্ধান্ত নিয়ে আলোচনা বা পর্যালোচনার ফোরাম হচ্ছে পার্টির প্রেসিডিয়াম। সুতরাং সংসদীয় দলের নেতা হিসেবে সংবাদ সম্মেলনে দেয়া রওশন এরশাদের বক্তব্য তার এখতিয়ার বহির্ভূত।
জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্রের ৩৯ ধারা পার্টির চেয়ারম্যান হিসেবে আমার সৃষ্টি করা নয়। এটা জাতীয় কাউন্সিলে গণতান্ত্রিকভাবে প্রতিষ্ঠিত একটি ধারা। এই ধারা সম্পর্কে পার্টির কারো কোনো আপত্তি থাকলে তা শুধুমাত্র জাতীয় কাউন্সিলে উত্থাপন করা যেতে পারে। কাউন্সিল ভোটের মাধ্যমে এই ধারা বাতিল বা  বহাল রাখার সিদ্ধান্ত দিতে পারে।
পার্টির বর্তমান প্রেসিডিয়ামের অন্ততঃ ৩৫ জন সদস্যই ৩৯ ধারা বলে প্রেসিডিয়ামে অন্তর্ভূক্ত হয়েছেন। ৩৯ ধারা যখন কারো পক্ষে যায়- তখন এটা অত্যন্ত,  গুরুত্বপূর্ণ এবং উপকারী ধারা হয়ে যায়, আর যখন ব্যাক্তি স্বার্থের বিপক্ষে যায় তখন এটা ‘অগণতান্ত্রিক’ হয়ে পড়ে- এই মানসিকতা থাকা উচিত নয় বলে এরশাদ বিবৃতিতে  উল্লেখ করেন।
 
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত

রাজনীতি এর অারো খবর