রবিবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৬
ad
১১ এপ্রিল, ২০১৬ ১৭:৫৫:২৫
প্রিন্টঅ-অ+
মিন্টুকে নিয়ে বিএনপিতে কৌতূহল
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপিতে যে কয়জন অর্থদাতা রয়েছেন আবদুল আউয়াল মিন্টু তাদের মধ্যে অন্যতম। দেশ বিদেশে ব্যবসায়ী নেতা হিসেবে সুপরিচিত মিন্টু একসময় বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘনিষ্ট ছিলেন। সময়ের পরিক্রমায় আজ তিনি বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।

এদিকে, এতদিন বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের নেপথ্যের মানুষ হিসেবে পরিচিত থাকলেও সম্প্রতি ছোটখাট কর্মসূচিতেও দেখা যাচ্ছে বিএনপির এ নেতাকে। তার এ যাতায়াত নিয়ে কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে। প্রশ্ন উঠেছে, কিসের আশায় হঠাৎ এভাবে যাতায়াত করছেন তিনি?

দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে অনেকেই বলছেন, বর্তমান পদে উপদেষ্টার দায়িত্বে থাকবেন তিনি। আবার কেউ বলেছেন স্থায়ী কমিটিতে তাকে নেয়া হবে, এছাড়া মহানগর বিএনপির দায়িত্বও দেয়া হতে পারে। তবে, বিএনপির কমিটিতে কে কোথায় থাকবেন বা কোন পদে থেকে দলে দায়িত্ব পালন করবেন তা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ছাড়া কেউ জানেন না।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি জাতীয় নির্বাচনের পূর্বে গ্রেফতার হয়েছিলেন মিন্টু। পরবর্তীতে জামিন পেয়ে ঢাকা মহানগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক হিসেবে মনোনীত হন। এছাড়া ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হয়ে নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার পর ছেলে তাবিথ আউয়ালকে দিয়ে নির্বাচন করান।

সিটি কর্পোরেশনে নিজে নির্বাচন না করে ছেলেকে দিয়ে নির্বাচন করানোর ফলে রাজনৈতিক মহলে বেশ আলোচনার জন্ম দেন মিন্টু। পরবর্তীতে বিএনপির ষষ্ঠ কাউন্সিলের পর হঠাৎ অদৃশ্য হওয়া এ নেতা অন্যসব অর্থদাতাদের চেয়ে সক্রিয় হয়ে উঠেছেন। গুলশান কার্যালয়ে ছোটখাট অনুষ্ঠানেও ব্যক্তিগত নিরাপত্তা বাহিনী নিয়ে নিয়মিত হাজির হচ্ছেন তিনি।

শোনা যাচ্ছে, উপদেষ্টা পরিষদ থেকে স্থায়ী কমিটিতে থাকার আগ্রহ ন্যাশনাল ব্যাংক লি. ও জেনারেল লাইফ ইনস্যুরেন্সের ডাইরেক্টর এবং মাল্টিমোড গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মিন্টুর।

এ বিষয়ে ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমটির নেতা মিজানুর রহমান সোহাগ বলেন, নির্বাহী কমিটিতে তুলনামূলক তরুণদেরই প্রাধান্য দিচ্ছেন চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। প্রবীনদের উপদেষ্টা পরিষদে রাখার আলাপও শোনা যাচ্ছে। সে হিসেবে স্থায়ী কমিটিতে পদ পেতেই হয়তো মিন্টু ভাই দৌড়ঝাপ করছেন।

নাম প্রকাশ না করতে ইচ্ছুক বিএনপির অনেক নেতাকর্মীর ধারণা, স্থায়ী কমিটিতে পদ পেতেই হয়তো বিএনপির এ নেতার এতো দৌড়ঝাপ।

এদিকে, খুব শিগগিরই স্থায়ী কমটির নাম ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। স্থায়ী কমিটির নাম ঘোষণা হলেই অনেকটা স্পষ্ট হয়ে যাবে মিন্টুকে কোথায় রাখবেন খালেদা।
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত

রাজনীতি এর অারো খবর