মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৬
ad
  • হোম
  • বিনোদন
  • বিবার্তা স্বর্ণপদকে ভূষিত হচ্ছেন নায়ক ফারুক
১২ এপ্রিল, ২০১৬ ১২:৪০:১৪
প্রিন্টঅ-অ+
বিবার্তা স্বর্ণপদকে ভূষিত হচ্ছেন নায়ক ফারুক
অভি মঈনুদ্দীন : ‘বিবার্তা স্বর্ণপদক’-এ ভূষিত হচ্ছেন মুক্তিযোদ্ধা ও চিত্রনায়ক ফারুক। মুক্তিযুদ্ধে বিশেষ অবদানের জন্য এবং এদেশের চলচ্চিত্রে বিশেষ ভূমিকার জন্য নায়ক ফারুককে এই সম্মাননায় ভূষিত করা হচ্ছে। আগামীকাল ১৩ এপ্রিল রাজধানীর শাহবাগে অবস্থিত ‘সুফিয়া কামাল জাতীয় গণগ্রন্থাগার’-এ ফারুকের হাতে এই স্বর্ণপদক তুলে দেয়া হবে বলে নিশ্চিত করেছেন ‘বিবার্তা স্বর্ণপদক’র প্রবক্তা ও ‘বিবার্তা টোয়েন্টিফোর ডটনেট’ এর সম্পাদক বাণী ইয়াসমিন হাসি।

 বিষয়টি অবগত হয়ে ফারুক তার অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন,‘ দেশ স্বাধীন হবার ক্ষেত্রে অবদান রাখার জন্য বিবার্তা স্বর্ণপদক দিচ্ছে, বিষয়টি জানার পর থেকে ভালোলাগছে। তাদের এই মহতী উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। তবে তাদের কাছে আমার প্রত্যাশা থাকবে যাদের দশে চিনে-দেশে চিনে শুধু তাদেরকেই নয় সমাজে এমন অনেক মানুষ আছে যাদের দেশ গড়ার ক্ষেত্রে অনেক অবদান আছে।

 সেসব মানুষকে খুঁজে বের করে পুরস্কৃত করতে হবে। তাহলেই আমরা আমাদের দায়িত্ব কিছুটা হলেও পালন করতে পারবো।’ অনলাইন সংবাদ মাধ্যম ‘বিবার্তা টোয়েন্টিফোর ডটনেট’ আয়োজিত ‘বিবার্তা স্বর্ণপদক’ প্রথম বছরেই আরো যারা যাচ্ছেন তারা হচ্ছেন অদম্য সাহসী যোদ্ধা চট্টগ্রামের রমা চৌধুরী, সাংবাদিকতায় তৌফিক ইমরোজ খালিদী, আইসিটিতে কবির বীণ আনোয়ার এবং খেলাধূলায় মাশরাফি। ১৩ এপ্রিল বিকেল ৪.৩০ মিনিটে নির্ধারিত সময়েই অনুষ্ঠান শুরুর মধ্যদিয়ে সময়ানবর্তিতাতে নতুন দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চায় বিবার্তা পরিবার।

 যথাসময়ে পুরস্কার তুলে দিবেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সাবেক প্রধান বিচারপতি মোজাম্মেল হোসেন। এদিকে চিত্রনায়ক ফারুক বিগত বেশ কয়েকবছর যাবত চলচ্চিত্রে অভিনয় থেকে দূরে আছেন। সর্বশেষ তিনি আজাদী হাসানাত ফিরোজের ‘ঘরের লক্ষী’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রসঙ্গে বরেণ্য এই অভিনেতা বলেন,‘ বঙ্গবন্ধুই কিন্তু মূলত জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রবর্তন করেছিলেন ১৯৭৫ সালে। ১৯৭৬ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রথা চালু হলো।

মিতার ‘লাঠিয়াল’ চলচ্চিত্র অভিনয়ের জন্য আমি পাশর্^ চরিত্রে অভিনয়ের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাই। সেই থেকে সেই যে পাশে থাকা শুরু হলো আমার, আমি আর পুরস্কারই পেলাম না। একটি কথাই শুধু বলবো ‘লাঠিয়াল’ চলচ্চিত্রের প্রধান লাঠিয়াল ছিলাম আমি। কী করে আমি পাশর্^ চরিত্রে অভিনয়ের জন্য পুরস্কার পাই! যাই হোক এরপর থেকে সেই যে লবিং-এর সূত্র ধরে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার দেয়া নেয়া শুরু হলো যে কারণে পরবর্তীতে ভালো ভালো চলচ্চিত্রে অভিনয় করেও আমার ভাগ্যে আর কোনদিনই জুটলোনা জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।’ ছবি ঃ মোহসীন আহমেদ কাওছার
 
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত