শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬
ad
১৪ এপ্রিল, ২০১৬ ১৩:০৪:৪০
প্রিন্টঅ-অ+
এবার বাড়লো নিম্ন আদালতের বিচারকদের বেতন-ভাতা
 বিচারিক আদালতের বিচারকদের বেতন-ভাতা ও সুযোগ-সুবিধা বাড়িয়ে গেজেট প্রকাশ করেছে সরকার। বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস (বেতন ও ভাতাদি) আদেশ, ২০১৬ নামে প্রকাশিত গেজেটে ২০১৫ সালের ১ জুলাই থেকে কার্যকর দেখানো হয়েছে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ গতকাল বৃহস্পতিবার এ গেজেট প্রকাশ করে। অষ্টম বেতন কাঠামোর সঙ্গে সমন্বয় করে নিম্ন আদালতের বিচারকদের বেতন-ভাতা বাড়িয়ে গেজেট প্রকাশ করলো সরকার। এ বেতনস্কেল কার্যকর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মহার্ঘভাতা বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

এর আগে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে ‘বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস সদস্যদের বেতন ভাতাসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধাদি নির্ধারণ’ সংক্রান্ত প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়।

প্রকাশিত গেজেটে বিচারকদের বেতনস্কেল ছয়টি ধাপে বিভক্ত করা হয়েছে বলে জানা গেছে। এর মধ্যে চাকরির মেয়াদ সর্বনিম্ন ১৪ বছর হওয়া বিচারকদের বেতনস্কেল করা হয়েছে ৭০ হাজার ৯২৫ থেকে ৭৬ হাজার ৩৫০ টাকা, চাকরির মেয়াদ সর্বনিম্ন ১২ বছর হওয়া বিচারকদের বেতনস্কেল করা হয়েছে ৬২ হাজার ৩৫০ থেকে ৭৫ হাজার ৮৮০ টাকা, চাকরির মেয়াদ সর্বনিম্ন ১০ বছর হওয়া বিচারকদের বেতনস্কেল করা হয়েছে ৫৪ হাজার ৩৭০ থেকে ৭৪ হাজার ৬৬০ টাকা, সর্বনিম্ন ৫ বছর হওয়া বিচারকদের বেতনস্কেল করা হয়েছে ৪৪ হাজার ৪৫০ থেকে ৭২ হাজার ২১০ টাকা, চাকরির মেয়াদ সর্বনিম্ন ৪ বছর হওয়া বিচারকদের বেতনস্কেল করা হয়েছে ৩৪ হাজার ৫৪০ থেকে ৬৫ হাজার ২১০ টাকা এবং সর্বনিম্ন বেতনস্কেল হবে ৩০ হাজার ৯৩৫ থেকে ৬৪ হাজার ৪৩০ টাকা।

এছাড়া জেলা জজ হিসেবে ৫ বছর দায়িত্বপালনকারী বিচারক বা বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তারা সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ বা সমমর্যাদার বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তা হিসেবে সর্বোচ্চ ৭৮ হাজার (নির্ধারিত) টাকা বেতন পাবেন।

২০০৯ সালে সর্বশেষ নিম্ন আদালতের বিচারকদের বেতন-ভাতা বাড়ানো হয়েছিল। ২০১৪ সালের ২১ ডিসেম্বর আপিল বিভাগের বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানাকে চেয়ারম্যান করে জুডিশিয়াল সার্ভিসের জন্য নতুন পে-কমিশন গঠন করে সরকার।

এ কমিশন গত বছরের মাঝামাঝি সরকারের কাছে প্রতিবেদন জমা দেয়। জমা দেয়া ওই প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে সুপারিশ দিতে গত ১২ জানুয়ারি একটি মন্ত্রিসভা কমিটি গঠন করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। ৯ সদস্যের এ কমিটির প্রধান করা হয় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতকে।
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত

আইন ও অপরাধ এর অারো খবর