রাত ৪:১২, বৃহস্পতিবার, ১৮ই অক্টোবর, ২০১৭ ইং
/ রাজনীতি / রোহিঙ্গা সঙ্কটে বিভেদ সৃষ্টির অভিযোগ ২০ দলের
রোহিঙ্গা সঙ্কটে বিভেদ সৃষ্টির অভিযোগ ২০ দলের
সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৭

রোহিঙ্গা সঙ্কট মোকাবেলায় সরকার ‘জাতীয় ঐক্যে’র পরিবর্তে ‘বিভক্তি’ সৃষ্টি করেছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। জোটের সমন্বয়ক ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এত বড় একটা সমস্যা, যেকোনো সভ্য সরকার হলে অবশ্যই সব রাজনৈতিক দলের একটা জরুরি সভা ডাকত এবং সেখানে একটা জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করত। এদিকে, ২০ দলীয় জোটকে ভয় দেখাতেই কল্যাণ পার্টির মহাসচিব এমএম আমিনুর রহমানকে অপহরণ করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

শনিবার সকালে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ২০ দলীয় জোটের এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন ফখরুল। বিএনপিকে ত্রাণ দিতে বাধা দেওয়ার নিন্দা জানিয়ে দলটির মহাসচিব বলেন, আপনারা (সরকার) জাতিকে বিভক্ত করে ফেলেছেন। আপনাদের কাছে সবচেয়ে বড় শত্রু হচ্ছে বিএনপি আর ২০ দল। নাম ও গন্ধ শুনলে যেন আপনাদের ভয়াবহ একটা রি-অ্যাকশন তৈরি হয়। এভাবে তো হবে না। রোহিঙ্গা সঙ্কট মোকাবেলায় সরকার ব্যর্থ হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ২০ দলীয় জোট ‘অটুট ও ঐক্যবদ্ধ’ আছে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, জোটকে ভয় দেখাতেই কল্যাণ পার্টির মহাসচিবকে অপহরণ করা হয়েছে। ২০ দলের এই পর্যায়ের নেতা এই প্রথম গুম হলো। কারণটা হচ্ছে- আমাদের সবাইকে স্তিমিত করে দেওয়া, কাজ করা থেকে বিরত রাখার চেষ্টা করা। তবে এত কিছুর মধ্যেও ২০ দলীয় জোট অটুট ও ঐক্যবদ্ধ আছে।

আমিনুর রহমানকে জীবিত ও সুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে তার পরিবারের কছে ফেরত দেওয়ার দাবি জানান জোটের এই সমন্বয়ক। সাম্প্রতিক গুমের ঘটনাগুলো তুলে ধরে মির্জা ফখরুল বলেন, এই যদি রাষ্ট্রের অবস্থা হয়, রাষ্ট্র যদি এভাবে জনগণের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা-প্রতারণা করে এবং জনগণকে সঠিক তথ্য না দেয়, তাহলে তো সেই রাষ্ট্রকে নিঃসন্দেহে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র বলতে হবে। সরকার চালের ঊর্ধ্বগতি রোধে ব্যর্থ হয়েছে বলেও দাবি করেন এই বিএনপি নেতা। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, এলডিপির রেদোয়ান আহমেদ, জাগপার রেহানা প্রধান, খন্দকার লুৎফর রহমান, ইসলামী ঐক্যজোটের এমএ রকীব, এনপিপির ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, বাংলাদেশ ন্যাপের গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, বিজেপির আবদুল মতিন সাউদ, ডেমোক্রেটিক লীগের সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। তবে জামায়াতে ইসলামীর কোনো প্রতিনিধি ছিলেন না।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top