রাত ২:৩৮, শনিবার, ২৪শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং
/ জাতীয় / ওজনে অনিয়মে জরিমানা বাড়ছে
ওজনে অনিয়মে জরিমানা বাড়ছে
মার্চ ১৩, ২০১৭

অনুমোদনহীন বাটখারা উৎপাদন ও ব্যবহারসহ এবং পণ্যের ওজনে অনিয়মের সাজা বাড়িয়ে নতুন আইন করার প্রস্তাবে সায় দিয়েছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে  ‘স্ট্যান্ডার্ডস ওজন ও পরিমাপ আইন, ২০১৭’ আইনের খসড়া অনুমোদন পায়।

সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের জানান, সুপ্রিম কোর্টের আদেশে ১৯৮২ সালের ‘দ্য স্ট্যান্ডার্ড অব ওয়েট অ্যান্ড মেজার্স অর্ডিন্যান্স’ সংশোধন ও পরিমার্জন করে আন্তর্জাতিকভাবে সামঞ্জস্যপূর্ণ করে বাংলা ভাষায় আইনটির খসড়া তৈরি করা হয়েছে।

তিনি বলেন, খসড়া আইনে আইন লঙ্ঘনের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র আর্থিক শাস্তির পরিমাণ বাড়ানো হয়েছে।এর মধ্যে মানদণ্ডহীন বাটখারা বা পরিমাপক ব্যবহারের শাস্তি অনূর্ধ্ব ছয় মাসের কারাদণ্ডের সঙ্গে অর্থদণ্ড তিন হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ২০ হাজার টাকা করা হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, “সরকারের অনুমতিক্রমে সম্পূর্ণ রপ্তানির উদ্দেশ্যে তৈরি বা উৎপাদিত কোনো বাটখারা বা পরিমাপক ব্যতীত কোনো পরিমাপক তৈরি করার অপরাধে অনূর্ধ্ব এক বছরের কারাদণ্ড বা এক লাখ টাকা জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে।

“আগে জরিমানা ছিল ১০ হাজার টাকা। তবে এই অপরাধে অনূর্ধ্ব এক বছরের কারাদণ্ড বহাল থাকছে।”

শফিউল আলম বলেন, সরকারের অনুমতিক্রমে সম্পূর্ণ রপ্তানির উদ্দেশ্যে তৈরি বা উৎপাদিত কোনো ওজন বা পরিমাপক ব্যতীত অন্য কোনো ওজন বা পরিমাপক উৎপাদন করলে উৎপাদনকারীর শাস্তি অনুর্ধ্ব এক বছরের জেল অথবা ৫০ হাজার টাকা জরিমানা। আগে জরিমানার পরিমাণ ছিল পাঁচ হাজার টাকা।

“যদি কোনো ব্যক্তি সত্যতা প্রতিপাদনের জন্য পরিলক্ষিত ত্রুটি সংশোধন ব্যতীত অন্য কোনো উপায়ে রেফারেন্স স্ট্যান্ডার্ড, সেকেন্ডারি স্ট্যান্ডার্ড বা প্রচলতি মানদণ্ড পরিবর্তন বা পরিমিত করে তাহলে সেই ব্যক্তি অনুর্ধ্ব ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবেন। এর আগে জরিমানা ছিল পাঁচ হাজার টাকা, তবে এই অপরাধে দুই বছরের কারাদণ্ড বহাল থাকছে।”

এ ছাড়াও আন্তর্জাতিক মান সংস্থাসহ (আইএসও) অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর নিয়মকানুন এ আইনে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top