সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬
ad
  • হোম
  • দেশজুড়ে
  • নওগাঁয় কাঠ চুরি’,অভিযোগ শিশুকে বেঁধে নির্যাতন
    |    
২০ এপ্রিল, ২০১৬ ২০:৪৮:২৪
প্রিন্টঅ-অ+
নওগাঁয় কাঠ চুরি’,অভিযোগ শিশুকে বেঁধে নির্যাতন

নওগাঁর সাপাহারে কাঠ চুরির অভিযোগে এক শিশুকে পিঠমোড়া করে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সাপাহার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ মুনীরুজ্জামান ভূঁঞা মঙ্গলবার দুপুরে শিশুটিকে দেখতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান এবং তার চিকিৎসার বিষয়ে খোঁজ খবর নেন।
তবে এ বিষয়ে কিছু জানেন না বলে সাপাহার থানার ওসি রেজাউল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান।

শিশুটি (১২) সাংবাদিকদের জানায়, সে উপজেলা সদরের হাসপাতাল রোডের নওগাঁ ফার্নিচারে জোগালি হিসেবে কাজ করত। বেতন ভাতা না দিয়ে দিনের পর দিন তাকে দিয়ে কাজ করিয়েছে মালিক মাসুদ।

“মঙ্গলবার সকালে ুধা সহ্য করতে না পেরে ওই দোকান থেকে ফেলে দেওয়া কাঠ নিয়ে পাশের হোটেল মালিকের কাছে ২০ টাকায় বিক্রি করে খাবার কিনে খেলে মালিক মাসুদ কয়েক দফায় নির্যাতন করে।

“এরপর ঘটনা বাজারের নৈশ প্রহরী আনোয়ারুল ইসলামকে জানান তিনি। নৈশ প্রহরী রাত সাড়ে ১০টায় তাকে স্থানীয় লাবণী সুপার মার্কেটের ভেতরে আটক রাখে।”

পরে নৈশ প্রহরীদের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাকিম স্বর্ণকারের উপস্থিতিতে তাকে পিঠমোড়া দিয়ে গ্রিলের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন চালানো হয় বলে অভিযোগ শিশুটির।

মারধরের পর ছেড়ে দিলে স্থানীয়রা তাকে সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানেই চিকিৎসাধীন আছে শিশুটি।
এ বিষয়ে নৈশ প্রহরীর সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাকিম স্বর্ণকার মারধরের কথা স্বীকার করেন।
দোকান মালিক মাসুদ বলেন, “লাবণী মার্কেটে কয়েকটি চুরি হয়েছে, তার সঙ্গে ছেলেটি জড়িত কি না তা জানতেই তাকে আটক করা হয়েছিল।
“বেতন দেই না এটা ঠিক না। তবে এক মাসের বেতন বাকি রয়েছে।”
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত

দেশজুড়ে এর অারো খবর