রাত ১১:৩৩, শুক্রবার, ১৭ই নভেম্বর, ২০১৭ ইং
/ খেলাধুলা / নিজের ভূমিকা জানতে চান মুশফিক
নিজের ভূমিকা জানতে চান মুশফিক
সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৭

 

ফল যখন পক্ষে আসে তখন ভুলগুলো আড়াল হয়ে যায়। যখন বিপক্ষে যায় তখন সাপেবড় হয়ে ওঠে। সাপের বিষের মতো ছড়িয়ে যায় পুরো শরীরে। ক্ষুদ্র সাফল্যগুলোর মূল্যায়ন করাও তখন কঠিন হয়ে পড়ে।

পরিসংখ্যানের বিচারে মুশফিকুর রহিম বাংলাদেশের এ মুহূর্তে সেরা ধারাবাহিক ব্যাটসম্যান, সবচেয়ে সফল উইকেটরক্ষক, পাশাপাশি সেরা অধিনায়ক। ব্যক্তি মুশফিকও সবার কাছের, সবার প্রিয়। কিন্তু এখন স্রোতের বিপরীতে মুশফিক। সাফল্য পাননি চট্টগ্রামে। তাইতো কাঠগড়ায়ও টেস্ট দলপতি। দলীয় ব্যর্থতা ছাপিয়ে আলোচনা মুশফিকের ভূমিকা নিয়ে।

 

 

অধিনায়ক, উইকেটকিপিং আবার ব্যাটিং; তিন ভূমিকায় মুশফিক। হয়তো ক্রিকেটের একমাত্র অধিনায়ক মুশফিক, যিনি নিজের ভূমিকা সম্পর্কে অবগত নন। তাইতো বেশ ‘অসহায়ের’ মতো বললেন, ‘আসলে আমার ইচ্ছাতে কিছু হচ্ছে না। আমি যে শ্রীলঙ্কাতে কিপিং করিনি, সেটাও আমার ইচ্ছাতে ছিল না! আমার কিপিংয়ে কখনোই আপত্তি ছিল না। আমি ৪০-৫০ বছর খেলব না, হয়তো ৫-৬ বছর খেলব। আমি চেষ্টা করি, দলের জন্য যতটুকু সম্ভব সেরাটা দেওয়ার।’

‘অধিনায়কত্ব না থাকলেও আমার কোনো সমস্যা নেই। কিপিং না থাকলেও সমস্যা নেই। আমি ব্যক্তিগতভাবে অনুভব করি যে, শতভাগ দিতে পারছি কি না। প্রয়োজনে দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবেও শতভাগ দিতে আমি রাজি। সেটাতে আমার সমস্যা নেই। আমার মনে হয় ওপরে যারা আছেন তাদেরকে প্রশ্নটা (মুশফিকের ভূমিকা) করা ভালো। সেক্ষেত্রে আমিও আমার দিক থেকে পরিষ্কার হয়ে যাই। তাহলে নিজের কাজটা আরো ভালোভাবে করতে পারি।’

ব্যাটিং পজিশন নিয়ে মুশফিক স্যাটেল নন। টিম ম্যানেজমেন্টের চাহিদামত একেক সময় একেক পজিশনে ব্যাটিং করতে হচ্ছে। দলের সবচেয়ে ধারাবাহিক ব্যাটসম্যানের বিবেচনায় মুশফিকের ব্যাটিং করা উচিত চার কিংবা পাঁচে। সেখানে মুশফিক কিপিং করে ব্যাটিং করছেন ছয়ে। ব্যাটিং বিপর্যয়ে লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যানরা কখনো কখনো সঙ্গী হচ্ছে তার। ফলাফল নিজের স্বাচ্ছন্দ্যে ব্যাটিং করতে ব্যর্থ মুশফিক।

 

ব্যাটিং নিয়ে তার ভাবনা, ‘১২০ ওভার কিপিং করার পর যদি আবার চার নম্বরে ব্যাটিং করতে হয়, তাহলে আমি বলব এটা আমার একার দায়িত্ব নয়। শুধুমাত্র অধিনায়ক হিসেবেই নয়, প্রত্যেকটা ক্রিকেটারের একটা অনুমাপক থাকে খেলার। টেস্টে এমনটা হতে পারে না যে আপনি আগে ব্যাটিং পেলে চারে খেলবেন, পরে ব্যাটিং পেলে আপনি ছয়ে খেলবেন। সুনির্দিষ্ট জায়গা থাকে। এরকমটা আসলে বিশ্ব ক্রিকেটে খুব কমই আছে। আমার জন্য কাজটি অনেক চ্যালেঞ্জিং।’

এই বিভাগের আরো খবর



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top