বগুড়া রোববার | ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২১ | ২৯ মহররম ১৪৩৬ হিজরি | ২৩ নভেম্বর ২০১৪
ব্রেকিং নিউজ
আর্কাইভ
দিন :
মাস :
সাল :
এই সংখ্যার পাঠক
১৫২৯৫৩
সার্চ
মৌসুম শুরু : উদ্বেগে মালিকরা
কয়লার অভাবে উত্তরাঞ্চলের ২ হাজার ইটভাটা বন্ধপ্রায়
স্টাফ রিপোর্টার ঃ
কয়লা সংকটের কারণে উত্তরাঞ্চলে প্রায় দুই হাজার এবং বগুড়ার প্রায় দুইশ' ইটভাটা এখন বন্ধ প্রায়। মৌসুম শুরু হলেও এখনও কোন ইট ভাটায় আগুন দেয়া সম্ভব হয়নি। ইট উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেলে দেশে নির্মাণ কাজ বন্ধ হওয়ার আশংকা দেখা দিতে পারে এমনটাই আশংকা ইটভাটা মালিকদের। বড় পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি কয়লা... বিস্তারিত
নির্বাচিত সংবাদ
আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থেকে বিএনপিকে ভয় দেখাচ্ছে সাবেক এমপি লালু
বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫০তম জন্ম বার্ষিকীর এক অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় বিএনপির ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প বিষয়ক সম্পাদক সাবেক এমপি হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু বলেছেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতার লোভে দেশের মানুষের সাথে প্রতারনা করেছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থেকে বিএনপিকে ভয়-ভীতি দেখাচ্ছে। বাকশাল কায়েম করে একতরফাভাবে ক্ষমতায় থাকতে চায় তারা। গতকাল শনিবার বগুড়ার গাবতলী থানা বিএনপির কার্যালয়ে তারেক রহমানের জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও কেক কর্তন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় থানা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবুল হোসেন মোল্লার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন থানা বিএনপির সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান মোরশেদ মিলটন, সাংগঠনিক সমপাদক এনামুল হক নতুন, বিএনপি নেতা লিটন, আবু জাফর, আতিক, চেয়ারম্যান জুলফিকার হায়দার গামা, মতি, তপন, টুকু, মকবুল হোসেন, ফটু, আসাদ, আব্দুর মোমিন, রাঙ্গা, রব্বানী, ইউসুফ, জিয়া পরিষদের নজমল যুবদল নেতা, রিপন, হারুন, মিন্টু ছাত্রদল নেতা আনোয়ার, চনচল, পবন, প্রমুখ।
উদীচী ঠাকুরগাঁও সংসদের সেতারা সভাপতি ও রিজু সম্পাদক নির্বাচিত
\'নিত্য বাজুক বজ্রবীণা, মানুষ জাগুক জয়ে\'-এই শ্লোগানকে সামনে রেখে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী ঠাকুরগাঁও জেলা সংসদের ৬ষ্ঠ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নয়া কমিটিতে সেতারা বেগম সভাপতি ও রেজওয়ানুল হক রিজু সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় সাধারণ সভায় ২৫ সদস্যের এ কমিটি নির্বাচন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য ইকবালুল হক খান। সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি রেজাউর রহমান রেজু, সম্মেলন প্রস্তুতি পরিষদের আহ্বায়ক এমএম রাজু প্রমুখ। পৌর মিলনায়তনে আয়োজিত সম্মেলনের উদ্বোধন করেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদ ঠাকুরগাঁও জেলা শাখার সভাপতি সূর্য্য মুর্মু। কমিটির অপর সদস্যরা হলেন সহ-সভাপতি নির্মল মজুমদার, কমল কুমার রায়, ফরিদা বিজলী, আশুতোষ দে, সহ-সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ আমিন সরকার, কোষাধ্যক্ষ ননী গোপাল বর্মন প্রমুখ।
হঠাৎ বদলে যাওয়া পাওলি দাম...
পাওলির জীবনে এখন পর্যন্ত যা যা ঘটেছে তা হঠাৎ করেই ঘটেছে। নিজের জীবনের সেলিব্রেটি তকমাটাও যেন হঠাৎ করেই এসে ধরা দিলো। ছোটপর্দা থেকে বড় পর্দা তারপর দর্শক হৃদয়ের মন জয় করা সবই যেন হঠাৎ করেই হয়েছে। হয়তো তার বিয়েটাও হঠাৎ করেই কোন একদিন হয়ে যাবে, এমনটাই জানালেন পাওলি দাম। গত সপ্তাহ জুড়ে রাজধানীর আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন ওপার বাংলার নায়িকা আর এপার বাংলার মেয়ে পাওলি দাম। হাসিবুর রেজা কল্লোলের নির্দেশনায় তিনি অভিনয় করছেন \'সত্তা\' চলচ্চিত্রে। চলচ্চিত্রটিতে শিখা চরিত্রে অভিনয় করছেন পাওলি। তার বিপরীতে সবুজ চরিত্রে অভিনয় করছেন এপার বাংলার সেরা নায়ক শাকিব খান। এর আগেও পাওলি বাংলাদেশে এসেছিলেন গৌতম ঘোষ পরিচালিত \'মনের মানুষ\' চলচ্চিত্রের কাজে। তবে এবারের কাজটাকে একটু বেশিই উপভোগ করছেন পাওলি। কারণ হিসেবে পাওলি বলেন, \' পুরোপুরি শৃঙ্খলিত একটি ইউনিট। পরিচালক হাসিবুর রেজা কল্লোল ভাই অসাধারণ একজন মানুষ, একজন গুণী নির্মাতা। সবমিলিয়ে একটি পারিবারিক ইউনিটে কাজ করছি বলে মনেই হচ্ছেনা আমি কলকাতা থেকে ঢাকায় এসে কাজ করছি। এখানকার মানুষের আতিথেয়তায় আমি মুগ্ধ। সত্যি বলতে কী মনের গভীর থেকে অনুভব করছি আমার মাটির প্রতি আমার আত্নার টান।\' পাওলির দামের আদি বাড়ি ফরিদপুরে। স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় তার পরিবার চলে গিয়েছিলেন ওপার বাংলায়। পরে আর ফেরা না হলেও এ দেশের পর্দা কন্যা হয়ে তিনি ফিরেছেন। নির্মাতা হাসিবুর রেজা কল্লোল দর্শকের কাছে নতুন এক পাওলিকে তুলে ধরার চেষ্টা করছেন অতি যতনে। প্রশ্ন রাখি নির্মাতাকে, শিখা চরিত্রে কেন পাওলি দামকে নেয়া? জবাবে হাসিবুর রেজা কল্লোল বলেন, \' একেবারেই চরিত্রের প্রয়োজনে পাওলিকে নেয়া। শিখা চরিত্রে আমি পাওলির বিকল্প আর কাউকেই ভাবতে পারিনি। শুধু তাই নয় দেড় বছর আগে যখন আমি পাওলিকে গল্পটি শুনাই তখন তিনিও গল্প শুনেই কাজটি করতে আগ্রহী হয়ে উঠেন। যে কারণে \'সত্তা\' চলচ্চিত্রে পাওলির কাজ করা। \' কেমন করছেন পাওলি? জবাবে আবারো কল্লোল, \'নিঃসন্দেহে তিনি অনেক ভালো অভিনয় করছেন। শিখা চরিত্রে তিনি তার সবর্োচ্চটুকুই দেয়ার চেষ্টা করছেন। তাছাড়া পাওলি চলচ্চিত্রের একজন প্রফেশনাল শিল্পী। তাই একজন প্রফেশনাল শিল্পীর জায়গা থেকে তিনি তার চরিত্রটি বুকে লালন করেই ক্যামেরার সামনে দাঁড়াচ্ছেন। পরিচালক হিসেবে তার অভিনয়ে আমি মুগ্ধ।\' তরঙ্গ এন্টারটেইনম্যান্ট প্রযোজিত পাওলি দাম অভিনীত \'সত্তা\' চলচ্চিত্রের গল্প রচনা করেছেন সোহানী হোসেন। গত রবিবার চলচ্চিত্রটির কাজে এসেছিলেন পাওলি। শুক্রবার ফিরেগেছেন কলকাতা। তবে আবারো এই চলচ্চিত্রের কাজে আসবেন তিনি বিজয়ের মাসে। বিজয়ের মাসে রাজধানী ঢাকাকে দেখতে চান পাওলি দাম। কলকাতার বৌ বাজারের মেয়ে পাওলি দাম বেড়ে উঠেছেন যৌথ পরিবারে। পহেলা বৈশাখসহ নানান উৎসবে এখনো এই পরিবারটি অনেক আনন্দে মেতে উঠে। যৌথ পরিবারের মেয়ে পাওলির ছোটবেলা কেটেছে সাংস্কৃতিক আবহে। পাওলির মা পাপিয়া দাম ছিলেন একজন উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতশিল্পী। তিনি এখনো গান করেন। তবে ছোটবেলা থেকে পাওলির আগ্রহ ছিলো অভিনয় আর নাচের প্রতি। যে কারণে পরিবারের সঙ্গীত পিপাসুদের নিয়ে গঠিত সংগঠন \'হরিত্রিয়া সঙ্গীত নিকেতন\'-এর হয়ে নানান অনুষ্ঠানে অংগ্রহণ করেছেন পাওলি। তবে অভিনয়ে পাওলির হাতে খড়ি হয় \'শিশু রঙ্গন\'র সার্বিক তত্ত্বাবধায়ক শৈলেন ঘোষের কাছে। এই দলেরই হয়ে পরবর্তীতে বিভিন্ন সময়ে পাওলি দাম রবীন্দ্র সদনসহ কলকাতার বিভিন্ন মঞ্চে বিভিন্ন নাটকে অভিনয় করেছেন। অভিনয় যখন করতেন সেই সময় নাচেও পাওলি নিজেকে পারদর্শী করে নিয়েছিলেন। তবে পাওলি যে একসময় নায়িকা হবেন তা কখনোই ভাবেননি তিনি। তিনি হতে চেয়েছিলেন \'ক্যামিক্যাল রিসার্চার\' কিংবা একজন \'পাইলট\'। কিন্তু সেই পথে পা বাড়ানোর আগেই পাওলি ২০০৪ সালে প্রথম টিভি সিরিয়াল \'জীবন নিয়ে খেলা\' তে অভিনয় করেন। এরপর \'তিথির অতিথি\', \'সোনার হরিণ\' \'তারপর চাঁদ উঠলো\' , \'জয়া\' , \'স্ক্যা-াল\' সিরিয়ালে অভিনয় করেন। ২০০৪ সালেই পাওলি প্রথম চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন \'তিন ইয়ারির কথা\'। তবে এটি মুক্তি পায় ২০১২ সালে। তবে ২০০৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত গৌতম ঘোষ পরিচালিত \'কালবেলা\' চলচ্চিত্রটিতে তিনি কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন। এতে সহশিল্পী হিসেবে পাওলি পেয়েছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও পরমব্রতকে। এরপর \'জামাই রাজা\', \'মলি্লক বাড়ি\', \'সব চরিত্র কাল্পনিক\', \'থানা থেকে আসছি\' , \'মাটি ও মানুষ\', \'কাগজের বউ\' \'মনের মানুষ\'সহ হিন্দি চলচ্চিত্র \'হেট স্টোরী\', \'অঙ্কুর অরোরা মার্ডার কেস\', \'গ্যাং অব ঘস্টস\'-এ অভিনয় করেন। গত ১৪ নভেম্বর কলকাতায় মুক্তি পেয়েছে পাওলি দাম অভিনীত সঞ্জয় নাগ পরিচালিত \'পারাপার\' চলচ্চিত্রটি। এতে সহশিল্পী হিসেবে ছিলেন এপার বাংলার আহমেদ রুবেল। হাসিবুর রেজা কল্লোল পরিচালিত \'সত্তা\' চলচ্চিত্রেও পাওলি সহশিল্পী হিসেবে পেয়েছেন তাকে। তবে বিশেষত পাওলির বন্ধু বান্ধব, আত্নীয় স্বজন ও ভক্তরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন তার অভিনীত দেবেশ চট্টোপাধ্যায় পরিচালিত \'নাটকের মতো\' চলচ্চিত্রটি নিয়ে। ছবিটির গল্প, নির্মাণ এবং নিজের অভিনয়শৈলী নিয়ে দারুণ আশাবাদী পাওলি দাম। তবে আরো মুক্তির অপেক্ষায় আছে পাওলি অভিনীত \'অজানা বাতাস\' , তবুও অপরিচিত\' চলচ্চিত্র। সবকিছুর পরও আপাতত সকল ভাবনা পাওলির \'সত্তা\' নিয়ে। কারণ এদেশের দর্শক যে তার নিজের দর্শক। এদেশের দর্শকের কাছে নিজের অভিনয়ের শ্রেষ্ঠত্বকে প্রমাণ করতে চান শিখা চরিত্রে অভিনয়ের মধ্যদিয়ে। পাওলির প্রচ- ইচ্ছে নিজের আদি বাড়ি ফরিদপুরে যাবার। কিন্তু, কিন্তু কী? \'কিন্তু এবার কাজের এতো বেশি চাপ যে ফরিদপুর যাওয়া হবেনা। তবে পরেরবার আমি যেতে চাই। নিজেদের আদি বাড়ি অন্তত একবার দেখতে চাই।\' বললেন পাওলি দাম। \'সত্তা\' চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে গিয়ে কেমন লাগলো এখানকার সেরা নায়ক শাকিব খানকে? পাওলি দাম বলেন, \' তার অভিনীত দু\'তিনটি চলচ্চিত্র আমি দেখেছি। উনিতো এখানে অনেক জনপ্রিয়। এতো চমৎকার ব্যবহার তাঁর যে মুগ্ধ না হয়ে পারিনি। ভীষণ সহযোগিতা করছেন তিনি। এক কথায় একজন চমৎকার মানুষ। সেইসাথে আমি আরেকটু যুক্ত করতে চাই চলচ্চিত্রটির জন্য অসাধারণ গান করেছেন বাপ্পা দা (বাপ্পা মজুমদার)। সেই সঙ্গে যারা গেয়েছেন তারাও অনেক ভালো গেয়েছেন। যদি সবকিছুই ভালো হয় তবে একটি চলচ্চিত্র সার্বিকভাবে ভালো না হওয়ার কোনই উপায় নেই।\' নিজের অভিনয় দক্ষতা নিয়ে পাওলি দাম ভীষণ কৃতজ্ঞ তার প্রতিটি চলচ্চিত্রের পরিচালক, সহশিল্পী এবং অন্যান্য কলা কুশলীদের কাছে। কারণ পাওলি মনে করেন, \' প্রতিটি চলচ্চিত্রেই কাজ করার সময় কোন না কোন ভুল ত্রুটি থেকে যায়। পরবর্তীতে যখন আবার অন্য কোন চলচ্চিত্রে কাজ করি তখন তা শুধরানোর চেষ্টা করি। এভাবেই কিন্তু একটু একটু করে আমি অভিনয়ে নিজেকে পরিপূর্ণ করে তোলার চেষ্টা করেছি, করছি। আমি কৃতজ্ঞ এখানকার নির্মাতা এবং সহশিল্পীদের প্রতিও। \' ৪ অক্টোবর জন্ম নেয়া পাওলি দাম অভিনীত প্রতিটি চলচ্চিত্র নিয়ে তার বাবা অমল দাম ও ছোট ভাই মৈনাক দামসহ তার বন্ধুদের মধ্যে প্রবল আগ্রহ থাকে। নতুন কোন চলচ্চিত্র মুক্তি পেলে তার অনবদ্য অভিনয়ে উচ্ছ্বসিত হন তার বন্ধুরা। সেইসব বন্ধুরা এখন থেকেই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন হাসিবুর রেজা কল্লোলের নির্দেশনায় নির্মিতব্য চলচ্চিত্র \'সত্তা\'র মুক্তির। নির্মাতা থেকে শুরু করে চলচ্চিত্রটির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাই বিশ্বাস করছেন নতুন এক পাওলির দেখা মিলবে \'সত্তা\'তে। যেন তাই হয়, যেন জয় হয় পাওলি দামের এপার বাংলার বড় পর্দায় আবারো উপস্থিতির। শুভ কামনা দৈনিক করতোয়া পরিবারের পক্ষ থেকে পাওলি দাম, শিখা সবর্োপরি \'সত্তা\'র জন্য এবং অবশ্যই শুভ কামনা হাসিবুর রেজা কল্লোলের জন্য, তার নির্দেশনায় নির্মিত এই চলচ্চিত্রটি যেন তার চলার পথকে আরো মসৃণ করে দেয়।
বোদায় কমলা চাষে লাভবান কৃষক বৃদ্ধি পাচ্ছে চাষির সংখ্যা
পঞ্চগড়ের বোদায় কমলা চাষে লাভবান হচ্ছেন কৃষক। এতে উপজেলায় রসালো ফল কমলা চাষের উজ্জল সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এ উপজেলায় কমলা চাষীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে কমলা চাষিদের সাথে কথা বলে জানা গেছে। বোদাসহ পঞ্চগড় জেলার বাণিজ্যিকভাবে কমলার চাষাবাদ শুরু হয়েছে। গড়ে উঠেছে ছোট-বড় শতাধিক বাগান। চাষিরা কমলা চাষে পেয়েছেন ব্যাপক সাফল্য। কমলা চাষে চাষিদের মুখে হাসি ফুটেছে। চাষিদের গাছে গাছে এখন কাঁচা-পাকা বা আধাপাকা কমলা শোভা পাচ্ছে। কেউ কেউ কমলা উত্তোলন করে বিক্রিও করেছেন। স্বল্প পরিশ্রমে ভাল ফলন ও ভাল মূল্য পাওয়ায় চাষিদের ভাগ্য বদলেছে। বোদাসহ পঞ্চগড়ের মাটি ও জলবায়ু কমলা চাষের জন্য অত্যন্ত উপযোগী। এখানকার কমলা স্বাদে ও গন্ধে ভারতের কমলার বা বাজারের অন্যান্য কমলার চেয়ে কোন অংশে কম নয়। অন্যান্য ফসলের পাশাপাশি কৃষকেরা এখন কমলা চাষে এগিয়ে এসেছেন। স্বল্প খরচ ও পরিশ্রমে অধিক মুনাফা হওয়ায় কমলা চাষের পরিধি দিন দিন বেড়েই চলেছে। চাষীরা প্রতিবছর লক্ষ লক্ষ টাকার কমলা বিক্রি করে আসছেন। গড়ে উঠেছে ছোট বড় ও মাঝারি ধরনের প্রায় শতাধিক বাগান। কেউ বা বাড়ির আঙিনার খোলা জায়গায় কমলার বাগান করেছেন। এ সব বাগানে কমলা গাছের সংখ্যা প্রায় ৪০ হাজার ৭শটি। প্রতিটি গাছে ২শ থেকে আড়াইশ কমলা ধরেছে। চলতি মৌসুমে পঞ্চগড় জেলায় ৬ কোটি ৮৮ লক্ষ ৬০ হাজারটি কমলা উৎপাদনের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে এবং ১৯৫ মেট্রিক টন কমলা উৎপাদন হয়েছে। এরই মধ্যে ৬ হাজার ৮শ জন কৃষককে কমলা চাষের আওতায় আনা হয়েছে। পঞ্চগড়ের কমলা অত্যন্ত সুস্বাদু ও রসালো। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার কমলার ফলনও ভালো হয়েছে। ফরমালিনমুক্ত হওয়ায় বাজারে অন্যান্য কমলার চাইতে এ কমলার চাহিদা বেশি। বর্তমানে পঞ্চগড়ের কমলা স্থানীয় বাজারের চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে রফতানি হচ্ছে। কমলার ভালো মূল্য পেয়ে লাভবান হচ্ছেন চাষীরা। কিন্তু কমলা উন্নয়ন প্রকল্প ২০১১ সালে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চাষীরা আগের মতো কৃষি অফিসের সুযোগ-সুবিধা ও পরামর্শ পাচ্ছেন না। সঠিক পরামর্শ না পাওয়ায় চাষীরা কমলা চাষে কিছুটা বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছেন। প্রকল্প শেষ হওয়ায় কেউ চাষীদের লাগানো কমলা গাছ দেখতে যাচ্ছেন না। খোঁজখবর না নেয়ায় অনেকেই ঠিকমতো গাছের যত্ন নিচ্ছেন না। গাছে বিভিন্ন ধরণের পোকা আক্রমন করছে। এর সঠিক পরামর্শ পাচ্ছেনা কৃষকরা। কমলা যাতে টক না হয় এর জন্য সিলভাম্যাক্স নামক ট্যাবলেট কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে দেয়া হতো। প্রকল্প শেষ হওয়ায় চাষীরা এখন কোন ট্যাবলেটও পাচ্ছেন না। প্রথম দিকে উপজেলার কয়েকজন কমলা চাষী শখের বশে বাড়ির আঙিনায় কমলার চারা রোপন করেন। কয়েক বছরের মধ্যেই বাগানে ফল আসায় তারা বৃহৎ আকারে কমলা চাষের উদ্যোগ নেন। চাষীদের আগ্রহ দেখে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ২০০৬ সালে ৫ বছর মেয়াদি কমলা উন্নয়ন প্রকল্প হাতে নেয়। প্রাথমিকভাবে চাষীদের উদ্বুদ্ধ করে ট্রেনিং দিয়ে বিনামূল্যে কমলার চারা বিতরণ করা হয়। তার পর থেকেই কমলা চাষে এগিয়ে আসেন চাষীদের বিরাট অংশ। বর্তমানে কমলা চাষে সফল কৃষকদের দেখাদেখি ক্ষুদ্র চাষীরাও কমলা চাষে এগিয়ে আসছেন। উপজেলার সর্দারপাড়া গ্রামের কমলা চাষী অচিন্ত্য কুমার কারকুন জানান, তিনি প্রায় ১ বিঘা জমিতে কমলার বাগান করেছেন। গত ৩ বছর থেকে এসব বাগান থেকে ফল উত্তোলন করছেন। গত বছর প্রায় ৫০ হাজার টাকার কমলা বিক্রি করেছেন। এবার তার দ্বিগুণ টাকায় কমলা বিক্রি করবেন বলে আশা করছেন। তার মতই আরেক কমলা চাষী আজিম উদ্দীন বাচ্চু জানান, তার বাড়ি উপজেলার বানিয়াপাড়া গ্রামে। তিনি ব্যবসা করেন। পাশাপাশি বাড়ির পাশের জমিতে কমলা বাগান গড়ে তুলেছেন। তার বাগানে ১০০টি কমলা গাছ রয়েছে। তিনি বলেন, কমলা একটি লাভজনক ফসল। ৫-৬ বছর ধরে এসব বাগানের কমলা বিক্রি করে আসছি। প্রতিবছর এক থেকে দুই লক্ষ টাকার কমলা বিক্রি করে আসছি। আমাদের কমলা সাইজে বড় ও অত্যন্ত রসালো। এ সব কমলা বাজারে নিয়ে যেতে হয় না। বাড়ি থেকেই পাইকাররা কমলা কিনে নিয়ে যায়। ফল ব্যবসায়ী বাচ্চু জানান, পঞ্চগড়ের কমলা অত্যন্ত ভাল মানের। ফরমালিনমুক্ত কমলা হওয়ায় বাজারে এসব কমলার চাহিদা বেশি। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক সহির উদ্দিন আহমদ জানান, পঞ্চগড় জেলার মাটি ও আবহাওয়া কমলা চাষের জন্য অত্যন্ত উপযোগী। বর্তমানে জেলায় ছোট বড় প্রায় শতাধিক কমলার বাগান গড়ে উঠেছে। বাণিজ্যিকভাবে কমলার চাষাবাদ হচ্ছে। চাষীরাও মুনাফা পাচ্ছেন। চাষীদের কথা বিবেচনা করে আবার সাইট্রিস ডেভলপমেন্ট প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। আশা করা যায় চাষীরা এতে উপকৃত হবে এবং কমলার চাষ আরও বৃদ্ধি পাবে। উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ এনামুল হক জানান, কমলা চাষ লাভজনক, উপজেলার অনেক কৃষক কৃষি অফিসে কমলা চারা নিতে আসেন। আমরা কৃষকদের কমলা চাষে উদ্বুদ্ধ করছি। সরকারি সুযোগ সুবিধা আরো সম্প্রসারিত হলে কয়েক বছরের মধ্যেই দেশের প্রথম কমলা অঞ্চল হিসেবে পরিচিত হবে বোদাসহ পঞ্চগড় জেলা।
খালি হাতেই ফিরেছে নারী ফুটবল দল
গত ১৯ নভেম্বর পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত সাফ নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিতে ঘাতক নেপালের কাছে পরাজিত হয়ে সাফ শিরোপার স্বপ্নের সলির সমাধি হয়েছে বাংলাদেশে নারী ফুটবল দলের। গতকাল পাকিস্তান থেকে দুপুর ১২টায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পেঁৗছে দলটি। ২০১৪ নারী সাফ মিশনে দলটির অর্জন দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিতে খেলা। সত্যি বলতে সাফে ভাগ্য দেবী কখনই সহায় হয়নি বাংলাদেশে নারী ফুটবল দলের। গত তিন সাফে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ দৌড় সেমি-ফাইনাল। কিন্তু কেন জানি মনে আরেকটু হলেই তো স্বপ্নের ফাইনালে খেলতে পারতো মেয়েরা। কিন্তু ঘুরে ফিরে সেই পুরোনো ঘাতকে হাতেই প্রাণ গিয়েছে বাংলাদেশের। ২০১০ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত প্রথম সাফে নিজেদের মাটিতে সাফ শিরোপ স্বপ্ন দেখেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু সেমিতে বাংলাদেশকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দেয় নেপাল। তারপরে দ্বিতীয় সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের গ্রুপ পর্বেই বাংলাদেশের বিদায় ঘন্টা বাজিয়ে দেয় ভারত আর শ্রীলঙ্কা। তৃতীয় সাফে চ্যাম্পিয়নশিপের এ গ্রুপে রানার্সআপ হয়েই সেমিতে নাম লেখায় সুকিতাতো নোরিওর শিষ্যরা। গ্রুপ পর্বের ম্যাচে তারা আফগানিস্তান ও মালদ্বীপকে পরাজিত করে সেমির পথে পা বাড়ায়। গ্রুপ পর্ব একটি ম্যাচে ভারতের কাছে পরাজিত হয়েছিল বাংলাদেশ। এবারও নারী সাফের দ্বিতীয় সেমিতে তারা মুখোমুখি হয় সেই পুরানো ঘাতক নেপালের! ভালো করার প্রত্যয় ছিল মেয়েদের। তবে জাপানি কোচ সুকিতাতো নোরিওকেও বেশী সময় পায়নি দলটি, মাত্র ১ মাস তার অধীনে নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছিল দলটি। তবে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ নারী বাছাইপর্বে মেয়েরা শক্তিশালী জর্ডান আর সংযুক্ত আমিরাতকে পরাজিত করে চমকে দিয়েছিল সবাইকে। সেই দলেরই ৬ সদস্য ঠাঁই পেয়েছিল জাতীয় দলে। তাই আরো একটি জয়ের স্বপ্নে বিভোর ছিল সবাই। ম্যাচে প্রথমার্থ জুড়ে ভালো খেলেও দ্বিতীয়ার্ধে কাল হয়ে আসে পেনাল্টি। নির্ধারিত সময়ে গোল পরিশোধে ব্যর্থ হয় মেয়েরা। ফলে ১-০ গোলে পরাজিত হয়েই মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ। সেই সাথে একটি স্বপ্নের সলিল সমাধি রচিত হয়ে যায়। আরো একবার খালি হাতেই সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে বিদায় নেয় বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল।
তারেক রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বগুড়ার ২১টি ওয়ার্ডে কেক কেটেছে বিএনপি
তারেক রহমানের ৫০তম জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে বগুড়া শহর বিএনপি\'র ২১টি ওয়ার্ডে গতকাল শনিবার কেক কর্তন করা হয়। শহর বিএনপি\'র ২০টি ওয়ার্ড শাখার মধ্যে ১৬টি ওয়ার্ড কমিটি আয়োজিত কেক কর্তন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি\'র জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য বগুড়া জেলা বিএনপি\'র সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপি\'র সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন, উপদেষ্টা মোঃ শোক রানা, বগুড়া শহর বিএনপি\'র সাধারণ সম্পাদক হামিদুল হক চৌধুরী হিরু। অতিথি ছিলেন মতিউর রহমান মতি, এড. সাইফুল ইসলাম, এড. রাফি পান্না, শেখ তাহা উদ্দিন নাহিন, পৌরসভার প্যানেল মেয়র পরিমল চন্দ্র দাস, স্বেচ্ছাসেবক দল সভাপতি শাহ মোঃ মেহেদি হাসান হিমু, ইখতিয়ার উদ্দিন রানা, মাহবুব হাসান লেমন, আসিফ আশরাফ, মোঃ খোকন। এছাড়াও শহর বিএনপি\'র ১৩ ও ২১ নং ওয়ার্ডে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপি\'র সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন, শহর বিএনপি\'র ৪ ও ৫ নং ওয়ার্ডের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শহর বিএনপি\'র সাধারণ সম্পাদক হামিদুল হক চৌধুরী হিরু। সংশ্লিষ্ট অনুষ্ঠান সমূহের সভাপতিত্ব করেন যথাক্রমে ওয়ার্ড সভাপতি মশিউর রহমান শামীম, জহুরুল ইসলাম (ডালু), হাফিজার রহমান, আরিফুর রহমান পিন্টু, বেলাল হোসেন নান্নু, আকতারুজ্জামান নান্টু, মিজানুর রহমান মিজান, শামসুল হক রোমান, কাউন্সিলর মাহবুবর রহমান লুলকা, আঃ সোবাহান, জহুরুল ইসলাম, আব্দুল জব্বার টুকু, কাউন্সিলর আব্দুল মজিদ, আব্দুল মান্নান, আব্দুল গফুর, মামুনুর রহমান মামুন, রেজাউল হক, কাউন্সিলর রোস্তম আলী, আঃ কুদ্দুস চাঁন প্রমুখ । খবর বিজ্ঞপ্তির।
কয়লার অভাবে উত্তরাঞ্চলের ২ হাজার ইটভাটা বন্ধপ্রায়
কয়লা সংকটের কারণে উত্তরাঞ্চলে প্রায় দুই হাজার এবং বগুড়ার প্রায় দুইশ\' ইটভাটা এখন বন্ধ প্রায়। মৌসুম শুরু হলেও এখনও কোন ইট ভাটায় আগুন দেয়া সম্ভব হয়নি। ইট উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেলে দেশে নির্মাণ কাজ বন্ধ হওয়ার আশংকা দেখা দিতে পারে এমনটাই আশংকা ইটভাটা মালিকদের। বড় পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি কয়লা উত্তোলন বন্ধ রেখেছে এবং পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতও কয়লা রফতানি বন্ধ করে দেয়ায় কয়লার অভাবে উত্তারঞ্চলসহ দেশের ইটভাটা কয়লা সমস্যায় ভুগছে। বড় পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমিনুজ্জামান আমাদের পার্বতীপুর প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন, গত ৬/৭মাস থেকে বড় পুকুরিয়া কয়লা খনি থেকে কয়লা উত্তোলন বন্ধ রয়েছে। ভূগর্ভে পানি প্রবাহের সৃষ্টি হওয়ায় কয়লা উত্তোলন বন্ধ আছে। এখন যে সামান্য কিছু কয়লা উত্তোলন করা হচ্ছে তা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র সচল রাখার জন্য উত্তোলন করা হচ্ছে। তবে আগামী এক মাসের মধ্যে কয়লা উত্তোলন শুরু হবে এমনটাই আশাবাদ ব্যাক্ত করছেন কোল মাইনিং কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক। বগুড়া ইটভাটা মালিক সভাপতি আলহাজ্ব আবুল কালাম আজাদ জানিয়েছেন মৌসুম শুরু হয়েছে এক মাস আগে থেকে। কিন্তু একদিকে দেশের বড় পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানির কয়লা উত্তোলন বন্ধ রেখেছে এবং অন্য দিকে ভারত কয়লা রফতানি বন্ধ রেখেছে। সময়মত কয়লা না পাওয়া গেলে ইটভাটা মালিকদের লোকসান গুনতে হবে। কাঠ পুড়িয়ে ভাটা চালু করা সম্ভব হচ্ছে না। এতে ভাটা মালিকদের আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে হবে। তা ছাড়া পরিবেশও বিঘি্নত হবে। ভাটা মালিক আইনুল হক সোহেল জানান, কয়লার অভাবে ভাটা বন্ধ করতে হবে। তবে যে কাঁচা ইট প্রস্তুত করা হয়েছে তাতেও লোকসান গুনতে হবে। আলহাজ্ব আবুল কালাম আজাদ আরও জানান, গত বছর তারা ৮ হাজার টাকা টন দরে কয়লা কিনেছেন। এবার যাদের কাছে গত বছরের যে কয়লা আছে, তা তারা বিক্রি করছে ১২ হাজার টাকা টন দরে। বেশি লোকসান হওয়ার আগে কাঁচা ইট নষ্ট করে হলেও লোকসানের ভার কিছুটা কমাতে হবে। কয়লা সংকট অব্যাহত থাকলে এই মৌসুমে ইটের দাম চারগুন বৃদ্ধি পাওয়ার আশংকা করছেন ব্যবসায়ীরা।
দুঙ্গার সাথে লাঞ্চ করলেন মরিনহো
চেলসি ম্যানেজার হোসে মোরিনহোর সঙ্গে দেখা করলেন ব্রাজিল কোচ দুঙ্গা। চেলসির অনুশীলনেও অনেকক্ষণ সময় কাটালেন তিনি। শুধু দেখাই নয়, দীর্ঘক্ষণ ফুটবল নিয়ে তাদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে বলেও জানা গিয়েছে। পাশাপাশি দুই কিংবদন্তি একসঙ্গে লাঞ্চও করলেন। মরিনহোর দলে অস্কার, উইলিয়ান, ফিলিপ লুইস ও র্যা মিরেসের মতো ব্রাজিলের ফুটবলাররা রয়েছেন। তাই তাদের সঙ্গে সময় কাটিয়েছেন দুঙ্গা। সদ্য-সমাপ্ত বিশ্বকাপে ব্রাজিলের ভরাডুবি হয়েছে। তাই লুই ফিলিপ স্কলারিকে সরিয়ে দুঙ্গাকে কোচ করে এনেছে ব্রাজিল ম্যানেজমেন্ট। দুঙ্গার কোচিংয়ে ফের হলুদ জার্সিধারীরা ফুল ফোটাতে শুরু করেছে। দুঙ্গা চাইছেন যেভাবেই হোক ব্রাজিলের হারানো গৌরব উদ্ধার করতে।
রাজশাহী ও চট্টগ্রামে হচ্ছে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়
উন্নত চিকিৎসা সেবা দিতে দেশে আরো দুটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরইমধ্যে রাজশাহী ও চট্টগ্রামে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। গতকাল শনিবার বিকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) নবনির্মিত আউটডোর কমপ্লেক্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা মানুষকে ভালোভাবে উন্নত সেবা দিতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ইতিমধ্যে আমরা এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সাথে সাথে আরেকটা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে আরো দুটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করব। ইতিমধ্যে সে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সেনাবাহিনীর যে সব হাসপাতালে পাঁচশ শয্যা রয়েছে সেগুলোকে মেডিকেল কলেজ করার কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। আমি সেনাবাহিনীকে বলে দিয়েছি- যেখানে পাঁচশ বেডের হাসপাতাল আছে, সেখানে মেডিকেল কলেজ করতে পারে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশে বর্তমানে ২৩টি সরকারি মেডিকেল কলেজ আছে। আরো পাঁচটি মেডিকেল কলেজ চালুর প্রক্রিয়া চলছে। গত ছয় বছরে ৬টি ডেন্টাল কলেজ, পাঁচটি হেলথ টেকনোলজি ইনস্টিটিউট, সাতটি নার্সিং কলেজ ও ১২টি নার্সিং ট্রেনিং ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠার কথা উল্লেখ করেন তিনি। বিএসএমএমইউয়ের শহীদ ডা. মিলন হলে এই অনুষ্ঠানে রোগীদের সঙ্গে চিকিৎসকদের ভালো ব্যবহারের পরামর্শ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, রোগী অর্ধেক ভালো হয়ে যায় ভালো ব্যবহার করলে। আপনাদের (চিকিৎসক) ব্যবহারের ওপর রোগীরা ভরসা পায়। সেদিক চিন্তা করেই চিকিৎসা দেবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১০ সালের ডিসেম্বরে এই আউটডোর কমপ্লেক্সের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন। প্রায় চার বছরের মাথায় এসে তিনি এই কমপ্লেক্সের উদ্বোধন করেন। এই কমপ্লেক্স উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে রোগীরা আরো উন্নত চিকিৎসাসেবা পাবেন এবং চিকিৎসকরাও উন্নত পরিবেশে রোগীদের সেবা দিতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেন শেখ হাসিনা। চিকিৎসায় উৎকর্ষের প্রয়োজনে গবেষণার ওপর গুরুত্বারোপ করে ১৯৯৮ সালের ৩০ এপ্রিল তৎকালীন পিজি হাসপাতালকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটি স্বাধীন দেশে একটি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় থাকবে না- এটা কিভাবে হয়? সে সময় বিরোধী দলের সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতার কথা মনে করিয়ে দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল। গবেষণার ওপর আরো গুরুত্ব দিতে চিকিৎসকদের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আমি জানতে পেরেছি গবেষণাকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করার জন্য এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ইনস্টিটিউশনাল রিভিউ বোর্ড (আইআরবি) গঠন করা হয়েছে। আমি আশা করব চিকিৎসা গবেষণার ক্ষেত্রে আপনারা আরো মনযোগী হবেন। নার্সিং শিক্ষার ওপর গুরুত্ব দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, নার্সের যথেষ্ট ঘাটতি আছে। আরো নার্স নিয়োগ দিতে হবে। আগে নার্সিং ক্ষেত্রে কেউ ভর্তি হতে চাইত না। স্বাস্থ্য সেবায় নার্স প্রয়োজন। আমাদের এখানে রোগী ও চিকিৎসকের তুলনায় নার্সের সংখ্যা কম। ১৯৭২ সালে দেশজুড়ে থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রতিষ্ঠার যে উদ্যোগ বঙ্গবন্ধু গ্রহণ করেছিলেন তারই ধারাবাহিকতায় কমিউনিটি ক্লিনিক গড়ে তোলা হয় বলে শেখ হাসিনা জানান। শুধু রাজনৈতিক বিবেচনায় ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় এসে এই কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো বন্ধ করে দেয়। বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে এ পর্যন্ত আট হাজার ৮৫৭ জন সহকারী সার্জন এবং সহকারী ডেন্টাল সার্জন নিয়োগ দেওয়ার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অতীতে এতো নিয়োগ কেউ দেয়নি। ঢাকার কুর্মিটোলায় এবং খিলগাঁওয়ে পৃথক দুটি পাঁচশ শয্যার জেনারেল হাসপাতাল চালুর কথা উল্লেখ করে অনুষ্ঠানে উপস্থিত স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে উদ্দেশ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, রেলের একটি নিজস্ব হাসপাতাল রয়েছে। এটাকে শুধু রেলের জন্য না রেখে জেনারেল হাসপাতাল করে দিলে শাহজাহানপুরের লোকজন চিকিৎসা পাবে। অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালিক ও বিএসএমএমইউর উপাচার্য প্রাণ গোপাল দত্ত বক্তব্য রাখেন। আগামী বাজেটে স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ বৃদ্ধিতে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন জাহিদ মালিক।
বগুড়ার পৌনে তিন লাখ মানুষ আর্সেনিক ঝুঁকিতে
বগুড়ার ১২টি উপজেলার মধ্যে ৮টি উপজেলার ১৬১টি গ্রাম আর্সেনিক প্রবণ। এই সব উপজেলার প্রায় ২ লাখ ৭৬ হাজার মানুষ আর্সেনিক ঝুঁকি নিয়ে বসবাস বরছে। তবে আর্সেনিক প্রবণ উপজেলাগুলোতে কি পরিমাণ মানুষ আক্রান্ত হয়েছে এমন তথ্য জেলার স্বাস্থ্য বিভাগে নেই। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর সূত্র জানিয়েছে আর্সেনিক থেকে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে কয়েকজনের মৃত্যু এবং অঙ্গহানির তথ্য তাদের কাছে আছে। জেলার শেরপুর উপজেলার ৮টি, ধুনটের ৩২টি, গাবতলীর ৩৭টি, সারিয়াকান্দির ২১টি, শাজাহানপুর উপলোর ৫টি, সদর উপজেলার ৬টি, শিবগঞ্জ উপজেলার ৫১টি এবং সোনাতলার ১টি গ্রাম নলকূপে আর্সেনিকের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ারুজ্জামান জানান, পানিতে ০.০৫ মিলি গ্রাম /লিটার বা ৫০ পিপিবি( পার্টস পার বিলিয়ন) আর্সেনিক মানব দেহের জন্য সহনীয়। কিন্তু বগুড়ার যে ৮ টি গ্রামের অগভীর নলকূপে আর্সেনিকের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে তাতে ১০০ থেকে ৫০০ পিপিবি আর্সেনিকের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। তাই এসব এলাকার মানুষ চরম আর্সেনিক হুমকির মধ্যে। জনস্বাস্থ্য প্রকৗশলী জানান, এক সাথে ৪২ মিলিগ্রাম আর্সেনিক যদি মানব দেহে প্রবেশ করানো হয়, তবে সে মারা যাবে। আর্সেনিকের আক্রান্ত মানুষ মেনাসিস, রোটোসিস, লিউকোমেনানোসিস, বোয়েন্স রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। আর্সেনিক প্রবণ উপজেলাগুলোতে নলকূপগুলোর প্রায় ১৫০ফুট পর্যন্ত মাটির গভীরে আর্সেনিকের ঝুঁকি রয়েছে। কিন্তু ১৫০ ফুট পানির স্তরের নিচে যেতে হলে কঠিন শিলা ভেদ করতে হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে শিলার স্তর কেটে নীচে নামতে হলে ২৫০ ফুট পানির স্তরের নিচে গিয়ে আর্সেনিকমুক্ত পানি পাওয়া যাচ্ছে। বগুড়া জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর কুষ্টিয়া থেকে মিস্ত্রী এনে ১৫০ ফুট গভীরে প্রায় ৩০ ফুট শিলা কেটে ২০০ থেকে ২৫০ ফুট পাইপ বসিয়ে আর্সেনিক মুক্ত পানি উত্তোলন করছে। বিশেষ গ্রামীণ পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় এই সব নলকূপ বসানো হচ্ছে। জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, আর্সেনিকে মানুষ একদিনে আক্রান্ত হয়না। এর ভয়াবহতা পরে পরিলক্ষিত হয়। তিনি জানান, ৫ বছর আগে আর্সেনিকে আক্রান্ত হয়ে গাবতলীর রামেশ্বরপুরের একই পরিবারের ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। বগুড়ার শাজাহানপুরের আব্দুর রশিদ আর্সেনিকে আক্রান্ত হওয়ার পর তার হাতের আঙ্গুল কেটে ফেলতে হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছে আরও অনেক মানুষ। আর্সেনিকে আক্রান্ত ব্যক্তিদের তেমন কোন চিকিৎসার ব্যবস্থা নেই। জেলা সিভিল সার্জন আফজাল হোসেন জানান, আক্রান্ত ব্যক্তিদের পর্যাপ্ত পানি খেতে হবে। ভিটামিন খেতে হবে।
দরিদ্রতার অজুহাতে বাল্যবিয়ে কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয় স্পিকার
জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, দারিদ্র্য বা অন্য কোন অজুহাতে বাল্যবিয়ে কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। বাল্যবিয়ে ও মাতৃমৃত্যু প্রতিরোধযোগ্য এবং তা দেশ থেকে দূর করতে হবে। এ কাজে সফলতা আসলে বাংলাদেশকে একটি রোল মডেল হিসেবে বিশ্বের দরবারে পরিচিত করা সম্ভব হবে। ২০১৫ সালের মধ্যে মাতৃমৃত্যু রোধ পুরোপুরি দূর করতে পারলেই সম্পূর্ণ সফলতা আসবে। গতকাল শনিবার বিকেলে সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার হাজী কোরপ আলী মেমোরিয়াল ডিগ্রি কলেজ মাঠে \'বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করে মাতৃমৃত্যু রোধ করুন\' শীর্ষক এক জন সচেতনতা সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্পিকার এসব কথা বলেন। সংসদ সদস্য ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্নার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন রেবেকা এমপি মমিন, জাহিদ হাসান রাসেল এমপি, আব্দুল মজিদ মন্ডল এমপি, তানভীর ইমাম জয় এমপি, সেলিনা বেগম স্বপ্না এমপি, নেদারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত জারবান জং, জাতীয় সংসদ সচিবালয় ও ইউনাইটেড নেশন তহবিলের সমন্বয়ক আজেন্টিনা ম্যাটাভেল পিশ্চিন, সংসদের সিনিয়র সচিব আশরাফুল মকবুল, জেলা প্রশাসক বিল্লাল হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, কামারখন্দ উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন চৌধুরী প্রমুখ। সমাবেশের পূর্বে ঢাকা থেকে আগত সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে।
 
 
 
পরীক্ষার্থী প্রায় ৩১ লাখ
আজ প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা শুরু
শফিউল হত্যার তদন্ত সর্বোচ্চ গুরুত্ব পাচ্ছে : আইজিপি
রাজশাহী প্রতিনিধি :
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক এ কে এম শফিউল ইসলাম হত্যাকা ের তদন্ত সর্বোচ্চ গুরুত্বসহ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক হাসান মাহমুদ খন্দকার। গতকাল শনিবার রাজশাহীর সারদায় বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে ৩৪তম বহিরাগত ক্যাডেট সাব ইন্সপেক্টর ব্যাচের সমাপনী কুচকাওয়াজ শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি... বিস্তারিত
 
শাবিতে ছাত্রলীগের সংঘর্ষে আরও দুটি মামলা : আটক ৪
সিলেট প্রতিনিধি :
সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় আরো দুটি মামলা হয়েছে। জালালাবাদ থানার ওসি আক্তার হোসেন জানান, শনিবার বিকেলে ওই সংঘর্ষে নিহত সুমনের মা প্রতিভা দাস বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাংচুর ও প্রক্টর আহত হওয়ার ঘটনায় রেজিস্ট্রার ইশফাকুল ইসলাম... বিস্তারিত
 
মাশরাফিদের সামনে দ্বিতীয় জয়ের লক্ষ্য
স্পোর্টস রিপোর্টার :
পয়মন্ত ভেন্যুতেই বছর শেষে এসে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে জয় পেলো বাংলাদেশ। শুক্রবার পাওয়া এ জয়ের আগেও এই মাঠে টানা তিন ম্যাচেই জিম্বাবুয়েকে হারানোর অভিজ্ঞতা তো আছেই টাইগারদের। আজ একই ভেন্যুতে সফরকারী জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় দিবা-রাত্রির ম্যাচেও জয়ের লক্ষ্য মাশরাফিবাহিনীর। আজ চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ... বিস্তারিত
 
৪০ স্বর্ণ চোরাকারবারিকে ধরতে শিগগিরই বড় ধরনের অভিযান
বিমানবন্দর ও সীমান্তে সতর্কতা নজরদারিতে ১০ মানি এক্সচেঞ্জ
রুদ্র রাসেল :
স্বর্ণ চোরাকারবারিদের একটি নতুন তালিকা প্রস্তুত করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। নিজস্ব সোর্স ও গ্রেফতারবকৃত সেই ৫ জনকে জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে এই তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে বলে ডিবি পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে। এতে অন্তত ৪০ জনের নাম রয়েছে। এর মধ্যে ১৫ জনকে 'মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ' বলে চিহ্নিত... বিস্তারিত
 
 
ভিডিও
রাশিচক্র আজ ঢাকায় আজ বগুড়ায়
 
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের চরমপন্থিরা আত্মসমর্পণের আহ্বানে সাড়া দেবে বলে মনে করেন কি?
হ্যাঁ
উত্তর নেই
না
 
 
 
আজকের ভিউ
নামাজের সময়সূচী
ওয়াক্ত
সময়
ফজর
03:50
জোহর
12:7
আছর
04:42
মাগরিব
06:54
এশা
08:20
 
 

সম্পাদকঃ মোজাম্মেল হক, সম্পাদক কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, শিল্পনগরী বিসিক বগুড়া এবং ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড, (আরামবাগ) ইডেন কমপ্লেক্স, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও চকযাদু রোড, বগুড়া হতে প্রকাশিত।
ফোন ৬৩৬৬০,৬৫০৮০, সার্কুলেশন বিভাগঃ ০১৭১৩২২৮৪৬৬, বিজ্ঞাপন বিভাগঃ ৬৩৩৯০, ফ্যাক্সঃ ৬০৪২২। ঢাকা অফিসঃ স্বজন টাওয়ার, ৪ সেগুন বাগিচা। ফোনঃ ৭১৬১৪০৬, ৯৫৬০৬৬৯, ৯৫৬৮৮৪৬, ফ্যাক্সঃ ৯৫৬৮৫২২ E-mail : dkaratoa@yahoo.com . . . .

Powered By: