রাত ৪:১১, বৃহস্পতিবার, ১৮ই অক্টোবর, ২০১৭ ইং
/ রাজনীতি / শেখ হাসিনা কূটনৈতিক ভাবে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধান চান: মতিয়া
শেখ হাসিনা কূটনৈতিক ভাবে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধান চান: মতিয়া
সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৭

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কূটনৈতিকভাবে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধান করতে চান বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী। বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেছেন, আগেও রোহিঙ্গা এসেছে, আপনারা তো কিছুই করেন নাই। আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের অধিবেশনে গিয়েও বলছেন- রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের জন্য। শেখ হাসিনা চায়, কূটনৈতিকভাবে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধান করতে। আর আপনারা (বিএনপি) বলেন, হেন করেঙ্গা, তেন করেঙ্গা, ধুনা সাপের বিষ মারেঙ্গা।

বৃহস্পতিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) ভবনের স্বাধীনতা হলে এক সভায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন। ‘দেশ ও বিদেশি কুচক্রী মহলের দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র এবং অবৈধ পন্থায় সরকার পতনের অপচেষ্টায় লিপ্ত সকল গণশক্রর অপকর্মের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ’ শীর্ষক এ সভার আয়োজন করে ‘অপরাজেয় বাংলা’ নামে একটি সংগঠন।

বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেন, বিভিন্ন সংকটের মধ্য দিয়ে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দেশে কিছুদিন আগে পাহাড়ি ঢলে অনেক মানুষ নিহত হয়েছে। এর পর দেশে এলো বন্যা। এর পর পরই চলে এলো রোহিঙ্গা সংকট। এ সংকট যুদ্ধের মাধ্যমে নয় বরং কূটনৈতিকভাবে সমাধান করতে হবে। প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে চাল আমদানি করতে হচ্ছে উল্লেখ করে কৃষিমন্ত্রী বলেন, আমরা যেখানে বিদেশে চাল রফতানি করতাম, সেখানে আমাদের বিদেশ থেকে চাল আমদানি করতে হচ্ছে। এর মধ্যে কিছু মিডিয়ায় হঠাৎ করে নিউজ এলো, ভারত আমাদের চাল দেবে না। পরে সেটা যে মিথ্যা, তা প্রমাণ হয়েছে। আমাদের এবার আউশের ফলন আগের বছরের চেয়ে পাঁচ লাখ টন বেশি উৎপাদন হয়েছে। খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে মতিয়া চৌধুরী বলেন, ৯২ দিন চাঙ্গে উইঠা বসে ছিলেন।

ভেবেছিলেন, শেখ হাসিনার সরকারের পতন ঘটিয়ে সিংহাসনে বসে যাবেন। কিন্তু কী হলো? এখন আপনি বিদেশে গিয়ে বসে আছেন। বলছিলেন, ১৫ তারিখে দেশে আসবেন। এখন শুনছি, দেশে আসবেন না। আবার বলেন, ডাক্তারের সিরিয়াল পেয়েছেন, ডাক্তার দেখিয়ে দেশে আসবেন। এসব ভাঁওতাবাজি বাংলাদেশের মানুষ বোঝে। আপনি বিদেশে বসে ভেবেছিলেন, উমুকটা ঘটিয়া যাইবে, কিন্তু ঘটে নাই। খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, আমরা রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে বিশ্ব বিবেককে জাগ্রত করার চেষ্টা করছি। প্রধানমন্ত্রী কূটনৈতিকভাবে সমাধান করার চেষ্টা করছেন। আমরা আশা করি, যুদ্ধ নয়, কূটনৈতিক সমাধানের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠাতে পারব। সংগঠনের সভাপতি এইচ রহমান মিলুর সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম মুরাদ, যুগ্ম সম্পাদক কামাল চৌধুরী, চারুকলা একাডেমির পরিচালক মনিরুজ্জামান, আওয়ামী লীগ নেতা রাশেক রহমান প্রমুখ।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top