সকাল ৮:১৫, বুধবার, ১৮ই অক্টোবর, ২০১৭ ইং
/ অর্থ-বাণিজ্য / পোশাক রপ্তানিতে আমরা দ্বিতীয় বলেই মিথ্যাচার করা হচ্ছে: বাণিজ্যমন্ত্রী
পোশাক রপ্তানিতে আমরা দ্বিতীয় বলেই মিথ্যাচার করা হচ্ছে: বাণিজ্যমন্ত্রী
জুলাই ২৯, ২০১৭

তৈরি পোশাক রপ্তানিতে বিশ্বে ২য় অবস্থানে বলেই বাংলাদেশের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করা হচ্ছে। কেননা আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত, পাকিস্তান ও ভিয়েতনাম চায় তৈরি পোশাক রপ্তানিতে বিশ্বের ২য় স্থানটি দখল করতে। এমনটাই জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

শনিবার দুপুরে রাজধানীতে তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রফতানিকারক সমিতির(বিজিএমইএ) ভবনে ‘ডিজিটাল আরএমজি ফ্যাক্টরি ম্যাপিং ইন বাংলাদেশের’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে একথা বলেন মন্ত্রী। বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, রানাপ্লাজার দুর্ঘটনার পর থেকেই তৈরি পোশাক কারখানাগুলোর অবকাঠামো থেকে শুরু করে বিভিন্ন পর্যায়ে অনেক ইতিবাচক পরিবর্তন হয়েছে। তবু একটি মহল দেশে-বিদেশে বাংলাদেশের আরএমজি সেক্টরকে নিয়ে অনেক মিথ্যাচার করে চলেছে। আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত,পাকিস্তান ও ভিয়েতনাম চায় তৈরি পোশাক রপ্তানিতে বিশ্বে ২য় স্থানটি দখল করতে। শুধু বাংলাদেশ তৈরি পোশাক রপ্তানিতে বিশ্বের ২য় স্থানটি ধরে রাখায় এই মহলটি আমাদের বিরুদ্ধে নানা মিথ্যাচার করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, বিভিন্ন দেশের ক্রেতারা আমাদের চাপ রাখতে চান, যাতে তারা আমাদের কাছ থেকে অল্প টাকায় পোশাক কিনতে পারেন। দেশে এখন সর্বমোট ২৭০টি গ্রিন কারখানা আছে। তাছাড়া বিদেশিদের নিয়ে আমি একাধিকার বিভিন্ন কারখানা পরিদর্শনে গিয়েছি। শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলেছি। শ্রমিকরা আমাদের বলেছেন, তারা ভালো আছেন। কই তখন তো বিদেশি ক্রেতারা আমাদের পোশাকের দাম বাড়াননি!আসলে তারা চায়, আমাদেরকে চাপে রেখে কম টাকায় পোশাক কিনে নিতে।

‘ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন আর স্বপ্ন নয়, বরং বাস্তব’—একথা উপেখ করে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন ডিজিটাল দেশ।ডিজিটাল আরএমজি ফ্যাক্টরি ম্যাপিংয়ের মাধ্যমে একজন ক্রেতা সহজেই যে কোনো কারখানার লোকেশন, কারখানাটি দেখতে কেমন এবং এখানে কি কি তৈরি হয় তা জানতে পারবেন।

এসময় আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর এই সদস্য আগামী নির্বাচন নিয়েও কথা বলেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আগামী নির্বাচন বর্তমান সরকারের অধীনেই সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হবে সকল দলের অংশগ্রহণে। সংবিধান অনুযায়ী, সরকারের ক্ষমতা শেষ হওয়ার ৯০ দিনের আগে যে কোনো একদিন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ‘ডিজিটাল আরএমজি ফ্যাক্টরি ম্যাপিং ইন বাংলাদেশ’ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তা কেন্দ্র। আর প্রকল্পের মূল তহবিল যোগান দেবে সিঅ্যান্ডএ ফাউন্ডেশন। ২০১৭ সালের এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া এই প্রকল্পটি দেশের ২০টি জেলার তৈরি পোশাক শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকল কারখানার শুমারির মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করার মধ্য দিয়ে শেষ হবে ২০২১ সালের মার্চ মাসে। অনুষ্ঠানে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. সৈয়দ সাদ আন্দালিব ও সিঅ্যান্ডএ ফাউন্ডেশনের ম্যানেজিং ডিরেক্টর শান্তনু সিংহ প্রমুখ।

এই বিভাগের আরো খবর



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top