সকাল ৭:৪৬, বৃহস্পতিবার, ১৯শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং
/ রাজনীতি / রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ নিতে বাধার অভিযোগ বিএনপির
রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ নিতে বাধার অভিযোগ বিএনপির
সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৭

রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে কক্সবাজারের উখিয়ায় যাওয়ার পথে দলের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলকে আটকে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি।  বুধবার বিকেলে রাজধানীর রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বিএনপি আয়োজিত এক আলোচনা সভার মধ্যে মোবাইলে এই খবর পেয়ে তা উপস্থিত সবাইকে জানান দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের দশম কারামুক্ত দিবস উপলক্ষে এই সভা হয়।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, এইমাত্র আমাদের কাছে খবর এসেছে- জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে কক্সবাজারে আমাদের যে কেন্দ্রীয় রিলিফ টিম ২০টি ট্রাক নিয়ে গিয়েছিল, প্রশাসন তাদেরকে উখিয়াতে যেতে দিচ্ছে না, পুলিশ ট্রাক আটকে দিয়েছে। শুধু তাই নয়, কক্সবাজারে আমাদের বিএনপি অফিস পুলিশ ঘিরে রেখেছে। আমাদের শীর্ষস্থানীয় নেতারা অফিস ঘরে আটকা পড়ে আছেন। আমরা এসব ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। একইসঙ্গে রোহিঙ্গাদের ত্রাণ দেয়ার জন্য বিএনপির রিলিফ টিমকে সেখানে যেতে দিতে প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি। মির্জা ফখরুল বলেন, এই ঘটনার মধ্য দিয়ে এই সরকারের মুখোশ উন্মোচিত হয়েছে। তারা যে বলছেন রোহিঙ্গাদের পাশে তারা দাঁড়িয়েছেন, এটা শুধু আইওয়াশ বলে প্রমাণিত হচ্ছে। যদি তারা দাঁড়াতেন, তাহলে তারা আজকে বিএনপির রিলিফ টিমকে উখিয়ায় অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াতে বাধা দিতেন না। মির্জা ফখরুলের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন। এছাড়া আরো বক্তব্য দেন-দলের ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে বিমানে কক্সবাজার পৌঁছায় মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বাধীন বিএনপির প্রতিনিধি দলটি।

আটকে দেয়া হলো বিএনপির ত্রাণবাহী ২০ ট্রাক
কক্সবাজার প্রতিনিধি জানায়, কক্সবাজারে পুলিশি বাধায় আটকে পড়েছে রোহিঙ্গাদের জন্য নেয়া বিএনপির ত্রাণবাহী ২০টি ট্রাক। বুধবার সকাল ১০টার দিকে কক্সবাজার জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে থেকে ট্রাকগুলোকে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হলে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তা আটকে দেওয়া হয়। পুলিশ গিয়ে ট্রাকগুলো ঘিরে রাখে। বিএনপির ত্রাণবাহী ট্রাকগুলোকে আটকে দেয়ার প্রতিবাদে বিকেলে কক্সবাজার জেলা কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে দলটির কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। প্রতিনিধি দলের আহ্বায়ক বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, আমরা ত্রাণ দিতে এসেছি। নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়াতে এসেছি।  রাজনীতি করতে আসিনি।  আওয়ামী লীগের উচিত ছিল আমাদের স্বাগত জানানো। কিন্তু তারা তা না করে উল্টো আমাদের ত্রাণ নিয়ে যাওয়ার অনুমতি দেয়নি। তারপরও আমরা এসেছি। ত্রাণ নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন-বিএনপির প্রতিনিধি দলের সদস্য স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. জাহিদ হোসেন, শামসুজ্জামান দুদু প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

জানতে চাইলে জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট খালেদ মাহমুদ বলেন, সুশৃঙ্খলভাবে ত্রাণ বিতরণের জন্য একটি নিয়ম করা হয়েছে। কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান-সংগঠন তাদের নিজস্ব ব্যানারে কোনো আর্থিক সাহায্য বা ত্রাণ বিতরণ করতে পারবেন না। ত্রাণ দিতে চাইলে জেলা প্রশাসনের ‘দুর্যোগ ও ত্রাণ শাখায়’ আগ্রহী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ত্রাণসামগ্রী জমা দিতে হবে। জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে এই ত্রাণ রোহিঙ্গাদের মাঝে বিতরণ করা হবে। তাই বিএনপির ত্রাণবাহী ট্রাকগুলো আটকে দেওয়া হয়েছে। তাদের আমরা ত্রাণসামগ্রী জেলা প্রশাসনের কাছে জমা দিতে বলেছি।

এদিকে, জানতে চাইলে শামসুজ্জামান দুদু  সন্ধ্যা ৭টার দিকে দৈনিক করতোয়াকে জানান, কক্সবাজার জেলা বিএনপি কার্যালয়ে বিকেল ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত আটক থাকার পর আমরা হোটেলে ফিরে এসেছি। তবে এখনো জেলা কার্যালয়ে বিএনপির ত্রাণবাহী ট্রাকগুলো পুলিশ ঘিরে রেখেছে। ফলে বুধবার আর রোহিঙ্গাদের ত্রাণ দিতে যাওয়া সম্ভব হয়নি। রাতে বসে নেতৃবৃন্দ পরবর্তী করণীয় ঠিক করবেন। অন্যদিকে, সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগরের এক প্রতীকী অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমার সরকারকে বাধ্য করতে ‘সক্রিয় কূটনৈতিক তৎপরতা’ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করলে আমরা সরকারকে সহযোগিতা করবো। নগর আহ্বায়ক সৈয়দ শাহজাহান সাজু’র সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব শহীদুননবী ডাবলু’র সঞ্চালনায় এতে আরো বক্তব্য রাখেন- ন্যাপ মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, বাগেরহাট জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top