রাত ১০:৩৫, মঙ্গলবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
/ সম্পাদকীয় / ইয়াবার ভয়াবহ বিস্তার
ইয়াবার ভয়াবহ বিস্তার
এপ্রিল ২০, ২০১৭


গত রোববার চট্টগ্রামে বঙ্গোপসাগর থেকে শত কোটি টাকার ২০ লাখ পিস ইয়াবাসহ শীর্ষ ব্যবসায়ী মোজাহের সিন্ডিকেটের প্রধান মোজাহের সহ ৯ জনকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। কোনোভাবেই ইয়াবার সরবরাহ ঠেকানো যাচ্ছে না।

দেশে ইয়াবা পাচারে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর একটি গ্রুপ ও রাজনৈতিক নেতা কর্মিদের সমন্বয়ে শক্তিশালী সিন্ডিকেট জড়িত রয়েছে বলে গণমাধ্যমে এ সংক্রান্ত খবর প্রায়শই প্রকাশিত হয়। এভাবে চলতে থাকলে আগামী ১৫ বছর পর দেশে একজন সুস্থ তরুণও পাওয়া যাবে না বিশেষজ্ঞরা বলে আসছেন।


টেকনাফ এখন ‘ইয়াবা জোন’। ইয়াবা ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, স্থানীয় প্রশাসন এবং মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের একশ্রেণির অসাধু কর্মকর্তা। সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে। দেশের সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ ইয়াবায় আসক্ত হয়ে যাচ্ছে। শিক্ষার্থীরা ইয়াবায় আসক্ত। টেকনাফ সীমান্তে ইয়াবার চালান ঠেকাতে কড়াকড়ি আরোপ করা হলেও ইয়াবার চালান আসছে বলে খবরে বলা হয়েছে।


 মিয়ানমার সীমান্তের ওপারে রয়েছে ইয়াবা কারখানা। মিয়ানমার থেকে ২৫ টাকায় ইয়াবা কিনে ঢাকায় এনে ৫০০ টাকা পিস বিক্রি করা হয় বলে আটককৃতরা জানিয়েছে। মাদকাসক্তরা যেমন নিজেদের ধ্বংস করছে, তেমনি পরিবারকেও ঠেলে দিচ্ছে বিপর্যয়ের দিকে। দ্রুত এর গতিরোধ করা না গেলে সামাজিক-অর্থনৈতিক সব ধরনের স্থিতিই বিঘিœত হবে। এ ভয়াবহ আগ্রাসন ঠেকাতে আরো বেশি কৌশলী ও কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। তার জন্য সরকার ও সংশ্লিষ্ট সব ধরনের সম্মিলিত কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের বিকল্প নেই।

 

 



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top