বগুড়া বৃহস্পতিবার | ৮ কার্তিক ১৪২১ | ২৭ জিলহজ ১৪৩৫ হিজরি | ২৩ অক্টোবর ২০১৪
ব্রেকিং নিউজ
আর্কাইভ
দিন :
মাস :
সাল :
এই সংখ্যার পাঠক
২০৭৪৩
সার্চ
সিপিএ এবং আইপিইউ'র বিজয়ে স্পিকার ও সাবেরকে সংবর্ধনা
গণতন্ত্রের বিশ্বকে জয় করেছি : প্রধানমন্ত্রী
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ) ও ইন্টার-পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (আইপিইউ) নেতা নির্বাচিত হওয়াকে গণতান্ত্রিক বিশ্বকে বাংলাদেশ জয় করেছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, এ বিজয় জনগণের বিজয়। বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে তার জায়গা করে নিয়েছে। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। বাংলাদেশের মানুষ বিশ্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে। বাংলাদেশ একদিন জাতির... বিস্তারিত
গতকাল সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী -বিডিনিউজ
নির্বাচিত সংবাদ
অনুশীলনে দু'দল, নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার
উত্তরম ঘোষ, যশোর জেলা প্রতিনিধি : যশোরে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচকে সামনে রেখে প্রস্তুতি ঝালিয়ে নিলো বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা ফুটবল দল। বুধবার যশোরের পুলিশ লাইন মাঝে বাংলাদেশ দল এবং বিজিবি মাঠে শ্রীলঙ্কা দল অনুশীলন করেছে। আর জেলা প্রশাসন ও জেলা ক্রীড়া সংস্থা আন্তর্জাতিক এই প্রীতি ফুটবল ম্যাচটি আয়োজনের প্রায় সব প্রস্তুতিই সম্পন্ন করেছে। নির্বিঘ্নভাবে ম্যাচটি সম্পন্ন করতে পুলিশ প্রশাসনও নিয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সবমিলিয়ে শুক্রবার (২৪ অক্টোবর) এই ফুটবল উৎসবকে প্রাণবন্ত করতে এখন প্রস্তুত যশোর ও যশোরের ক্রীড়ামোদীরা। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে যশোরে সড়ক পথে যশোরে পেঁৗছেছে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা জাতীয় ফুটবল দল। একটি বিলাসবহুল ট্রাভেল বাসে করে তারা শহরের প্রাণকেন্দ্র হাটখোলা রোডের সিটি প্লাজা ইন্টারন্যাশনাল হোটেলে এসে পেঁৗছান। এখানে তাদের ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও জেলা ফুটবল এ্যাসোসিয়েশনের (ডিএফএ) নেতৃবৃন্দ। হোটেলে রাতজাপন শেষে গতকাল বুধবার বিকেলে বাংলাদেশ দল চলে যায় পুলিশ লাইন মাঠে। আর শ্রীলঙ্কা দল অবস্থান নেয় বিজিবি মাঠে। দু\'দল দুই মাঠে অনুশীলনে গা গরম করেছে। আর ঝালিয়ে নিয়েছে তাদের শেষ সময়ের প্রস্তুতিকে। এদিকে, ম্যাচ আয়োজনের যাবতীয় প্রস্তুতি তুলে ধরতে বুধবার বিকেল ৪টায় যশোর শামস উল হুদা স্টেডিয়ামের আমেনা খাতুন অডিটরিয়ামে প্রেস ব্রিফিং করেছেন আয়োজকরা। ব্রিফিংয়ে যশোরের জেলা প্রশাসক ড. হুমায়ুন কবীর জানান, বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার আন্তর্জাতিক ফুটবল ম্যাচটি যাতে সম্পন্ন হয় তার যাবতীয় প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে এই ম্যাচকে ঘিরে সাধারণ মানুষের মাঝে উন্মাদনার সৃষ্টি হয়েছে। যা যশোরের ক্রীড়াঙ্গনকে উজ্জীবিত করবে। ম্যাচ আয়োজনে সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থার কথা তুলে ধরে যশোরের পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান জানান, স্টেডিয়ামকে ঘিরে তিনস্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। স্টেডিয়ামের ভিতরে এবং বাইরে মোতায়েন থাকবে বিপুল সংখ্যক র‌্যাব ও পুলিশ। পাশাপাশি সাদা পোশাকে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীরও অবস্থান থাকবে। সবমিলিয়ে সুষ্ঠু ও নির্বিঘ্নভাবে খেলা আয়োজনের প্রস্তুত পুলিশ প্রশাসনও। যশোর জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আসাদুজ্জামান মিঠু জানান, স্টেডিয়ামের মাঠ এখন ম্যাচ আয়োজনের জন্য প্রস্তুত। গ্যালারিও রং চং ও সংস্কার করে প্রস্তুত করা হয়েছে। এখন চলছে শেষ সময়ের সাজসজ্জার কাজ। তিনি আরও জানান, ম্যাচের আগে সংক্ষিপ্ত অথচ বর্ণাঢ্য একটি উদ্বোধনী পর্ব থাকবে। যেখানে যশোরের প্রায় ৩শ\' শিশু মনোমুগ্ধকর ডিসপ্লে উপস্থাপন করবে। এর মাধ্যমে যশোরের ইতিহাস, ঐতিহ্য, কৃষ্টি, কালচারকে তুলে ধরা হবে। এছাড়া বৃহস্পতিবার সকালে ম্যাচ উপলক্ষে বর্ণাঢ্য একটি শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়েছে।
জটিল সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ
স্পোর্টস রিপোর্টার : মেরুণ রঙের জার্সি পরে সারিবদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৬ ফুটবল দলের মেয়েরা। তাদের সামনে ইরান বধের মন্ত্র পড়ে শুনাচ্ছেন কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটন। সঙ্গে বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা দলের সদ্য নিযুক্ত জাপানি কোচ সুকিটেইট নোরিয়কও। গতকাল কমলাপুরের বীর শ্রেষ্ঠ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে ৩টা ৩০ মিনিটের দৃশ্য এটা। ঠিক একদিন পর আজ বিকাল পাঁচটায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শক্তিশালি ইরানের মুখোমুখি হবে মনিকা চাকমারা। এখনও পর্যন্ত পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা ইরানের বিপক্ষে বাংলাদেশের জয়ের লক্ষ্যটা দুরূহই বলতে হবে। যদিও প্রথম তিন ম্যাচে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করার কারণেই দুরন্ত কিশোরীদের চোখে জয়ের স্বপ্ন লেগে আছে এখনও, থাকবে শেষ ম্যাচেও। এএফসি উইমেন্স চ্যাম্পিয়নশিপের বি গ্রুপের বাছাই পর্ব শুরুর আগে চূড়ান্ত পর্বে খেলার কোন স্বপ্নই ছিল না বাংলাদেশের মেয়েদের। যদিও প্রথম ম্যাচে জর্ডানকে ১-০ এবং দ্বিতীয় ম্যাচে আরব আমিরাতকে ৬-০ গোলে হারানোর কারণে অসম্ভব স্বপ্নটাই দেখতে শুরু করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু শেষ ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে রেফারির কারণে মনিকাদের হারতে হয়েছিল ২-১ ব্যবধানে। যে কারণে চীনে অনুষ্ঠিতব্য এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ মহিলা টুর্নামেন্টের চূড়ান্ত পর্বে খেলার স্বপ্নটা আবারও দুরহ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ইরানের বিপক্ষে শেষ ম্যাচের আগে বাংলাদেশের সামনে কঠিন সমীকরণ। চূড়ান্ত পর্বে খেলতে হলে এখন শক্তিশালি এই দেশটিকে হারাতে হবে ন্যুনতম ১০-০ গোলের ব্যবধানে। সঙ্গে লক্ষ্য রাখতে হবে অন্য ম্যাচগুলোর দিকেও। যা রীতিমত অসম্ভব। অথ্যাৎ কিছু ভাল পারফরম্যান্সের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকল বাংলাদেশের মেয়েরা। তবে চূড়ান্ত পর্বে খেলার সম্ভাবনা খুবই কম তাদের। এখন পর্যন্ত তিন ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ জয় পয়েছে দুটি। জর্ডান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতকে হারিয়ে তাদের সংগ্রহ ৬ পয়েন্ট। আর ভারতের বিপক্ষে বিতর্কিত রেফারিংয়ের ফলে ড্রয়ের পথে এগুতে থাকা ম্যাচটা শেষ হলো হার দিয়ে। অন্যদিকে ভারতের তিন ম্যাচে সংগ্রহ ৬ পয়েন্ট। আর পাঁচ দলের বাছাই পর্বে ইরান তিন জয়ে ৯ পয়েন্ট নিয়ে রয়েছে শীর্ষে। সমীকরণ যা দাঁড়িয়েছে তাতে বাংলাদেশকে মূল পর্বে যেতে হলে ইরানকে হারাতে হবে অনেক বড় ব্যবধানে। সেটা প্রায় অসম্ভব হলেও জয়ের স্বপ্ন তো দেখতেই পারে বাংলাদেশ। জয়ের আশা কতটুকু এমন প্রশ্নে জবাবে সেটাই একটু অন্যভাবে জানালেন গোলাম রাব্বানী ছোটন, আগের খেলাগুলো সবাই দেখেছে। আর ইরান কেমন দল সেটা সবারই জানা। তাই হিসেবটা দর্শকদের উপরেই ছেড়ে দিচ্ছি। তবে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করব সেরাটা খেলার। আর তার ফল কী হয় সেটা দেখা যাবে আজই।
সিঙ্গাপুরে হার দিয়ে শারাপোভার শুরু
ডবি্লউটিএ ফাইনালসের হার দিয়ে শুরু করলেন মারিয়া শারাপোভা। সাবেক এক নম্বর খেলোয়াড় কারোলিন ওজনিয়াকির কাছে হেরে গেছেন এই রুশ তারকা। মঙ্গলবার সিঙ্গাপুরে তিন ঘণ্টা ১৩ মিনিটের ম্যারাথন লড়াইয়ে শারাপোভাকে ৭-৬, ৬-৭, ৬-২ গেমে হারান ওজনিয়াকি। ডেনমার্কের এই তারকার কাছে শারাপোভার এটা টানা দ্বিতীয় হার। মৌসুম শেষের এই টুর্নামেন্টে মেয়েদের শীর্ষ আট খেলোয়াড় অংশ নেন। চার জন করে খেলোয়াড় দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে রাউন্ড-রবিন লিগ পদ্ধতিতে একে অন্যের বিপক্ষে খেলেন। সেমি-ফাইনালে ওঠার সম্ভাবনা বাঁচিয়ে রাখতে গ্রুপের শেষ দুই ম্যাচে জিততেই হবে শারাপোভাকে। সাদা গ্রুপে দিনের অন্য ম্যাচে পোল্যান্ডের আগি্নয়েস্কা রাদভান্সকা ৬-২, ৬-৩ গেমে হারিয়েছেন চেক প্রজাতন্ত্রের পেত্রা কেভিতোভাকে।
রেড ওয়াইন দিয়ে স্নান করেন বাস্কেটবল খেলোয়াড়
স্পোর্টস ডেস্ক : রেড ওয়াইন দিয়ে স্নান! অবাক হচ্ছেন! অবিশ্বাস্য হলেও এটাই সত্য। কোনো বিলাসিতা কিংবা লোক দেখানোর জন্য নয়। শরীরের যত্ন নেওয়ার জন্যই রেড ওয়াইন দিয়ে স্নান করেন বাস্কেটবল খেলোয়াড় আমারে স্টোউডেমি। ছয় মাস ধরে স্টোউডেমি এভাবেই স্নান করে আসছেন। এনবিএর এই তারকা এমনই জানিয়েছেন। বুধবার সাংবাদিকদের আমারে বলেন, রেড ওয়াইন আমার শরীরের জন্য খুবই উপকারী ? এর ফলে আমার শরীরে রেড ব্লাড সেলের সঞ্চালন বেশি হয়। আমি শেষ ছয় মাস ধরেই রেড ওয়াইন দিয়েই স্নান করছি। এই বাস্কেটবল তারকা আরো বলেন, রেড ওয়াইন এমনিতেই গরম ও মসৃণ। ফলে হট টাবের অনুভূতিও পেয়ে যাই। এভাবে আমার পায়ের চোটও তাড়াতাড়ি সেরে উঠছে?
সাভারে রানা প্লাজায় নিহত চায়নার ছেলে সুমন নিখোঁজ
শাহজাদপুর উপজেলা কৈজুরী ইউনিয়নের জগতলা গ্রামের আব্দুর রহিমের একমাত্র পুত্র সুমন (৪) এগার দিন ধরে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। জানা গেছে, গত ১০ অক্টোবর শিশুপুত্র সুমনকে নিয়ে দুপুরে তার দাদী জহুরা খাতুন পাশ্ববর্তী যমুনা নদীতে গোসল করতে যায়। এ সময় দাদী তাকে একা একা বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। এ ঘটনার পর সেই ছেলে নিখোঁজ হয়ে যায়। গত কয়েকদিন ধরে যমুনা নদীতে সন্ধান চালালেও তাকে পাওয়া যায়নি। গত রোববার ছেলের বাবা আব্দুর রহিম সাংবাদিকদের জানান, ৭/৮ বছর পূর্বে একই গ্রামের নারান শীলের মেয়ে চায়না খাতুনকে বিয়ে করে ধর্মচ্যুত করে। তার একটি সন্তান হয়। সেই সন্তাকে নিয়ে ঢাকায় যায়। এক পর্যায়ে চায়না খাতুন সাভারের রানা প্লাজায় চাকরি নেয়। ঘটনার দিন শিশুকে বুকের দুধ খাইয়ে চায়না খাতুন কর্মস্থলে গেলে সেদিনই সে রানা প্লাজায় ভয়াবহ ধ্বংস স্তূপের নিচে পড়ে মারা যায়। অবুঝ শিশুটি তখন জানতো না তার মা বেঁচে নেই। তার বাবা জানান, শিশুটি সব সময় মা মা বলে চিৎকার করে। এ ঘটনার বর্ণনা দিতে ছেলের বাবা বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন। তিনি আরও বলেন, সরকার থেকে প্রতিমাসে এই শিশুটির পেছনে ৬-৭ হাজার টাকা পাওয়া যেত। এ ঘটনাটি সবাই জানতো। এ কারণেই কি তার ছেলেকে অপহরণ করা হয়েছে। এ নিয়ে এলাকায় বইছে আলোচনার ঝড়। এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা সাইফুল ইসলাম জানান, ছেলেটি রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়েছে। গ্রামে ও শহরে মাইকিং করে পুরস্কার ঘোষণা করা হয়েছে। ছেলেটি বেঁচে আছে না মারা গেছে এজন্য বিভিন্নস্থানে সন্ধান করা হচ্ছে।
কালুগাজী ও ফুলমালা কিচ্ছা-কাহিনী অনুষ্ঠিত
হাটের কবিতার সুর সংকলনে কালুগাজী ও ফুলমালা কিচ্ছা-কাহিনী অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় জয়পুরহাট শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দর্শকরা ফিরিয়ে গিয়েছিলো সেই অতীতের দিনগুলিতে। আগের দিনের কিচ্ছা- কাহিনী আর স্থানীয় ও জাতীয় বিভিন্ন ঘটনা আর স্পর্শকাতর বিষয নিয়ে স্থানীয় কবি ও লেখকরা লিখতো কবিতা। সেই কবিতার বই ট্রেডেল মেশিনে ছাপিয়ে বাজারে বিক্রি করা হতো। কবি নিজে অথবা যাদের সুর ভালো তাদের দিয়ে হাটে-বাজারে, বন্দরে ও রেল স্টেশনে বই নিয়ে গিয়ে কবিতা সুর করে ও নেচে গেয়ে কবিতা পড়া শুরু করলেই চারদিক থেকে ঘিরে বসে পড়তো শ্রোতারা। কতিার সুর আর কাহিণী গেঁথে যেত ওই শোতাদের হৃদয়ে। কবিতা পড়া শেষ হতেই শুরু হতো কবিতার বইগুলো বিক্রি করা। এখন এগুলো হারিয়ে গেছে। ৮০ ও ৯০এর দশকেও হাটে-বাজারে দেখা যেত এই কবিতার বই এভাবেই পাঠ করে বিক্রি করার দৃশ্য। জেলার ফোকলোর সম্পদ সংগ্রহ ও সংরক্ষণের উদ্দেশ্যে জেলা প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় ফোকলোর সেল, জেলা শিল্পকলা একাডেমী এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সুর সংকলন ও নির্দেশনায় ছিলেন আসাদ সরকার। পরিবেশন করে জেলা শিল্পকলা একাডেমীর নৃত্য ও সঙ্গীত দল।
মহাদেবপুরে আগাম শিম চাষ করে ২ হাজার কৃষাণ-কৃষাণীর পরিবারে সচ্ছলতা
নওগাঁর মহাদেবপুরে কৃষাণ-কৃষাণীরা শীত আসার আগেই আগাম শিম চাষ করে দারিদ্রতা ঘুচিয়েছেন। ২ হাজারের অধিক সংখ্যক চাষী আগাম শিম চাষে যুক্ত হয়ে বাড়তি আয় করে পরিবারের অর্থনৈতিক অবস্থা শক্তিশালী করেছেন। বাজারে এখন বেশ উচ্চমূল্যে বিক্রি হচ্ছে শীতের সবজি শিম। শীত মৌসুম আসার আগেই যারা বাজারে শিম তুলতে পেরেছেন কপাল খুলে গেছে তাদের। নতুন হওয়ার কারণে চাহিদা বেশি থাকায় প্রতিকেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা দরে। অনুকূল আবহাওয়ায় শিমের ভাল ফলন ও উচ্চ মূল্য পেয়ে ফুর ফুরে মেজাজে আছেন উপজেলার কৃষাণ-কৃষাণীরা। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কয়েক বছর আগেও এই এলাকায় শুধু মাত্র বাড়ির আঙ্গিনা ও আশপাশের পতিত জমিতে নিজের পরিবারের চাহিদা মেটাতে শিম চাষ করত শুধু বাড়ির মেয়েরাই। অন্যান্য ফসলের চেয়ে লাভজনক হওয়ায় এখন সেই শিমের চাষ বাড়ীর আঙ্গীনার গন্ডি পেরিয়ে ছড়িয়ে পড়েছে মাঠের পর মাঠ। উপজেলার ঝারগ্রাম, লক্ষ্মীপুর, ভালাইন, দোহালী, শিবরামপুর, এনায়েতপুর, বিনোদপুর, চান্দাস, আখিড়াপাড়া বাগাডাব ও রামচন্দ্রপুরসহ প্রভৃতি গ্রামের মাঠে মাঠে এখন সবুজ সীমের সমারোহ। বাণিজ্যিকভাবে শিম চাষ করে দারিদ্রতা জয় ও সংসারের স্বচ্ছলতা এনেছেন এসব গ্রামের প্রায় ২ হাজার ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষী। চলতি মৌসুমের শুরুতে শিম ক্ষেতে ছত্রাক ও পোকামাকড়ের আক্রম দেখা দিলেও কৃষি বিভাগের পরামর্শ ও সুষ্ঠ পরিচর্চায় শেষ পর্যন্ত শিমের ফলন ভাল হচ্ছে। অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার দামও রয়েছে ভাল। শিম বিক্রি করতেও কৃষকদের কোন ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে না। পাইকাররা জমি থেকেই শিম কিনে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন বাজারে নিয়ে যাচ্ছেন। উপজেলা কৃষি অফিসার একেএম মফিদুল ইসলাম জানান, এ উপজেলায় এবার শিমসহ বিভিন্ন সবজির চাষ হয়েছে সহস্রধিক হেক্টর জমিতে।
গণতন্ত্রের বিশ্বকে জয় করেছি : প্রধানমন্ত্রী
কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ) ও ইন্টার-পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (আইপিইউ) নেতা নির্বাচিত হওয়াকে গণতান্ত্রিক বিশ্বকে বাংলাদেশ জয় করেছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, এ বিজয় জনগণের বিজয়। বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে তার জায়গা করে নিয়েছে। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। বাংলাদেশের মানুষ বিশ্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে। বাংলাদেশ একদিন জাতির পিতার সোনার বাংলায় পরিণত হবে। কেউ বাংলাদেশের নির্বাচিত গণতান্ত্রিক সরকারের অব্যাহত অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করতে পারবে না। গতকাল বুধবার বিকালে সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরিন শারমীন চৌধুরী কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ) চেয়ারপারসন ও সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী ইন্টার-পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (আইপিইউ) প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় জাতীয় সংসদ এ সংবর্ধনার আয়োজন করে। এই প্রথম বাংলাদেশের যে কোনো অর্জনে একই অনুষ্ঠানে বিরোধীদলীয় নেতা উপস্থিতি ছিলেন। সংসদ ভবনের আদলে তৈরি প্যান্ডেলে সংবর্ধনা অুনষ্ঠানে ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ, চীফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, জাতীয় পার্টি (জেপি) চেয়ারম্যান ও পরিবেশ বন মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা, স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য রুস্তম আলী ফরাজী, সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব আশরাফুল মকবুল, ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট গিবসন, ভারতের ডেপুটি হাইকমিশনার সন্দীপ চক্রবর্তী। সভায় নিজেদের অনুভূতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন, সংবর্ধিত স্পিকার ড. শিরিন শারমীন চৌধুরী, সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী। অনুষ্ঠানের শুরুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের শুভেচ্ছা বার্তা পাঠ করেন ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া। সংসদের পক্ষে ক্রেস্ট ও ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয় বিশ্বের অন্যতম দুটি গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানের চেয়ারপারসন দ্বয়কে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের মানুষ যদি তাদের আস্থা বিশ্বাস আমাদের ওপর না রাখত, তাহলে আমাদের এ বিজয় অর্জন করতে পারতাম না। তিনি বলেন, একজন রাজনীতিবিদদের আত্মবিশ্বাসটি সবচেয়ে প্রয়োজন। আর সিদ্ধান্ত সময় মতো নিতে হবে। কোনটা সঠিক, কোনটা বেঠিক তার সঠিক সময়ে পদক্ষেপ দেশকে এগিয়ে নিতে পারে। আমি যখন বিশ্বের দুটি গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানে প্রার্থী দিলাম, তখন অনেকেই অনেক কথা বলেছেন। আমাকে অনেকে বলেছেন, দুটি নির্বাচনের প্রার্থী দিয়েছি। যদি না যেতে। আমি বলেছিলাম, যেটাতেই যিতি জিতলাম তো। আমরা দুই প্রার্থীকে অভিনন্দন ও দোয়া জানাই যে তারা বিশ্ব জয় করে এসেছে। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা বলেন, অনেক ঘাত-প্রতিঘাত মোকাবিলায় করেই আমাদের চলতে হয়েছে। বাধার পাহাড় ঠেলে আমাদের এগুতে হয়েছে। তারপরও আমরা গণতন্ত্র ধরে রেখেছি। গণতন্ত্র আছে বলেই বিশ্বের দুটি অন্যতম গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান থেকে বাংলাদেশের দুইজন প্রতিনিধি চেয়ারপারসন বা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে। তিনি বলেন, আমাদের দুজন যে প্রতিষ্ঠানের নেতা নির্বাচিত হয়েছেন। সেটি থেকে আমরা বার বার সদস্যপদ হারিয়েছি। স্বাধীনতা লাভের পর বঙ্গবন্ধুর প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ ১৯৭২ সালে আইপিইউ ও ১৯৭৩ সালে সিপিএ-এর সদস্যপদ লাভ করে। ১৯৭৫ সালের জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যার পর সামরিক শাসনের কারণে বাংলাদেশের সিপিএ ও আইপিএ সদস্যপদ কয়েকবার স্থগিত করা হয। ১৯৯১ সালের নির্বাচনের পর আমাদের নেওয়া উদ্যোগে সংসদীয় গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হয়। কিন্তু দেশী-বিদেশী চক্রান্তকারীরা আবার বাংলাদেশের গণতন্ত্র নস্যাৎ করার চক্রান্তে লিপ্ত হয়েছে। ৭৫ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর, ৮২ সালে স্বৈরতন্ত্রাান্ত্রিক সরকার গঠন করার পর এবং ২০০৭ সালে জরুরী সরকার গঠনের পর সদস্যপদ থেকে বাদ পড়েছি। সেখানে নির্বাচনের মাধ্যমে আবার সদস্যপদ নিয়ে নির্বাচনের মাধ্যমে প্রধানপদটি অজন করতে পারতো। বাংলাদেশের জনগণকে আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত না করতো তাহলে আমরা এ পদে আসতে পারতাম না। এ বিজয় দেশের জনগণের বিজয়। গণতান্ত্রিক বিজয়। গণতান্ত্রিক জয় জনগণের জয়। অনেক কথা শুনতে হয়েছে। এমনকি নির্বাচন নিয়েও নানা কথা রয়েছে। আজ আনন্দের দিন। আমি কোনো বাকা কথা বলতে চাই না। শুধু একটি কথা বলবো, একজন রাজনীতিবিদদের আত্মবিশ্বাসটি সবচেয়ে প্রয়োজন। আর সিদ্ধান্ত সময় মতো নিতে হবে। কোনটা সঠিক, কোনটা বেটিক তার সঠিক সময়ে পদক্ষেপ দেশকে এগিয়ে নিতে পারে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা সত্ত্বেও দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আগে কেউ আমাদের দেশের ৫শ ৬কোটি টাকার বাজেট আমরা দিতে পেরেছি। কেউ কলনপানই করতে পারেনি। আমাদের রপ্তানি ৩০বিলিয়ন করতে সক্ষম হয়েছি। যে ভাবে দারিদ্র হার কমাচ্ছি। ২১ সালের মধ্যে দারিদ্র মুক্ত করতে পারবো। মাথা পিছু আয় বাড়িয়েছি। এইভাবে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবো। জনসংখ্যা আমাদের জনশক্তি। জনশক্তিকে কিভাবে কাজে লাগানো যায় সে ব্যবস্থা করেছি। বিনামুল্যে বই বিতরন করে যাচ্ছি। জাতির পিতা লড়াই সংগ্রাম করে মুক্তি এনে দিয়েছেন। আমি তার কন্যা। আমার জীবনে কোনো চাওয়া পাওয়া নেই। বাংলাদেশের মানুষ কেন দরিদ্র থাকবে, কেন মানুষের কাছে হাত পাতবে। যে দেশের মানুষ রক্ত দিয়ে স্বাধীনতা অর্জন করেছে। সে দেশের মানুষ বিশ্ব দরবারে মাথা উচু করে দাড়াবে। আজকে দুটি নির্বাচনের মাধ্যমে বিশ্বের দুটি অন্যতম গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান পদের পদ পেয়েছে। আন্তর্জাতিক পযায়ে যারা আমাদের সমর্থন জানিয়েছেন, তাদের। অভিনন্দন জানাই। বিজয়টি দুজনকে অভিনন্দন জানাই। বাংলাদেশ এখন আপন মহিমায় গৌরবান্তিত করে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। এ যাত্রা অব্যাহত থাকবে। কি পেলাম না পেলাম সেটা বড় কথা নয়। বাংলাদেশ কি পেল সেটাই বড় কথা। অনুষ্ঠানে শিরিন শারমিন ও সাবের হোসেনকে অভিনন্দন জানিয়ে ভারতীয় কূটনীতিক সন্দীপ চক্রবর্তী বলেন, এ বিজয় উপমহাদেশের গৌরব। প্রতিবেশী দেশ হিসেবে ভারত সরকারের পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। তিনি বলেন, দুটো ফোরামে জেতা খুব সহজ ছিল না। অনেক সংগ্রাম করতে হয়েছে। অনেকে বলেছে- বাংলাদেশ কেন দুটো মনোনয়ন দেবে? কিন্তু আমরাও বলেছি- বাংলাদেশ অংশ নেবে দুটোতে, যে ফলাফল আসবে তা স্বীকার করবে। ভবিষ্যতেও ভারত সব সময় বাংলাদেশের পাশে থাকবে বলে জানান দেশটির ডেপুটি হাই কমিশনার সন্দীপ চক্রবর্তী।
আজ নীলফামারীতে খালেদা জিয়ার জনসভা
দীর্ঘ প্রায় ১৪ বছর পর নীলফামারীতে আসছেন ২০ দলীয় জোটের নেত্রী, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। আজ বৃহস্পতিবার বিকেল তিনটায় নীলফামারীর বড় মাঠে ২০ দলীয় জোটের জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন তিনি। এর আগে ২০০০ সালের ২০ জুলাই তিনি নীলফামারীর মাঠে চারদলীয় জোটের জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভাষণ দেন। নীলফামারী প্রতিনিধি জানানর্, দীঘদিন পর নীলফামারীতে খালেদা জিয়ার এই আগমনকে ঘিরে চাঙ্গা হয়ে উঠেছে দীর্ঘদিন ধরে ঝিমিয়ে থাকা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। মিটিং মিছিলে প্রকম্পিত জেলা শহর নীলফামারী। শহর-গ্রাম ছেয়ে গেছে ব্যানার, পোস্টার আর ফেস্টুনে। জেলা বিএনপির সদস্য সচিব সামসুজ্জামান জামান জানান, খালেদা জিয়ার জনসভাকে সফল করতে ইতোমধ্যে নীলফামারীর বড় মাঠে জনসভার মঞ্চ তৈরি সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়াও জনসভাস্থল ও বাইরের লোকজন যাতে খালেদা জিয়ার বক্তব্য শুনতে পারেন এজন্য জনসভাস্থলসহ শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে বসানো হচ্ছে ২২৫টি হর্ণ। জনসভা সফল করতে ১৫টি উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে। উল্লেখ্য, এর আগে নবম জাতীয় সংসদের প্রচারণার জন্য ২০০৮ সালের ১৮ ডিসেম্বর নীলফামারী স্থানীয় শহীদ মিনারে তৎকালীণ চারদলীয় জোটের পথসভায় ভাষণ দিয়েছিলেন খালেদা জিয়া। সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি : ২০ দলীয় জোটের প্রধান বিএনপির নেত্রী বেগম খলেদা জিয়াকে অভ্যর্থনা জানাতে ব্যাপক আয়োজন করা হয়েছে সৈয়দপুরে। তাকে শুভেচ্ছা জানাতে নির্মাণ করা হয়েছে তোরণ, বিলবোড। লাগানো হয়েছে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ছবি সংবলিত রঙিন পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন। সৈয়দপুর উপজেলা এলাকার প্রবেশমুখ চিকলীবাজার থেকে উপজেলার শেষ প্রান্ত ঢেলাপীর বাজার পর্যন্ত প্রায় ১০ কিলোমটিার এলাকার সড়কে অর্ধশতাধিক বিশালাকৃতির তোরণ তৈরি করা হয়েছে। বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের ব্যানারে এ সব তোরণ নির্মিত হয়েছে। বিএনপির নেত্রীর আগমনকে স্বাগত জানিয়ে গত প্রায় এক পক্ষকাল ধরে সৈয়দপুর রাজনৈতিক জেলায় বিএনপির পক্ষ থেকে মাইকিং অব্যাহত ছিল। এছাড়াও বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে প্রায় প্রতিদিনই শহরে মিছিল-সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় বিএনপি সূত্রে জানা গেছে,বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া বগুড়া থেকে সড়ক পথে বিশাল গাড়িবহর নিয়ে সৈয়দপুর হয়ে নীলফামারী জনসভাস্থলে যাবেন। নীলফামারী যাওয়ার প্রাক্কালে সৈয়দপুর উপজেলার প্রবেশমুখে চিকলিবাজারে জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে বেগম খালেদা জিয়াকে অভ্যর্থনা জানানো হবে। সেখান থেকে গাড়িবহরের সামনে সৈয়দপুর রাজনৈতিক জেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের বিশাল মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা সহকারে বিএনপি নেত্রীর গাড়িরবহরকে উপজেলার শেষ প্রান্ত ঢেলাপীর পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া হবে। গত কয়েক দিন যাবৎ বিএনপির নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার আগমনকে ঘিরে গোটা নীলফামারী জেলায় সাজ সাজ রব পড়ে গেছে। এদিকে নীলফামারীর উদ্দ্যেশে গতকাল ঢাকা থেকে সড়ক পথে রওনা হন বেগম খালেদা জিয়া। তিনি রাতে বগুড়ায় পেঁৗছান এবং সেখানে রাত্রিযাপন করেন। বগুড়ায় খালেদা জিয়াকে বিপুল সংবর্ধনা বিএনপির চেয়ারপার্সন ২০ দলীয় জোট নেত্রী, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া গতকাল রাতে ঢাকা থেকে নীলফামারী যাবার পথে যাত্রা বিরতিকালে বগুড়া সার্কিট হাউজে পৌছিলে নেতা কর্মিরা বিপুল সংবর্ধনা জ্ঞাপন করেছে। রাত ৯টা ৩২ মিনিটে বেগম জিয়াকে বহনকারী গাড়ী বগুড়া সার্কিট হাউজে পৌছিলে নেতা কর্মিরা সস্নোগানে সস্নোগানে সার্কিট হাউজ চত্বর মুখরিত করে তোলে। নেতা কর্মিরা বিএনপির চেয়ারপার্সনকে স্বাগত জানিয়ে শ্লোগান দেয়ার পাশাপাশি সরকার বিরোধী শ্লোগান দিয়ে সার্কিট হাউজের বাতাস ভারি করে তোলে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী সার্কিট হাউজে পৌছিলে নেতা কর্মিরা তার সাথে দোতালায় উঠলে জেলা বিএনপির সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর শাহে আলম, বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শোকরানা, ফজলুল বারী তালুকদার বেলাল, রেজাউল করিম বাদশা, আলী আজগর তালুকাদর হেনা, খাজা ইফতেখার আহমেদ, এম আর ইসলাম স্বাধীন, পরিমল চন্দ্র দাস, মাহফুজুর রহমান রাজু, জেলা যুবদলের সভাপতি সিপার আল বখতিয়ার, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মেহেদী হাসান হিমু, আরাফাতুর রহমান আপেলসহ নেতা কর্মিরা মামলা মাথায় নিয়ে বিএনপি\'র চেয়ারপার্সনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। শুভেচ্ছা গ্রহণ করে সাবেক প্রধান মন্ত্রী খালেদা জিয়া উপস্থিত নেতা কর্মিদের হাত নেড়ে অভিনন্দনের জবাব দেন। খালেদা জিয়া বগুড়া আগমন উপলক্ষে বগুড়া শহর ব্যানার, ফেস্টুন টানিয়ে তোরণ নির্মাণ করে স্বাগত জানান। সার্কিট হাউজে পৌছার আগেই নেতা কর্মিরা তার গাড়ির বহরের সাথে শ্লোগান দিতে দিতে এগুতো থাকেন। বেগম খালেদা জিয়া আজ সকাল বেলা ১১টায় বগুড়া থেকে নীলফামারীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবেন। তিনি বিকালে নীলফামারী বড় মাঠে ২০ দলীয় জোট আয়োজিত জনসভায় ভাষণ দেবেন। বেগম জিয়ার যাত্রাকালে পথে পথে তাকে সংবর্ধনা দেয়া হবে। শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি : বিএনপির চেয়ারপার্সন ও ২০দলীয় জোটনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার গাড়িবহর রাত ৯টা ৫মিনিটে বগুড়ার শেরপুরে এসে পৌঁছলে মহাসড়কের দু\'পাশে দাঁড়নো হাজার হাজার নেতাকর্মীসহ বিপুল সংখ্যক সাধারণ মানুষ দলীয় নেত্রীকে শুভেচ্ছা জানান। গাড়িতে বসা বেগম জিয়াও নেতাকর্মীদের হাত নেড়ে শুভেচ্ছার জবাব দেন। এদিকে বেগম খালেদা জিয়াকে স্বাগত জানাতে শহরের স্থানীয় বাসস্ট্যান্ডে সভামঞ্চ তৈরি করা হয়। সেখানে দুপুরের পর থেকেই দলের নেতাকর্মীরা নেত্রীকে স্বাগত জানাতে জমায়েত হতে থাকেন। পরে রাত ৯টা ৫মিনিটে খালেদা জিয়ার গাড়িবহর শেরপুরে এসে পৌঁছলে ফুল ছিটিয়ে তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।
ব্যবসায়ী গিয়াস হত্যা তানভীরের স্বীকারোক্তি স্ত্রীসহ তিনজন রিমান্ডে
রাজধানীর মিরপুরের ঝুট ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন হত্যার ঘটনায় গ্রেফতারকৃত চারজনের মধ্যে তানভীর আহমেদ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। বাকি ৩ জন নিহতের স্ত্রী লাভলী ইয়াসমিন লিমা, সাদমান ইসলাম মুক্ত ও আকিবুল ইসলাম জিসানের ৩ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। নিহতের স্ত্রী লিমার পরিকল্পনায় তার প্রেমিক তানভীর আহম্মেদ অন্য দুই বন্ধুকে নিয়ে গিয়াস উদ্দিনকে খুন করেন বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে। গতকাল বুধবার গ্রেফতারকৃত ৪ জনকে ঢাকার সিএমএম আদালতে হাজির করে তানভীর আহমেদের স্বীকারোক্তি রেকর্ড ও অপর তিন আসামিকে ৭ দিন করে রিমান্ডের আবেদন করেন মিরপুর থানার এসআই ইমানুর রহমান। মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. তসরুজ্জামানের আদালতে হত্যাকা-ের দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন তানভীর। বাকি তিন আসামি নিহতের স্ত্রী লিমা, মুক্ত ও জিসানের ৩ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মারুফ হোসেনের আদালত। জবানবন্দি ও রিমান্ডের বিষয়টি জানিয়েছেন আদালতের মিরপুর থানার জিআরও হুমায়ুন কবির। গত ১৯ অক্টোবর রাতে মিরপুর-১০ নম্বর সেকশনের ১৫ নম্বর লেনের সি-বস্নকের ১১ নম্বর বাড়ির চার তলায় নিজ বাসায় খুন হন গিয়াস উদ্দিন (৩৭)। নিহতের ভাইয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে ওই দিনই নিহতের স্ত্রী লাভলী ইয়াসমিন লিমাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। লিমার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে হত্যাকা-ের তিনদিন পর মঙ্গলবার (২১ অক্টোবর) দিনভর অভিযান চালিয়ে সন্ধ্যায় মিরপুর থেকে তিন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত তিনজনই কলেজছাত্র। তাদের মধ্যে তানভীর আহমেদ (১৮) খুলনার বিএল কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র, সাদমান ইসলাম মুক্ত (১৮) ঢাকা কর্মাস কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র ও আকিবুল ইসলাম ওরফে জিসান (১৮) সরকারি বিজ্ঞান কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র। মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাউদ্দিন জানান, গিয়াস উদ্দিন খুনের ঘটনায় তার স্ত্রী লিমাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায় তিনি এই হত্যাকান্ডের ঘটনার পরিকল্পনার কথা স্বীকার করেন। তিনি বলেন, তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মিরপুর ১০ নম্বর এলাকা থেকে মঙ্গলবার দুপুরে তানভীর আহম্মেদকে আটক করা হয়। এরপর তানভীরকে নিয়ে অভিযান চালিয়ে এই খুনের সঙ্গে সরাসরি অংশ গ্রহণকারী আকিবুল ইসলাম ওরফে জিসান ও সাদমান ইসলামকে আটক করা হয়। কলেজ ছাত্র তানভীর আহম্মেদ সাংবাদিকদের জানান, এক বছর আগে গিয়াস উদ্দিনের বাসার সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় লিমার সঙ্গে পরিচয় হয় তার। এরপর দু\'জনের মধ্যে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তিনি জানান, গত ১৫ অক্টোবর গিয়াসকে ডিভোর্স না দিয়েই লিমা বিয়ে করেন আমাকে। বিয়ের পর দু\'জনের একসঙ্গে থাকার বাধা দূর করতে লিমার পরিকল্পনা মতে তিন বন্ধু মিলে খুন করি গিয়াসকে। তিনি আরো বলেন, বিয়ের আগ থেকে লিমা গিয়াস উদ্দিনকে মেরে ফেলার জন্য বারবার আমাকে প্ররোচিত করতে থাকে। কিন্তু আমি সাহস পাচ্ছিলাম না। বিয়ের পর সে আমাকে আরো বেশি চাপ দিতে থাকে। লিমার চাপাচাপিতে খুন করতে রাজি হই। রাজি হওয়ার পর এ হত্যাকা- সংগঠিত করতে ৩০ হাজার টাকা দেন লিমা। চুক্তি অনুযায়ী এই টাকার ১৫ হাজার দেওয়া হয় জিসান ও সাদমানকে। জিসান বলেন, ঘটনার দিন রাত সাড়ে ৮ টার দিকে মিরপুর ১০ নম্বর সি ব্লকের ছয়তলা বাসার চার তলার বাসায় তানভীর আমাদের নিয়ে যায়। আমরা অপেক্ষা করতে থাকি। এরপর রাত ১০ টার দিকে গিয়াস উদ্দিন বাসায় আসেন । দরজা দিয়ে ভেতরে ঢোকার সঙ্গে সঙ্গে পেছন থেকে কাঠের লাঠি দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে তানভীর। মেঝেতে পড়ে যাওয়ার পর আমি ও মুক্ত তার হাত-পা ধরে রাখি। তানভীর তাকে শ্বাসরোধ হত্যা করে। এরপর রাত ১১টার দিকে লিমার পরামর্শ অনুযায়ী তিনজনে বোরকা পরে ওই বাসা থেকে বের হয়ে আসি।
 
 
 
নবম জিএফএমডি সম্মেলনের আয়োজক বাংলাদেশ
করতোয়া ডেস্ক :
নবম 'গ্লোবাল ফোরাম অন মাইগ্রেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট' (জিএফএমডি) সম্মেলন বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মঙ্গলবার (২১ অক্টোবর) সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় জিএফএমডির স্টিয়ারিং গ্রুপ ও ত্রয়কার আলাদা বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী... বিস্তারিত
 
সবার বাড়ি কক্সবাজারে
সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় ৫ বাংলাদেশী নিহত
মামলা : তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল
বড়াইগ্রামে দুর্ঘটনায় হতাহতদের তালিকা প্রকাশ
নাটোর প্রতিনিধি :
নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার রেজুর মোড়ে সোমবার বিকেলে দুটি বাসের সংঘর্ষে হতাহতদের তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বড়াইগ্রাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরীফুন্নেসা ওই তালিকা প্রস্তুত করেন। তালিকা প্রস্তুতে তাকে সহায়তা করেন গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইয়াসমিন আক্তার, বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম ও বনপাড়া... বিস্তারিত
 
লতিফকে গ্রেফতার দাবি
সম্মিলিত ইসলামী দল রোববার সারাদেশে হরতাল ডেকেছে
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
বেঁধে দেওয়া সময়ে লতিফ সিদ্দিকী গ্রেফতার না হওয়ায় রোববার হরতাল পালনের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। মন্ত্রিসভা থেকে সদ্য অপসারিত লতিফ সিদ্দিকী গ্রেফতার না হওয়ায় ২৬ অক্টোবর রোববার দেশব্যাপী সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেয় সম্মিলিত ইসলামী দল। গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের মহাসচিব মাওলানা জাফরুল্লাহ... বিস্তারিত
 
 
 
ভিডিও
রাশিচক্র আজ ঢাকায় আজ বগুড়ায়
 
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের চরমপন্থিরা আত্মসমর্পণের আহ্বানে সাড়া দেবে বলে মনে করেন কি?
হ্যাঁ
উত্তর নেই
না
 
 
 
আজকের ভিউ
নামাজের সময়সূচী
ওয়াক্ত
সময়
ফজর
03:50
জোহর
12:7
আছর
04:42
মাগরিব
06:54
এশা
08:20
 
 

সম্পাদকঃ মোজাম্মেল হক, সম্পাদক কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, শিল্পনগরী বিসিক বগুড়া এবং ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড, (আরামবাগ) ইডেন কমপ্লেক্স, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও চকযাদু রোড, বগুড়া হতে প্রকাশিত।
ফোন ৬৩৬৬০,৬৫০৮০, সার্কুলেশন বিভাগঃ ০১৭১৩২২৮৪৬৬, বিজ্ঞাপন বিভাগঃ ৬৩৩৯০, ফ্যাক্সঃ ৬০৪২২। ঢাকা অফিসঃ স্বজন টাওয়ার, ৪ সেগুন বাগিচা। ফোনঃ ৭১৬১৪০৬, ৯৫৬০৬৬৯, ৯৫৬৮৮৪৬, ফ্যাক্সঃ ৯৫৬৮৫২২ E-mail : dkaratoa@yahoo.com . . . .

Powered By: