সন্ধ্যা ৬:৫১, মঙ্গলবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
/ রাজনীতি / মওদুদের নাইকো দুর্নীতি মামলা চলবে
মওদুদের নাইকো দুর্নীতি মামলা চলবে
এপ্রিল ১২, ২০১৭

বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদের ক্ষেত্রে নাইকো দুর্নীতি মামলা স্থগিত করে দেওয়া রুল খারিজ করে দিয়েছে হাই কোর্ট। এর ফলে বিচারিক আদালতে বিএনপি নেতা মওদুদের বিরুদ্ধে দুনীর্তি দমন কমিশন-দুদকের দায়ের করা এ দুর্নীতি মামলার বিচার কার্যক্রম আগের মতোই চলবে। বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও কৃষ্ণা দেবনাথের হাই কোর্ট বেঞ্চ  বুধবার রুল খারিজের এ আদেশ দেয়। আদালতে মওদুদ আহমদ নিজেই নিজের পক্ষে শুনানি করেন; দুদকের পক্ষে ছিলেন দুদক কৌঁসুলি খুরশিদ আলম খান।

ক্ষমতার অপব্যাবহারের মাধ্যমে রাষ্ট্রের আর্থিক ক্ষয়ক্ষতি সাধনের অভিযোগে ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর মওদুদসহ ১১ জনকে আসামি করে রাজধানীর তেজগাঁও থানায় নাইকো দুর্নীতি মামলা দায়ের করে দুদক। ঢাকার ৯ নম্বর বিশেষ আদালতে বিচারাধীন এই মামলায় স্থগিতাদেশ চেয়ে করা মওদুদের আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে গত বছরের ১ ডিসেম্বর মামলার কার্যক্রম আট সপ্তাহের জন্য স্থগিত করে উচ্চ আদালত। একইসঙ্গে নিম্ন আদালতে মামলার স্থগিত চেয়ে করা মওদুদের একটি আবেদন খারিজ করে দেওয়ার আদেশ কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করে বিচারপতি শেখ আব্দুল আউয়াল ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাই কোর্ট বেঞ্চ। যুক্তরাষ্ট্রের সালিশী আদালতে পেট্রোবাংলা ও বাপেক্সের সঙ্গে নাইকো দুর্নীতি সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে মামলা চলছে জানিয়ে মওদুদ তার নাইকো মামলার কার্যক্রম স্থগিতের ওই আবেদন করেছিলেন, যা গত বছর ১৬ অগাস্ট ঢাকার বিশেষ জজ আদালত খারিজ করে দেয়। এরপর মওদুদ গত ২৯ সেপ্টেম্বর হাই কোর্টে আবেদন করে আট সপ্তাহের ওই স্থগিতাদেশ পান।

বুধবার সেই স্থগিতাদেশ খারিজ করে দিল হাই কোর্ট। সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় দায়ের করা নাইকো দুর্নীতির এ মামলায় বিএনপি নেতা মওদুদ ছাড়াও তার দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আসামি হিসেবে রয়েছেন। বিএনপি নেত্রী খালেদা হাই কোর্টে তার বিরুদ্ধে মামলার কার্যক্রম স্থগিত চেয়ে আবেদন পর গত ৭ মার্চ স্থগিতাদেশ পেলেও ২৩ মার্চ আপিল বিভাগে সেই আদেশ খারিজ হয়ে যায়। ফলে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে নাইকো দুর্নীতি মামলা চলতে আর কোনো বাধা নেই। মামলার অন্যদের মধ্যে তৎকালীন জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী এ কে এম মোশাররফ হোসেন, বাপেক্সের সাবেক মহাব্যবস্থাপক মীর ময়নুল হক, ব্যবসায়ী গিয়াসউদ্দিন আল মামুন, ঢাকা ক্লাবের সাবেক সভাপতি সেলিম ভূঁইয়া, নাইকোর দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট কাশেম শরীফ আসামির তালিকায় রয়েছেন। মামলার অভিযোগে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে তিনটি গ্যাসক্ষেত্র পরিত্যক্ত দেখিয়ে কানাডীয় কোম্পানি নাইকোকে তুলে দেওয়ার মাধ্যমে রাষ্ট্রের ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকা ক্ষয়ক্ষতি সাধন করেছেন।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top