বগুড়া রোববার | ১১ কার্তিক ১৪২১ | ৩০ জিলহজ ১৪৩৫ হিজরি | ২৬ অক্টোবর ২০১৪
ব্রেকিং নিউজ
আর্কাইভ
দিন :
মাস :
সাল :
এই সংখ্যার পাঠক
১৪৫৯২৮
সার্চ
টার্গেট জানুয়ারি : চলছে ১৪ ও ২০ দলের প্রস্তুতি
মাহফুজ সাদি :
এবার টার্গেট জানুয়ারি। ক্ষমতাসীন ও বিরোধী পক্ষ আবারও মুখোমুখী হতে যাচ্ছে রাজনীতির মাঠে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের এক বছর পূর্তিকে সামনে রেখে ইতোমধ্যেই সরব হয়েছে উভয় পক্ষ। সরকার পতন ও মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবিতে কঠোর আন্দোলনে নামবে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। আর মোকাবিলার জন্য প্রস্তুত হচ্ছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দল। বিভিন্ন সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। সূত্রমতে, আবারো যাতে 'সেই পরিস্থিতি' সৃষ্টি না হয়, সেজন্য আওয়ামী লীগ এখন থেকেই সংগঠনকে শক্তিশালী করছে। এ জন্য ডিসেম্বরের মধ্যেই দেশের সব জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ডসহ সব পর্যায়ে দলের সম্মেলন ও কাউন্সিল সম্পন্ন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল... বিস্তারিত
নির্বাচিত সংবাদ
বগুড়ায় অনূর্ধ্ব-১৮ জুডো প্রশিক্ষণ ক্যাম্প শুরু
জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের ব্যবস্থাপনায়, জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে গতকাল বগুড়া শহীদ চাঁন্দু স্টেডিয়ামে অনূর্ধ্ব-১৮ অনাবাসিক জুডো প্রশিক্ষণ ক্যাম্প-এর উদ্বোধন করা হয়। ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক শফিকুর রেজা বিশ্বাস। বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার মোঃ মোজাম্মেল হক পিপিএম। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাছুদুর রহমান মিলন, সংস্থার সহ-সভাপতি সহিদুল ইসলাম, খাজা আবু হায়াত হিরু, কার্যনির্বাহী সদস্য আমিনুল ফরিদ, ইমদাদুল হক রত্ন, এ্যাডোনিস বাবু তালুকদার, শফিকুল ইসলাম বাবু, সহিদুল ইসলাম স্বপন, শহীদ চাঁন্দু স্টেডিয়ামের ভেন্যু ম্যানেজার জামিলুর রহমান জামিল প্রমুখ। ১৫দিন ব্যাপী এই ক্যাম্পে বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের ২০জন অংশ নিচ্ছে। প্রশিক্ষকের দ্বায়িত্ব পালন করছেন। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের জুডো প্রশিক্ষক মোঃ আবুল কালাম আজাদ, সহকারী কোচের দায়িত্ব পালন করছেন ওয়াজেদ ও মামুন। খবর বিজ্ঞপ্তির। ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লায়েন্স ১ম বিভাগ দাবা লিগ শুরু স্পোর্টস রিপোর্টার : ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লায়েন্স ১ম বিভাগ দাবা লিগ আজ শুরু। সকাল ১১ টায় দাবা কক্ষে শুরু হবে এ প্রতিযোগিতা। গতকাল এ সম্পর্কে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম কনফারেন্স-রুমে সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত জানানো হয়। ব্রিফিংয়ে আরবি গ্রুপের এডিশনাল ডিরেক্টর ও হেড অব গেমস এন্ড স্পোর্টস মিঃ এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন) ১ম বিভাগ ও প্রিমিয়ার ডিভিশন দাবা লিগের পৃষ্ঠপোষকতা করার কথা উল্ল্যেখ করে ভবিষ্যতেও বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দাবা ইভেন্টে পৃষ্ঠপোষকতা করার আশ্বাস দেন। তিনি বলেন দাবা খেলার উন্নয়ন ও প্রসারে তারা সম্ভাব্য সব রকমের সহযোগিতা করে যাবেন। গোল্ডেন চেস ক্লাব ও দেবদাস বিশ্বাস স্মৃতি সংসদ ২০১৩ সনের দ্বিতীয় বিভাগ হতে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স-আপ হয়ে প্রথম বিভাগে উন্নীত হয়েছে। ফেইথ চেস ক্লাব ও বাংলাদেশ বিমান ২০১৩ সনের প্রিমিয়ার ডিভিশন দাবা লিগ হতে রেলিগেটেড হয়ে প্রথম বিভাগ এসেছে। এবারের ওয়ালটন হোম অ্যাপ্লিয়েন্স প্রথম বিভাগ দাবা লিগে বাংলাদেশ ও ভারতের রেটিংপ্রাপ্ত খেলোয়াড়রা অংশ নিচ্ছেন। এটি একটি আন্তর্জাতিক রেটিং দাবা ইভেন্ট। প্রথম বিভাগ দাবা লিগ দেশের দ্বিতীয় সবর্োচ্চ দলগত দাবা ইভেন্ট। লিগের খেলা রাউন্ড রবীন লিগ পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হবে। চূড়ান্ত রাউন্ড শেষে শীর্ষস্থান প্রাপ্ত দুটি দল ২০১৫ সনের প্রিমিয়ার ডিভিশন দাবা লিগে উন্নীত হবে এবং সর্বনিম্নো দু\'টি দল দ্বিতীয় বিভাগে নেমে যাবে।
আলালকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বগুড়ায় যুবদলের বিক্ষোভ সমবেশ
যুবদল কেন্দ্রিয় কমিটির সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বগুড়া জেলা যুবদলের বিক্ষোভ সমাবেশ গতকাল শনিবার বিকেলে নবাববাড়ি সড়কস্থ দলীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত হয়। জেলা সভাপতি সিপার আল বখতিয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক আরাফাতুর রহমান আপেল, সাংগঠনিক সম্পাদক খাদেমুল ইসলাম খাদেম, মাসুদ রানা, রাফিউল ইসলাম রুবেল, ইঞ্জিনিয়ার সাইফুল ইসলাম রনি, আহমেদ বিন বিল্লাহ শান্তু, অধ্যক্ষ শাহিন, সবুজ দেওয়ান, আব্দুল মান্নান, পবিত্র চন্দ্র সিং, তুহিন চৌধুরী, এসএম আলম, আলী হায়দার মিঠু, এনামুল হক শাহিন, মশিউর রহমান পলাশ, ইকবালুর রহিম পলাশ, আসাফুদ্দৌলা তালুকদার, আনোয়ার হোসেন সান্টু, ফারুক জুম্মান শেখ, হোসেন আলী, আশরাফুল ইসলাম, হিরা শামীম, সেলিম, জুয়েল, প্রমুখ। সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে আলালের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি জানান। এর আগে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করতে গেলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। খবর বিজ্ঞপ্তির।
স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে পল্লী চিকিৎসকদের অবদান রয়েছে রংপুর সিভিল সার্জন
রংপুরের সিভিল সার্জন ডা. মোজাম্মেল হোসেন বলেছেন, দেশের স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়নে পল্লী চিকিৎসকদের অবদান রয়েছে। গ্রামের রোগীদের প্রথম ভরসা পল্লী চিকিৎসক। তারা প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রোগীদের বিভিন্ন মেডিকেলে প্রেরণ করেন। তাদের সমস্যা সমাধানে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। তিনি গতকাল সকালে নগরীর টাউন হলে বাংলাদেশ পলুী চিকিৎসক সমিতি রংপুর বিভাগীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। বিভাগীয় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ডা. আক্কাছ আলী সরকারের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সভাপতি ডা. সবুজ আলী, সাধারণ সম্পাদক ডা. খলিলুর রহমান, লালমনিরহাটের ডা. জহিরুল হক, ডা. আব্দুর রউফ, ডা. সরফরাজ উদ্দিন, ডা. আবেদ আলী, ডা. নজরুল ইসলাম, হামর্দদ ম্যানেজার ডা. রায়হান উদ্দিন, ইনসেপ্টা প্রতিনিধি মনোয়ার হোসেন, ফেরদৌস খান, একমি প্রতিনিধি মোজাম্মেল হোসেন প্রমুখ।
খেজুর গাছের রস সংগ্রহের কাজে ফুলবাড়ীর গাছিরা এখন ব্যস্ত
খেজুর রস সংগ্রহের জন্য ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার গাছিরা। উপজেলার সর্বত্রই খেজুর গাছের \'তোলা কাটা\' শেষ করে এখন রস সংগ্রহ শুরু করেছেন তারা। ফলে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যের প্রতীক মধুবৃক্ষকে ঘিরে গ্রামীণ জনপদে উৎসবমুখর পরিবেশ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, কোমরে মোটা রশি বেঁধে গাছে ঝুলেঝুলে রস সংগ্রহ করছেন গাছিরা। পেশাদার গাছিদের সাথে সাথে রস সংগ্রহে থেকে পিছিয়ে নেই অপেশাদার উৎসুক মানুষও। তারা খানিকটা দুঃসাহসিকভাবেই গাছে ওঠা-নামা করছেন রস সংগ্রহের জন্য। জানা যায়, কার্তিকের শুরুতেই গাছের পরিচর্যা করতে শুরু করেন গাছিরা। খেজুরের রসের গুড় ও পাটালি উৎপাদনের জন্য এ উপজেলার বেশ কয়েকটি গ্রামের সুখ্যাতি রয়েছে। এ এলাকায় খেজুর গুড় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিক্রি হচ্ছে। কদর রয়েছে দেশের বাইরেও। উপজেলার গ্রাম্য মেঠো পথের ধারেই রয়েছে খেজুর গাছের সারি। কয়েক দিনের মধ্যেই গ্রামের ঘরে ঘরে খেজুর রস ও খেজুর গুড় দিয়ে আমন ধানের নতুন পিঠা পুলি ও পায়েশ তৈরির ধুম পড়ে যাবে। আর মুড়ি, মোয়া, চিড়া খাওয়ার জন্য কৃষক পরিবার থেকে শুরু করে সর্বস্তরের মানুষের কাছে শীত মৌসুমে প্রিয় খাবার হবে এ খেজুরের গুড়। উপজেলার শত শত গাছি চার মাসব্যাপী খেজুর গাছ কেটে রস সংগ্রহ করার পরিকল্পনা হাতে নিয়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে জোরেশোরে। রস দিয়ে গুড় তৈরি করার পর বাজারে বিক্রির প্রস্তুতিও নিচ্ছে তারা। বিক্রি করে যে অর্থ পাওয়া যাবে তা দিয়ে সারা বছর চলবে তাদের সংসার। এখনও ভরা মৌসুমে শীত জেঁকে না বসলেও গাছিরা গাছ তোলা তৈরি ঠুঙ্গি, দড়ি, মাটির কলস, বাকি কেনার কাজ সেরে নিয়েছেন তারা। বাড়ির উঠানে চুলা তৈরি করে সেখানে গুড় বানানোর কাজ করছেন গৃহবধূরা। উপজেলার উত্তর কুটিচন্দ্রখানা (হরিপাঠ)গ্রামের আনছার আলী ও কাশিপুর ইউনিয়নের আজোয়াটারী গ্রামের নিরেন চন্দ্র রায় ও আমজাদ হোসেন জানান, গাছ কাটার কাজ কষ্টের হলেও রস সংগ্রহের আনন্দই আলাদা। রসের তৈরি গুড় গাছের মালিককে দেয়ার পর এবং নিজের পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনদের চাহিদা মিটিয়ে যে অর্থ আসে তা দিয়ে সংসার ভালোই চলে বলেও জানালেন তারা।
ঠাকুরগাঁও সাম্য ক্লাবের ত্রিশ বছর পূর্তি উপলক্ষে র‌্যালি
ঠাকুরগাঁওয়ে সাম্য ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর ৩০ বছর পূর্তি উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার গোষ্ঠীর উদ্যোগে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে দোয়েল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় বক্তব্য রাখেন সাম্য ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর উপদেষ্টা মির্জা ফয়সাল আমিন, ইঞ্জিনিয়ার মাহাবুর রহমান, খলিলুর রহমান, মো: স্বপন, সাম্য ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর সভাপতি রাশিদুজ্জামান মলয়, সাধারণ সম্পাদক আহমেদুল্লাহ বাবু, ফখরুখ ইসলাম, শাহাদৎ হোসেন প্রমুখ। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
চার জঙ্গি গ্রেফতার : মার্ডার লিস্টে লতিফ সিদ্দিকীসহ কয়েক ভিআইপি
উচ্চ মাত্রার বিস্ফোরকসহ নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন হরকাতুল জিহাদ বাংলাদেশের (হুজি-বি) ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। হুজি-বি\'র এ সদস্যরা অন্য জঙ্গি সংগঠনের সদস্যদের নিয়ে \'বাংলাদেশ জিহাদি গ্রুপ\' নামের একটি নতুন জোট গঠনের পরিকল্পনা করেছিলো। এছাড়া সদ্য অপসারিত মন্ত্রী আব্দুল রতিফ সিদ্দিকীসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিকে হত্যার মিশনও ছিলো তাদের। তবে এর আগেই গোয়েন্দা পুলিশ তাদের গ্রেফতারে সক্ষম হয়েছে বলে গতকাল শনিবার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে দাবি করেন ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার (ডিবি) মনিরুল ইসলাম। ওই জঙ্গিদের কাছ থেকে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার ধর্মগঞ্জে এবং ওয়ারীতে দুটি বোমা তৈরির কারখানা ও বিস্ফোরক গবেষনাগারের খোঁজ পাওয়া গেছে। এদিকে ওই হুজিবি সদস্যদের আদালতে হাজির করে রিমান্ড চাইলে আদালত ৬দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। ডিবির যুগ্ম কমিশনার বলেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার অভিযোগে কারাগারে থাকা জঙ্গি নেতা আবু জাফরের নির্দেশ পালন করছিলেন গ্রেফতারকৃতরা। আবু জাফর কারাগারে বসেই নির্দেশ দিচ্ছিলেন। তার নির্দেশে তারা অন্য জঙ্গিদের সংগঠিত করে \'বাংলাদেশ জিহাদি গ্রুপ\' নামে একটি \'কমন প্লাটফর্ম\' তৈরির চেষ্টা করছিলেন। তিনি জানান, গত বৃহস্পতি ও শুক্রবার রাজধানীর উত্তরা, টিকাটুলি এবং নারায়ণগঞ্জ থেকে রফিক আহমেদ ওরফে সাজিদ (৩৪), উমর ওরফে ফয়জুল ওরফে রবি (২৫), নাদিম আহমেদ ওরফে সুমন (৩০) ও সালাউদ্দিন আহমেদ (২৯) নামের চার জেএমবি সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। এদের মধ্যে রফিক হুজিবি\'র নেতা, উমর বোমাবিশেষজ্ঞ এবং বাকি দুজন বিস্ফোরক সরবরাহকারী। গ্রেফতারের সময় তাদের কাছ থেকে উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন বিস্ফোরক, ডেটোনেটর ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) সহযোগিতায় গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার রহমতউল্লাহ চৌধুরী, জাহাঙ্গীর আলম ও মাহমুদা আফরোজ লাকির নেতৃত্বে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের পাঁচটি দল অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে। এদের মধ্যে সাজিদ হুজিবির নেতা। তিনি অর্থ সংগ্রহের দায়িত্ব পালন করতেন। বাংলাদেশের বিভিন্ন উৎস ছাড়াও পাকিস্তান থেকে আসতো তাদের অর্থ। আর উমর রাজধানীর প্রাইম এশিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণীর রসায়ন বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র। সে বোমা বানাতে পারে। গ্রেফতার করা হুজিবির অন্য সদস্যরা বোমা তৈরিতে তার দক্ষতা কাজে লাগাতে চেয়েছিল। এছাড়া নাদিম ও সালাউদ্দিন বোমা তৈরির সরঞ্জাম সরবরাহের কাজ করতো। এই জঙ্গিরা ঢাকা, রাজশাহী ও চট্টগ্রামে নাশকতার পরিকল্পনা করেছিল। মনিরুল ইসলাম বলেন, \'বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ও লতিফ সিদ্দিকীসহ কয়েক রাজনৈতিক ব্যক্তির উপর হামলারও পরিকল্পনা ছিল তাদের। এছাড়াও নিষিদ্ধ ঘোষিত বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠন নিয়ে তারা বাংলাদেশ জিহাদি গ্রুপ নামের একটি নতুন জঙ্গি প্লাটফর্ম করতে চেয়েছিল।\' তিনি জানান, \'পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদে তাদের বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।\' ব্রিফিংয়ে দাবি করা হয়, গ্রেফতারকৃতদের কাছে উচ্চমাত্রার বিস্ফোরকদ্রব্য, বোমা তৈরির বিপুল উপকরণ ও পাকিস্তানে তৈরি একটি মেশিনগান উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া তারা দুটি গবেষনাগারেরও খোঁজ দিয়েছে। গ্রেফতারের আগ পর্যন্ত তারা ২৫টি বিস্ফোরক তৈরি করেছেন। আরও ৩০টি বিস্ফোরক তৈরি করার মতো উপকরণ তাদের কাছে পাওয়া গেছে।
গোলাম আযমের দাফন সম্পন্ন
একাত্তরের যুদ্ধাপরাধের দায়ে কারাভোগের মধ্যে মারা যাওয়া গোলাম আযমকে গতকাল শনিবার বায়তুল মোকাররমে জানাজার পর ঢাকার মগবাজারে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। বিকালে দাফনের আগে জোহরের নামাজের পর বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেটে অনুষ্ঠিত হয় জামায়াতের সাবেক এই আমিরের জানাজা। জোহরের নামাজের পর জানাজা পড়ান গোলাম আযমের চতুর্থ ছেলে আব্দুলাহিল আমান আযমী। জানাজার আগে তিনি অংশগ্রহণকারীদের উদ্দেশে বলেন, \'আমার বাবা জীবদ্দশায় জ্ঞাত হয়ে কখনও কাউকে দুঃখ দেননি, কষ্ট দেননি। অত্যন্ত সাধারণ জীবন-যাপন করেছেন। অথচ তাকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে কারাবন্দি করে রাখা হয়েছিল। আপনারা দোয়া করবেন আমার বাবাকে যেন আলাহ শহীদের মর্যাদা দান করেন। আযমী বলেন, \'বাবার আদর্শ ছিল দেশে আলাহর দ্বীন প্রতিষ্ঠা করা। তার মৃত্যু মানে ইসলাম আন্দোলনের বিদায় নয়। আমি বিশ্বাস করি, বাবা অধ্যাপক গোলাম আযমের মতো এরকম আরও লক্ষ লক্ষ গোলাম আযমের জন্ম হবে, তারাই একদিন ইসলামের বিজয় নিয়ে আসবে।\' আযমীর এই বক্তব্যের সময় উপস্থিত জামায়াতের নেতা-কর্মীদের অনেককে আবেগ প্রবণ হয়ে উচ্চ স্বরে কাঁদতে দেখা গেছে। আযমীর আগে জামায়াতের নায়েবে আমির মুজিবুর রহমানও সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, \'আমরা আজ শপথ করছি, দেশে যতক্ষণ ন্যায় প্রতিষ্ঠা না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত আমাদের ইসলামী আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।\' গোলাম আযমের জানাজায় জামায়াত নেতাদের মধ্যে ছিলেন এটিএম মাসুদ, সৈয়দ আবদুলাহ মোহাম্মদ তাহের, তাসনীম আলম, জসিমউদ্দিন সরকার, সেলিম উদ্দিনসহ জেলা আমিররা। যুদ্ধাপরাধে দন্ডিত দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ছেলে শামীম সাঈদী, গোলাম আযমের ভগি্নপতি ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সাবেক পরিচালক মোফাজ্জল হোসেন খানসহ পরিবারের সদস্যরাও ছিলেন জানাজায়। এ ছাড়া সারা দেশ থেকে আসা জামায়াত-শিবিরের বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী জানাজায় শরীক হন। ২০ দলীয় জোটের শরিক বিএনপিসহ অন্য দলগুলোর কয়েকজন নেতাকে দেখা গেছে জানাজায়। এদের মধ্যে ছিলেন ইসলামী ঐক্যজোটের আবদুল লতিফ নেজামী, কামাল উদ্দিন জাফরী, মুসলিম লীগের নুরুল হুদা, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, হামদুলাহ আল মেহেদি, শামসুদ্দিন পারভেজ, মাসুদ খান, বিজেপির সালাহউদ্দিন মতিন প্রকাশ, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের এটিএম হেমায়েতউদ্দিন। বিএনপির সহযোগী সংগঠন জাতীয়তাবাদী উলামা দলের সভাপতি হাফেজ আবদুল মালেক ছাড়াও ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শওকত মাহমুদ। তবে তিনি ছিলেন সাংবাদিক নেতা হিসেবে। সাংবাদিক নেতাদের মধ্যে আরও ছিলেন রুহুল আমিন গাজী, আবদুল হাই শিকদার, জাহাঙ্গীর আলম প্রধান। জানাজা শেষে বায়তুল মোকাররমের উত্তর ফটক দিয়ে বের করা হয় কফিন। ইসলামী ছাত্রশিবিরের কর্মীরা কফিন আনার সময় যেভাবে ঘিরে ছিল, নেওয়ার সময়ও সেভাবে ঘিরে রাখে। এরপর কফিন নিয়ে পল্টন হয়ে শোক মিছিল চলে মগবাজারের দিকে। লাশ নেওয়ার আগে বায়তুল মোকাররম এলাকায় পরপর কয়েকটি হাতবোমা বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি। কে বা কারা হাতবোমাগুলোর বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি। লাশ বায়তুল মোকাররমে নেওয়ার আগেই পুলিশ বায়তুল মোকাররম মসজিদসহ তোপখানা সড়কে সব যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছিল, শোক মিছিল ওই এলাকা ছাড়ার পর সড়ক খুলে দেওয়া হয়। এদিকে মিছিলসহ কফিন মগবাজারে পৌঁছার পর বিকাল পৌনে ৪টায় সেখানকার মসজিদের পাশে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধিতার প্রতীক গোলাম আযমকে। গোলাম আযমের আগে যুদ্ধাপরাধে দন্ডিতদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছিল আব্দুল আলীমের। দলটির সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আব্দুল কাদের মোলার মৃত্যুদন্ড ইতোমধ্যে কার্যকর হয়েছে। ১৯২২ সালের ৭ নভেম্বর ঢাকার লক্ষ্মীবাজারে নানাবাড়িতে জন্ম নেওয়া গোলাম আযম জামায়াতে যোগ দেন দলটির প্রতিষ্ঠাতা সাইয়্যিদ আবুল আলা মওদুদীর প্রভাবে। একাত্তরে গণহত্যা, ধর্ষণের মতো মানবতাবিরোধী অপরাধের পরিকল্পনাকারী হিসেবে গোলাম আযমকে ৯০ বছর কারাদন্ড দিয়েছিল যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল। ২০১১ সালে যে বন্দিত্ব শুরু হয়েছিল গোলাম আযমের, তার মধ্যেই অবসান ঘটে তার জীবনের। এরপর কবর হল সেই মাটিতে, যে মাটির স্বাধীনতা তিনি চাননি। সেই সাজার এক বছর গড়াতেই বন্দি অবস্থায় মৃত্যু হয় ৯২ বছর বয়সী এই অপরাধীর। তিনি দন্ড ভোগ করছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে প্রিজন সেলে। কফিন লক্ষ্য করে জুতা : বায়তুল মোকাররমে একাত্তরের নরঘাতক গোলাম আযমের কফিনে জুতো নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। মরদেহ বহনকারী অ্যাম্বুলেন্স বায়তুল মোকাররম এলাকায় পৌঁছালে ভিড়ের মধ্য থেকে এক যুবক \'জয় বাংলা সস্নোগান দিয়ে গোলাম আযমের কফিন লক্ষ্য করে জুতা নিক্ষেপ করে। এ সময় মিছিল থেকে তাকে ধাওয়া করার চেষ্টা করেন জামায়াতের নেতাকর্মীরা। এর আগেই পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। সেখানে ৬টি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনাও ঘটে। জীবিত অবস্থায় আগেও এই মসজিদ থেকে বের হওয়ার সময় জুতা নিক্ষেপ করা হয়েছিলো গোলাম আযমকে লক্ষ্য করে। লাশ পাকিস্তানে পাঠানোর দাবি : একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধে ৯০ বছরের কারাদন্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের সাবেক আমির গোলাম আযমের লাশ পাকিস্তানে পাঠানো দাবি জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় টিএসসি ভিত্তিক সাংস্কৃতিক সংগঠন। গতকাল শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির সামনে গোলাম আযমের প্রতীকী লাশ নিয়ে টিএসসিতে জড়ো হন। পরে বিক্ষোভ মিছিল সহকারে শাহবাগ হয়ে জাতীয় প্রেসক্লাবের সমানে অবস্থান নেন নেতকর্মীরা। বায়তুল মোকাররমে গোলাম আযমের জানাজার অনুমতি দেয়ায় ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বক্তারা বলেন, আমরা মানবতাবিরোধী অপরাধে দন্ডিত জামায়াতের সাবেক আমির গোলাম আযমের জানাজার বিরোধিতা করছি। তার মতো ঘৃণ্য ব্যক্তির কবর এ দেশে হতে পারে না। তার লাশকে পাকিস্তানের পাঠানোর দাবি জানানো হয়। এ সময় গোলাম আযম ও জামায়াত বিরোধী এবং মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে বিভিন্ন সেস্নাগান দেয়া হয়। কর্মসূচিতে কামাল পাশা, এফ এম শাহিনসহ গণজাগরণ মঞ্চ ও বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। গোলাম আযমের শোক মিছিলে গয়েশ্বর : যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমের কফিন নিয়ে শোক মিছিলে জামায়াতে ইসলামীর নেতা-কর্মীদের সঙ্গে বিএনপির শীর্ষস্থানীয় নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ও অংশ নিয়েছেন। একাত্তরে যুদ্ধাপরাধের দায়ে কারাভোগের মধ্যে বৃহস্পতিবার মারা যান গোলাম আযম। গতকাল শনিবার দুপুরে বায়তুল মোকাররম মসজিদে গোলাম আযমের জানাজা শেষে শোক মিছিল নিয়ে জামায়াতে ইসলামীর নেতা-কর্মীরা কফিন নিয়ে মগবাজারের পথে রওনা দেয়। শান্তিনগরে এই মিছিলে যোগ দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর রায়। তিনি বেশ কিছু দূর পর্যন্ত মিছিলের সঙ্গে যান।
নাগেশ্বরীতে চরাঞ্চলে ভারতীয় বানরের উপদ্রব
কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে ভারতীয় একাধিক বানরের উপদ্রবে অতিষ্ট চরাঞ্চলের একটি গ্রামের মানুষ। ক্ষিপ্ত বানরের আক্রমণে ৪ জন আহত হয়েছে । গ্রামবাসীর হাতে আটকও হয়েছে ১ টি বানর। ধারনা করা হচ্ছে ছ্থলে আসামের বনাঞ্চল থেকে বেশ কয়েকটি বানর সীমান্ত পার হয়ে নদী পথে এসেছে উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের আনছারহাট ফলিমারী চরে। গত দুই সপ্তাহ ধরে তান্ডব চালাচ্ছে ক্ষুধার্ত বানরগুলো। চোখের পলকেই ঘরে ঢুকে খেয়ে ফেলছে ভাত, চাল, কলা ও কাঁচা সবজি। তাড়াতে গেলে লাফিয়ে পড়ে মানুষের উপর। কাছে যাওয়ার সাহস পায় না গ্রামবাসী। আব্দুল খালেক, মোজাফ্ফর হোসেন, লিলি বেগম, মহসিন আলী, আব্দুস ছালাম জানায় বাধ্য হয়ে গত শুক্রবার সকালে তারা একত্রিত হয়ে তাড়া করে আটক করে একটি বানর। এসময় ছালামকে কামড় ও আব্দুল খালেক, জয়নাল মোজাফফরকে অাঁচড় দিয়ে রক্তাক্ত করে বানরটি। এলাকাবাসী তাৎক্ষণিক বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হায়াত মো: রহমতুল্লাহকে জানান। তিনি বানরটি উদ্ধারে উপজেলা বন কর্মকর্তা সাদেকুল ইসলাম শাহিনকে দায়িত্ব দিলেও গতকাল শনিবার পর্যন্ত ঘটনাস্থলে না যাওয়ায় বিপন্ন বানরটির জীবন। মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে উপজেলা বন কর্মকর্তা সাদেকুল ইসলাম শাহিন জানান, অফিসিয়াল ব্যস্ততার কারণে তিনি যেতে পারেননি।
গোপন বৈঠকের অভিযোগে আলালসহ ৬৪ জন গ্রেফতার
রাজধানীর লালমাটিয়ার নিজ বাসা থেকে যুবদল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ ৬৪ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গোপন খবরের ভিত্তিতে গতকাল শনিবার বেলা সাড়ে ১০টার দিকে ওই বাসায় অভিযান চালানো হয় বলে জানান মোহাম্মদপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জান-ই-আলম। তার দাবি, \'তারা নাশকতার উদ্দেশ্যে গোপন বৈঠক শুরুর সময়ই পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়।\' অন্য এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, \'তাদের কাছ থেকে অবৈধ কিছু উদ্ধার হয়নি। গতকাল রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আলাল মিন্টো রোডের গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে ছিলেন। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে গোয়েন্দা পুলিশের তেজগাঁও-মোহাম্মদপুর জোনাল টিম। তবে তারা লতিফ সিদ্দিকীর ফাঁসির দাবিতে ডাকা আজ রোববারের হরতালে নাশকতা সৃষ্টির পরিকল্পনা করতেই বৈঠক করছিলো। মোহাম্মদপুর থানার ওসি আজিজুল হক জানান, \'সকালে লালমাটিয়ার ওই বাসার আন্ডারগ্রাউন্ডে তারা বৈঠক করছিলেন। আমাদের কাছে খবর ছিল- হরতালে নাশকতা সৃষ্টির জন্য ওই বৈঠকে পরিকল্পনা চলছে। এমন খবরের ভিত্তিতে আমরা অভিযান চালাই। সেখান থেকে যুবদল সভাপতিসহ ৬৪ নেতাকর্মীকে আটক করি। পরে মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে গোয়েন্দা কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, আলালকে আজ রোববারের হরতাল প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছিলো। জিজ্ঞাসাবাদকারীদের একটি সূত্র জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আলাল নাশকতার বিষয়ে মুখ খোলেননি। আলালের কাছে পূর্বে সংঘটিত কয়েকটি সহিংসতার বিষয়েও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তার কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করছেন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। এদিকে অন্যদের মোহাম্মদপুর থানা পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করছে। অজানা আতঙ্কে গ্রেফতার বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সরকার ভয় ও অজানা আতঙ্ক থেকে গণহারে বিএনপির নেতা কর্মীদেরকে গ্রেফতার করছে। এরই ধারাবাহিকতায় যুবদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ অন্তত ৮০ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবীর রিজভী এ অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, আলাল দলের যুব বিষয়ক সম্পাদক এবং সাবেক সংসদ সদস্য। তার বাসায় নেতাকর্মীরা আসতেই পারে। কিন্তু সরকার সবসময় আতঙ্কের মধ্যে আছে, তাই বিরোধী দলকে দমনের জন্য গ্রেফতার হত্যা, গুম, খুন নির্যাতনের পথ বেছে নিয়েছে। সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বিএনপির এ নেতা বলেন, অবৈধ সরকার এইসব অপতৎপরতা বন্ধ না করলে জনগণের সব শক্তি দিয়ে তাদেরকে টেনে নামানো হবে। এসময় রিজভী অবিলম্বে মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ আটক ৮০ জন নেতাকর্মীর মুক্তি দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। সংবাদ সম্মেলনে এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির অর্থনীতি বিষয়ক সম্পাদক আবদুস সালাম, মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাসুদ তালুকদার, গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লা মিয়া, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা শিরীন সুলতানা প্রমুখ। যুবদলের বিক্ষোভ কাল যুবদল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ বিএনপির ৬৪ নেতা-কর্মীকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে আগামীকাল সোমবার যুবদলের পক্ষ থেকে জেলা ও মহানগরে বিক্ষোভের ডাক দেওয়া হয়েছে। গতকাল শনিবার যুবদলের নির্বাহী সদস্য গিয়াসউদ্দিন মামুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
বগুড়া সদর আসনের এমপি নূরুল ইসলাম ওমর হুইপ মনোনীত
সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ বগুড়া জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাংগঠনিক সম্পাদক বগুড়া-৬ সদর আসনের সংসদ সদস্য নূরুল ইসলাম ওমর-কে সংসদে বিরোধী দলীয় হুইপ মনোনীত করেছেন। গতকাল বিরোধী দলীয় নেতার কার্যালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। এলাকাবাসীর উন্নয়নে সংসদে তিনি আরও জোরালো ভূমিকা পালন করবেন। তার রাজনৈতিক জীবন শুরু হয় ছাত্র জীবন থেকেই। ছাত্রজীবনে তিনি ছাত্র ইউনিয়নের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তিনি বগুড়া সদরের সাবগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের পর পর তিন বার নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন। বগুড়া জেলা ইউপি চেয়ারম্যান এসোসিয়েশনের সভাপতি ছিলেন। বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস-চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি এলাকায় অনেক স্কুল, কলেজ,মাদ্রাসা,মসজিদ প্রতিষ্ঠা করেছেন। তিনি পূর্ব বগুড়ার নারুলী গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত রাজনৈতিক মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার চাচা ভাষা সৈনিক মরহুম সাদেক আলী আহমেদ। মূলত তার হাত ধরেই রাজনীতিতে আসেন তিনি। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে তার বড় ভাই,চাচা,ফুফা শহীদ হন। তিনিও মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। খবর বিজ্ঞপ্তির
শেরেবাংলা একে ফজলুল হকের জন্মবার্ষিকী আজ
অবিভক্ত বাংলার প্রধানমন্ত্রী শেরেবাংলা একে ফজলুল হকের ১৪২তম জন্মদিন আজ। নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে তার জন্মদিন উদযাপন করা হবে। শেরেবাংলা নামেই অধিক পরিচিত আবুল কাশেম ফজলুল হক ১৮৭৩ সালের এই দিনে বাকেরগঞ্জের বর্তমান বরিশাল জেলার সাটুরিয়া গ্রামে মামার বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা কাজী মোহাম্মদ ওয়াজেদ এবং মা সৈয়দুন্নেছা। ১৮৮৯ সালে তিনি ম্যাট্রিক পাস করেন। কলিকাতা প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে এফএ এবং রসায়ন, পদার্থবিজ্ঞান ও গণিতে অনার্সসহ স্নাতক এবং ১৮৯৭ সালে তিনি আইন শাস্ত্রে বিএল ডিগ্রি লাভ করেন। বাংলার এই কৃতী সন্তান ১৯৩৭ সালে অবিভক্ত বাংলার প্রধানমন্ত্রী হন এবং দেশ বিভাগের পর ১৯৫৫ সালে পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হন। ১৯৫৬ সালে পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর নিযুক্ত হন। শেরেবাংলা একে ফজলুল হক ১৯৬২ সালের ২৭ এপ্রিল ঢাকায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তাকে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাহিত করা হয়েছে। শেরেবাংলা জাতীয় স্মৃতি সংসদ আজ সকালে প্রয়াত নেতার মাজারে পুষ্পমাল্য অর্পণ, মোনাজাত ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছে।
 
 
 
বহিষ্কার না করার অনুরোধ করেছিলেন লতিফ সিদ্দিকী
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
মন্ত্রিত্ব ও সভাপতিমন্ডলীর সদস্য পদ হারানোর পর আওয়ামী লীগের সদস্যপদ থেকে বহিষ্কার না করার অনুরোধ করেছিলেন আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী। কিন্তু ধর্মের মতো স্পর্শকাতর বিষয়ে কটুক্তি করায় তা ক্ষমাা অযোগ্য বিবেচনায় চূড়ান্তভাবে বহিষ্কার করা হয় তাকে। শুক্রবার রাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকাররি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের... বিস্তারিত
 
আলালদের মুক্তি দাবি প্রধানমন্ত্রী তাসের ঘরে বসে আছেন : ফখরুল
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা তাসের ঘরে বসে আছেন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে অলি আহাদ স্মৃতি সংসদ আয়োজিত অলি আহাদ-এর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য... বিস্তারিত
 
 
 
ভিডিও
রাশিচক্র আজ ঢাকায় আজ বগুড়ায়
 
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের চরমপন্থিরা আত্মসমর্পণের আহ্বানে সাড়া দেবে বলে মনে করেন কি?
হ্যাঁ
উত্তর নেই
না
 
 
 
আজকের ভিউ
নামাজের সময়সূচী
ওয়াক্ত
সময়
ফজর
03:50
জোহর
12:7
আছর
04:42
মাগরিব
06:54
এশা
08:20
 
 

সম্পাদকঃ মোজাম্মেল হক, সম্পাদক কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, শিল্পনগরী বিসিক বগুড়া এবং ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড, (আরামবাগ) ইডেন কমপ্লেক্স, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও চকযাদু রোড, বগুড়া হতে প্রকাশিত।
ফোন ৬৩৬৬০,৬৫০৮০, সার্কুলেশন বিভাগঃ ০১৭১৩২২৮৪৬৬, বিজ্ঞাপন বিভাগঃ ৬৩৩৯০, ফ্যাক্সঃ ৬০৪২২। ঢাকা অফিসঃ স্বজন টাওয়ার, ৪ সেগুন বাগিচা। ফোনঃ ৭১৬১৪০৬, ৯৫৬০৬৬৯, ৯৫৬৮৮৪৬, ফ্যাক্সঃ ৯৫৬৮৫২২ E-mail : dkaratoa@yahoo.com . . . .

Powered By: